The Daily Ittefaq
ঢাকা, মঙ্গলবার, ০২ জুলাই ২০১৩, ১৮ আষাঢ় ১৪২০ এবং ২২ শাবান ১৪৩৪
সর্বশেষ সংবাদ হেফাজতের হামলায় আহত বুয়েট ছাত্রের মৃত্যু | গুলিস্তানে ডাকাতদের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে পুলিশসহ আহত ৩

সবার চেহারা উন্মোচন করে দেবেন পাপন!

স্পোর্টস রিপোর্টার

স্পট ফিক্সিং, আকসু রিপোর্ট, প্রিমিয়ার লিগ, ২০১৪ বিশ্বকাপ, আইসিসির সদস্যপদ; অনেক বিষয়ই ছিল আলোচনার। কিন্তু গতকাল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন ঢাকা পৌঁছানোর পর বিমানবন্দরেই যে সংবাদ সম্মেলন করলেন, সেখানে সবচেয়ে বড় বিষয় হয়ে দাঁড়ালো বিসিবির নির্বাচন।

বিসিবি নির্বাচন সময়মতো না হওয়া নিয়ে বাংলাদেশের ক্রীড়াঙ্গনের দু'পক্ষের মধ্যে কাদা ছোঁড়াছুঁড়ি, মামলা; এমনকি আইসিসিতে চিঠি পাঠানোর মতো ঘটনাও ঘটছে। আর এসব নিয়ে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানালেন পাপন। বিসিবির সাবেক সভাপতি সাবের হোসেন চৌধুরীর বলা সামপ্রতিক কিছু কথার দিকে ইঙ্গিত করে পরিষ্কার বললেন, 'উনি কেন এসব ফালতু কথা বলেন, আমি জানি না। ওনার মাথায় তো স্পট ফিক্সিং, ম্যাচ ফিক্সিং নিয়ে কী হলো, এসব চিন্তা নাই।' শুধু এটুকু বলে ক্ষান্ত থাকলেন না পাপন। বলে দিলেন যে, সাবের হোসেন চৌধুরীসহ আরও যারা বিসিবি ও বাংলাদেশের ক্রিকেট নিয়ে 'ষড়যন্ত্র' করছেন তাদের সবার 'চেহারা উন্মোচন করে' দেবেন বলে উত্তেজিত কণ্ঠে জানিয়ে দিলেন সংবাদ সম্মেলনে!

আইসিসির নির্দেশনা অনুযায়ী ২০১২ সালে সভাপতি পদে নির্বাচনের বিধান রেখে গঠনতন্ত্র সংশোধন করেছিল বিসিবি। এরপর সেই গঠনতন্ত্র জাতীয় ক্রীড়া পরিষদে পাঠালে তারা আবার কিছু পরিবর্তন করে। এর মধ্যে আ হ ম মোস্তফা কামালের কমিটির মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ায় দায়িত্ব নেয় নাজমুল হাসান পাপনের এডহক কমিটি। এই কমিটির ওপর মূল দায়িত্ব ছিল নির্বাচন করা। কিন্তু এর মধ্যে আবার গঠনতন্ত্রের সংশোধনী নিয়ে জেলা ও বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থাগুলো এবং একজন সাবেক পরিচালক আদালতে যাওয়ায় নির্বাচন করা সম্ভব হয়নি। বিষয়টি এখনও উচ্চ আদালতে বিচারাধীন।

পাপন এই নির্বাচন সময়মতো না হওয়ায় তার এই ক্রীড়াঙ্গনের প্রতিপক্ষের করা মামলাকেই দায় দিচ্ছেন। এখন বলছেন যে, এই মামলার ফলে যে ২০০৮ সালের গঠনতন্ত্র ফিরে আসছে, সেটাতে নির্বাচন করা হয়তো গ্রহণযোগ্য হবে না, 'এই দুটোই (২০০৮ ও ২০১২ সালের গঠনতন্ত্র) আমরা আইসিসিকে দেখিয়েছি। ২০০৮ সালেরটা কোনো ভাবেই আইসিসি অনুমোদিত নয়। এটা ওরা অনুমোদন করে না। ২০১২ সালেরটা নিয়ে তাদের কোনো আপত্তি নেই। এটা নিয়ে আমরা তাদের কাছ থেকে সরাসরি একটি চিঠি আশা করছি।'

