The Daily Ittefaq
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২১ মার্চ ২০১৩, ৭ চৈত্র ১৪১৯, ৮ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৪
সর্বশেষ সংবাদ ফুটবল: এএফসি চ্যালেঞ্জ কাপে মূল পর্বে বাংলাদেশ | রাজধানী হাতিরঝিলে বন্দুকযুদ্ধে ডাকাত নিহত | রাষ্ট্রপতি মো. জিল্লুর রহমানের মরদেহ সিএমএইচ হাসপাতালের হিমঘরে | প্রথম জানাযা অনুষ্ঠিত হবে শুক্রবার সকাল ৯টায় কিশোরগঞ্জের ভৈরবে; দাফন রাজধানীর বনানী কবরস্থানে | বঙ্গভবনে প্রয়াত রাষ্ট্রপতিকে গার্ড অব অনার প্রদান, অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী ও বিরোধী দলীয় নেত্রীসহ নানা শ্রেণি-পেশার মানুষের শ্রদ্ধা জ্ঞাপন

বঙ্গভবনে বঙ্গবন্ধু থেকে জিল্লুর রহমান

সাইদুল ইসলাম

রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমান ছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঘনিষ্ঠ সহচর। স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম রাষ্ট্রপতি হিসেবে বঙ্গবন্ধু গিয়েছেন বঙ্গভবনে। তার বিশ্বস্ত সৈনিক জিল্লুর রহমানও রাষ্ট্রপতি হিসেবে গিয়েছেন বঙ্গভবনে। দু'জনেই প্রয়াত। বঙ্গবন্ধু এবং জিল্লুর রহমানের মাঝে বাংলাদেশে আরো ১৩ জন রাষ্ট্রপতি বঙ্গভবনে গিয়েছেন। বঙ্গভবনের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে নেয়া হয়েছে তাদের নাম।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান: বাংলাদেশের স্বাধীনতার ঘোষক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭১ সালের ১০ এপ্রিল মুজিবনগর সরকারের রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত হন। ১৯৭২ সালের ১২ জানুয়ারি তিনি রাষ্ট্রপতির পদ থেকে অবসর নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হন। সংসদীয় সরকার বিলুপ্ত করে রাষ্ট্রপতি শাসিত সরকার গঠন করা হলে বঙ্গবন্ধু ১৯৭৫ সালের ২৫ জানুয়ারি আবারো রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত হন। তিনি ১৯২০ সালের ১৭ মার্চ গোপালগঞ্জ জেলার টুংগীপাড়ায় জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগষ্ট ধানমন্ডির ৩২ নম্বর বাড়িতে বিপদগামী সৈনিকরা বুলেটের আঘাতে নির্মমভাবে খুন করে বাংলার অবিসংবাদিত নেতা এবং স্বাধীন দেশের প্রথম প্রেসিডেন্ট বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে।

সৈয়দ নজরুল ইসলাম:বঙ্গবন্ধুর অনুপস্থিতিতে ১৯৭১ সালের ১৭ এপ্রিল থেকে ১৯৭২ সালের ১০ জানুয়ারি পর্যন্ত তত্কালীন উপ-রাষ্ট্রপতি সৈয়দ নজরুল ইসলাম বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতির দায়িত্ব পালন করেন। বঙ্গবন্ধু দেশে না থাকায় ১৯৭১ সালের ২৩ ডিসেম্বর সৈয়দ নজরুল ইসলাম স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম মন্ত্রিসভার বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন। ১৯২৫ সালে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলায় তিনি জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগষ্ট বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা করার পর ঘাতকরা ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দী অবস্থায় সৈয়দ নজরুল ইসলামকে একই সালের তেসরা নভেম্বর ঘাতকরা গুলি করে হত্যা করে।

