The Daily Ittefaq
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১০ জানুয়ারি ২০১৩, ২৭ পৌষ ১৪১৯, ২৭ সফর ১৪৩৪
সর্বশেষ সংবাদ ভারতে ট্রাক দুর্ঘটনায় ২৫ জন নিহত | ডিএসই: সূচক বেড়েছে ১০ পয়েন্ট | শ্যাভেজের বিলম্বিত অভিষেক বৈধ: আদালত | আজ বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস | ১০ ঘন্টা পর মাওয়ায় ফেরি চালু

ইজতেমার নানা বিষয়

ইজতেমার প্রথমপর্বে ৩২টি এবং দ্বিতীয় পর্বে ৩২টি জেলার মুসল্লিরা অংশ নিবেন

এবারের দুইপর্বের ইজতেমায় অংশ নেয়ার জন্য পুরো ইজতেমা ময়দানকে জেলাওয়ারি নির্দিষ্ট খিত্তায় ভাগ করা হয়েছে। প্রথমপর্বে ৩২টি জেলার ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা বিশাল চটের প্যান্ডেলের অভ্যন্তরে ৪০টি খিত্তায় অবস্থান নিবেন। এসব জেলা হচ্ছে ১ ও ২ নং খিত্তায় গাজীপুর জেলা, ৩ থেকে ১২ নং খিত্তায় ঢাকা জেলা, ১৩ নং নম্বর খিত্তায় সিরাজগঞ্জ জেলা, ১৪ নং খিত্তায় নরসিংদী জেলা, ১৫ নং খিত্তায় ফরিদপুর জেলা, ১৬ নং খিত্তায় রাজবাড়ী জেলা, ১৭ নং খিত্তায় শরিয়তপুর জেলা, ১৮ নং খিত্তায় কিশোরগঞ্জ জেলা, ১৯ নং খিত্তায় রংপুর জেলা, ২০ নং খিত্তায় নাটোর জেলা, ২১ নং খিত্তায় শেরপুর জেলা, ২২ নং খিত্তায় রাজশাহী জেলা, ২৩ নং খিত্তায় গাইবান্ধা জেলা, ২৪ নং খিত্তায় জয়পুরহাট জেলা, ২৫ নং খিত্তায় লালমনিরহাট জেলা, ২৬ নং খিত্তায় হবিগঞ্জ জেলা, ২৭ নং খিত্তায় দিনাজপুর জেলা, ২৮ নং খিত্তায় সিলেট জেলা, ২৯ নং খিত্তায় চাঁদপুর জেলা, ৩০ নং খিত্তায় ফেনী জেলা, ৩১ নং খিত্তায় চট্টগ্রাম জেলা, ৩২ নং খিত্তায় রাঙ্গামাটি, খাগড়াছড়ি ও বান্দরবান জেলা, ৩৩ নং খিত্তায় বাগেরহাট জেলা, ৩৪ নং খিত্তায় কুষ্টিয়া জেলা, ৩৫ নং খিত্তায় নড়াইল জেলা, ৩৬ নং খিত্তায় চুয়াডাঙ্গা জেলা, ৩৭ নং খিত্তায় যশোর জেলা, ৩৮ নং খিত্তায় ভোলা জেলা, ৩৯ নং খিত্তায় বরগুনা জেলা ও ৪০ নং খিত্তায় ঝালকাঠি জেলা । এছাড়া জেলার মহানগরগুলোর জন্য আলাদা খিত্তা রয়েছে।

