The Daily Ittefaq
ঢাকা, বুধবার, ২২ জানুয়ারি ২০১৪, ০৯ মাঘ ১৪২০, ২০ রবিউল আওয়াল ১৪৩৫
সর্বশেষ সংবাদ চাঁপাইনবাবগঞ্জে নারী ইউপি সদস্যের রগ কর্তন | জাহাঙ্গীরনগরের ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য এম এ মতিন | ৭ মন্ত্রী-এমপির সম্পদ তদন্তে দুদকের অনুসন্ধান কর্মকর্তা নিয়োগ | ট্রাফিক ব্যারাকে লাশ, পুলিশ কন্সটেবল গ্রেফতার

সিরিয়ায় শান্তি প্রতিষ্ঠার সম্মেলনের জটিলতা

সিরিয়ায় গৃহযুদ্ধ বন্ধের লক্ষ্য সামনে রাখিয়া সুইজারল্যান্ডে একটি আন্তর্জাতিক সম্মেলন শুরু হইতেছে আজ বুধবার। এই সম্মেলন চলিবে তিনদিন। তিন বত্সর পূর্বে গৃহযুদ্ধ শুরু হইবার পর হইতে এই প্রথমবারের মত বিবদমান দুইটি পক্ষ এক টেবিলে বসিতেছে। সম্মেলন হইতে আর কিছু অর্জিত হউক বা না হউক, অস্ত্রের ভাষায় কথা বলিতে থাকা দুইপক্ষকে কিছুটা সময়ের জন্য হইলেও মুখের ভাষায় কথা বলিবার জন্য সমবেত করিতে পারিবার জন্য জাতিসংঘ ধন্যবাদ পাইতে পারে বৈকি। উল্লেখ্য, গত বত্সরের মে মাসে রুশ-মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ে আলাপের সময় হইতে ক্ষমতাসীন বাসার আল আসাদের সরকারের সহিত সরকারবিরোধী পক্ষগুলির মধ্যে সংলাপের আয়োজনের চেষ্টা-চরিত্র শুরু হয়। তাহার পর হইতে এতদিনের প্রচেষ্টাতে এইবারের সম্মেলনটি অনুষ্ঠিত হইতে যাইতেছে। যদিও সিরিয়া সরকারের অন্যতম মিত্র ইরানের অংশগ্রহণ করা অথবা না করা লইয়া সৃষ্ট জটিলতাতে সম্মেলটি শেষ মুহূর্তে ভন্ডুল হইয়া যাইবার উপক্রম হইয়াছিল।

জাতিসংঘ সিরিয়ার সরকারপক্ষ ও বিরোধীপক্ষের সহিত উভয়পক্ষের মিত্রদিগকেও সম্মেলনে হাজির করিতে চাহিয়াছিল। কিন্তু অবাক বিস্ময়ে ইহা লক্ষ্য করা গেল যে সিরিয়ার সরকারবিরোধীদের পক্ষ হইয়া যুক্তরাষ্ট্রের প্রচণ্ড চাপের মুখে সোমবার আসাদ সরকারের অন্যতম মিত্র ইরানকে সম্মেলনে যোগদানের আমন্ত্রণ প্রত্যাহার করিয়া লইতে বাধ্য হইল জাতিসংঘ। আমন্ত্রণ জানাইবার চব্বিশ ঘন্টার মধ্যেই আমন্ত্রণ প্রত্যাহারের ঘটনাটি ঘটিল। উল্লেখ্য, ইরানকে যোগদান করিতে দেওয়া হইলে সম্মেলন বর্জনের ঘোষণা দিয়াছিল সরকারবিরোধীরা। মুখরক্ষা করিবার জন্য মহাসচিব বান কী মুন ইরান কর্তৃপক্ষের কিছু কথাবার্তাকে ২০১২ সালে শান্তি প্রস্তাবনার বিরোধী হিসাবে চিহ্নিত করিয়াছেন বটে। কিন্তু ইহা দিবালোকের মত স্পষ্ট যে তেহরানের কথাবার্তা নহে বরং ওয়াশিংটনের মনোবাঞ্ছাই এইক্ষেত্রে নির্দেশকের ভূমিকা পালন করিয়াছে। উল্লেখ্য, ২০১২ সালে সকল পক্ষ এই মর্মে সমঝোতায় পৌঁছাইয়াছিল যে শান্তি-সংলাপের বিষয়বস্তু হইবে সরকার ও বিরোধীপক্ষের পারস্পরিক সম্মতিতে সিরিয়াতে একটি অন্তর্বর্তীকালীন সরকার প্রতিষ্ঠা করা। বাস্তবতা হইতেছে এই যে অন্তবর্তীকালীন সরকার গঠনের জন্য আসাদকে পদত্যাগ করিতে হইবে কিনা তাহা লইয়া উভয়পক্ষ ও আঞ্চলিক-আন্তর্জাতিক মিত্রদের মধ্যে সুস্পষ্ট দ্বিমত রহিয়াছে। রাশিয়া, চিন ও ইরান আসাদের পদত্যাগের বিপক্ষে। অন্যদিকে, মধ্যপ্রাচ্যের সুন্নী সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশগুলি ও যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বাধীন পশ্চিমা বিশ্ব সরকারবিরোধীদের পক্ষ লইয়া আসাদের পদত্যাগের পক্ষে অবস্থান লইয়াছে।

