The Daily Ittefaq
ঢাকা, সোমববার, ১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৪, ২৮ মাঘ ১৪২০, ০৯ রবিউস সানী ১৪৩৫
সর্বশেষ সংবাদ তাজরীন মালিক কারাগারে, স্ত্রীর জামিন | মেসির জোড়া গোলে শীর্ষে বার্সেলোনা | হেফাজত নেতা ইজহারসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন | মঞ্জুর হত্যা মামলা : রায়ের তারিখ প্রত্যাহার, ফের শুনানি

ভা ষা ক ন্যা

রওশন আরা বাচ্চু

মহিলা অঙ্গন প্রতিবেদক

১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনে রওশন আরা বাচ্চু সক্রিয় ভূমিকা পালন করেন। তখন তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দর্শন বিভাগের ছাত্রী ছিলেন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীদের সংগঠিত করা ছাড়াও অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও হলের ছাত্রীদের ভাষা আন্দোলনের পক্ষে সুসংগঠিত করেন। একুশে ফেব্রুয়ারি ১৪৪ ধারা ভঙ্গকারী প্রথম ছাত্রীদলের অন্যতম সদস্য ছিলেন রওশন আরা বাচ্চু। ভাষাসৈনিক রওশন আরা বাচ্চু ১৯৩২ সালের ১৭ ডিসেম্বর সিলেটের কুলাউড়ার উছলাপাড়ায় জন্মগ্রহণ করেন। বাবা এএম আরেফ আলী, মা মনিরুন্নেসা খাতুন। ১৯৪৭ সালে রওশন আরা বাচ্চু শিলং লেডী কীন স্কুল থেকে ম্যাট্রিক, ১৯৪৯ সালে বরিশাল বিএম কলেজ থেকে ইন্টারমিডিয়েট, ১৯৫৩ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে দর্শনে অনার্স পাস করেন। ১৯৬৫ সালে বিএড এবং ১৯৭৪ সালে ইতিহাসে এমএ পাস করেন। রওশন আরা বাচ্চু 'গণতান্ত্রিক প্রোগ্রেসিভ ফ্রন্ট' এ যোগ দিয়ে ছাত্র রাজনীতি শুরু করেন। তিনি সলিমুল্লাহ মুসলিম হল এবং উইম্যান স্টুডেন্টস্ রেসিডেন্স এর সদস্য নির্বাচিত হন।

সর্বদলীয় রাষ্ট্রভাষা সংগ্রাম পরিষদের আহ্বানে ২০ ফেব্রুয়ারি হরতাল আহ্বান করা হলে সরকার বিব্রতকর অবস্থায় পড়ে এবং পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য সেদিন ১৪৪ ধারা জারি করে। এ সময় যেসব ছাত্রছাত্রী ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করাই আন্দোলনের জন্য প্রয়োজন বলে মনে করেন রওশন আরা বাচ্চু তাদের মধ্যে একজন। ২১ ফেব্রুয়ারির দিন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আমতলায় আহূত ছাত্রজনতার সমাবেশে ছাত্রীদের সংগঠিত করে নিয়ে আসার ক্ষেত্রে যারা কাজ করেছেন রওশন আরা বাচ্চু ছিলেন তাদের মধ্যে অন্যতম। তিনি ইডেন কলেজ ও বাংলাবাজার বালিকা বিদ্যালয় থেকে ছাত্রীদের সংগঠিত করে আমতলার সমাবেশস্থলে নিয়ে আসেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবেশস্থলটির বাইরে পুলিশ লাঠি দিয়ে ব্যারিকেড দিয়েছিল। অনেকে লাঠির উপর দিয়ে লাফিয়ে এবং নিচ দিয়ে বের হয়ে গেলেও রওশন আরা বাচ্চু তা করেননি। তিনি আরও কয়েকজন ছাত্রীকে সাথে নিয়ে পুলিশের লাঠির ব্যারিকেডটি ভেঙ্গে ফেলেন এবং দলের অন্যদের সাথে নিয়ে বেরিয়ে আসেন। এদিকে পুলিশ ব্যারিকেড ভাঙ্গার দৃশ্য দেখা মাত্রই এলোপাথাড়ি লাঠিচার্জ শুরু করে দেয়। লাঠির আঘাতে তিনি আহত হন। সেদিন বিকালে পূর্ববঙ্গ ব্যবস্থা পরিষদে পরিষদ সদস্য আনোয়ারা খাতুন বক্তব্য রাখতে গিয়ে যে দু'জন আহত ছাত্রীর পরিচয় তুলে ধরেন তাদের মধ্যে একজন ছিলেন বেগম রওশন আরা বাচ্চু। এদিকে বর্তমান কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের পার্শ্ববর্তী এলাকায় পুলিশের মুহুমুহু গুলির শব্দে প্রকম্পিত হয়ে ওঠে। উপায়ান্তর না দেখে রওশন আরা বাচ্চু পার্শ্বে স্তূপকৃত ভাঙ্গা রিকশার নিচে গিয়ে আশ্রয় নেন। তিনি এখানেও নিরাপদ মনে করলেন না। পরে একজন হলের প্রভোস্ট ড. গনির পার্শ্ববর্তী বাড়িটিতে আশ্রয় নেয়ার মনস্থ করে রওয়ানা হন। সে বাড়িটির কাঁটাতারের বেড়া পার হতে গিয়ে কাঁটাতারে শাড়ির আঁচল আটকে যায় তার। এসময় কেউ তাকে সাহায্যে এগিয়ে আসলে তিনি কাঁটা তারের বেড়া পার হয়ে ড. গনির বাসায় আশ্রয় নিতে সক্ষম হন।

