The Daily Ittefaq
ঢাকা, শুক্রবার, ২৪ জানুয়ারি ২০১৪, ১১ মাঘ ১৪২০, ২২ রবিউল আওয়াল ১৪৩৫
সর্বশেষ সংবাদ বিশ্ব ইজতেমা শুরু, তুরাগ তীরে মুসল্লিদের ঢল | ইজতেমা প্রাঙ্গণে ২ মুসল্লির মৃত‌্যু | বিএনপিকে নাকে খত দিতে হবে : আমু | দশম জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ হলেন আ স ম ফিরোজ | দখলকারী শক্তি পরাভূত হবেই: খালেদা জিয়া

সতর্কতার সঙ্গে এগোতে চায় বিসিবি

স্পোর্টস রিপোর্টার

একমাত্র দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট বোর্ড ছাড়া বাকি বড় বড় বোর্ডগুলোও যেখানে মুখ ফুটে কিছু বলছে না, সেখানে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) সরাসরি গতকালই আইসিসি সংস্কারের বিপক্ষে অবস্থান নিয়ে নেবে; এটা কেউ আশা করেনি। তেমনটা ঘটেওনি। গতকাল বিসিবির সভায় দীর্ঘক্ষণ ধরে এই সংস্কার প্রস্তাব নিয়ে আলোচনার পর অনুমিতভাবেই সতর্ক পদক্ষেপ, অন্যদের মতামত বিশ্লেষণ ও সভার আলোচনার দিকে চেয়ে থাকার কথা জানালেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। সেই সঙ্গে একটা কথা তিনি পরিষ্কার করে বলে দিলেন—বাংলাদেশের অবনমন হয়, খেলার সুযোগ শেষ হয়ে যায়, এমন কোনো প্রস্তাবের পক্ষে তারা থাকবেন না; সেটা অনেক টাকার লাভ থাকলেও না।

আইসিসির সর্বশেষ সভায়ই অর্থ ও বাণিজ্য কমিটির তৈরি করা এই খসড়া সংস্কার প্রস্তাবের একটা আভাস বিভিন্ন বোর্ড সভাপতি পেয়েছিলেন। তবে গতকালের সভার আগে সেটা যে বিস্তারিত আকারে সবাই জানতে পারেননি, সে কথা জানালেন পাপন। গতকাল ভারত-অস্ট্রেলিয়া-ইংল্যান্ডের আধিপত্য তৈরি করা এই প্রস্তাব নিয়ে বিস্তারিত আলাপের পর পাপন মনে করছেন, এটা এমন জটিল একটা ব্যাপার, যা নিয়ে আগেভাগে মন্তব্য করা যাবে না।

পাপন বরং একদিন আগেই দুবাই গিয়ে তিন বোর্ডের বাইরের বোর্ডগুলোর মনোভাব বুঝে সতর্ক পদক্ষেপ নেয়ার কথা বললেন, 'আমরা গণমাধ্যমে দেখেছি দক্ষিণ আফ্রিকা এর বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে। শ্রীলঙ্কার ক্রীড়ামন্ত্রী এর বিরুদ্ধে কথা বলেছে, কিন্তু ওদের বোর্ডের অবস্থান এখনো জানি না। সেদিন যে মিটিংয়ে এই প্রস্তাব দেয়া হয়েছিল তখন একটা দেশ (পাকিস্তান) ছাড়া কিন্তু কেউ প্রতিবাদ করেনি। বাকিদের মনোভাব বোঝার জন্য আমি একটু আগেই যাব। ২৭ তারিখ মিটিং ২৬ তারিখ যেতাম, এখন ২৫ তারিখ যাচ্ছি। গিয়ে যারা আছে তাদের সঙ্গে একটু কথা বলা দরকার। যারা এটা তৈরি করেছে তাদের সঙ্গেও কথা বলা দরকার; ব্যাখ্যার জন্য। আমরা ২৮ তারিখে মিটিং শুরু হলে যাতে আমাদের অবস্থান তুলে ধরতে পারি। অন্য দেশগুলোর রেসপন্সের ওপর অনেক কিছু নির্ভর করতে হচ্ছে। এটা বেশ টেকনিক্যাল এবং ক্রিটিক্যাল বিষয়। খুব সহজ নয়।'

তবে বিষয়টি যতোই জটিল হোক, বাংলাদেশের পক্ষে ২০১৫ ডেডলাইনের মধ্যে যে আট নম্বর র্যাংকিং এসে রেলিগেশন এড়ানো সম্ভব নয় বা রেলিগেটেড হয়ে গেলে যে আর টেস্ট খেলা কার্যত অসম্ভব হয়ে পড়বে; এটা পাপন বুঝতে পারছেন। তাই বাকিরা যখন শুধু অর্থ ও কর্তৃত্ব নিয়ে ভাবিত, পাপনের কাছে বাংলাদেশের এই ব্যাপারগুলোই বেশি গুরুত্ব পাচ্ছে।

