The Daily Ittefaq
ঢাকা, শনিবার, ১৮ জানুয়ারি ২০১৪, ০৫ মাঘ ১৪২০, ১৬ রবিউল আওয়াল ১৪৩৫
সর্বশেষ সংবাদ সামপ্রদায়িক সন্ত্রাস বন্ধে আইন করতে হবে: ইমরান এইচ সরকার | যুদ্ধাপরাধীদের বিচারপ্রক্রিয়া নিয়ে ভবিষ্যতে আর কোনো মন্তব্য করবে না পাকিস্তান | ফেব্রুয়ারিতে উপজেলা নির্বাচন: সিইসি | নাটোরে ইউপি চেয়ারম্যান খুন | সাতক্ষীরার যৌথ বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে নিহত ১

সুচিত্রা সেন: এক পলকের দেখা সে তো চির ব্যথা

লিয়াকত হোসেন খোকন

বাংলা ছবির মহানায়িকা সুচিত্রা সেনের প্রয়াণে মনে পড়লো, ১৯৮২ সালের কথা। কলকাতার দক্ষিণেশ্বর কালী মন্দিরে গিয়েছিলাম। দিনটা ছিল ১৯৮২ সালের ১৭ অক্টোবর। এসেছিলেন বাংলা চলচ্চিত্রের কিংবদন্তী নায়িকা সুচিত্রা সেন। দেখলাম, অনেক লোকের ভিড়। ভাবলাম, দেখে যাই সুচিত্রা সেনকে। কে একজন বলল, বয়স ৫২ কি ৫৩ হলে কী হবে, এখনও তো সুচিত্রা সেনকে নায়িকার মতো মনে হয়। মনে মনে ভাবলাম, ঠিকই তো। সেদিন সিল্কের শাড়ি পরে এসেছিলেন সুচিত্রা সেন। কাছ থেকে এক পলকের দেখা- সে কি ভোলা যায়। এতদিন বাদেও যে মনে পড়ে... ওই যে 'সুচিত্রা সেন'। সেই কথা হূদয়ে জেগে উঠলে 'পলকের দেখা সে তো চির ব্যথা জানি...' গানের এ কথাই মনে পড়ে ক্ষণে ক্ষণে।

শৈশবে কত ছবি দেখেছি সুচিত্রা সেনের। 'সাগরিকা', 'শিল্পী', 'হারানো সুর', 'পথে হলো দেরী' 'দীপ জ্বেলে যাই', 'সবার উপরে', 'গৃহ প্রবেশ', 'অগ্নিপরীক্ষা প্রভৃতি ছবি। একেকটি ছবি কতবার যে দেখেছি। সেই কবে 'ভগবান শ্রীকৃষ্ণ চৈতন্য'র বিষ্ণুপ্রিয়া হয়ে সুচিত্রা সেন ঝড় তুলেছিলেন বাঙালি হূদয়ে। তারপর বহু বছর কেটে গেছে। তবুও সৌন্দর্য এবং সুচিত্রা সমর্থক হয়ে আছে বাঙালি দর্শকের চোখে। 'অগ্নিপরীক্ষা' ছবিতে অভিনয় করলেন ১৯৫৪ সালে। এ ছবিটি তাকে খ্যাতির তুঙ্গে নিয়ে গিয়েছিল। তারপর তো 'পথে হলো দেরী', 'হারানো সুর', 'শিল্পী, 'সাগরিকা' ছবিগুলোর মর্যাদা বাড়িয়ে দিয়েছিলেন এই সুচিত্রা সেন। ১৯৭৮ সালে অভিনয় ছেড়ে দিলেও ছিলেন কোটি দর্শকের হার্টথ্রুব। এপার বাংলা ওপার বাংলার জনগণমননন্দিতা চিত্রনায়িকা সুচিত্রা সেনকে নিয়ে কখনই জল্পনা-কল্পনার কমতি ছিল না। এই মহান নায়িকা সম্পর্কে জানা যায়, তার নায়ক উত্তম কুমার ১৯৮০ সালের ২৪ জুলাই মারা গেলে সেই রাতে এসেছিলেন একখানি মালা হাতে নিয়ে। ১৯৯৩ সালের প্রথম দিকে অসুস্থ হয়ে কিংবদন্তী আরেক নায়িকা কানন দেবী যখন হাসপাতালে, তাকেও এসে তিনি দেখে গিয়েছিলেন।

সুচিত্রা সেন অভিনীত বাংলা ৫৬টি ছবির মধ্যে উত্তম কুমারের সাথে ৩০টি ছবিতে, এছাড়া বিকাশ রায়, বসন্ত চৌধুরী, সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, সমির রায়, অশোক কুমার, প্রদীপ কুমার প্রমুখের বিপরীতে বাকি ছবিগুলোতে ছিলেন তিনি। তার অভিনীত মোট ৭টি হিন্দি ছবির মধ্যে বোম্বাই কা বাবু এবং সরহদ ছবিতে তার নায়ক ছিলেন দেব আনন্দ। ১৯৫৫ সালে দেবদাস এবং ১৯৫৭ সালে মুসাফির ছবিতে তার বিপরীতে ছিলেন দীলিপ কুমার। চম্পাকলি, মমতা, আঁঁধি ছবি তিনটিও ব্যাপক জনপ্রিয়তা পেয়েছিল।

লেখক: চলচ্চিত্র বিষয়ক নিবন্ধকার

font
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
ইইউ পার্লামেন্টে বাংলাদেশ বিষয়ে পাস হওয়া এক প্রস্তাবে বলা হয়েছে, 'যেসব রাজনৈতিক দল সন্ত্রাসী তত্পরতা চালাচ্ছে তাদের নিষিদ্ধ ঘোষণা করা উচিত।' আপনিও কি তাই মনে করেন?
8 + 5 =  
ফলাফল
আজকের নামাজের সময়সূচী
জুলাই - ২০
ফজর৩:৫৭
যোহর১২:০৫
আসর৪:৪৪
মাগরিব৬:৫০
এশা৮:১২
সূর্যোদয় - ৫:২২সূর্যাস্ত - ০৬:৪৫
archive
বছর : মাস :
The Daily Ittefaq
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: তাসমিমা হোসেন। উপদেষ্টা সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন। ইত্তেফাক গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে তারিন হোসেন কর্তৃক ৪০, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ থেকে প্রকাশিত ও মুহিবুল আহসান কর্তৃক নিউ নেশন প্রিন্টিং প্রেস, কাজলারপাড়, ডেমরা রোড, ঢাকা-১২৩২ থেকে মুদ্রিত। কাওরান বাজার ফোন: পিএবিএক্স: ৭১২২৬৬০, ৮১৮৯৯৬০, বার্ত ফ্যাক্স: ৮১৮৯০১৭-৮, মফস্বল ফ্যাক্স : ৮১৮৯৩৮৪, বিজ্ঞাপন-ফোন: ৮১৮৯৯৭১, ৭১২২৬৬৪ ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭২, e-mail: [email protected], সার্কুলেশন ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭৩। www.ittefaq.com.bd, e-mail: [email protected]
Copyright The Daily Ittefaq © 2014 Developed By :