The Daily Ittefaq
ঢাকা, মঙ্গলবার, ৩১ ডিসেম্বর ২০১৩, ১৭ পৌষ ১৪২০, ২৭ সফর ১৪৩৫
সর্বশেষ সংবাদ বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান এম মোরশেদ খানের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা | ৩ জানুয়ারি জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

কারারুদ্ধ মিসরের গণতন্ত্র

 তালেব রানা

আরব বসন্তের হাওয়া লেগেছিল মিসরেও। জনরোষের মুখে ২০১১ সালে পতন হয় ৩০ বছরের স্বৈরশাসক হোসনি মুবারকের। সেনা বাহিনীর সমর্থনপুষ্ট অন্তর্বর্তীকালীন সরকারের অধীনে পরের বছর মিসরের ইতিহাসে প্রথম গণতান্ত্রিক নির্বাচনে জয়ী হয়ে ক্ষমতায় আসে ইসলামপন্থী দল মুসলিম ব্রাদারহুড। দলটির নেতা মোহাম্মদ মুরসি হন দেশটির ইতিহাসে গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত প্রথম প্রেসিডেন্ট হন। তারপরও স্থির হয়নি মিসরের রাজনৈতিক অঙ্গন।

মুরসির সরকার জনগণের প্রত্যাশা পূরণে ব্যর্থ হয়েছে অভিযোগ তুলে বিক্ষোভ শুরু করে বিরোধীদলগুলো। যে কারণে ক্ষমতায় আসার মাত্র এক বছরের মাথায় সেনা হস্তক্ষেপে ক্ষমতাচ্যুত হয়ে কারাবন্দি হন তিনি। তারপর থেকে একের পর এক আঘাত এসেছে মুরসি ও তার দল ব্রাদারহুডের নেতাকর্মীদের উপর। মুরসির মুক্তির দাবিতে আন্দোলন করতে গিয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে জীবন দিয়েছে ব্রাদারহুডের প্রায় হাজার খানেক নেতা-কর্মী। বিচার চলছে, মুরসিসহ দলের শীর্ষ নেতাদের। সর্বশেষ ২৪ ডিসেম্বর গ্রেফতার করা হয়েছে মুরসি সরকারের প্রধানমন্ত্রী হিশাম কান্দিলকে। আগেই ২৩ সেপ্টেম্বর নিষিদ্ধ করা হয় ইসলামপন্থী সংগঠন মুসলিম ব্রাদারহুডকে। একইসঙ্গে মুসলিম ব্রাদারহুডের সব কার্যক্রম নিষিদ্ধ ও সম্পত্তিও বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। আর সবচেয়ে আলোচিত ঘটনাটি ঘটেছে ২৫ ডিসেম্বর। ওইদিন মুসলিম ব্রাদারহুডকে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে ঘোষণা করেছে দেশটির অন্তর্বর্তীকালীন সরকার। একটি থানায় বোমা হামলায় ১৪ জন নিহত হওয়ার পর সংগঠনটির বিরুদ্ধে এই ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে বলে দাবি ক্ষমতাসীনদের। এখন মিসরজুড়ে চলছে ব্যাপক ধরপাকড়। মিসরের সেনাবাহিনী সমর্থিত বর্তমান সরকার নতুন করে নির্বাচনের রোডম্যাপ আগেই ঘোষণা করেছে। আগামী ৪-৫ জানুয়ারি গণতন্ত্রে ফিরে যাওয়ার জন্য গণভোট অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে দেশটিতে। নিষিদ্ধ হওয়ার কারণে এ গণভোটে ব্রাদারহুডের অংশগ্রহণ অনিশ্চিত। এ পরিস্থিতিতে মিসর যে এখন ক্ষমতার দ্বন্দ্বে বিভক্ত একটি দেশে পরিণত হয়েছে তা সহজেই বলা চলে। আর সবচেয়ে ক্ষমতাধর হিসেবে পুরোনো চেহারায় ফিরে এসেছেন সামরিক জেনারেলরা। অন্যদিকে আশ্চর্যজনকভাবে মুক্তি পেয়েছেন সাবেক স্বৈরশাসক হোসনি মোবারক। গত ২১ আগস্ট কায়রোর কারাগারের কাছের একটি সামরিক হাসপাতাল থেকে তাকে হেলিকপ্টারে করে বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয়। মিসরের কর্তৃপক্ষ বলছে, সাময়িক মুক্তি পেলেও দুই বছর আগের অভ্যুত্থানের সময় বিক্ষোভকারীদের নিহতের ঘটনায় সংশ্লিষ্টতার অভিযোগে তাকে আবার বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হবে। আপাতত তিনি দেশ ছেড়ে যেতে পারবেন না। তাকে এখন গৃহবন্দী থাকতে হবে।

