The Daily Ittefaq
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৪ জানুয়ারি ২০১৩, ১১ মাঘ ১৪১৯, ১১ রবিউল আওয়াল ১৪৩৪
সর্বশেষ সংবাদ উন্নয়ন অব্যাহত রাখতে আওয়ামী লীগকে আবার সুযোগ দিন : প্রধানমন্ত্রী | চাকরি জাতীয়করণের দাবিতে শিক্ষকদের অবস্থান ধর্মঘট অব্যাহত | মির্জা ফখরুলের জামিন ও রিমান্ড নামঞ্জুর | বরিশাল শিক্ষাবোর্ডে ডাকাতি | ডিএসই: সূচক বেড়েছে ১৪ পয়েন্ট | চিটাগাং কিংসের প্রথম জয় | গোল্ড স্টেইনকে চাকরি ছেড়ে রাজনীতি করার আহ্বান অর্থমন্ত্রীর | বিপদ টের পেয়ে সরকার তত্ত্বাবধায়ক বাতিল করেছে: খালেদা জিয়া | সমালোচনার মুখে ক্যামেরন | ইচ্ছা থাকলে আধাঘণ্টার মধ্যেই তত্ত্বাবধায়কের সমাধান সম্ভব: ড. কামাল | বিশ্বজিত্ হত্যার দ্রুত পুলিশ প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ আদালতের | ইডেন ছাত্রীর ওপর এসিড নিক্ষেপকারী গ্রেফতার | পদ্মা সেতু দুর্নীতি: সাবেক প্রকল্প পরিচালকসহ চার জনকে তলব | রায়েরবাজারে শিশুর গলায় চাপাতি ধরে মাকে খুন | সাগর-রুনির সব খুনি ধরতে না পারা প্রশাসনিক ব্যর্থতা: তথ্যমন্ত্রী | ১৪ দলের মানববন্ধন কর্মসূচি পালন | আবারো পারমানবিক অস্ত্র পরীক্ষার ঘোষণা উত্তর কোরিয়ার | ১০৪ বছর বয়সী বৃদ্ধাকে মারধরের পর ডাকাতি

টেকসই উন্নয়ন কোন পথে

'টেকসই উন্নয়নের জন্য দরকার পরিবেশগত সুবিধা, সামাজিক উন্নয়ন আর অর্থনৈতিক অগ্রগতি'। এই তিনটি প্রয়োজন অবশ্য পরস্পর সম্পর্কযুক্ত। পরিবেশগত সুরক্ষা বজায় রাখিতে আমরা ব্যর্থ হইতেছি সারাদেশ জুড়িয়া। আমরা ব্যর্থ হইতেছি ফসলি জমিকে বিকল্প ব্যবহারের হাত হইতে রক্ষা করিতে। প্রকাশিত খবর হইতে জানা যায়, বত্সরে প্রায় ২ লক্ষ একর কৃষিজমি বিকল্প ব্যবহারে চলিয়া যাইতেছে। ভরাট হইয়া যাইতেছে হাওর, বিল আর নানাবিধ জলাভূমি। এই অপরিকল্পিত নগরায়ণের কারণে ফসলি জমির পরিমাণ কমিয়া যাইতেছে, যাহা বন্ধ করিতে হইবে। আমাদের সেই অর্থে খনিজ সম্পদের কোনো প্রাচুর্য নাই। আমাদের আছে এক বিশাল অদক্ষ জনগোষ্ঠী আর এক লাখ চুয়াল্লিশ হাজার বর্গকিলোমিটার ভূমি। এই দুয়ের উপর ভিত্তি করিয়াই আমাদের অর্থনৈতিক উন্নয়ন ও অগ্রগতিকে সামনের দিকে আগাইয়া লইতে হইবে। সীমিত এই ভূসম্পদের সদ্ব্যবহার করিতে হইবে। না পারিলে আমাদের টেকসই উন্নয়ন ব্যাহত হইবে।

