The Daily Ittefaq
মঙ্গলবার ২৬ আগস্ট ২০১৪, ১১ ভাদ্র ১৪২১, ২৯ শাওয়াল ১৪৩৫
সর্বশেষ সংবাদ ওরিয়েন্টাল ব্যাংকের ছয় কর্মকর্তাসহ ৭ জনের কারাদণ্ড | চট্টগ্রাম নৌঘাঁটিতে যুদ্ধজাহাজে আগুন | বিজিবিকে প্রশিক্ষণ দেয়ার প্রস্তাব বিএসএফের | শাস্তি কমল সাকিবের | আওয়ামী লীগ নেতা জাহাঙ্গীর হত্যায় আটক ৩

সাম্প্রতিক

অভিন্ন গণমাধ্যম নীতিমালা চাই

 মোস্তাফা জব্বার

চলতি আগস্টের ৬ তারিখে প্রজ্ঞাপন জারি করার আগে থেকেই জাতীয় সম্প্রচার নীতিমালা নিয়ে পর্যাপ্ত আলোচনা হয়েছে। প্রজ্ঞাপন জারির পরও সেই আলোচনা অব্যাহত রয়েছে। সর্বশেষ গত ২৪ আগস্ট ১৪ ঢাকার সিরডাপ মিলনায়তনে আর্টিক্যাল ১৯সহ বেশ কয়েকটি সংগঠন মিলে একটি গোল টেবিল বৈঠকের আয়োজন করে যেখান থেকে একটি অভিন্ন গণমাধ্যম নীতিমালা প্রণয়নের দাবি ওঠে। আমি দাবিটি উত্থাপন করার পর বিএফইউজে নেতা মঞ্জুরুল আহসান বুলবুল এবং ড. গোলাম রহমান এই দাবির প্রতি পূর্ণ সমর্থন জানান। তবে নীতিমালাটি নিয়ে বিতর্কের অবসান এখনও হয়নি। বাংলাদেশের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো একটি ২০ দলীয় রাজনৈতিক জোট সম্প্রচার নীতিমালার বিরুদ্ধে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ করেছে। নীতিমালার কপি পোড়ানো থেকে শুরু করে এর বাক্য-শব্দ চুলচেরা ময়না তদন্ত অব্যাহতই আছে। বিশেষ করে টিভি চ্যানেলগুলোর গরম অবস্থা চরম পর্যায়েই আছে। আমার জানা মতে, মিডিয়াতো বটেই অন্য কোন নীতিমালা নিয়ে এমন ব্যাপক আলোচনা কমই হয়েছে। তবে আমার কাছে পুরো বিষয়টিই কেমন যেন তালগোল পাকানো মনে হয়েছে।

যারা সমাবেশ করেছেন বা নীতিমালার কপি পুড়িয়েছেন তারা না হয় রাজনৈতিক কারণেই সেটি করেছেন। দেশের বিরোধীদলীয় রাজনীতির দেউলিয়াত্ব তাতে প্রতিভাত হয়। তাদের পক্ষের বুদ্ধিজীবীরা একে বাকশালী আলামত, সংবাদপত্রের কণ্ঠরোধ, গণতন্ত্রের অবসান, মৌলিক অধিকারের হরণ, তথ্য অধিকার থেকে বঞ্চিত করার অপপ্রয়াস এসব তকমা দিয়েছেন। কিন্তু যারা এই নীতিমালার কমিটিতে ছিলেন তারা যে কি কারণে এর সমালোচনায় মুখর হলেন সেটি আমি বুঝিনি। কমিটির সভায় বসে একমত হয়ে টিভির পর্দায় বা সেমিনারে ভিন্নমত পোষণ করাটা দ্বিমুখী নীতির প্রতিফলন। আমার কাছে আরও বিস্ময়কর লেগেছে যে, নীতিমালায় সম্প্রচার মাধ্যমকে গলাটিপে হত্যা করা হবে বলে অভিযোগ করা হলেও এটি আসলে আইন নয়, এতে কোন শাস্তির ব্যবস্থা নেই বা এটি মোটেই বাধ্যতামূলক কোন বিধান নয়। তথ্যমন্ত্রীর আশ্বাস ছাড়াও এটি সর্বজনবিদিত যে নীতিমালা দিয়ে কারো বিচার বা শাস্তি কখনও হয় না। এই নীতিমালার প্রধানতম অর্জন হচ্ছে একটি কমিশন গঠন করে সরকারের খবরদারির কিছুটা দায় তার ওপর ন্যস্ত করা যেখানে সাধারণ মানুষ, সম্প্রচার কর্তৃপক্ষ ও সরকার সকলেরই প্রবেশাধিকার থাকবে।