ইজতেমার দ্বিতীয়পর্বে যেসব জেলা অংশ নিবে

১৮ জানুয়ারি শুরু হওয়া ইজতেমার দ্বিতীয়পর্বে বাকি ৩২টি জেলার মুসল্লিরা ৩৮টি খিত্তায় অবস্থান নিবেন। খিত্তা অনুযায়ী এসব জেলা হচ্ছে—১ ও ২ নং খিত্তায় নারায়ণগঞ্জ জেলা, ৩ ও ৪ নং খিত্তায় ঢাকা জেলা, ৫ নং খিত্তায় কক্সবাজার জেলা, ৬ নং খিত্তায় মানিকগঞ্জ জেলা, ৭ নং খিত্তায় জামালপুর জেলা, ৮ নং খিত্তায় পটুয়াখালী জেলা, ৯ নং খিত্তায় পিরোজপুর জেলা, ১০ নং খিত্তায় টাঙ্গাইল জেলা, ১১ নং খিত্তায় নেত্রকোনা জেলা, ১২ নং খিত্তায় বরিশাল জেলা, ১৩ নং খিত্তায় ঝিনাইদহ জেলা, ১৪ নং খিত্তায় মেহেরপুর জেলা, ১৫, ১৬ ও ১৭ নং খিত্তায় ময়মনসিংহ জেলা, ১৮ নং খিত্তায় কুমিল্লা জেলা, ১৯ নং খিত্তায় লক্ষ্মীপুর জেলা, ২০ নং খিত্তায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা, ২১ নং খিত্তায় কুড়িগ্রাম জেলা, ২২ নং খিত্তায় নোয়াখালী জেলা, ২৩ নং খিত্তায় নীলফামারী জেলা, ২৪ নং খিত্তায় ঠাকুরগাঁও জেলা, ২৫ নং খিত্তায় পঞ্চগড় জেলা, ২৬ নং খিত্তায় চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা, ২৭ নং খিত্তায় বগুড়া জেলা, ২৮ নং খিত্তায় পাবনা জেলা, ২৯ নং খিত্তায় নওগাঁ জেলা, ৩০ ও ৩১ নং খিত্তায় মুন্সিগঞ্জ জেলা, ৩২ নং খিত্তায় মাদারীপুর জেলা, ৩৩ নং খিত্তায় গোপালগঞ্জ জেলা, ৩৪ নং খিত্তায় সাতক্ষীরা জেলা, ৩৫ নং খিত্তায় মাগুরা জেলা, ৩৬ নং খিত্তায় খুলনা জেলা, ৩৭ নং খিত্তায় সুনামগঞ্জ জেলা ও ৩৮ নং খিত্তায় মৌলভীবাজার জেলা।

এবার ইজতেমায় ২৫ হাজার বিদেশি মেহমান অংশ নিচ্ছেন

এবারের ইজতেমায় এশিয়া, ইউরোপ, আফ্রিকা, উত্তর আমেরিকা, অস্ট্রেলিয়াসহ কমপক্ষে ১০০টির অধিক দেশের তাবলিগ জামাতের প্রায় ২৫ হাজার বিদেশি মেহমান অংশ নিচ্ছেন বলে ইজতেমার আয়োজকরা আশা করছেন। এদের মধ্যে ভারত ও পাকিস্তান থেকে সর্বোচ্চ সংখ্যক মেহমান আগমন করবেন। ইতিমধ্যে বেশ কিছু দেশের ৫ শতাধিক মেহমান ঢাকার কাকরাইল মসজিদে এবং ইজতেমাস্থলে এসে পৌঁছেছেন বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ইজতেমাস্থলে আসার পথে আরো ৪/৫শ বিদেশি মেহেমান এসে পৌঁছেছেন বলে ইজতেমা ব্যবস্থাপনা কমিটির মুরব্বী গিয়াসউদ্দিন আহমেদ জানিয়েছেন। তিনি জানান, গত বছর ইজতেমায় ৯৫টি দেশের প্রায় ২০ হাজার মেহেমান শরিক হয়েছিলেন। এবার অনুকূল আবহাওয়া বিদ্যমান থাকলে বিদেশি মেহমানদের সংখ্যা বাড়তে পারে। এজন্য ইজতেমা ময়দানের উত্তর পার্শ্বে টিনের ছাউনিযুক্ত কামরা সমপ্রসারণ করে প্রায় ২৫ হাজার মেহেমান অবস্থানের জন্য ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। এবারের প্রথমপর্বের ইজতেমায় যেসব দেশ অংশ গ্রহণ করবে সেগুলোর মধ্যে রয়েছে সৌদি আরব, ভারত, পাকিস্তান, সুইডেন, থাইল্যান্ড, ফিলিপাইন, নরওয়ে, মালদ্বীপ, ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়া, মিসর, শ্রীলংকা, কাতার, ইরান, কুয়েত, লেবানন, লিবিয়া, জর্দান, মরোক্কো, ওমান, সোমালিয়া, সুদান, সিরিয়া, তিউনেশিয়া, সংযুক্ত আরব আমিরাত, ইয়েমেন, জার্মানী, কানাডা, হংকং, আলজেরিয়া, কেনিয়া, বাহরাইন, জাম্বিয়া, তুরস্ক, যুক্তরাষ্ট্র, সিঙ্গাপুর, ইটালী, ফ্রান্স, বেলজিয়াম, অস্টেলিয়া প্রভৃতি। এসব দেশের মেহমানদের অধিকাংশ দ্বিতীয়পর্বের বিশ্ব ইজতেমায় অংশগ্রহণ করতে ময়দানের আন্তর্জাতিক নিবাসে অবস্থান করবেন বলে ইজতেমা সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

