The Daily Ittefaq
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৩ জানুয়ারি ২০১৩, ২০ পৌষ ১৪১৯, ২০ সফর ১৪৩৪
সর্বশেষ সংবাদ নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে আবারও জনসেবার সুযোগ দিন : প্রধানমন্ত্রী | পদ্মা দুর্নীতি: রিমান্ড শেষে মোশারফ-ফেরদৌস কারাগারে | ভারতের মাটিতে পাকিস্তানের সিরিজ জয় | সংসদীয় আসনের সীমানা নির্ধারণের কাজ প্রায় শেষের পথে: সিইসি | ঢাকার দুই সিটি নির্বাচন করতে আইনগত বাধা নেই: সিইসি | স্কাইপে কথোপকথন:জিয়াউদ্দিনের কাছে ব্যাখ্যা চেয়েছে ট্রাইব্যুনাল | জামায়াত নেতা তাহের ৭ দিনের রিমান্ডে | আরো দুই মামলায় মির্জা ফখরুলকে রিমান্ডের আবেদন | কুমারখালিতে সড়ক দুর্ঘটনায় কলেজ ছাত্র নিহত | মার্কিন ড্রোন হামলায় পাক জঙ্গি নেতা নিহত | হাসপাতাল ছেড়েছেন হিলারি | সাতক্ষীরায় বাস খাদে, নিহত ১ | কুষ্টিয়ায় ডাকাত সন্দেহে গণপ্রহার, নিহত ২ | সুইজারল্যান্ডে বন্দুকধারীর গুলিতে ৩ জন নিহত

বাণিজ্যিক ব্যাংকের মুনাফার কারসাজিতদন্ত করবে বাংলাদেশ ব্যাংক

সাইদুল ইসলাম

বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো তাদের মুনাফা দেখানোর ক্ষেত্রে কোন কারসাজি করছে কিনা তা খতিয়ে দেখবে বাংলাদেশ ব্যাংক। গতবছর অর্থিক খাতে মন্দা বিরাজ করার পরও সমাপ্ত বছরে ব্যাংকগুলোর মুনাফা বেড়ে যাবার বিষয়টি ভাবিয়ে তুলছে নিয়ন্ত্রক প্রতিষ্ঠান কেন্দ্রীয় ব্যাংককে। খুব শিগগিরই কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ১০ থেকে ১২টি দল মাঠে নেমে মুনাফার বিষয়টি পর্যালোচনা করবে। জানা গেছে, খেলাপি ঋণ গোপন করে অথবা বাড়িয়ে মুনাফা দেখানোর মাধ্যমে কোন ব্যাংক বিশেষ সুবিধা নিচ্ছে কিনা তা পর্যালোচনা করে সংশ্লিষ্ট ব্যাংকগুলোর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের দায়িত্বশীল সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

জানা গেছে, প্রচলিত নীতিমালা অনুযায়ী একটি ব্যাংকের খেলাপি ঋণ যত বেশি থাকে ওই ব্যাংকের নিট বা প্রকৃত মুনাফা তত কমে যায়। খেলাপি ঋণের বিপরীতে প্রভিশন সংরক্ষণের বাধ্যবাধকতা মেনে চললে কোন ব্যাংকের বেশি মুনাফা হবার কথা নয়। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের একজন কর্মকর্তা ইত্তেফাককে এ বিষয়ে বলেছেন, একটি ব্যাংক বছর শেষে ১০০ কোটি টাকা পরিচালনা মুনাফা করলে তা থেকে প্রথমেই সাড়ে ৪২ শতাংশ কর্পোরেট ট্যাক্স পরিশোধ করতে হয়। এছাড়া পরিচালন মুনাফা থেকে বিধিবদ্ধ সঞ্চিতি বা সংরক্ষিত রিজার্ভ রাখতে হয় ২০ শতাংশ। বাকি থাকে সাড়ে ৩৭ কোটি টাকা। এর মধ্যে জেনারেল রিজার্ভ রাখতে হয় আরো ১ শতাংশ। বাকি ৩৬ কোটি টাকা থেকে সংরক্ষণ করতে হয় ঋণের নিরাপত্তা বা সঞ্চিতি।

জানা গেছে, যে ব্যাংকের খেলাপি ঋণ যত বেশি সেই ব্যাংকের প্রভিশনও সংরক্ষণ করতে হয় সে হারে। কোনো ব্যাংকের ৩০০ কোটি টাকা ঋণের মধ্যে ১০০ কোটি টাকা খেলাপি হলে ঋণের শ্রেণী-বিভাগ অনুয়ায়ী সে ব্যাংককে প্রভিশন সংরক্ষণ করতে হয়। বাংলাদেশ ব্যাংকের ওই সূত্র বলছে, ঋণ নিম্নমান হলে ওই ঋণের বিপরীতে ২০ শতাংশ, সন্দেহজনক হলে ওই ঋণের বিপরীতে ৫০ শতাংশ এবং মন্দ বা কু-ঋণ হলে ওই ঋণের বিপরীতে ১০০ শতাংশ প্রভিশন সংরক্ষণ করতে হয়।