অন্যদিকে এটি বিস্ময়ের ব্যাপার যে গণমাধ্যমের স্বাধীনতার অন্তরায় হিসেবে প্রমাণিত আইন ১৯৭৩ সালের প্রেস এন্ড পাবলিকেশন্স আইন,'৭৪ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইন বা আইসিটি আইন ২০১৪ নিয়ে কেউ একটি শব্দও করেননি। যেসব শব্দ যেমন "বন্ধুদেশসমূহের সম্পর্ক নষ্ট" করা বা "রাষ্ট্রদ্রোহিতার" সংজ্ঞা নিয়ে যারা বিভ্রান্ত তারাও এটি বুঝেননি যে, সম্প্রচার নীতিমালার আগের অনেক আইনে এসব শব্দ সংজ্ঞাহীনভাবে ব্যবহূত হয়েছে। এমনকি সংবিধানেও এসব শব্দ আছে। স্বাধীনতার পর থেকেই এসব শব্দ ব্যবহূত হয়ে আসছে। এতে এটি প্রতীয়মান হয় যে, সম্প্রচার নীতিমালার সমালোচনা বস্তুত একটি রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড।

প্রকৃতপক্ষে আজকের দিনে সম্প্রচার নীতিমালা বা অনলাইন নীতিমালা কিংবা সংবাদপত্র নীতিমালা নামে আলাদা আলাদা কয়েকটি নীতিমালা প্রণয়ন করার কোন যৌক্তিক কারণ নেই। আজকের দিনে কাগজ, টিভি বা অনলাইন পোর্টাল বলতে আলাদা আলাদা কিছু নেই। এখন পত্রিকার অনলাইন সংস্করণ থাকে। সম্প্রচার প্রতিষ্ঠানের থাকে ওয়েবসাইট। অনলাইনতো সংবাদপত্র আর সম্প্রচারের সম্মিলিত রূপ। অন্যদিকে আইপি টিভি-আইপি রেডিও জাতীয় প্রযুক্তির ফলে মোবাইল ফোন থেকে সিনেমা হল পর্যন্ত ডিজিটাল প্রযুক্তির যে দাপট তাতে কোনটাকে কোনটা থেকে আলাদা করা যাবে তা বলা কঠিন। এখন ইচ্ছে করলে যে কেউ সরকারের সম্প্রচারের লাইসেন্স ছাড়া ইন্টারনেট প্রটোকলকে ব্যবহার করে রেডিও বা টিভি সম্প্রচার করতে পারেন। বস্তুত এটি বৈধ না অবৈধ সেটিও কোন আইনে স্পষ্ট করে বলা নেই। কোন নীতিমালায় এর উল্লেখও নেই। ফলে কোন একটি অনলাইন গণমাধ্যম একই সাথে একটি কাগজের পত্রিকা, বেতার ও টেলিভিশনের সম্মিলিত প্রকাশনা ও প্রচারের কাজ করে যেতে পারে। ভাবতে হবে যে, সেই গণমাধ্যমটির জন্য কোন নীতিমালা প্রযোজ্য হবে। অন্যদিকে মিডিয়াতো কেবল কাগজ, টেলিভিশন, বেতার বা পোর্টালের মাঝে সীমিত নেই। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলো বড় ধরনের মিডিয়ায় পরিণত হয়েছে। ব্লগ নামক ইন্টারনেটভিত্তিক একটি কর্মকাণ্ড অন্য সকল মাধ্যমের চাইতে শক্তিশালী মাধ্যমে পরিণত হয়েছে। আমরা যদি গণজাগরণ মঞ্চের উদ্ভব ও বিকাশের দিকে তাকাই তবে অনলাইন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও ব্লগের ক্ষমতার বিষয়টি আঁচ করতে পারব। ফলে একদিকে মিডিয়া বা গণমাধ্যমের সংজ্ঞা যেমন বদলাতে হবে তেমনি সনাতনী মানসিকতাকেও পাল্টাতে হবে। ডিজিটাল যুগের উপযুক্ত মানসিকতা ছাড়া এই যুগের কিছুই সামনে নেয়া যাবে না। সেই কারণেই বহুদিন ধরেই আমি একটি জাতীয় গণমাধ্যম নীতিমালা প্রণয়নের কথা বলে আসছি। যদিও সম্প্রচার ও অনলাইন এ্ই দু'টি নীতিমালা প্রণয়ন করার কমিটিতেই আমি যুক্ত তবুও আমি সম্পূর্ণভাবে অভিন্ন গণমাধ্যম নীতিমালা প্রণয়নের পক্ষে। একই সাথে আমি এটি মনে করি যে প্রচলিত পত্রিকার ডিক্লারেশন পদ্ধতি, প্রেসের ডিক্লারেশন, টিভি-বেতারের লাইসেন্স, অনলাইন পোর্টালের লাইসেন্স, আইপিটিভি-আইপিরেডিও, ব্লগ বা অন্যসব ডিজিটাল মাধ্যমের অনুমতি দেবার জন্য একটি নীতিমালা ও একটি কর্তৃপক্ষ থাকা উচিত। এখন ডিসি সাহেবরা কেন পত্রিকার ডিক্লারেশন দেবেন সেটি আমি বুঝি না। অন্যদিকে লেসার প্রিন্টার ও প্লটার দিয়ে যখন আমি যা খুশি ছাপতে পারি তখন ছাপাখানার কেন ডিক্লারেশন লাগবে সেটাও জানি না। আবার কাগজের পত্রিকার সাংবাদিকদের জন্য ওয়েজ বোর্ড থাকবে টিভি-অনলাইনের জন্য থাকবে না সেটি কেন তাও বুঝি না। প্রেস কাউন্সিল কি ভূমিকা পালন করে সেটিও আমি বুঝতে অক্ষম।