তবে এই অপরিকল্পিত নগরায়ণের একটা বড় কারণ বিশাল জনগোষ্ঠী—এ কথা ভুলিয়া গেলে চলিবে না। বিশাল জনগোষ্ঠীর চাপে কমিয়া যাইতেছে ফসলি জমি। এই বিশাল আকারের জনগোষ্ঠীর সঙ্গে তাল মিলাইয়া আবাসনসহ অন্যান্য নাগরিক সুবিধা তৈরি করিতে গিয়া কৃষিজমি বিকল্প ব্যবহারে চলিয়া যাইতেছে। এই বিশাল জনগোষ্ঠী আমাদের কৃষি-প্রবৃদ্ধিকেও বাধাগ্রস্ত করিতেছে বিভিন্নভাবে। বিশাল জনগোষ্ঠীর প্রধান খাদ্যশস্য চালের উত্পাদন বাড়ানোর জন্য আমাদের উচ্চফলনশীল প্রজাতির ধান উত্পাদনে মনোযোগী হইতে হইতেছে, বাড়িতেছে কীটনাশক আর রাসায়নিক সারের অবাধ ব্যবহার। ফলে ক্ষতিগ্রস্ত হইতেছে আমাদের মিঠাপানির মত্স্যসম্পদ। ফলশ্রুতিতে, আবার ধানী জমির এক বিশাল অংশ মত্স্য চাষে ব্যবহূত হইতেছে। সম্মিলিত প্রভাবে এক সময় আমরা আমাদের খাদ্য নিরাপত্তার জন্য পর্যাপ্ত খাদ্য উত্পাদনে ব্যর্থ হইবো। প্রকৃতির বৈরী প্রভাবে কোন এক বত্সর খাদ্য উত্পাদন ব্যাহত হইলেই কিন্তু আমাদের অর্থনীতি অস্থিতিশীল হইয়া পড়িবে। তখন খাদ্য নিরাপত্তা বজায় রাখিতে গিয়া সামাজিক উন্নয়নের গুরুত্ব কমাইয়া দেওয়া ছাড়া বিকল্প থাকিবে না।

যেহেতু আমাদের ভূসম্পদের সীমাবদ্ধতা রহিয়াছে, তাহার উপর রহিয়াছে বিশাল এক জনগোষ্ঠী, তাই সতর্ক না হইলে টেকসই উন্নয়ন ব্যাহত হইবে, ইহাই স্বাভাবিক। সেই কারণে আমাদেরকে সতর্ক থাকিতে হইবে এই সম্পদের ব্যবহারের ক্ষেত্রে। আমাদেরকে সঠিক পরিকল্পনার মাধ্যমে আগাইতে হইবে। এই সতর্কতার প্রথম ধাপ হইলো জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণে রাখা। টেকসই উন্নয়নের জন্য প্রয়োজনীয় তিনটি শর্তের প্রত্যেকটিই ক্ষতিগ্রস্ত হয় সীমার অতিরিক্ত জনবসতির ফলে। জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণের মধ্যে থাকিলে পরিবেশের চক্রের মধ্যে পড়িতে হয় না। জনসংখ্যার প্রবৃদ্ধির হার বর্তমানে দেড়ের কাছাকাছি। যাহাকে শূন্যের কাছাকাছি না আনিতে পারিলে আরো অনেক সমস্যার মধ্যে পড়িবো আমরা দীর্ঘমেয়াদে। মনে রাখিতে হইবে, দীর্ঘ মেয়াদে আমাদের সকল সমস্যার মূলে অতিরিক্ত জনসংখ্যা। উত্পাদন যতই বাড়ুক, তাহা মানুষের জীবনমানের অগ্রগতিতে ভূমিকা রাখিবে তখনই, যখন জনসংখ্যার প্রবৃদ্ধিকে নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হইবে।

font
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
কৃতিত্বের জন্যই ডিসি হারুনকে পুলিশ পদক দেয়া হয়েছে— স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্যটি যৌক্তিক মনে করেন?
5 + 9 =  
ফলাফল
আজকের নামাজের সময়সূচী
সেপ্টেম্বর - ২৫
ফজর৪:৩৩
যোহর১১:৫১
আসর৪:১২
মাগরিব৫:৫৫
এশা৭:০৮
সূর্যোদয় - ৫:৪৮সূর্যাস্ত - ০৫:৫০
archive
বছর : মাস :
The Daily Ittefaq
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: তাসমিমা হোসেন। উপদেষ্টা সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন। ইত্তেফাক গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে তারিন হোসেন কর্তৃক ৪০, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ থেকে প্রকাশিত ও মুহিবুল আহসান কর্তৃক নিউ নেশন প্রিন্টিং প্রেস, কাজলারপাড়, ডেমরা রোড, ঢাকা-১২৩২ থেকে মুদ্রিত। কাওরান বাজার ফোন: পিএবিএক্স: ৭১২২৬৬০, ৮১৮৯৯৬০, বার্ত ফ্যাক্স: ৮১৮৯০১৭-৮, মফস্বল ফ্যাক্স : ৮১৮৯৩৮৪, বিজ্ঞাপন-ফোন: ৮১৮৯৯৭১, ৭১২২৬৬৪ ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭২, e-mail: [email protected], সার্কুলেশন ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭৩। www.ittefaq.com.bd, e-mail: [email protected]
Copyright The Daily Ittefaq © 2014 Developed By :