মিসরে মুবারকের সমর্থকের সংখ্যা এখনও কম নয়। তারা আগামী নির্বাচনে প্রেসিডেন্ট পদে মুবারকের সম্ভাব্য প্রতিদ্বন্দ্বিতার বিষয়ে ইতোমধ্যে ফেসবুকে প্রচারণা শুরু করে দিয়েছেন। তাই চলমান এই অস্থিরতার মধ্যে মুবারকের মুক্তি দেশটির সহিংস রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে নতুন মাত্রা যোগ করতে পারে বলে ধারণা করছেন বিশ্লেষকরা। তাদের মতে, মুবারকের মুক্তি উত্তেজনার আগুনে ঘি ঢালবে।

গত ৩ জুলাই প্রেসিডেন্ট মুরসিকে উত্খাতের পর থেকেই ব্রাদারহুডের নেতা-কর্মীদের ওপর সেনা সমর্থিত সরকার কঠোর দমনাভিযান চালিয়ে যাচ্ছে। যেমন আকস্মিকভাবে দলটি ক্ষমতায় এসেছিল, ঠিক তেমনিভাবেই তাদের উত্খাত করে নিষিদ্ধ করার পাশাপাশি দলটির শীর্ষদের নেতাকে আটক করা হয়। তাদের অনেকেরই বিচার শুরু হয়েছে। খোদ মুরসির বিচার শুরু হয়েছে ২০১২ সালের শেষদিকে বিরোধীদের বিক্ষোভ দমনে হত্যাযজ্ঞ চালানো ও সহিংসতা উস্কে দেওয়ার অভিযোগে। এছাড়া কারাগার থেকে পলায়ন ও ২০১১ সালে পুলিশ হত্যার অভিযোগেও তাকেসহ ১৩২ জনের বিরুদ্ধে বিচার হবে বলে ২১ ডিসেম্বর ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। অথচ মুরসি ৫২ শতাংশ ভোটে প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েছিলেন। এত কিছুর পরও ব্রাদারহুড বলছে, তাদের অস্তিত্ব মিসরের মাটিতে সব সময়ই থাকবে। ব্রাদারহুড মিসরীয় সমাজেরই অবিচ্ছেদ্য অংশ।

font
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, 'বিরোধীদল সরকারের বিরুদ্ধে নয়, জনগণের বিরুদ্ধে আন্দোলন করছে।' আপনিও কি তাই মনে করেন?
8 + 4 =  
ফলাফল
আজকের নামাজের সময়সূচী
অক্টোবর - ১৯
ফজর৪:৪২
যোহর১১:৪৪
আসর৩:৫২
মাগরিব৫:৩৩
এশা৬:৪৪
সূর্যোদয় - ৫:৫৭সূর্যাস্ত - ০৫:২৮
archive
বছর : মাস :
The Daily Ittefaq
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: তাসমিমা হোসেন। উপদেষ্টা সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন। ইত্তেফাক গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে তারিন হোসেন কর্তৃক ৪০, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ থেকে প্রকাশিত ও মুহিবুল আহসান কর্তৃক নিউ নেশন প্রিন্টিং প্রেস, কাজলারপাড়, ডেমরা রোড, ঢাকা-১২৩২ থেকে মুদ্রিত। কাওরান বাজার ফোন: পিএবিএক্স: ৭১২২৬৬০, ৮১৮৯৯৬০, বার্ত ফ্যাক্স: ৮১৮৯০১৭-৮, মফস্বল ফ্যাক্স : ৮১৮৯৩৮৪, বিজ্ঞাপন-ফোন: ৮১৮৯৯৭১, ৭১২২৬৬৪ ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭২, e-mail: ittefaq.adsection@yahoo.com, সার্কুলেশন ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭৩। www.ittefaq.com.bd, e-mail: ittefaqpressrelease@gmail.com
Copyright The Daily Ittefaq © 2014 Developed By :