The Daily Ittefaq
ঢাকা, রবিবার, ২৬ জানুয়ারি ২০১৪, ১৩ মাঘ ১৪২০, ২৪ রবিউল আওয়াল ১৪৩৫
সর্বশেষ সংবাদ নাদালের স্বপ্ন ভেঙে দিয়ে চ্যাম্পিয়ন ওয়ারিঙ্কা | তৌফিক-ই-এলাহী চৌধুরীকে প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা নিয়োগ | শাবিতে শিবির-ছাত্রলীগ সংঘর্ষ, ভাংচুর | সংখ্যালঘু নির্যাতনের বিচার বিশেষ ক্ষমতা আইনেই: আইনমন্ত্রী | যুক্তরাষ্ট্রের শপিং মলে হামলা, নিহত ৩ | মওদুদসহ বিএনপির ৪ নেতার জামিন

গ্যাসের অবৈধ লাইন ও সংযোগ

গ্যাসের জন্য ব্যবসায়ী-শিল্পপতি ও আবাসিক গ্রাহকদের হাহাকার দীর্ঘদিনের। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই চাহিদা অনুযায়ী গ্যাস পাওয়া যাইতেছে না। আবাসিক, শিল্প ও বাণিজ্যিক সংযোগসহ সকল ধরনের সংযোগে গ্যাসের চাপও অত্যন্ত কম। রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশের চিত্র প্রায় অভিন্ন। উদ্বেগের বিষয় হইল, গ্যাসের অভাবে একদিকে যখন মারাত্মকভাবে ব্যাহত হইতেছে শিল্প-উত্পাদন, অন্যদিকে তখন গ্যাস-সংযোগ লইয়া চলিতেছে যথেচ্ছাচার। পরিস্থিতি কতোখানি উদ্বেগজনক তাহা অনুধাবন করিবার জন্য পেট্রোবাংলার চেয়ারম্যানের সমপ্রতি প্রদত্ত একটি তথ্যই যথেষ্ট বলিয়া বিবেচিত হইতে পারে। তিনি জানাইয়াছেন যে, ইতিমধ্যে প্রায় ২০০ কিলোমিটার বিতরণ লাইন এবং প্রায় তিন লক্ষ সংযোগ অবৈধ ও অননুমোদিত বলিয়া চিহ্নিত হইয়াছে। ইহাই যে গ্যাসের চাপ কমিয়া যাওয়ার অন্যতম প্রধান কারণ তাহাও তিনি স্বীকার করিয়াছেন অকপটে। ইহাতে শুধু যে শিল্প-কারখানাসহ সব ধরনের বৈধ গ্রাহকদের ভোগান্তি বাড়িতেছে তাহাই নহে, সেই সাথে সরকারও বঞ্চিত হইতেছে বিপুল পরিমাণ রাজস্ব হইতে। সমস্যাটি পুরনো। সমস্যার কারণও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অজানা নহে। কিন্তু কোনো প্রতিকার মিলিতেছে না।

তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানিসূত্রে জানা যায়, গ্যাস-সংযোগ যখন বন্ধ ছিল তখন অবৈধ সংযোগ নেওয়া হইত। আর সরকারি বিধিনিষেধ প্রত্যাহারের পর এখন শুরু হইয়াছে অবৈধ লাইন বসানোর বেপরোয়া কর্মকাণ্ড। তিতাসের আওতাভুক্ত নরসিংদী, রূপগঞ্জ, গাজীপুর, কেরানীগঞ্জ, সাভার, মানিকগঞ্জ— এমনকী ঢাকা মহানগরেও অবৈধ লাইন বসানোর ঘটনা ঘটিয়াছে। শুধু তাহাই নহে, সাভারের ঢাকা ইপিজেডে নিরবচ্ছিন্ন গ্যাস সরবরাহ লাইনের বিভিন্ন স্থানে বিপজ্জনকভাবে ছিদ্র করিয়া অন্যত্র গ্যাস সরবরাহ করা হইতেছে। গ্যাস লইয়া এই ধরনের অনিয়ম ও যথেচ্ছাচারের দৃষ্টান্ত অনেক। ফলে একদিকে যেমন গ্যাসের চাপ কমিয়া যাইতেছে, অন্যদিকে তেমনি বাড়িতেছে দুর্ঘটনার ঝুঁকিও। কিন্তু কিছুতেই যে ইহার লাগাম টানিয়া ধরা যাইতেছে না— বন্ধ করা যাইতেছে না অবৈধ লাইন নির্মাণ ও সংযোগ— খোদ কর্তাব্যক্তিরাই তাহা স্বীকার করিয়াছেন। আর ইহার জন্য দায়ী করিয়াছেন 'প্রভাবশালী'দের। উদাহরণ হিসাবে তাহারা বলিয়াছেন যে অবৈধ লাইন নির্মাণ বন্ধ করিতে গিয়া বিতরণ কোম্পানির কর্মকর্তা-কর্মচারীরা লাঞ্ছিত হইয়াছে। ম্যাজিস্ট্রেটের উপস্থিতিতেও তাহাদের উপর আক্রমণের ঘটনা ঘটিয়াছে। হুমকি-ধমকির মুখে পড়িয়াছেন স্থানীয় কার্যালয়ের কর্মকর্তারা। এইসব অভিযোগের সত্যতা নিশ্চয় আছে। তবে ইহাই যে সম্পূর্ণ সত্য নহে তাহাও অস্বীকার করা যাইবে না। একহাতে যে তালি বাজে না— তাহা কোনো নূতন কথা নহে। সংশ্লিষ্ট কোম্পানিসমূহের একশ্রেণীর কর্মকর্তা-কর্মচারীও যে এইসব অবৈধ কর্মকাণ্ডের সাথে জড়িত— তাহা কর্তৃপক্ষও অস্বীকার করেন নাই।

