The Daily Ittefaq
ঢাকা, রবিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৩, ০১ পৌষ ১৪২০, ১১ সফর ১৪৩৫
সর্বশেষ সংবাদ ভিকারুন নিসা নূন স্কুলের ভর্তি লটারি ২০, ২১ ও ২২ ডিসেম্বর | জয়পুরহাটে সংঘর্ষে নিহত ৩ | ভোট হচ্ছে ১৪৬ আসনে, প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ৩৮৭ জন | সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচন: পররাষ্ট্রমন্ত্রী | লক্ষ্মীপুরে ছাত্রলীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা | নির্বাচন নিয়ে তামাশা নজীরবিহীন : কাজী জাফর | ব্যারিস্টার আনিসুলের বাড়িতে ককটেল হামলা | ১৬ ডিসেম্বরের পর থেকে পাল্টা আঘাত : হানিফ | বিএনপি আসলে এপ্রিলে নির্বাচন : আনন্দবাজার পত্রিকা | সিলেটের কানাইঘটে যুবলীগ নেতা খুন | মিরপুরে পুলিশ খুন, স্ত্রী গ্রেফতার | লালমনিরহাটে সংঘর্ষে উপজেলা শিবির সভাপতিসহ নিহত ৪

স্বাধীনতা স্তম্ভ :কৃত্রিম জলধারায় স্বপ্নিল পরিবেশ

কাঁচের তৈরি, উচ্চতা ১৫০ ফুট

দিদারুল আলম

সবুজ উদ্যান ভেদ করে দাঁড়িয়ে আছে সুউচ্চ এক টাওয়ার। যেন আকাশ ছুঁতে চাইছে। টাওয়ারের তিন পাশে কৃত্রিম জলধারা (ওয়াটার বডি)। দেশ ও দেশের বাইরে এমন দৃষ্টিনন্দন ও উচ্চতা সম্পন্ন গ্লাস টাওয়ার আর দ্বিতীয়টি নেই। রাতে কৃত্রিম আলোর প্রজেকশনে টাওয়ার ও জলধারায় এক স্বপ্নিল ও মায়াময় পরিবেশের জন্ম দেয়।

সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে নির্মিত স্বাধীনতা স্তম্ভ প্রকল্পের এক নব সৃষ্টি এই গ্লাস টাওয়ার। শুধু টাওয়ারই নয় এই প্রকল্পে আরো যুক্ত হয়েছে ভূগর্ভস্থ মিউজিয়াম, ম্যুরাল ও শিখা চিরন্তন। থাকছে লিখিত আকারে ঐতিহাসিক ৭ মার্চে দেয়া জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর সেই ভাষণও। ইস্পাতের কাঠামোর ওপর নির্মিত হয়েছে এই টাওয়ার। দুই দিকে ১৬ ফুট প্রস্থের টাওয়ারটির উচ্চতা ১৫০ ফুট। এর উপরিভাগে রয়েছে স্বচ্ছ কাঁচ। এতে সূর্যের আলো প্রতিসরণ ও প্রতিফলন হয়। রাতে আলোকচ্ছটা তৈরির জন্য রয়েছে বৈদ্যুতিক আলোর ব্যবস্থা। রাতেও কৃত্রিম আলোর প্রজেকশনে টাওয়ার ও নিচের জলধারায় সৃষ্টি হয় এক স্বপ্নিল মায়াময় পরিবেশের। প্রতিদিন সন্ধ্যা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত টাওয়ারটিতে কৃত্রিম আলোর ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। ইতিমধ্যে গ্লাস টাওয়ারকে ঘিরে নগরবাসীর মধ্যে ব্যাপক আগ্রহ ও কৌতূহলের জন্ম দিয়েছে। রাতের বেলায় টাওয়ারে দৃষ্টিনন্দন আলোকচ্ছটা দেখে আজিমপুর থেকে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে এসেছিলেন মাহমুদ সোহেল। টাওয়ারের আলোকচ্ছটা দেখতে মুগ্ধ তিনি। শুধু মাহমুদ নন আরো অনেকেই এমন দৃষ্টিনন্দন টাওয়ারের নির্মাণশৈলী দেখে মুগ্ধ। আগতরা জানান, স্বাধীনতা সংগ্রামের অন্যতম স্মারক স্বাধীনতা স্তম্ভ বাঙালির ইতিহাসে নতুন মাত্রা যোগ করেছে। আর সেই স্বাধীনতা স্তম্ভ প্রকল্পে গ্লাস টাওয়ার মানুষের মাঝে নতুন আগ্রহের জন্ম দেবে। নতুন প্রজন্মকে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস সম্পর্কে জানতে আগ্রহী করে তুলবে।

