The Daily Ittefaq
ঢাকা, শুক্রবার, ১৪ জুন ২০১৩, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২০ এবং ৪ শাবান ১৪৩৪
সর্বশেষ সংবাদ শনিবার একযোগে চার সিটি নির্বাচনে ভোট গ্রহণ | নোয়াখালীর চরে গণপিটুনিতে পাঁচ জলদস্যু নিহত | হোটেল থেকে ১০ বুয়েট শিক্ষার্থীসহ ২০ জন আটক | বরিশালে পুলিশ দিয়ে বিএনপি নেতাকর্মীদের হয়রানির অভিযোগ | নির্বাচনে জালিয়াতি হলে সরকারের প্রতি অনাস্থা:মওদুদ | কেন্দ্রগুলোতে যাচ্ছে ভোটের সরঞ্জাম

চ্যালেঞ্জের মুখে কামরান?

নিজামুল হক, সিলেট থেকে

সিলেট সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছেন টানা ২০ বছর ধরে মেয়র ও পৌর পিতার পদ দখলে রাখা বদর উদ্দিন আহমদ কামরান। চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মতোই সিলেটে ভোটের লড়াইয়ে তুমুল প্রতিদ্বন্দ্বী হয়েছেন তারই ওয়ার্ড কাউন্সিলর বিএনপি নেতা আরিফুল হক চৌধুরী। কামরান ১৪দল সমর্থিত এবং আরিফ ১৮ দল সমর্থিত মেয়র প্রার্থী। সাধারণ ভোটারদের আলোচনায় ঘুরে-ফিরে একটাই প্রশ্ন, কামরান কি তার আসন ধরে রাখতে পারবেন নাকি চট্টগ্রামের মহিউদ্দিন চৌধুরীর ভাগ্য বরণ করতে হবে। এ প্রশ্নের উত্তরের জন্য শনিবার রাত পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।

সিলেটে বিরামহীন প্রচারণা চালিয়েছেন প্রার্থীরা। উত্সবের আমেজে প্রচারণার শেষদিন শেষ হয়েছে। এখন চলছে হিসাব-নিকাশের পালা। কামরানের সমর্থকরা বলছেন, এক মেয়াদে পৌর চেয়ারম্যান ও টানা দুই মেয়াদের সিটি মেয়র হিসাবে বদর উদ্দিন আহমদ কামরান এই নগরীর জন্য অনেক কাজ করেছেন। কেবলমাত্র গত ৫ বছরে তিনি প্রায় ৫শ' কোটি টাকার কাজ করেছেন। অনেক কাজ বাস্তবায়নাধীন রয়েছে। আবার বিজয়ী হলে কামরান তার দীর্ঘ অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে অসম্পূর্ণ কাজ সম্পন্ন এবং মাস্টার প্ল্যানের মাধ্যমে সিলেট মহানগরীর পরিসর বৃদ্ধি করে এই নগরীকে একটি আধুনিক পর্যটন নগরী হিসেবে গড়ে তুলবেন।

অন্যদিকে আরিফুল হক চৌধুরী ও তার সমর্থকরা ভোটের লড়াইয়ে এগিয়ে যেতে শুরু থেকেই পরিবর্তনের শ্লোগানকে বড় করে সামনে এনেছেন। তারা বলছেন, দীর্ঘদিনেও কামরান এই নগরীর কাঙ্ক্ষিত উন্নয়ন করতে পারেননি। তারা এটাও বলছেন, এক ব্যক্তিকে অনেকদিন দেখেছেন। এবার পরিবর্তন করে নতুন কাউকে আনুন। আরিফুল বলছেন, তিনি বিজয়ী হলে সিলেটকে উন্নত বিশ্বের বিভিন্ন আধুনিক শহরের মতো করে গড়ে তুলবেন। তিনি তার সব ধরনের প্রচারণার ক্ষেত্রে পরিবর্তনের বিষয়টি সামনে রেখেছেন। তিনি বলছেন, পরিবর্তন এখন সময়ের দাবি।