বিচারপতি আবু সাঈদ চৌধুরী: প্রধান বিচারপতি এ এস এম সায়েম ১৯৭২ সালের ১২ জানুয়ারি বিচারপতি আবু সাঈদ চৌধুরীকে রাষ্ট্রপতি হিসেবে শপথ পড়ান। রাষ্ট্রপতি হিসেবে শপথ নিয়েই তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে প্রধানমন্ত্রী এবং অন্য ১০ জনকে মন্ত্রী হিসেবে শপথ পড়ান। আবু সাঈদ চৌধুরী ১৯৭৩ সালের ১০ এপ্রিল দ্বিতীয় মেয়াদে রাষ্ট্রপতি হিসেবে শপথ নেন। একই বছরের ২৪ ডিসেম্বর পর্যন্ত তিনি দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৮৭ সালের দোসরা আগষ্ট তিনি লন্ডনে মৃত্যুবরণ করেন।

মোহাম্মদ মোহাম্মদউল্লাহ: বিচারপতি আবু সাঈদ চৌধুরীর পদত্যাগের পর ১৯৭৩ সালের ২৪ ডিসেম্বর মোহাম্মদ মোহাম্মদউল্লাহ ভারপ্রাপ্ত রাষ্ট্রপতির দায়িত্ব নেন। ১৯৭৪ সালের ২৪ জানুয়ারি তিনি রাষ্ট্রপতি হিসেবে শপথ নেন এবং ১৯৭৫ সালের ২৫ জানুয়ারি পর্যন্ত এ দায়িত্ব পালন করেন। ১৯২১ সালে লক্ষ্মীপুর জেলার রায়পুরে তিনি জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৯৯ সালের ১১ নভেম্বর ৭৮ বছর বয়সে তিনি ইন্তেকাল করেন।

খোন্দকার মোশতাক আহমেদ:বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যার পর ১৯৭৫ সালের ১৫ আগষ্ট খোন্দকার মোশতাক রাষ্ট্রপতির দায়িত্ব নেন। তিনি ক্ষমতায় থাকাকালে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে জাতীয় চার নেতাকে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়। তিনি ইনডেমনিটি অধ্যাদেশ জারি করেন। জয় বাংলা শ্লোগানকে পরিবর্তন করে তিনি বাংলাদেশ জিন্দাবাদে রপান্তরিত করেন। এছাড়া বাংলাদেশ বেতারের নাম পরিবর্তন করে রাখেন রেডিও বাংলাদেশ। মৃত্যুর পর তাকে দাউদকান্দির পারিবারিক কবরস্তানে দাফন করা হয়।

বিচারপতি আবু সাদাত মোহাম্মদ সায়েম: ১৯৭৫ সালের ৬ নভেম্বর বিচারপতি আবু সাদাত মোহাম্মদ সায়েম রাষ্ট্রপতি হিসেবে শপথ নেন। একই সাথে তিনি ছিলেন প্রধান সামরিক আইন প্রশাসক। ১৯৭৭ সালের ২১ এপ্রিল পর্যন্ত তিনি রাষ্ট্রপতির দায়িত্ব পালন করেন। স্বাস্থ্যগত সমস্যা দেখিয়ে তিনি রাষ্ট্রপতির পদ থেকে পদত্যাগ করেন। ১৯৯৭ সালের ৮ জুলাই বিচারপতি আবু সাদাত মোহাম্মদ সায়েম ৮১ বছর বয়সে মৃত্যুবরণ করেন।

লে: জেনারেল জিয়াউর রহমান: ১৯৭৭ সালের ২১ এপ্রিল লে: জেনারেল জিয়াউর রহমান রাষ্ট্রপতি হিসেবে শপথ নেন। এর আগে তিনি উপ-সামরিক আইন প্রশাসকের দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৭৬ সালের ২৯ নভেম্বর তিনি প্রধান সামরিক আইন প্রশাসক নিযুক্ত হন। ১৯৩৬ সালের ১৯ জানুয়ারি জিয়াউর রহমান বগুড়ার বাগমারিতে জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৮১ সালের ৩০ মে চট্রগ্রাম সার্কিট হাউসে সেনাবাহিনীর কিছু বিপদগামী সদস্যের হাতে প্রাণ হারান।