রমনা রেসকোর্স ময়দান বর্তমানে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান নামে পরিচিত। এই উদ্যানে দাঁড়িয়ে উপস্থিত লাখো জনতার সামনে ১৯৭১ সালের ৭ মার্চ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ঘোষণা দিয়েছিলেন 'এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম'। এখানেই ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর বাংলাদেশের মুক্তিবাহিনী ও ভারতীয় মিত্র বাহিনীর যৌথ কমান্ডের কাছে হানাদার পাকিস্তানি বাহিনী আত্মসমর্পণ করে। আর সেই উদ্যানেই নির্মিত হয়েছে এ কাঁচের টাওয়ার। এ টাওয়ারের নিচেই রয়েছে ভূগর্ভস্থ মিউজিয়াম। এ মিউজিয়ামে স্থান পাবে মহান মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি বিজরিত নানা ঐতিহাসিক ঘটনাবলীর ছবি। টাওয়ারের একপাশে রয়েছে শিখা চিরন্তন।

স্বাধীনতা স্তম্ভ প্রকল্পের মধ্যে শুধু গ্লাস টাওয়ার নির্মাণ ব্যয় প্রায় ১৩৮ কোটি টাকা। আরবানার প্রধান স্থপতি কাশেফ মাহাবুব চৌধুরী ও মেরিনা তাবাসসুম নকশা করেছেন। মুক্তিযুদ্ধের ৩০ লাখ শহীদকে স্মরণ এবং মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিস্মারক সংরক্ষণের লক্ষ্যে ১৯৯৬ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে 'স্বাধীনতা স্তম্ভ' নির্মাণের উদ্যোগ নেন।

প্রকল্প ম্যানেজার মো. শাহাবুদ্দিন ইত্তেফাককে বলেন, পূর্ণাঙ্গ স্বাধীনতা স্তম্ভ নির্মাণ প্রকল্পের কাজ সম্পন্নের পথে। প্রকল্পের মধ্যে গ্লাস টাওয়ারটি হচ্ছে অন্যতম আকর্ষণীয়। এরকম টাওয়ার বিশ্বের আর কোথাও নেই। তিনি বলেন, প্রকল্পের পুরো কাজ সম্পন্ন হওয়ার পর সরকারের সিদ্ধান্ত মোতাবেক স্বাধীনতা স্তম্ভ যথাসময়ে জনগণের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়া হবে।

এই পাতার আরো খবর -
font
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
দলের পক্ষে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেছেন, 'নাটক করার জন্যই আওয়ামী লীগ সংলাপ চালিয়ে যাচ্ছে'। আপনিও কি তাই মনে করেন?
5 + 6 =  
ফলাফল
আজকের নামাজের সময়সূচী
অক্টোবর - ২০
ফজর৪:৪২
যোহর১১:৪৪
আসর৩:৫১
মাগরিব৫:৩২
এশা৬:৪৪
সূর্যোদয় - ৫:৫৮সূর্যাস্ত - ০৫:২৭
archive
বছর : মাস :
The Daily Ittefaq
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: তাসমিমা হোসেন। উপদেষ্টা সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন। ইত্তেফাক গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে তারিন হোসেন কর্তৃক ৪০, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ থেকে প্রকাশিত ও মুহিবুল আহসান কর্তৃক নিউ নেশন প্রিন্টিং প্রেস, কাজলারপাড়, ডেমরা রোড, ঢাকা-১২৩২ থেকে মুদ্রিত। কাওরান বাজার ফোন: পিএবিএক্স: ৭১২২৬৬০, ৮১৮৯৯৬০, বার্ত ফ্যাক্স: ৮১৮৯০১৭-৮, মফস্বল ফ্যাক্স : ৮১৮৯৩৮৪, বিজ্ঞাপন-ফোন: ৮১৮৯৯৭১, ৭১২২৬৬৪ ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭২, e-mail: [email protected], সার্কুলেশন ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭৩। www.ittefaq.com.bd, e-mail: [email protected]
Copyright The Daily Ittefaq © 2014 Developed By :