The Daily Ittefaq
ঢাকা, রবিবার, ০৫ জানুয়ারি ২০১৪, ২২ পৌষ ১৪২০, ০৩ রবিউল আওয়াল ১৪৩৫
সর্বশেষ সংবাদ বেসরকারিভাবে প্রাপ্ত ফলাফল: আওয়ামী লীগ (নৌকা) ১০৩টি, জাতীয় পার্টি (লাঙ্গল) ১২টি, অন্যান্য ২২টি

দেবযানী খোবড়াগাড়ে উপাখ্যান : ভারত-যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্কের অগ্নিপরীক্ষা

অঞ্জয় রায় চৌধুরী

ভারতের সিনিয়র কূটনীতিক দেবযানি খোবড়াগাড়ের গ্রেফতারকে কেন্দ্র করে গত কয়েক সপ্তাহে ভারত ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে অনেক কিছুই ঘটেছে। কিন্তু মুখ্য প্রশ্ন হল, এই ঘটনা দীর্ঘমেয়াদে ভারত-যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্ককে কি ক্ষতিগ্রস্ত করবে? এই এক প্রশ্ন হাজার প্রশ্নের জন্ম দিয়েছে।

ভারতের বাণিজ্য ও শিল্পমন্ত্রী আনন্দ শর্মা মনে করেন, দেবযানি খোবড়াগাড়েকে নিয়ে ভারত ও যুক্তরাষ্ট্রের চলমান মতপ্রার্থক্য বন্ধুপ্রতীম দুই দেশের ব্যবসা-বাণিজ্যের ওপর কোন নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে না। তার মতে, ' দেবযানির প্রতি দুর্ব্যবহারের মাধ্যমে ভারতকে দারুণ অপমানিত করা হয়েছে সত্য। কিন্তু যুক্তরাষ্ট্রের সাথে আমাদের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক তার চেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। বিশ্বের বৃহত্ দুই গণতান্ত্রিক দেশ দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়ায় কৌশলগত অংশীদার। কৌশলগত বলতে অনেক কিছুই বোঝায়। সুতরাং আমরা নিষ্ক্রীয় নই। এই সম্পর্ক আরও জোরদার ও শক্তিশালী হবে।' আনন্দ শর্মা আরও মনে করেন, ' উন্নত ও পূর্ণ গণতান্ত্রিক দেশে যে কোন ইস্যু সঠিকভাবে নির্ণয় ও যাচাইবাছাই করা হয়। কোন কিছু অন্তরালে রেখে করা হয় না। সত্যিকার অর্থে এভাবেই গড়ে ওঠে অংশীদারিত্ব।' যুক্তরাষ্ট্র ও ভারতের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য বৃদ্ধি পেয়েছে। ২০১১-১২ অর্থবছরে এটা ছিল ৫৮ দশমিক ১৯ বিলিয়ন ডলার। ২০১২-১৩ অর্থবছরে তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬১ দশমিক ৩৫ বিলিয়ন ডলার। এপ্রিল ২০০০ ও সেপ্টেম্বর ২০১৩ সালের মধ্যে ভারত যুক্তরাষ্ট্র থেকে ১১ দশমিক ৬২ বিলিয়ন ডলার প্রত্যক্ষ বৈদেশিক বিনিয়োগ লাভ করেছে। এই সময়কালে ভারতের মোট বৈদেশিক বিনিয়োগের এটা ৬ ভাগ। যুক্তরাষ্ট্রের সাথে ভারতের সামরিক ও সন্ত্রাসবাদবিরোধী লড়াইয়ে সহযোগিতাও বেড়ে চলেছে।