ইজতেমায় দুইপর্বে তিনশতাধিক যৌতুকবিহীন বিয়ে পড়ানো হবে

প্রতি বছরের ন্যায় এবারও দুইপর্বের ইজতেমায় পৃথকভাবে তিনশতাধিক যৌতুকবিহীন বিয়ে পড়ানো হবে বলে ইজতেমার আয়োজক কমিটির শীর্ষ পর্যায়ের মুরুব্বীরা আশা প্রকাশ করছেন। সাধারণত ইজতেমার দ্বিতীয় দিনে ইজতেমাস্থলের অভ্যন্তরে কেন্দ ীয় মঞ্চের পার্শ্বে বিয়ে পড়ানো হবে। হযরত ফাতেমা (রাঃ) ও হযরত আলীর (রাঃ) বিয়ের দেনমোহর অনুসারে বিনা যৌতুকে এসব বিয়ে সম্পন্ন হবে। বিয়ের আগে বাদ আছর তাবলিগ জামাতের দিল্লীস্থ মারকাজের একজন আলেম এ সংক্রান্ত বয়ান পেশ করবেন। বয়ান শেষে বর- কনের অভিভাবকদের উপস্থিতে বিয়ে পড়ান হবে। পরে উপস্থিত দম্পতিদের স্বজন ও মুসল্লিদের মধ্যে খুরমা-খেজুর বিতরণ করা হবে। সূত্র জানায়, প্রথমপর্বের ইজতেমায় দেড়শতাধিক এবং দ্বিতীয়পর্বের ইজতেমায় প্রায় দেড়শ বিয়ে সম্পন্ন করতে বর-কনের নামের তালিকা প্রস্তুত করা হচ্ছে।

স্বাস্থ্য বিভাগ কর্তৃক ইজতেমায় আগত মুসল্লিদের জরুরি স্বাস্থ্যসেবা কার্যক্রম

এবারের দুইপর্বের ইজতেমায় আগত মুসল্লিদের জরুরি স্বাস্থ্যসেবা প্রদান নিশ্চিত করার জন্য স্বাস্থ্য বিভাগ কর্তৃক বিভিন্ন কার্যক্রম গ্রহণ করেছে। গাজীপুরের সিভিল সার্জন ডা. সৈয়দ মো. হাবিবউল্লাহ দুইপর্বের ইজতেমায় আগত মুসল্লিদের স্বাস্থ্যসেবা প্রদান সম্পর্কে গৃহীত বিভিন্ন কার্যক্রম সম্পর্কে জানান, টঙ্গী ৫০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতালে স্বাস্থ্যসেবা বিষয়ক কার্যক্রম মনিটর ও যোগাযোগের জন্য একটি কন্ট্রোল রুম সার্বক্ষণিক খোলা থাকবে। ইজতেমা মাঠে প্রবেশের বিভিন্ন গেইট, বিশেষ করে হোন্ডা গেইট, বাটা গেইট, মন্নু গেইটসহ টঙ্গী হাসপাতালে অস্থায়ী মেডিক্যাল সেন্টার স্থাপন করা হবে। এছাড়া সিভিল সার্জন ঢাকা বিভাগ কর্তৃক বিশ্ব ইজতেমা মাঠের পশ্চিম দিকে দুইটি মেডিক্যাল সেন্টার স্থাপন করা হবে। ইজতেমায় আগত মুসল্লিদের স্বাস্থ্যসেবা প্রদানের লক্ষ্যে তিন শিফট চালু রাখার জন্য প্রতি শিফটে প্রতি সেন্টারে ২ জন ডাক্তার, ২ নং ফার্মাসিস্ট এবং ১ জন সহায়ক কর্মচারী দায়িত্ব পালন করবেন। মেডিক্যাল সেন্টারগুলোর প্রত্যেকটির সাথে একটি করে এ্যাম্বুলেন্স থাকবে। এসব সেন্টারে সহজে দৃষ্টিগোচরের জন্য ব্যানারের ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। টঙ্গী হাসপাতালে ৯টি এ্যাম্বুলেন্স স্ট্যান্ডবাই রাখার ব্যবস্থা করা হবে, যাতে পরবর্তী প্রয়োজনে উচ্চতর হাসপাতালে রোগী রেফার্ডে ব্যবহূত হবে। টঙ্গী হাসপাতালে একটি হূদরোগ ইউনিট দৈনিক তিন শিফটে এবং ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল হতে আগত বার্ন ইউনিট সার্বক্ষণিক দায়িত্ব পালন করবে। এছাড়া এ্যাজমা রোগীদের স্বাস্থ্যসেবা প্রদানের লক্ষ্যে ঢাকাস্থ জাতীয় বক্ষব্যাধি ইনস্টিটিউট ও হাসপাতাল হতে আগত একটি ইউনিট টঙ্গী হাসপাতালে চিকিত্সা কার্যক্রম পরিচালনা করবে। জাতীয় অর্থোপেডিক হাসাপাতাল ও পুনবার্সন প্রতিষ্ঠান হতে আগত একটি মেডিক্যাল টিমও দায়িত্ব পালন করবে। ৫০ শয্যা হাসপাতাল টঙ্গীতে সার্জারি ইউনিট জরুরি বিভাগে দায়িত্ব পালন করবে। মেডিক্যাল ইউনিটের মাধ্যমে নিউমোনিয়াসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত রোগীদের চিকিত্সার ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। ইজতেমা চলাকালীন টঙ্গী হাসপাতালে ডায়রিয়া নিয়ন্ত্রণে ও আর টি কর্নার চালু রাখা হবে। অপারেশন থিয়েটারসহ হাসপাতালের প্যাথলজি, এক্সরে ও দন্ত বিভাগ প্রয়োজনীয় দায়িত্ব পালন করবে এবং অন্তঃবিভাগে ভর্তিকৃত রোগিগণকে কনসালটেন্সী সেবা, ঔষধপত্র, পথ্য ও নার্সিং সেবা দেয়া হবে। স্যানিটারি ইন্সপেক্টর দ্বারা পরিচালিত ১২টি টিম মাঠের আশপাশের হোটেল, রেস্তোরাঁয় নিরাপদ খাদ্য ও পানীয় এবং স্যানিটেশন ব্যবস্থা নিশ্চিত করার জন্য সার্বক্ষণিক কর্মরত থাকবে। সংক্রামক ব্যাধি প্রতিরোধে প্রয়োজনীয় ব্লিচিং পাউডার, পানি বিশুদ্ধকরণ বড়ি ইত্যাদি সরবরাহের ব্যবস্থা করা হবে। স্বাস্থ্যসচেতনতা ও স্বাস্থ্যশিক্ষার জন্য লিফলেট, পোস্টার, মেগাফোনের ব্যবহার করা হবে। টঙ্গী বিশ্ব ইজতেমার আশপাশের বেসরকারি মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল ও বেসরকারি ক্লিনিকগুলোকে রক্ত সঞ্চালন ব্যবস্থাসহ প্রয়োজনী চিকিত্সা প্রদানের জন্য দিবা-রাত্র খোলা রাখার ব্যবস্থা করা হয়েছে। ইজতেমা উপলক্ষে স্বাস্থ্য বিভাগে কর্মরত কর্মকর্তা- কর্মচারীদের ছুটি স্থগিত করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও সংস্থার সেবা কার্যক্রম

