The Daily Ittefaq
ঢাকা, শনিবার, ৪ মে ২০১৩, ২১ বৈশাখ ১৪২০, ২২ জমাদিউস সানি ১৪৩৪
সর্বশেষ সংবাদ ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে নির্দলীয় সরকার ঘোষণা দেয়ার আল্টিমেটাম : মতিঝিলে ১৮ দলের সমাবেশে খালেদা জিয়া | প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য অন্তসারশূন্য, অবরোধ হবেই: হেফাজত | দয়া করে আর মানুষ হত্যা করবেন না: খালেদা জিয়ার উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী

আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা :চাই কথা কম কাজ বেশি

সম্প্রতি রাজশাহী মহানগরীর ২৯ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সাধারণ সম্পাদককে দুই হাতের কব্জি ও পায়ের রগ কাটিয়া হত্যা করিয়াছে দুর্বৃত্তরা। নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলায় একজন কলেজ ছাত্রীকে বাসার ভিতরেই কোপাইয়া হত্যা করা হইয়াছে। সেই সঙ্গে তাহার মাকেও কোপাইয়া মারাত্মভাবে জখম করা হয়। যশোর শহরের পুলিশ লাইন টালিখোলা এলাকায় এক যুবককে গুলি করিয়া হত্যা করে সন্ত্রাসীরা। চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদায় অজ্ঞাত পরিচয় এক যুবতীকে হত্যা করা হয় শ্বাসরোধ করিয়া। কয়েকদিন আগে ইত্তেফাকে প্রকাশিত একদিনের খবরের আলোকে পাওয়া গিয়াছে এই ভয়াবহ চিত্রটি। অথচ খবরের বাহিরেও খবর থাকে। থাকে মর্মন্তুদ খুন-খারাবির অজানা কাহিনী। যাহা একই সঙ্গে লোমহর্ষক ও হূদয়বিদারক। সম্প্রতি সাভারে ঘটিয়া গেল মহা ট্রাজেডি যাহার দুঃসহ স্মৃতি দেশবাসীর নিকট এখনও জাজ্বল্যমান। তবে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতির কারণে সারাদেশে যে অসংখ্য মিনি ট্রাজেডির জন্ম হইতেছে তাহা উপরোক্ত চিত্র হইতে সম্যক উপলব্ধি করা যায়। বলাবাহুল্য, সাভার ট্রাজেডি ঘটিয়াছে একদিনে। আর হত্যা, গুম, হামলা-মামলা, ছিনতাই-রাহাজানি ইত্যাদি ঘটনা প্রতিনিয়ত ও ফি বত্সরই ঘটিয়া চলিয়াছে। সাধারণ মানুষ এইসব কারণে ঘরে-বাহিরে সর্বত্র নিরাপত্তাহীনতায় ভুগিতেছে।

সর্বশেষ খবর অনুযায়ী কুষ্টিয়ায় গত বৃহস্পতিবার রাত্রে খোদ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী র্যাবের বিরুদ্ধে এক যুবককে পিটাইয়া হত্যা করিবার অভিযোগ উঠিয়াছে। এইরকম হত্যার কারণেও জনমনে ভীতি সঞ্চারিত হয়। উল্লেখ্য, সাংবাদিক দম্পতি সাগর-রুনি হত্যাকাণ্ড ও কয়েকজন রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব গুম হইয়া যাইবার পর একটি শ্লোগান বেশ জনপ্রিয়তা পায়। তাহা হইল, 'ঘরে থাকিলে খুন আর বাহিরে গেলে গুম'। ইহাকে অত্যুক্তি মনে হইলেও সারাদেশে এক ধরনের গুমোট পরিস্থিতি যে তৈরি হইয়াছে তাহাতে সন্দেহ নাই। এখানে একটি বিষয় খুব পরিষ্কার যে, যখন রাজনৈতিক অস্থিরতা বাড়ে, তখন সন্ত্রাসীদের আনাগোনা ও তত্পরতাও বাড়ে। উত্তপ্ত হইয়া ওঠে তাহাদের আন্ডারগ্রাউন্ড। ইহার কারণে সমাজ-সংসারেও বাড়ে অস্থিরতা। নিরাপত্তাজনিত কারণে দেখা দেয় উদ্বেগ ও উত্কণ্ঠা। কিন্তু কেন এমন পরিস্থিতি তৈরি হয় বারংবার? প্রকৃতপক্ষে বাংলাদেশটাকে কেহ ম্যানেজ বা পরিচালনা করিতেছেন বলিয়া প্রতীয়মান হয় না। শুধু এই সরকারের আমলেই নহে, স্বাধীনতা লাভের পর হইতেই কমবেশি একই অবস্থা বিরাজ করিতেছে। যাহারা ক্ষমতায় যান, তাহারা এই দেশের মানুষের নিরাপত্তা লইয়া খুব একটা ভাবেন বলিয়া মনে হয় না।