তিনি পরিষ্কার বলেছেন যে, এই প্রস্তাব পাস হলে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক তেমন কোনো লোকসান হবে না। তবে ক্রিকেটীয় লোকসান হলে তিনি অর্থনৈতিক লাভকেও যে গুরুত্ব দেবেন না সেটাই বলছিলেন পাপন, 'ক্রিকেটের চেয়ে টাকা আমাদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ নয়, অন্যদের কাছে হতে পারে। আমরা যতটুকু বুঝেছি আমাদের টাকার ওপর হাত দিচ্ছে না। আমাদেরটা ফিক্সড রেখে বাড়তি কিছু টাকা দিচ্ছে। আমরা ক্রিকেট নিয়েই ভাবছি।'

এই ভাবনা করতে গিয়ে বিসিবি যথার্থই আবিষ্কার করেছে যে, বর্তমান এফটিপিতেও বাংলাদেশ প্রাপ্য খেলার সুযোগ পাচ্ছে না। ফলে বাকিরা যখন শুধুই কাঠামো নিয়ে চিন্তা করছে, পাপন বর্তমান অবস্থা নিয়েও নিজের হতাশার কথা বললেন, 'এখনই বা ভালোটা কোথায় হচ্ছে? এখনো কেউ খেলতে আসছে? আগামী ৫ বছরেও দেখি না কেউ আমাদের এখানে খেলবে। এই জিনিসটা থেকে বেরুনোর কোনো সুযোগ পাচ্ছি না। এখনই তো এফটিপি মানে না। সব নাকি হয়ে যাচ্ছে দ্বি-পাক্ষিক।'

আবার এই চিন্তা থেকেই পাপন সরাসরি প্রস্তাবের বিরোধিতা করে বড় দেশগুলোকে খেপিয়েও দিতে পারছেন না। সে ক্ষেত্রে ভয় পাচ্ছেন বাংলাদেশের বিরোধিতা সত্ত্বেও এই প্রস্তাব পাস হয়ে গেলে ওয়ানডেও খেলতে তখন বড় দেশগুলো আসবে না এই রাগে, 'আমরা বিরোধিতা করলে শ্রীলঙ্কার সফর, এশিয়া কাপ ও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে কোনো প্রভাব পড়বে না। এর সঙ্গে তার কোনো যোগাযোগ নেই। কোনো সম্পর্ক থাকাও সম্ভব নয়। তবে আমরা বিরোধিতা করলাম আর প্রস্তাব পাস হয়ে গেলো; তখন তো আমরা চাপে পড়ে যেতে পারি। এখনই টেস্ট খেলতে আসে না অনেকে। তখন তো ওয়ানডেও খেলতে আনতে সমস্যা হবে।'

তবে এতোকিছুর পরও পাপন মনে করেন, এসব সমস্যাই আসছে আইসিসি সভায় টেবিলেই সমাধান হবে। যেমন আশঙ্কা করা হচ্ছে, তেমন কোনো ভাঙন হবে বলে সন্দেহ করছেন না তিনি। সেই সঙ্গে আশা করছেন, অন্তত বাংলাদেশের জন্য ইতিবাচকই থাকবে পরিস্থিতি।

font
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া বলেছেন, 'এই সরকারের আয়ু এক বছরও হবে না।' আপনিও কি তাই মনে করেন?
3 + 1 =  
ফলাফল
আজকের নামাজের সময়সূচী
নভেম্বর - ১২
ফজর৫:০৯
যোহর১১:৫২
আসর৩:৩৭
মাগরিব৫:১৬
এশা৬:৩৪
সূর্যোদয় - ৬:৩০সূর্যাস্ত - ০৫:১১
archive
বছর : মাস :
The Daily Ittefaq
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: তাসমিমা হোসেন। উপদেষ্টা সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন। ইত্তেফাক গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে তারিন হোসেন কর্তৃক ৪০, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ থেকে প্রকাশিত ও মুহিবুল আহসান কর্তৃক নিউ নেশন প্রিন্টিং প্রেস, কাজলারপাড়, ডেমরা রোড, ঢাকা-১২৩২ থেকে মুদ্রিত। কাওরান বাজার ফোন: পিএবিএক্স: ৭১২২৬৬০, ৮১৮৯৯৬০, বার্ত ফ্যাক্স: ৮১৮৯০১৭-৮, মফস্বল ফ্যাক্স : ৮১৮৯৩৮৪, বিজ্ঞাপন-ফোন: ৮১৮৯৯৭১, ৭১২২৬৬৪ ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭২, e-mail: [email protected], সার্কুলেশন ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭৩। www.ittefaq.com.bd, e-mail: [email protected]
Copyright The Daily Ittefaq © 2014 Developed By :