The Daily Ittefaq
ঢাকা, শনিবার, ৫ জানুয়ারি ২০১৩, ২২ পৌষ ১৪১৯, ২২ সফর ১৪৩৪
সর্বশেষ সংবাদ 'যুক্তরাষ্ট্র জিএসপি সুবিধার বিষয়টি বিবেচনা করবে' | নারী শিবির সন্দেহে আটক ৭ | তাজরীনের মালিককে গ্রেফতারের দাবি | রাজধানীতে ১২টি গাড়িতে অগ্নিসংযোগ | মালালাকে সম্মাননা জানাতে মার্কিন কংগ্রেসে বিল উত্থাপন | 'চুরি ও দুর্নীতির কারণেই বাড়াতে হয়েছে তেলের দাম' | দিল্লিতে গণধর্ষণ : ঘটনার বর্ণনা দিলেন মেয়েটির বন্ধু

কলারোয়ায় পাখি শিকারীদের ঠেকানোর কেউ নেই

কলারোয়া (সাতক্ষীরা) সংবাদদাতা

ঘন কুয়াশার মধ্যে কলারোয়ায় চোরা পাখি শিকারীদের দৌরাত্ম্য বৃদ্ধি পেয়েছে। উপজেলার বিভিন্ন হাওড়- বাঁওড়, নদ-নদীর তীর ও চিংড়ি ঘেরে এরা এয়ারগান বা পাখি মারার ফাঁদ নিয়ে ঘুরে বেড়ায়। প্রতিদিন কয়েকশ' পাখি নিধন হচ্ছে এদের হাতে। হাট-বাজারেও এসব পাখি বিক্রি হচ্ছে দেদার।

উন্মুক্ত জলাশয় ও নদী তীরবর্তী এলাকার বাসিন্দারা জানান, চোরা শিকারীর সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় পাখি নিধনের হারও বেড়েছে। এয়ারগান দিয়ে পাখি শিকারের পাশাপাশি জাঁতিকল, বিষটোপ, ঘুমের ওষুধ, ফাঁস জালসহ নানা পন্থায় এসব পাখি শিকার করা হয়। স্থানীয় ক্রেতাদের মধ্যে এসব পাখির চাহিদা যথেষ্ট। চাহিদার কারণে এগুলো ২০০ থেকে ৫০০ টাকায় পর্যন্ত বিক্রি হচ্ছে। গ্রামবাসীরা জানান, সাদা ধড় বক, কটে বক, কুঁচ বক, পানকৌড়ি, বিল বাঁকচোসহ কাঁগ, বালিহাঁসসহ নানা জাতের পাখি এসব শিকারীর হাতে ধরা পড়ছে।

এলাকাবাসী জানান, চিংড়ি ঘেরের মধ্যে মাটির ঢিবি তৈরি করে সেখানে জাঁতিকল পেতে রাখা হয়। আগেই শিকার হওয়া দু'-একটি পাখি বেঁধে রাখার পর বাইরে থেকে পাখি এসে বসলেই জাঁতিকলে আটকা পড়ে। তারা জানান, ফুরাডান জাতীয় কীটনাশক পুঁটি বা ছোট ছোট মাছের মুখের মধ্যে ঢুকিয়ে চিংড়ি ঘেরের ভেড়ীর ওপর রেখে দেয়া হয়। বকসহ বিভিন্ন পাখি ওই মাছ খেয়ে কিছুক্ষণ পর মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। এ সময় তারা পাখিগুলো কুড়িয়ে নেয়। এছাড়া অনেকে রাতের বেলা এয়ারগান ব্যবহারের পাশাপাশি লাইসেন্সকৃত আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে প্রতিদিন অসংখ্য পাখি শিকার করছে। আইন প্রয়োগকারী সংস্থার নজর এড়িয়ে এভাবে পাখি শিকার চলছে অবাধে।

১৯৭২ সালের সরকারি অধ্যাদেশ অনুযায়ী বন্য প্রাণী সংরক্ষণ আইনে পাখি শিকার দণ্ডনীয় অপরাধ। কিন্তু এ আইনের তোয়াক্কা করছে না কেউ। পাখি শিকার বন্ধে প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রচারণা চালানো ও শিকার কাজে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা না নেয়ায় শিকারীর সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে।

পরিবেশ রক্ষা আন্দোলনের নেতারা জানান, শিকারীদের দৌরাত্ম্যে গত কয়েক বছরে অতিথি পাখির আগমন আশংকাজনক হারে হরাস পেয়েছে। পাখি শিকারের বিষয়ে আইন রয়েছে জেনেও যথাযথ কর্তৃপক্ষের উদাসীনতার কারণে শিকারীদের দৌরাত্ম্য এতটুকু কমছে না।

উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডাক্তার স্বপন কুমার জানান, বিষয়টি বন বিভাগের কার্যক্রমের মধ্যে পড়ে। তারপরও সকলকে পাখি শিকার বন্ধে ভূমিকা রাখা উচিত।

সাতক্ষীরা রেঞ্জের সহকারী বন সংরক্ষক মোঃ তৌফিকুল ইসলাম জানান, পরিযায়ী পাখি শিকারের বিষয়টি দেখার দায়িত্ব সামাজিক বনায়নের সাথে জড়িতদের।

এই পাতার আরো খবর -
font
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
এবার একুশে বইমেলায় কোন সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক সংগঠন স্টল দিতে পারবে না। বাংলা একাডেমীর এই সিদ্ধান্ত যৌক্তিক বলে মনে করেন?
5 + 7 =  
ফলাফল
আজকের নামাজের সময়সূচী
আগষ্ট - ২০
ফজর৪:১৬
যোহর১২:০২
আসর৪:৩৬
মাগরিব৬:৩১
এশা৭:৪৭
সূর্যোদয় - ৫:৩৬সূর্যাস্ত - ০৬:২৬
archive
বছর : মাস :
The Daily Ittefaq
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: তাসমিমা হোসেন। উপদেষ্টা সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন। ইত্তেফাক গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে তারিন হোসেন কর্তৃক ৪০, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ থেকে প্রকাশিত ও মুহিবুল আহসান কর্তৃক নিউ নেশন প্রিন্টিং প্রেস, কাজলারপাড়, ডেমরা রোড, ঢাকা-১২৩২ থেকে মুদ্রিত। কাওরান বাজার ফোন: পিএবিএক্স: ৭১২২৬৬০, ৮১৮৯৯৬০, বার্ত ফ্যাক্স: ৮১৮৯০১৭-৮, মফস্বল ফ্যাক্স : ৮১৮৯৩৮৪, বিজ্ঞাপন-ফোন: ৮১৮৯৯৭১, ৭১২২৬৬৪ ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭২, e-mail: [email protected], সার্কুলেশন ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭৩। www.ittefaq.com.bd, e-mail: [email protected]
Copyright The Daily Ittefaq © 2014 Developed By :