আর এই চিঠি পেলেই দ্রুততম সময়ে নির্বাচন দেয়া যাবে বলেই বলছেন পাপন। কিন্তু সাবের হোসেন চৌধুরী সমপ্রতি পত্রিকান্তরে অভিযোগ করেছেন, এসব বলে আসলে এডহক কমিটি নির্বাচন ঝুলিয়েই রাখছে। এই কথাটা উঠতেই বিস্ফোরিত হলেন পাপন, 'দেখেন, উনি কী বলেছেন আমি শুনি নাই। তবে এটা (নির্বাচন নিয়ে টালবাহানা করা) একদম ফালতু কথা। এর আগেও উনি এসব বলেছেন। এসব ফালতু কথা উনি কেন বলেন আমি জানি না। ওনার মাথায় তো স্পট ফিক্সিং, ম্যাচ ফিক্সিং নিয়ে কী হলো, এসব চিন্তা নাই। আমার কাছে কিন্তু ইলেকশনে কী হলো, কোন বোর্ড আসল; এসব অগুরুত্বপূর্ণ। ক্রিকেটকে আগে ঠিক করতে হবে, আমাদের সকলকে মিলেই ঠিক করতে হবে।'

পাপন ইঙ্গিত দিচ্ছেন যে, ক্রিকেট ঠিক করা মানে শুধু ফিক্সিং নিয়ে কাজ করা নয়। তিনি বোর্ডে এসে আসলে অনেক পুরোনো ব্যাপার স্যাপার আবিষ্কার করছেন; যা দেখে তিনি স্তম্ভিত। আর এসবই ফাঁস করে দিতে চান পাপন, 'বাইরে থেকে আমার ধারণা ছিল না, কী চলছে। ভেতরে এসে যা দেখছি তাতে খুব কষ্ট পাচ্ছি। আমি আপনাদের বলে দিচ্ছি, সামনে অনেক কিছু বেরিয়ে আসবে। অনেক তথ্য বেরিয়ে আসবে। আপনারা অহেতুক মিথ্যা প্ররোচণা দিয়ে, টেলিভিশনে গিয়ে সাংবাদিকদের কাছে গিয়ে যা খুশি বলে আসবেন, আর আমরা খালি বসেই থাকব; এটা কিন্তু হবে না। আমি কিন্তু দেশবাসীর সামনে সকলের চেহারা উন্মোচন করে দেব। আমি জাস্ট ওয়েটিং ফর ডিটেইলস।' সংবাদ মাধ্যমে প্রতিপক্ষের আক্রমণ তো আছেই, পাপনের এই ক্ষুব্ধ হওয়ার আরও কারণও নিজেই ব্যাখ্যা করলেন, 'এটা যে কী ধরনের ষড়যন্ত্র হচ্ছে! পত্রিকার কাটিং এখান থেকে পাঠিয়ে দিচ্ছে আইসিসির কাছে। আইসিসির কাছে বাংলাদেশের ক্রিকেটকে নষ্ট করার জন্য যা যা দরকার, তারা সর্বোচ্চ চেষ্টা করছে। কিন্তু আমি আপনাদের আস্ব্বস্ত করতে পারি, আইসিসি এত বোকা না। আইসিসি ওনাদের এসব কাণ্ড দেখে শুধু হাসে।'

এই পাতার আরো খবর -
font
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া বলেছেন, 'সরকারি দল আবার ক্ষমতায় যেতে নিজ দলের সমর্থক কর্মকর্তাদের দিয়ে প্রশাসনকে সাজাচ্ছে।' আপনিও কি তাই মনে করেন?
7 + 3 =  
ফলাফল
আজকের নামাজের সময়সূচী
এপ্রিল - ২৪
ফজর৪:১০
যোহর১১:৫৭
আসর৪:৩১
মাগরিব৬:২৭
এশা৭:৪৩
সূর্যোদয় - ৫:২৯সূর্যাস্ত - ০৬:২২
archive
বছর : মাস :
The Daily Ittefaq
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: তাসমিমা হোসেন। উপদেষ্টা সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন। ইত্তেফাক গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে তারিন হোসেন কর্তৃক ৪০, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ থেকে প্রকাশিত ও মুহিবুল আহসান কর্তৃক নিউ নেশন প্রিন্টিং প্রেস, কাজলারপাড়, ডেমরা রোড, ঢাকা-১২৩২ থেকে মুদ্রিত। কাওরান বাজার ফোন: পিএবিএক্স: ৭১২২৬৬০, ৮১৮৯৯৬০, বার্ত ফ্যাক্স: ৮১৮৯০১৭-৮, মফস্বল ফ্যাক্স : ৮১৮৯৩৮৪, বিজ্ঞাপন-ফোন: ৮১৮৯৯৭১, ৭১২২৬৬৪ ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭২, e-mail: ittefaq.adsection@yahoo.com, সার্কুলেশন ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭৩। www.ittefaq.com.bd, e-mail: ittefaqpressrelease@gmail.com
Copyright The Daily Ittefaq © 2014 Developed By :