কোনো ব্যাংক ১০০ কোটি টাকা পরিচালন মুনাফা করলে কর, বিধিবদ্ধ সঞ্চিতি ও জেনারেল রিজার্ভ সংরক্ষণ করার পর বাকি থাকে সাড়ে ৩৬ কোটি টাকা। খেলাপি ঋণের কারণে ওই ব্যাংকের প্রভিশন সংরক্ষণ করতে যদি ১৫ কোটি টাকা চলে যায় তাহলে বাকি থাকে সাড়ে ১৬ কোটি টাকা। এই সাড়ে ১৬ কোটি টাকা থেকে আবার অনেক ব্যাংক তাদের ব্যাংকের মূলধন বাড়ানোর জন্য ২ থেকে ৩ শতাংশ রিজার্ভে রেখে দেয়। এরপর বাকি থাকে সাড়ে ১৪ কোটি টাকা। অর্থাত্ কোনো ব্যাংক ১০০ কোটি টাকা পরিচালন মুনাফা করলে সব বাদ দিয়ে শেয়ারহোল্ডারদের জন্য থাকবে মাত্র সাড়ে ১৪ কোটি টাকা। এই সাড়ে ১৪ কোটি টাকার ভাগিদার হলেন ব্যাংকের শেয়ারহোল্ডার ও পরিচালকরা। এই সাড়ে ১৪ কোটি টাকার ওপরই ব্যাংক ডিভিডেন্ড ঘোষণা করলে তার অধিকাংশেরই সুবিধাভোগী হন পরিচালকরা।

জানা গেছে, অতিরিক্ত মুনাফা দেখালে কয়েকটি ক্ষেত্রে সরাসরি প্রভাব পড়ে। প্রথমত বেশি মুনাফা করলে পুঁজিবাজারের সংশ্লিষ্ট ব্যাংকের শেয়ারের দর চাঙ্গা হয়। এতে প্রতারিত হয় সাধারণ বিনিয়োগকারীরা। আমানতকারীরাও ভুল তথ্যের ওপর ভিত্তি করে সংশ্লিষ্ট ব্যাংকে আমানত রাখতে প্রলুব্ধ হন। এর সরাসরি সুবিধাভোগী হন ব্যাংক পরিচালকরা। কেন্দ্রীয় ব্যাংক সূত্র জানিয়েছে, অতীতে প্রকৃত খেলাপি ঋণ গোপন করাসহ নানা কারসাজির আশ্রয় নিয়ে অতিরিক্ত মুনাফা দেখিয়ে অনৈতিক সুবিধা নেয়ার প্রমাণ পাওয়া গেছে। এবার অর্থনৈতিক মন্দা ও ব্যাংকগুলোর তীব্র তারল্য সংকটসহ খেলাপি ঋণ বেড়ে যাওয়ার পরও বেশিরভাগ ব্যাংকের পরিচালন মুনাফা গত বছরের চেয়ে বেশি হওয়ার বিষয়টি ভাবিয়ে তুলছে কেন্দ্রীয় ব্যাংককে। বাংলাদেশ ব্যাংকের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, গত বছর জুড়েই ব্যাংকগুলোতে তীব্র তারল্য সংকট ছিল। এর পাশাপাশি বিদ্যুত্-গ্যাসসহ অবকাঠামো সুবিধার অভাবে বিনিয়োগ স্থবির ছিল। বছরের শেষ সময় সোনালী ব্যাংকের হলমার্ক কেলেঙ্কারি ধরা পড়ার পর ব্যাংকের মাধ্যমে আমদানি রফতানি কার্যক্রম প্রায় বন্ধ হয়ে যায়। গত সেপ্টেম্বরের হিসেবে বেশিরভাগ ব্যাংকের নিট মুনাফা কম হয়েছে। ওই কর্মকর্তা জানিয়েছেন, অচিরেই ব্যাংকগুলো তাদের অনিরীক্ষিত হিসাব বাংলাদেশ ব্যাংকের কাছে পাঠাবে। একইসঙ্গে ওই হিসাব শেয়ারবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের মাধ্যমে ঢাকা ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের মাধ্যমে বিনিয়োগকারীদের জানাবে। এর পরই বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে ব্যাংকগুলোর অতিরিক্ত মুনাফা খতিয়ে দেখতে তদন্ত দল মাঠে পাঠাবে।

এই পাতার আরো খবর -
font
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
তত্ত্বাবধায়ক নিয়ে প্রকাশ্যে আলোচনা করতে বলেছেন খালেদা জিয়া। আপনি তার এ বক্তব্য সমর্থন করেন?
4 + 1 =  
ফলাফল
আজকের নামাজের সময়সূচী
সেপ্টেম্বর - ২২
ফজর৪:৩২
যোহর১১:৫২
আসর৪:১৪
মাগরিব৫:৫৮
এশা৭:১১
সূর্যোদয় - ৫:৪৭সূর্যাস্ত - ০৫:৫৩
archive
বছর : মাস :
The Daily Ittefaq
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: তাসমিমা হোসেন। উপদেষ্টা সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন। ইত্তেফাক গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে তারিন হোসেন কর্তৃক ৪০, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ থেকে প্রকাশিত ও মুহিবুল আহসান কর্তৃক নিউ নেশন প্রিন্টিং প্রেস, কাজলারপাড়, ডেমরা রোড, ঢাকা-১২৩২ থেকে মুদ্রিত। কাওরান বাজার ফোন: পিএবিএক্স: ৭১২২৬৬০, ৮১৮৯৯৬০, বার্ত ফ্যাক্স: ৮১৮৯০১৭-৮, মফস্বল ফ্যাক্স : ৮১৮৯৩৮৪, বিজ্ঞাপন-ফোন: ৮১৮৯৯৭১, ৭১২২৬৬৪ ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭২, e-mail: [email protected], সার্কুলেশন ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭৩। www.ittefaq.com.bd, e-mail: [email protected]
Copyright The Daily Ittefaq © 2014 Developed By :