গ্যাসের লাইন ও সংযোগ লইয়া যাহা চলিতেছে— তাহা একেবারেই অভিপ্রেত নহে। সকলেই একবাক্যে বলিবেন যে অনতিবিলম্বে এই অনিয়ম ও যথেচ্ছাচার বন্ধ হওয়া উচিত। কিন্তু কথাটি বলা যতো সহজ তাহা কার্যকর করা যে মোটেও ততো সহজ নহে— সেই উদাহরণ তো আমাদের চোখের সামনেই রহিয়াছে। এমনিতেই চাহিদার তুলনায় গ্যাসের জোগান কম— অনিয়ম-বিশৃঙ্খলা পরিস্থিতিকে যে আরও জটিল করিয়া তুলিয়াছে তাহা না বলিলেও চলে। বত্সরের পর বত্সর ধরিয়া এই অবস্থা চলিয়া আসিতেছে। শিল্পোদ্যাক্তাদের পাশাপাশি সারা দেশ ইহার কুফল ভোগ করিতেছে। অথচ দিন দিন অনিয়ম-বিশৃঙ্খলা যেন বাড়িয়াই চলিয়াছে। অপ্রিয় হইলেও ইহাই বাস্তবতা। আর দেশের সামগ্রিক পরিস্থিতি হইতে ইহাকে বিচ্ছিন্ন করিয়া দেখিবারও কোনো অবকাশ নাই। রাতারাতি সর্বব্যাপী এই অনিয়ম-বিশৃঙ্খলা দূর করা যাইবে না ইহা যেমন সত্য, তেমনি অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি অর্জনের মাধ্যমে জনগণের জীবনমান উন্নয়নের পথে ইহাই যে সর্বাপেক্ষা বড়ো বাধা তাহাও অস্বীকার করা যাইবে না। অতএব, এই ব্যাপারে হেলাফেলা করিবার কোনো সুযোগ নাই।

font
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
সিপিডির ফেলো ড. দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য বলেছেন সুষ্ঠু ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন না হলে রাজনৈতিক অনিশ্চয়তা কাটবে না। এতে অর্থনীতি দীর্ঘ মেয়াদি সংকটে পড়বে।' আপনিও কি তাই মনে করেন?
1 + 8 =  
ফলাফল
আজকের নামাজের সময়সূচী
নভেম্বর - ২
ফজর৫:০৪
যোহর১১:৪৮
আসর৩:৩৫
মাগরিব৫:১৪
এশা৬:৩১
সূর্যোদয় - ৬:২৪সূর্যাস্ত - ০৫:০৯
archive
বছর : মাস :
The Daily Ittefaq
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: তাসমিমা হোসেন। উপদেষ্টা সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন। ইত্তেফাক গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে তারিন হোসেন কর্তৃক ৪০, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ থেকে প্রকাশিত ও মুহিবুল আহসান কর্তৃক নিউ নেশন প্রিন্টিং প্রেস, কাজলারপাড়, ডেমরা রোড, ঢাকা-১২৩২ থেকে মুদ্রিত। কাওরান বাজার ফোন: পিএবিএক্স: ৭১২২৬৬০, ৮১৮৯৯৬০, বার্ত ফ্যাক্স: ৮১৮৯০১৭-৮, মফস্বল ফ্যাক্স : ৮১৮৯৩৮৪, বিজ্ঞাপন-ফোন: ৮১৮৯৯৭১, ৭১২২৬৬৪ ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭২, e-mail: [email protected], সার্কুলেশন ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭৩। www.ittefaq.com.bd, e-mail: [email protected]
Copyright The Daily Ittefaq © 2014 Developed By :