অন্যদিকে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সালমান খুরশিদ বলেন, 'নিউইয়র্কে ভারতীয় কূটনীতিকের সাথে দুর্ব্যবহারের বিষয়টি ভারত ও যুক্তরাষ্ট্র মীমাংসার চেষ্টা করছে। দুই দেশের জনগণ চান না এই একটি ঘটনাকে কেন্দ্র করে তাহাদের মধ্যে গড়ে উঠা ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক নষ্ট হোক। যুক্তরাষ্ট্রের সাথে আমাদের ব্যতিক্রমী ও মূল্যবান সম্পর্ক বিদ্যমান। আমি বিশ্বাস করি, আমাদের ব্যাপারেও যুক্তরাষ্ট্রের একই মনোভাব বিরাজমান। অংশীদারিত্বের মূল্য আমাদের অবশ্যই বোঝা উচিত্।' উল্লেখ্য, গৃহপরিচারিকা সঙ্গীতা রিচার্ডের ভিসার আবেদনে তথ্য জালিয়াতি এবং তাকে নির্ধারিত হারের চেয়ে কম মজুরি দেয়ার অভিয়োগে গত ১২ ডিসেম্বর ভারতের নিউইয়র্ক কনস্যুলেটের ডিপুটি কনসাল জেনারেল দেবযানি খোবরাগাড়েকে আটক করা হয়। তখন তিনি মেয়েকে স্কুলে নিয়ে যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে নিউইয়র্ক পুলিশ তাকে হাতকড়া পরায় এবং সাধারণ অপরাধী ও সন্ত্রাসীর ন্যায় বিবস্ত্র করে দেহ তল্লাশি করে। এমনকি আটকের পর তাকে রাখা হয় মাদকাসক্তদের সাথে। এই ঘটনায় ভারত যারপরনাই মর্মাহত হয় ও ফুঁসে ওঠে। একজন কূটনীতিকের সাথে এরূপ দুর্ব্যবহার সত্যিই ন্যক্কারজনক ও কূটনৈতিক শিষ্টাচারের লংঘন। নয়াদিল্লী এর প্রতিশোধ হিসেবে ভারতে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের কূটনীতিক ও তাদের পরিবার-পরিজনের অনেক সুযোগ-সুবিধা প্রত্যাহার করে নেয়। যেমন- তাদের এয়ারপোর্ট পাস প্রত্যাহার করার পাশাপাশি কূটনৈতিক পরিচয়পত্র জমা দেয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়। ভারতের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা শিবশঙ্কর মেনন এই দুর্ভাগ্যজনক ঘটনাকে 'জঘন্য' ও 'বর্বরোচিত' হিসেবে আখ্যায়িত করেন। তাছাড়া যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে পাল্টা পদক্ষেপের অংশ হিসেবে ভারত নয়াদিল্লীস্থ মার্কিন দূতাবাসের সামনে থেকে নিরাপত্তা ব্যারিকেড বুলডোজার দিয়ে তুলে নেয়। যুক্তরাষ্ট্রের কূটনীতিকরা বিভিন্ন দেশে বিশেষ সম্মান পেয়ে থাকেন। অথচ ওয়াশিংটনে বিভিন্ন দেশের কূটনীতিকদের যে সম্মান দেখানো হয় সেই তুলনায় তা কিছুই নয়। যুক্তরাষ্ট্রের যেসব পুলিশ কর্মকর্তা দেবযানি খোবড়াগাড়েকে গ্রেফতার করেন ও তার সাথে দুর্ব্যবহার করেন, পরবর্তীতে ভারতে এ নিয়ে যে তুমুল বিতর্কের ঝড় উঠবে তারা তা উপলদ্ধি করতে ব্যর্থ হন বলেই মনে হচ্ছে। ভারত এসব পদক্ষেপের মাধ্যমে বোঝাতে চেয়েছে যে, যুক্তরাষ্ট্র মৌলিক কূটনৈতিক সৌজন্যতা প্রকাশ না করে কাজটি ভাল করেনি।