অবস্থাদৃষ্টে মনে হইতেছে যে সিরিয়াতে শান্তি বিষয়ক সম্মেলন হইলেও এই সম্মেলনে ইরানকে অংশগ্রহণ বঞ্চিত রাখিবার মধ্যে মধ্যপ্রাচ্যের রাজনীতির সমীকরণ বড় ভূমিকা রাখিয়াছে। এইক্ষেত্রে ওয়াশিংটনকে জাতিসংঘের উপর চাপ প্রদান করিতে দেখা গেলেও এই চাপ কেবলমাত্র যুক্তরাষ্ট্র বা সিরিয়ার সরকারবিরোধীদের স্বার্থই সংরক্ষণ করিতেছে না বরং সৌদি আরব ও ইসরায়েলের মত রাষ্ট্রগুলির স্বার্থও ইহার মধ্যে নিহিত আছে বলিয়া মনে করা যাইতেছে। স্মর্তব্য, সুন্নি রাজতান্ত্রিক সৌদি আরব এবং জায়নবাদী ইসরায়েলের সহিত শিয়া ধর্মগুরু শাসিত ইরানের প্রচণ্ড দ্বন্দ্ধ বিরাজমান। বস্তুত, সৌদি আরব ও ইসরায়েল সমরসজ্জার ক্ষেত্রে ইরান প্রধান ঝুঁকি হিসাবে বিবেচিত হইয়া থাকে। এই দেশগুলি মনে করিয়া থাকে যে আসাদের টিকিয়া থাকিবার অর্থ দাঁড়াইবে মধ্যপ্রাচ্যের রাজনীতিতে ইরাণের অবস্থান এক ধাপ বলিষ্ঠ হওয়া। মাত্র কিছুদিন পরমাণু প্রকল্প লইয়া এক ধরনের রফাতে পৌছাইলেও ইরানের ব্যাপারে যুক্তরাষ্ট্র তথা পাশ্চাত্য বিশ্বও কম-বেশি একই ধরনের মনোভাব পোষণ করিয়া থাকে। এইভাবে দেখিলে সিরিয়াতে শান্তি প্রতিষ্ঠার সংলাপে ইরানকে সরাইয়া রাখিবার চেষ্টার মধ্যে অবাক হইবার কিছু নাই। এক্ষণে সিরিয়ার অন্য দুই প্রধান মিত্র রাশিয়া ও চীনের অবস্থানের উপরে যে আসাদ-সরকারের ভবিষ্যত্ অনেকখানি নির্ভর করিবে তাহা বলাইবাহুল্য।

font
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, 'সাতক্ষীরায় যৌথ বাহিনীর অভিযান নিয়ে খালেদা জিয়া যা বলেছেন, তা দেশের জন্য অপমানজনক। এ জন্য জনগণের কাছে তার মাফ চাইতে হবে।' আপনি কি তার সাথে একমত?
7 + 2 =  
ফলাফল
আজকের নামাজের সময়সূচী
মে - ২০
ফজর৩:৪৯
যোহর১১:৫৫
আসর৪:৩৪
মাগরিব৬:৩৯
এশা৭:৫৯
সূর্যোদয় - ৫:১৩সূর্যাস্ত - ০৬:৩৪
archive
বছর : মাস :
The Daily Ittefaq
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: তাসমিমা হোসেন। উপদেষ্টা সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন। ইত্তেফাক গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে তারিন হোসেন কর্তৃক ৪০, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ থেকে প্রকাশিত ও মুহিবুল আহসান কর্তৃক নিউ নেশন প্রিন্টিং প্রেস, কাজলারপাড়, ডেমরা রোড, ঢাকা-১২৩২ থেকে মুদ্রিত। কাওরান বাজার ফোন: পিএবিএক্স: ৭১২২৬৬০, ৮১৮৯৯৬০, বার্ত ফ্যাক্স: ৮১৮৯০১৭-৮, মফস্বল ফ্যাক্স : ৮১৮৯৩৮৪, বিজ্ঞাপন-ফোন: ৮১৮৯৯৭১, ৭১২২৬৬৪ ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭২, e-mail: [email protected], সার্কুলেশন ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭৩। www.ittefaq.com.bd, e-mail: [email protected]
Copyright The Daily Ittefaq © 2014 Developed By :