১৯৫২ সালের ফেব্রুয়ারি ও মার্চ মাসে রাষ্ট্রভাষা বাংলার দাবিতে অনুষ্ঠিত অন্যান্য সভা ও সমাবেশে তিনি স্বতস্ফূর্তভাবে অংশ নিয়েছেন। কোনো ভয়ভীতি তাকে ভাষা চেতনার আদর্শ থেকে বিচ্যুত করতে পারেনি। তিনি যে সময় ভাষা আন্দোলনে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেন, সে সময় মেয়েদের জন্য অনুকূল পরিবেশ ছিল না। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরের অনুমতি ছাড়া ছেলেদের সাথে কথা বললে সে সময় ১০ টাকা জরিমানা করা হতো মেয়েদের। আন্দোলনে গেলে পড়াশুনা বন্ধ করে দেয়ার পারিবারিক হুমকিও ছিল তার। সকল বাধা উপেক্ষা করেই তিনি মাতৃভাষা চেতনায় উজ্জীবিত হয়েছেন এবং সকল ভ্রূকুটি অগ্রাহ্য করে সামনের দিকে এগিয়ে গেছেন।

font
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, 'ইন্ডিয়ান রেলওয়ের ট্রেনে চলছেন প্রধানমন্ত্রী'। আপনি কি তার এই বক্তব্য সমর্থন করেন?
1 + 4 =  
ফলাফল
আজকের নামাজের সময়সূচী
অক্টোবর - ২০
ফজর৪:৪২
যোহর১১:৪৪
আসর৩:৫১
মাগরিব৫:৩২
এশা৬:৪৪
সূর্যোদয় - ৫:৫৮সূর্যাস্ত - ০৫:২৭
archive
বছর : মাস :
The Daily Ittefaq
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: তাসমিমা হোসেন। উপদেষ্টা সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন। ইত্তেফাক গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে তারিন হোসেন কর্তৃক ৪০, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ থেকে প্রকাশিত ও মুহিবুল আহসান কর্তৃক নিউ নেশন প্রিন্টিং প্রেস, কাজলারপাড়, ডেমরা রোড, ঢাকা-১২৩২ থেকে মুদ্রিত। কাওরান বাজার ফোন: পিএবিএক্স: ৭১২২৬৬০, ৮১৮৯৯৬০, বার্ত ফ্যাক্স: ৮১৮৯০১৭-৮, মফস্বল ফ্যাক্স : ৮১৮৯৩৮৪, বিজ্ঞাপন-ফোন: ৮১৮৯৯৭১, ৭১২২৬৬৪ ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭২, e-mail: [email protected], সার্কুলেশন ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭৩। www.ittefaq.com.bd, e-mail: [email protected]
Copyright The Daily Ittefaq © 2014 Developed By :