এদিকে ইজতেমায় আগত মুসল্লিদের বিনামূল্যে স্বাস্থ্যসেবা প্রদানের লক্ষ্যে বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি সংস্থা ও প্রতিষ্ঠান ইজতেমা ময়দানের উত্তর পার্শ্বে নিউ মন্নু কটন মিলের অভ্যন্তরে মেডিক্যাল ক্যাম্পে চিকিত্সা কার্যক্রম পরিচালনা করবে। এসব চিকিত্সা ক্যাম্পের মধ্যে রয়েছে হামদর্দ, ইবনে সিনা ফার্মাসিউটিক্যাল লি., জনকল্যাণ ফ্রি মেডিক্যাল সেন্টার, টঙ্গী পৌরসভা ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ড্যাব). র্যাব, হার্ট ফাউন্ডেশন, ইসলামী ফাউন্ডেশন উল্লেখযোগ্য।

সংকলণে : মুজিবুর রহমান গাজীপুর প্রতিনিধি

font
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
নোবেল বিজয়ী ড. মুহাম্মদ ইউনূস বলেছেন, দেশের মানুষ এখন পরিবর্তন চাচ্ছে। আপনিও কি তাই মনে করেন?
8 + 1 =  
ফলাফল
আজকের নামাজের সময়সূচী
আগষ্ট - ১৮
ফজর৪:১৬
যোহর১২:০৩
আসর৪:৩৭
মাগরিব৬:৩৩
এশা৭:৪৯
সূর্যোদয় - ৫:৩৫সূর্যাস্ত - ০৬:২৮
archive
বছর : মাস :
The Daily Ittefaq
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: তাসমিমা হোসেন। উপদেষ্টা সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন। ইত্তেফাক গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে তারিন হোসেন কর্তৃক ৪০, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ থেকে প্রকাশিত ও মুহিবুল আহসান কর্তৃক নিউ নেশন প্রিন্টিং প্রেস, কাজলারপাড়, ডেমরা রোড, ঢাকা-১২৩২ থেকে মুদ্রিত। কাওরান বাজার ফোন: পিএবিএক্স: ৭১২২৬৬০, ৮১৮৯৯৬০, বার্ত ফ্যাক্স: ৮১৮৯০১৭-৮, মফস্বল ফ্যাক্স : ৮১৮৯৩৮৪, বিজ্ঞাপন-ফোন: ৮১৮৯৯৭১, ৭১২২৬৬৪ ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭২, e-mail: [email protected], সার্কুলেশন ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭৩। www.ittefaq.com.bd, e-mail: [email protected]
Copyright The Daily Ittefaq © 2014 Developed By :