আমি মনে করি সরকার হযবরল যুগের অবসান ঘটিয়ে ডিজিটাল যুগের জন্য একটি গণমাধ্যম কমিশন গড়ে তুলবে ও তারই আলোকে গণমাধ্যম সংশ্লিষ্ট বিষয়গুলোর সমন্বয় করবে।

লেখক:তথ্যপ্রযুক্তিবিদ, বিজয় কীবোর্ড ও সফটওয়্যার এবং ডিজিটাল বাংলাদেশের প্রণেতা

ই-মেইল ঃ mustafajabbar@gmail.com

font
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, 'হতাশায় নিমজ্জিত বিএনপি আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে মিথ্যাচার করছে।' আপনিও কি তাই মনে করেন?
4 + 9 =  
ফলাফল
আজকের নামাজের সময়সূচী
মে - ৩০
ফজর৩:৪৫
যোহর১১:৫৬
আসর৪:৩৬
মাগরিব৬:৪৪
এশা৮:০৭
সূর্যোদয় - ৫:১১সূর্যাস্ত - ০৬:৩৯
archive
বছর : মাস :
The Daily Ittefaq
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: তাসমিমা হোসেন। উপদেষ্টা সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন। ইত্তেফাক গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে তারিন হোসেন কর্তৃক ৪০, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ থেকে প্রকাশিত ও মুহিবুল আহসান কর্তৃক নিউ নেশন প্রিন্টিং প্রেস, কাজলারপাড়, ডেমরা রোড, ঢাকা-১২৩২ থেকে মুদ্রিত। কাওরান বাজার ফোন: পিএবিএক্স: ৭১২২৬৬০, ৮১৮৯৯৬০, বার্ত ফ্যাক্স: ৮১৮৯০১৭-৮, মফস্বল ফ্যাক্স : ৮১৮৯৩৮৪, বিজ্ঞাপন-ফোন: ৮১৮৯৯৭১, ৭১২২৬৬৪ ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭২, e-mail: ittefaq.adsection@yahoo.com, সার্কুলেশন ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭৩। www.ittefaq.com.bd, e-mail: ittefaqpressrelease@gmail.com
Copyright The Daily Ittefaq © 2014 Developed By :