The Daily Ittefaq
ঢাকা, বুধবার, ০৮ জানুয়ারি ২০১৪, ২৫ পৌষ ১৪২০, ০৬ রবিউল আওয়াল ১৪৩৫
সর্বশেষ সংবাদ অবরোধ চলবে: মির্জা ফখরুল | নবনির্বাচিত সংসদ সদস্যদের শপথ কাল | পানছড়িতে গুলিতে আওয়ামী লীগ নেতা নিহত

অর্থনৈতিক ক্ষতি ও সন্ত্রাসের রাজনীতি

ন তু ন প্র জ ন্মে র ভা ব না

সন্ত্রাসের রাজনীতি

ক্ষতি করছে আমাদের অর্থনীতি

অর্থনীতির যে ব্যাপক ক্ষতিসাধিত হয়েছে তা থেকে আমাদের বেড়িয়ে আসতে অনেক সময় লাগবে আর এই ক্ষতি প্রভাবিত করেছে আমাদের অর্থনৈতিক প্রতিটি খাতগুলোকে, ইতিমধ্যে আমাদের প্রধান খাতগুলো ক্ষতিগ্রস্তের সম্মুখীন। রপ্তানিমুখি শিল্প অথবা অভ্যন্তরীণ বাণিজ্য দুটোই আজ ক্ষতিগ্রস্ত। কোন দেশের প্রবৃদ্ধি নির্ভর করে সেই দেশের রাজনৈতিক পরিবেশের উপর। প্রতিটি দেশের অর্থনীতিতে খুব প্রভাবিত করে রপ্তানিমুখি শিল্প ও অভ্যন্তরীণ বাণিজ্য এই খাত দুটো। রাজনৈতিক অস্থিরতার মধ্যে বিনিয়োগ সমৃদ্ধ অথবা বিনিয়োগকারী উদ্যোগে ব্যাহত হচ্ছে। আমাদের মত উন্নয়নশীল দেশগুলোর রাজনৈতিক পরিবেশ শান্তিপূর্ণ রাখা একান্ত কাম্য আর এর পক্ষে কাজ করা উচিত আমাদের দেশের সরকার অথবা বিরোধীদলের রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গের।

রফিকুল ইসলাম রাসেল

বিএসএস (স্নাতক),

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা।

দেশের অর্থনীতিতে

সহিংস রাজনীতির

প্রভাব

এবারের আন্দোলন-সংগ্রাম অতীতের যে কোন সংঘাত ও নৃশংসতাকে অতিক্রম করেছে। এর কারণ ২০০৯ সালে বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করে, ১৯৭১ এর মহান মুক্তিযুদ্ধে যারা মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধ করেছে, তাদের বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড় করানো এবং বিচারের মাধ্যমে রায় কার্যকর করা, সেই সাথে যোগ হয়েছে সংবিধানের পঞ্চদশ সংশোধনী। এবারের সহিংস আন্দোলনে রেলগাড়ি, যাত্রীসহ বাস, সিএনজি আগুনে পুড়ে ফেলা, রেল লাইনের ফিসপ্লেট তুলে ফেলা, রাস্তাঘাট বিনষ্ট করা, রাস্তার গাছ কেটে পরিবেশ ধবংস করা, পোশাক তৈরির কারখানায় আগুন দেয়া, পুলিশ বাহিনীর উপর হামলাসহ বোমা মেরে সাধারণ পথচারিকে হত্যা করা, যা সন্ত্রাসী কার্যক্রমে রূপ নিয়েছে। এসমস্ত সন্ত্রাসী কার্যক্রম থেকে রক্ষা পায়নি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জন্য তৈরি পাঠ্যপুস্তক এবং ভোট কেন্দ্র হিসাবে ব্যবহূত বিদ্যালয়গুলোও। সহিংস এই রাজনীতির জন্য জনজীবন আজ বিপর্যস্ত, অর্থনীতি স্থবির। কি পরিমাণ ক্ষতি হয়েছে তা পরিমাপ করা কঠিন। এ অবস্থা আর বেশি দিন চলতে থাকলে, দেশের অর্থনীতি ধ্বংস হয়ে যাবে। এ অবস্থা থেকে মুক্তির জন্য রাজনৈতিক দলগুলোকে সন্ত্রাসী কার্যক্রম পরিহার করতে হবে। রাষ্ট্রকেও কৌশলগত উপায়ে দেশের অর্থনীতিকে রক্ষা করতে হবে।

মো. আব্দুল মালেক

এল, এল, বি,

বাড্ডা ল' কলেজ, ঢাকা

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়।

সন্ত্রাসের রাজনীতি স্বাধীন

দেশের জন্য অনাকাঙ্ক্ষিত?