বিচারপতি আব্দুস সাত্তার: জিয়াউর রহমান মারা যাবার পর বিচারপতি আব্দুস সাত্তার বাংলাদেশের ভারপ্রাপ্ত রাষ্ট্রপতি নিযুক্ত হন। ১৯৮১ সালের ১৫ নভেম্বর তিনি বিএনপির হয়ে রাষ্ট্রপতি পদে লড়েন এবং বিপুল ভোটে বিজয়ী হন। হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ ক্ষমতা নিয়ে যাওয়া অর্থাত্ ১৯৮১ সালের ২০ নভেম্বর পর্যন্ত তিনি রাষ্ট্রপতি ছিলেন। বিচারপতি আব্দুস সাত্তার ১৯০৬ সালে জন্মগ্রহণ করেন এবং ১৯৮৫ সালের ৫ অক্টোবর মৃত্যুবরণ করেন।

বিচারপতি আবুল ফজল মোহাম্মদ আহসানউদ্দিন চৌধুরী: প্রধান সামরিক আইন প্রশাসক এইচ এম এরশাদ ১৯৮২ সালের ২৭ মার্চ বিচারপতি আবুল ফজল মোহাম্মদ আহসানউদ্দিন চৌধুরীকে রাষ্ট্রপতি হিসেবে নিয়োগ দেন। ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে ১৯৮৩ সালের ১১ ডিসেম্বর তিনি রাষ্ট্রপতির পদ থেকে পদত্যাগ করেন। ১৯১৫ সালের পহেলা জুলাই ময়মনসিংহে জন্ম নেয়া এ রাষ্ট্রপতি ২০০১ সালের ৩০ আগষ্ট মৃত্যুবরণ করেন।

হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ:প্রধান সামরিক আইন প্রশাসক লে: জেনারেল হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ ১৯৮৩ সালের ১১ ডিসেম্বর রাষ্ট্রপতির পদ গ্রহণ করেন। কোন শপথ অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে তিনি প্রেসিডেন্ট পদ গ্রহণ করেননি। রাষ্ট্রপতির পদ নেয়ার পর তিনি বঙ্গভবনে বিশেষ মোনাজাতের আয়োজন করেন। ১৯৮৫ সালের ২০ মার্চ তিনি ১৮ দফা কর্মসূচী প্রণয়ন করে তার ওপর গণভোটের আয়োজন করেন। এরমধ্যে ১৯৮৬ সালের পহেলা সেপ্টেম্বর তিনি সেনাবাহিনী থেকে পদত্যাগ করেন। একই বছরের ১৫ অক্টোবর রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে তিনি বিজয়ী হন। ১৯৯০ সালের ৬ ডিসেম্বর পর্যন্ত এরশাদ রাষ্ট্রপতির দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৩০ সালের পহেলা ফেব্রুয়ারি রংপুরে তিনি জন্মগ্রহণ করেন। বর্তমানে তিনি জাতীয় পার্টির (এ) চেয়ারম্যান।

বিচারপতি শাহাবুদ্দিন আহমেদ: হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের পদত্যাগের পর তত্কালীন প্রধান বিচারপতি শাহাবুদ্দিন আহমেদ উপ-রাষ্ট্রপতি নিযুক্ত হন। এরপর তিনি অন্তর্বর্তীকালীন সরকারের প্রধান হিসেবে ১০ জন উপদেষ্টাকে শপথ পাঠ করান। ১৯৯১ সালের ২৭ ফেব্রুয়ারি পঞ্চম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর একই বছরের ৯ অক্টোবর পর্যন্ত তিনি রাষ্ট্রপতির দায়িত্ব পালন করেন। এরপর তিনি প্রধান বিচারপতির পদে ফিরে যান। ১৯৯৬ সালের ২৩ জুলাই বিচারপতি শাহাবুদ্দিন আহমেদ দ্বিতীয় মেয়াদে রাষ্ট্রপতি মনোনীত হন। ২০০১ সালের ১৪ নভেম্বর পর্যন্ত তিনি এ দায়িত্ব পালন করেন।