শতাধিক বছরের পুরনো সিলেট পৌরসভা ২০০২ সালে সিলেট সিটি কর্পোরেশনে উন্নীত হয়। পৌরসভা আমলের শেষ পাঁচ বছরের মেয়াদের চেয়ারম্যান ছিলেন আওয়ামী লীগ নেতা বদর উদ্দিন আহমদ কামরান। এ কারণে সিটি কর্পোরেশন হওয়ার পর পদাধিকারবলে তিনি হন সিলেট সিটি কর্পোরেশনের প্রথম মেয়র। এর পর ২০০৩ সালে অনুষ্ঠিত সিটি কর্পোরেশনের প্রথম নির্বাচনে বিজয়ী হন কামরান। পরবর্তীতে ২০০৮ সালে অনুষ্ঠিত সিটি কর্পোরেশনের দ্বিতীয় নির্বাচনেও তিনি কারাবন্দি থেকেও বিপুল ভোটের ব্যবধানে বিজয়ী হন। তিন মেয়াদে প্রায় দেড় যুগ একটানা সিলেট নগরীর মেয়র পদে ছিলেন কামরান।

তার এই দীর্ঘ সময়ের নেতৃত্বে সফল হয়েছেন এমন দাবিকে পুঁজি করে এবারও ভোটযুদ্ধে জয়ী হতে চাইছেন। ভোটারদের তিনি বলছেন, 'আমাকে আবারো বিজয়ী করুন। আমি একটি মাস্টার প্ল্যানের মাধ্যমে সিলেট নগরীকে সত্যিকারের আধুনিক নগরী হিসাবে গড়ে তুলবো।' নির্বাচনী প্রচারণায় কামরান অতীতে সিলেট নগরীর উন্নয়নে যে সকল কাজ করেছেন সেগুলোকেও তুলে ধরেছেন। তিনি বলছেন, অনেক কাজ বাস্তবায়নাধীন রয়েছে। তিনি বিজয়ী হলে এই কাজগুলো সহজেই সম্পন্ন হবে। কাজের ধারাবাহিকতা থাকবে।

আরিফুল হক চৌধুরী দীর্ঘদিন ধরে বিএনপির রাজনীতির সাথে জড়িত। ২০০৩ সালে অনুষ্ঠিত সিলেট সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে তিনি কমিশনার নির্বাচিত হন। একইসঙ্গে তিনি সিটি কর্পোরেশনের নগর উন্নয়ন ও পরিকল্পনা কমিটির চেয়ারম্যান ছিলেন। সাবেক অর্থ ও পরিকল্পনা মন্ত্রী মরহুম এম সাইফুর রহমানের অত্যন্ত কাছের লোক ছিলেন তিনি। সিলেট সদর আসনের সংসদ সদস্য হিসাবে এম সাইফুর রহমান সিলেট নগরীতে যে উন্নয়ন কর্মকাণ্ড করেন তা দেখাশোনা ও তদারকির দায়িত্ব পালন করেন আরিফ।

সিলেটে সে সময় যত উন্নয়ন হয়েছে তার সারথি ছিলেন আরিফ। এ দাবিতে প্রথমবারের মতো মেয়র হিসাবে বিজয়ী করার জন্য ভোটারদের প্রতি আহবান জানাচ্ছেন তিনি। পাশাপাশি তিনি কামরানের ব্যর্থতা তুলে ধরেন। আরিফের সমর্থকরা বলেন, বর্তমানে অর্থমন্ত্রী কামরানের দলের নেতা, সদর আসনের এমপি। কিন্তু আরিফের মতো দক্ষতা দেখাতে পারেননি কামরান। তার সমর্থকরা দুই আমলের উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরে পরিবর্তনের আওয়াজ তুলেছেন। তারা বলেছেন, সামান্য বৃষ্টি হলেই সিলেট নগরীর জীবনযাত্রা থেমে যায়। কামরান জলাবদ্ধতা সমস্যা থেকে সিলেটবাসীকে মুক্ত করতে পারেননি। নগরীর খাওয়ার পানির সংকট দূর করতে পারেননি। সিলেট নগরী এখনও অপরিচ্ছন্ন এবং রাস্তাঘাট সংকীর্ণ। যানজট লেগেই থাকে। ভোটারদের উদ্দেশ্যে এই মেয়র প্রার্থী বলেন, আপনারা একবার মেয়র পদে পরিবর্তন করে দেখুন। আমরা আপনাদের স্বপ্নের শহর উপহার দেব।