এই ঘটনায় ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সালমান খুরশিদ আশা করেন, এই দুঃখজনক বিষয়টির ফয়সালা হবে খুব শিগগির। এখন ভারত চায় দেবযানি খোবড়াগাড়ের বিরুদ্ধে আনা মিথ্যা মামলা বিনাশর্তে তুলে নেয়া হোক। কিন্তু যুক্তরাষ্ট্র তারপরও অনড় ও অবিচল রয়েছে। যাহোক, ইতোমধ্যে দেবযানিকে পদোন্নতি দেয়ায় বর্তমানে তিনি জাতিসংঘে অবস্থিত ভারতীয় স্থায়ী মিশনের কূটনীতিক। বলাবাহুল্য, এই পদোন্নতি প্রদানও পাল্টা ব্যবস্থা গ্রহণের অংশ স্বরূপ। এর ফলে তিনি করপ্রদানসহ বিভিন্ন অনাকাঙ্খিত আচরণ থেকে অব্যাহতি লাভ করবেন। আশা করা হচ্ছে, এরপর যুক্তরাষ্ট্রের স্টেট ডিপার্টমেন্ট তাকে একটি নতুন পরিচয়পত্র প্রদান করবে এবং তিনি কিছুদিনের মধ্যেই তার পাসপোর্ট ফিরে পাবেন। তার বিরুদ্ধে কোন মামলা রুজু করা যাবে না। কিংবা তাকে আদালতে হাজির হতে হবে না। তিনি ভারতেও ফিরে আসতে পারবেন।

ওবামা প্রশাসন ভারত-যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্কোন্নয়নে আগ্রহী। পররাষ্ট্র দফতরের ডেপুটি মুখপাত্র ম্যারি হার্ফ সমপ্রতি বলেছেন, 'পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় দুই দেশের সম্পর্ককে এগিয়ে নিতে গুরুত্ব দিচ্ছে। আমরা সর্বদা সকল বিষয়ে একসাথে কাজ করছি। আমরা মনে করি, ব্যক্তিগত কূটনৈতিক সংলাপ শুরুর এটাই উপযুক্ত সময়। ভারত সরকারের সাথে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে কাজ করতে আমরা অবশ্যই প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।' ম্যারি হার্ফ দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কোন্নয়নের ক্ষেত্রে সমপ্রতি ভারতে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত ন্যান্সি পাওয়েলের হায়দারাবাদ সফরের উদাহরণও টেনে আনেন। তিনি বলেন, 'আমরা ভারত সরকারের সকল অনুরোধ কাজে পরিণত করতে আলাপ-আলোচনা ও পর্যালোচনা করছি। এসব বিষয়ে আমরা তাদের সাথে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করে চলেছি।' পররাষ্ট্র দফতরের মুখপাত্রের এই পদক্ষেপের পর আশা করি, খুব শিগগির দেবযানি নাটকের যবনাকিপাত ঘটবে।

ইংরেজি থেকে ভাষান্তর : ফাইজুল ইসলাম

font
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
পরিবেশ মন্ত্রী হাছান মাহমুদ বলেছেন, '৫ জানুয়ারি নির্বাচন পরবর্তী দুই সপ্তাহের মধ্যে চলমান সন্ত্রাস নির্মূল করা হবে।' আপনি কি মনে করেন এটা সম্ভব হবে?
1 + 4 =  
ফলাফল
আজকের নামাজের সময়সূচী
জুন - ১৬
ফজর৩:৪৩
যোহর১১:৫৯
আসর৪:৩৯
মাগরিব৬:৫০
এশা৮:১৫
সূর্যোদয় - ৫:১০সূর্যাস্ত - ০৬:৪৫
archive
বছর : মাস :
The Daily Ittefaq
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: তাসমিমা হোসেন। উপদেষ্টা সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন। ইত্তেফাক গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে তারিন হোসেন কর্তৃক ৪০, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ থেকে প্রকাশিত ও মুহিবুল আহসান কর্তৃক নিউ নেশন প্রিন্টিং প্রেস, কাজলারপাড়, ডেমরা রোড, ঢাকা-১২৩২ থেকে মুদ্রিত। কাওরান বাজার ফোন: পিএবিএক্স: ৭১২২৬৬০, ৮১৮৯৯৬০, বার্ত ফ্যাক্স: ৮১৮৯০১৭-৮, মফস্বল ফ্যাক্স : ৮১৮৯৩৮৪, বিজ্ঞাপন-ফোন: ৮১৮৯৯৭১, ৭১২২৬৬৪ ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭২, e-mail: [email protected], সার্কুলেশন ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭৩। www.ittefaq.com.bd, e-mail: [email protected]
Copyright The Daily Ittefaq © 2014 Developed By :