আব্দুর রহমান বিশ্বাস: ১৯৯১ সালের ৯ অক্টোবর আব্দুর রহমান বিশ্বাস রাষ্ট্রপতি দায়িত্ব গ্রহণ করেন। এর আগের দিন সংসদে ভোটের মাধ্যমে তিনি রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত হন। তিনি পেয়েছিলেন ১৭২ ভোট আর তার প্রতিদ্বন্দ্বী বিচারপতি বদরুল হায়দার চৌধুরী পেয়েছেন ৭২ ভোট। ১৯৯৬ সালের ৯ অক্টোবর পর্যন্ত তিনি প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব পালন করেন। ১৯২৬ সালের সেপ্টেম্বর মাসে বরিশাল সদর উপজেলায় তিনি জন্মগ্রহণ করেন।

অধ্যাপক ডা. এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী: ২০০১ সালের ১২ নভেম্বর বদরুদ্দোজা চৌধুরী রাষ্ট্রপতি হিসেবে দায়িত্ব নেন। বিএনপির সংসদীয় দলের প্রতি সম্মান দেখিয়ে ২০০২ সালের ২১ জুন তিনি রাষ্ট্রপতি পদ থেকে পদত্যাগ করেন। ১৯৩২ সালের পহেলা নভেম্বর তিনি জন্মগ্রহণ করেন। রাষ্ট্রপতির পদ থেকে পদত্যাগ করে তিনি বিকল্পধারা বাংলাদেশ নামক রাজনৈতিক দল গঠন করেন।

ব্যারিষ্টার জমিরউদ্দিন সরকার: ২০০২ সালের ২১ জুন ব্যারিষ্টার জমিরউদ্দিন সরকার অস্থায়ী রাষ্ট্রপতির পদ গ্রহণ করেন। একই বছরের ৬ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত তিনি এ পদে দায়িত্ব পালন করেন। তার জন্ম ১৯৩১ সালের পহেলা ডিসেম্বর।

অধ্যাপক ইয়াজউদ্দিন আহমেদ: ২০০২ সালের ৬ সেপ্টেম্বর প্রফেসর ইয়াজউদ্দিন আহমেদ রাষ্ট্রপতির পদে আসীন হন। এরপর তিনি তত্কালীন বিএনপি সরকারের পুরো মেয়াদকালে রাষ্ট্রপতির পদে থাকেন। তবে রাষ্ট্রপতির পাশাপাশি তিনি তত্ত্ব্বাবধায়ক সরকারের প্রধান উপদেষ্টার পদ গ্রহণ করায় এ নিয়ে ব্যাপক হৈচৈ হয়। এরপর তথাকথিত ওয়ান ইলেভেন আসে। পরবর্তীতে নির্বাচন হলে জিল্লুর রহমান রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত হন।

এই পাতার আরো খবর -
font
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
মির্জা ফখরুল বলেছেন নির্যাতন নিপীড়ন আওয়ামী লীগের চিরন্তন বৈশিষ্ট্য, তারা বাংলাদেশকে ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত করতে চায়। তার এই বক্তব্যের সঙ্গে আপনি একমত?
2 + 7 =  
ফলাফল
আজকের নামাজের সময়সূচী
নভেম্বর - ১৬
ফজর৫:১২
যোহর১১:৫৪
আসর৩:৩৯
মাগরিব৫:১৭
এশা৬:৩৫
সূর্যোদয় - ৬:৩৩সূর্যাস্ত - ০৫:১২
archive
বছর : মাস :
The Daily Ittefaq
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: তাসমিমা হোসেন। উপদেষ্টা সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন। ইত্তেফাক গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে তারিন হোসেন কর্তৃক ৪০, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ থেকে প্রকাশিত ও মুহিবুল আহসান কর্তৃক নিউ নেশন প্রিন্টিং প্রেস, কাজলারপাড়, ডেমরা রোড, ঢাকা-১২৩২ থেকে মুদ্রিত। কাওরান বাজার ফোন: পিএবিএক্স: ৭১২২৬৬০, ৮১৮৯৯৬০, বার্ত ফ্যাক্স: ৮১৮৯০১৭-৮, মফস্বল ফ্যাক্স : ৮১৮৯৩৮৪, বিজ্ঞাপন-ফোন: ৮১৮৯৯৭১, ৭১২২৬৬৪ ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭২, e-mail: [email protected], সার্কুলেশন ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭৩। www.ittefaq.com.bd, e-mail: [email protected]
Copyright The Daily Ittefaq © 2014 Developed By :