এমন বাস্তবতায় এই দেশে আইন-কানুন থাকিলেও তাহা কার্যত অকার্যকর। আইনের প্রতি মানুষের শ্রদ্ধাবোধও যেন দিন দিন উঠিয়া যাইতেছে। আইন প্রণেতারা আইন করিয়াই খালাস। তাহার বাস্তবায়ন কতটা হইতেছে সেই ব্যাপারে উদাসীন। ফলে মানুষ প্রায়শ নিজের হাতে আইন তুলিয়া নিতেছে। মাইট ইজ রাইট বা জোর যার মুল্লুক তার নীতিই এখানে দাপট দেখাইয়া চলিতেছে। উদ্ভূত পরিস্থিতি মোকাবেলায় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে নূতন করিয়া ঢালিয়া সাজাইবার প্রয়োজনীয়তাও সঠিকভাবে উপলব্ধি করা হয় না। একজন ভাল ম্যানেজার বা কর্তৃপক্ষের দায়িত্ব হইল, তাহার আমলে পূর্বের চাইতে দেশ ও জাতির সার্বিক অবস্থার উন্নতি সাধন করা। কিন্তু তাহা আমাদের মত উন্নয়নশীল দেশের ক্ষমতাসীনদের অগ্রাধিকারের তালিকায় থাকে না বলিলেই চলে।

দেশের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির উন্নতি করিতে হইলে গলাবাজি ছাড়িতে হইবে। কথার চাইতে কাজ বেশি করিয়া দেখাইতে হইবে। আইন-কানুন ও আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতি জনগণের শ্রদ্ধা ও আস্থা বাড়াইতে হইবে। একজন ন্যায়পরায়ণ শাসকের অন্যতম প্রধান কাজ হইল, নাগরিকদের জান ও মালের হেফাজত করা। ইহা করিতে ব্যর্থ হইলে সরকারের অন্যান্য অনেক সাফল্য ম্লান হইয়া যাইতে বাধ্য। অতএব, এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট সকলের দায়িত্বশীল আচরণই কাম্য।

font
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
বিএনপি বলেছে, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবি মেনে নিলে প্রধানমন্ত্রীর আলোচনায় বসার আহ্বানে সাড়া দেবে। দলটির এই সিদ্ধান্ত যৌক্তিক বলে মনে করেন?
5 + 4 =  
ফলাফল
আজকের নামাজের সময়সূচী
মার্চ - ১৯
ফজর৪:৪৮
যোহর১২:০৭
আসর৪:২৮
মাগরিব৬:১৩
এশা৭:২৫
সূর্যোদয় - ৬:০৩সূর্যাস্ত - ০৬:০৮
archive
বছর : মাস :
The Daily Ittefaq
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: তাসমিমা হোসেন। উপদেষ্টা সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন। ইত্তেফাক গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে তারিন হোসেন কর্তৃক ৪০, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ থেকে প্রকাশিত ও মুহিবুল আহসান কর্তৃক নিউ নেশন প্রিন্টিং প্রেস, কাজলারপাড়, ডেমরা রোড, ঢাকা-১২৩২ থেকে মুদ্রিত। কাওরান বাজার ফোন: পিএবিএক্স: ৭১২২৬৬০, ৮১৮৯৯৬০, বার্ত ফ্যাক্স: ৮১৮৯০১৭-৮, মফস্বল ফ্যাক্স : ৮১৮৯৩৮৪, বিজ্ঞাপন-ফোন: ৮১৮৯৯৭১, ৭১২২৬৬৪ ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭২, e-mail: [email protected], সার্কুলেশন ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭৩। www.ittefaq.com.bd, e-mail: [email protected]
Copyright The Daily Ittefaq © 2014 Developed By :