পাভেল আহমেদ নামে এক ভোটার বলেন, 'দীর্ঘদিন ধরে এক ব্যক্তি ক্ষমতায় থাকলে নগরীর উন্নয়ন সম্ভব নয়। তার মধ্যে ক্ষমতার দাপট তৈরি হয়। সন্ত্রাসী তৈরি হয় কর্মীদের মধ্যে। এ কারণে সময়ের সাথে পরিবর্তন প্রয়োজন'।

তবে ভিন্নমত প্রকাশ করে আব্দুল বাসিত বলেন, অভিজ্ঞতার কোনো বিকল্প নেই। কামরান একজন অভিজ্ঞ নেতা। তিনি মানুষের মনের আকাঙ্ক্ষা বুঝে সেই অনুযায়ী কাজ করতে পারেন।

কামরানের সমর্থনে গঠিত নাগরিক কমিটির আহবায়ক রহমত উল্লাহ বলেন, দীর্ঘদিন ধরে কামরান দলমতের ঊর্ধ্বে থেকে সিলেটের উন্নয়নে কাজ করেছেন। তিনি নগর ভবনকে সকল নাগরিকের প্রতিষ্ঠানের পরিণত করেন। তিনি বিজয়ী না হলে সিলেটের উন্নয়ন ব্যাহত হবে। এ কারণে সিলেটের স্বার্থেও তাকে বিজয়ী করা উচিত।

আরিফের সমর্থনে গঠিত সম্মিলিত নাগরিক জোটের আহবায়ক আতাউর রহমান পীর বলেন, সিলেটবাসী পরিবর্তনের জন্য উন্মুখ। অতীতে বার বার একই ব্যক্তি বিজয়ী হলেও তিনি মানুষের প্রত্যাশা পূরণ করতে পারেননি। আরিফ বিজয়ী না হলে সিলেটবাসী সেই পুরনো দিনেই থেকে যাবে। উন্নয়নের আকাঙ্ক্ষা পূরণ হবে না। তাই সিলেটের স্বার্থেই এবার পরিবর্তন দরকার।

এই পাতার আরো খবর -
font
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
চার সিটি নির্বাচনে সেনা মোতায়েনের দাবি জানিয়েছে বিএনপি। আপনি কি মনে করেন এই দাবি যৌক্তিক?
6 + 9 =  
ফলাফল
আজকের নামাজের সময়সূচী
নভেম্বর - ১৬
ফজর৫:১২
যোহর১১:৫৪
আসর৩:৩৯
মাগরিব৫:১৭
এশা৬:৩৫
সূর্যোদয় - ৬:৩৩সূর্যাস্ত - ০৫:১২
archive
বছর : মাস :
The Daily Ittefaq
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: তাসমিমা হোসেন। উপদেষ্টা সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন। ইত্তেফাক গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে তারিন হোসেন কর্তৃক ৪০, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ থেকে প্রকাশিত ও মুহিবুল আহসান কর্তৃক নিউ নেশন প্রিন্টিং প্রেস, কাজলারপাড়, ডেমরা রোড, ঢাকা-১২৩২ থেকে মুদ্রিত। কাওরান বাজার ফোন: পিএবিএক্স: ৭১২২৬৬০, ৮১৮৯৯৬০, বার্ত ফ্যাক্স: ৮১৮৯০১৭-৮, মফস্বল ফ্যাক্স : ৮১৮৯৩৮৪, বিজ্ঞাপন-ফোন: ৮১৮৯৯৭১, ৭১২২৬৬৪ ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭২, e-mail: [email protected], সার্কুলেশন ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭৩। www.ittefaq.com.bd, e-mail: [email protected]
Copyright The Daily Ittefaq © 2014 Developed By :