এখনও সুযোগ আছে বর্তমানে সন্ত্রাসের রাজনীতি পরিহার করে অবরোধ, হরতাল পরিহার করে দেশের মানুষকে ভালোবাসার প্রমাণ দেয়ার। ৭১' এর পূর্বে এগুলোর প্রয়োজন খুব বেশি ছিল। কারণ পাকিস্তানীদের হাত থেকে এই দেশকে আলগা করার জন্য হরতাল, অবরোধ ইত্যাদি খুবই প্রয়োজনীয় একটি আন্দোলন। কিন্তু এখন যেহেতু আমরা একটি স্বাধীন রাষ্ট্র এবং আমাদের সার্বভৌমত্বও সুরক্ষিত তাই এখন এগুলোর প্রয়োজন নাই। এখন এই সমস্ত আন্দোলন দিয়ে দেশের শান্তি বিনষ্ট করা আর বহিশত্রুদের হাত শক্তিশালী করার একটি প্রধান অস্ত্র। যেখানে আমরা একটি টেবিলে বসে আলোচনা করে সমস্যার সমাধান করতে পারি সেখানে এগুলো কেন? সমালোচনা করার কোন শক্তিশালী বিরোধী জোট না থাকলে দেশের অর্থনীতির চাকা নষ্ট হওয়ার আশংকা থেকে যাবে। তাই সন্ত্রাসের রাজনীতি পরিহার করতে হবে। দেশের মানুষের জান-মালের অনেক ক্ষতি হয়ে গেছে। এই ক্ষতি পুষিয়ে নিতে আমাদের অনেক সময় লাগবে। এখন বিএনপির বড় ভূমিকা হবে সরকারকে সহযোগিতা করে পরবর্তী নির্বাচনের প্রস্তুতি নেয়া।

মোহাম্মদ এহিয়া

মিরপুর ল কলেজ, মিরপুর, ঢাকা।

রাজনৈতিক কর্মীরা দেশপ্রেমিক

হলে আমাদের অর্থনীতি

মুক্তি পাবে

অবস্থাদৃষ্টে মনে হচ্ছে আজকাল যারা আন্দোলনের ডাক দেয় আর যারা এসব আন্দোলনের কর্মকাণ্ড পরিচালনা করে তাদের মধ্যে আর কিছু থাকুক আর না থাকুক তাদের মধ্যে দেশপ্রেমের ছিটে ফোটাও নেই। যদি তাদের মধ্যে সামান্যতম দেশপ্রেম থাকত তাহলে তারা এমন ধ্বংসযজ্ঞ চালাতে সামান্যতম কুণ্ঠাবোধ করত। একটি গাড়ি, ক্ষুদ্র বা বৃহত্ প্রতিষ্ঠান পুড়িয়ে দিতে পারত না। এসব কর্মকাণ্ড চালানোর আগে অন্তত একবার ভাবত এটা আমার দেশ আমার সম্পদ। এটা কোন ব্যক্তির সম্পদ ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে না ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে দেশের সম্পদ। কোন ব্যক্তি বা রাষ্ট্রের সম্পদ পুড়ছে না পুড়ছে আমাদের বিবেক। আমাদের দেশপ্রেমের চর্চা করতে হবে। নিজেদের মধ্যে যদি দেশপ্রেম থাকে তাহলে এত ধ্বংসাত্মক কর্মকাণ্ড থেকে আমরা রেহাই পাব, রেহাই পাবে দেশের সম্পদ, মুক্তি পাবে অর্থনীতি।

ম. শহিদুল্লাহ

বিবিএস (৪র্থ বর্ষ) ব্যবস্থাপনা বিভাগ,

সরকারি সোহরাওয়ার্দী কলেজ, পিরোজপুর।

font
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
ড.আবুল বারাকাত বলেছেন, 'এই নির্বাচন সাংবিধানিক সঙ্কট তৈরি ছাড়াই রাজনৈতিক ইস্যুতে মতৈক্য সৃষ্টির পথ তৈরি করবে।' আপনিও কি তাই মনে করেন?
2 + 5 =  
ফলাফল
আজকের নামাজের সময়সূচী
নভেম্বর - ১৭
ফজর৫:১৩
যোহর১১:৫৫
আসর৩:৩৯
মাগরিব৫:১৮
এশা৬:৩৬
সূর্যোদয় - ৬:৩৪সূর্যাস্ত - ০৫:১৩
archive
বছর : মাস :
The Daily Ittefaq
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: তাসমিমা হোসেন। উপদেষ্টা সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন। ইত্তেফাক গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে তারিন হোসেন কর্তৃক ৪০, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ থেকে প্রকাশিত ও মুহিবুল আহসান কর্তৃক নিউ নেশন প্রিন্টিং প্রেস, কাজলারপাড়, ডেমরা রোড, ঢাকা-১২৩২ থেকে মুদ্রিত। কাওরান বাজার ফোন: পিএবিএক্স: ৭১২২৬৬০, ৮১৮৯৯৬০, বার্ত ফ্যাক্স: ৮১৮৯০১৭-৮, মফস্বল ফ্যাক্স : ৮১৮৯৩৮৪, বিজ্ঞাপন-ফোন: ৮১৮৯৯৭১, ৭১২২৬৬৪ ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭২, e-mail: ittefaq.adsection@yahoo.com, সার্কুলেশন ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭৩। www.ittefaq.com.bd, e-mail: ittefaqpressrelease@gmail.com
Copyright The Daily Ittefaq © 2014 Developed By :