The Daily Ittefaq
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৪, ১ ফাল্গুন ১৪২০, ১২ রবিউস সানী ১৪৩৫
সর্বশেষ সংবাদ মানিকগঞ্জে বাসে ধর্ষণ : চালক-সহকারীর যাবজ্জীবন | লক্ষ্মীপুরে যুবলীগ কর্মীকে গুলি করে হত্যা | বাতিল হওয়া সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা ১৪ মার্চ | কোপা দেল রে'র ফাইনালে বার্সেলোনা

অর্থনৈতিক ক্ষতি ও সন্ত্রাসের রাজনীতি

ন তু ন প্র জ ন্মে র ভা ব না

সন্ত্রাসের রাজনীতি ও

অর্থনৈতিক ক্ষতি একে

অপরের পরিপূরক

গণতন্ত্র এখন মানুষের কল্যাণের জন্য রাজনীতি না হয়ে, সন্ত্রাসের রাজনীতিতে পরিবর্তিত হয়েছে। যার ফলে আমাদের দেশের অর্থনীতি ভগ্নদশায় রূপান্তরিত হয়েছে। জনসংখ্যা রপ্তানি, রেমিট্যান্স আয়, বৈদেশিক বিনিয়োগ, প্রবৃদ্ধির হার বহুলাংশে কমে গেছে। যা অপার সম্ভাবনাময় বাংলাদেশের জন্য অশনিসংকেত হিসাবে দেখা হচ্ছে। তাই দুই নেত্রীর নিকট আকুল নিবেদন, একে অপরের ওপর দোষ দেয়ার খেলা বন্ধ করুন। জনগণের স্বার্থে, বাংলাদেশের স্বার্থে অর্থবহ সংলাপের মঞ্চ তৈরি করে মা মাটি ও মানুষের কল্যাণ নিশ্চিত করুন।

মো. মাইদুল ইসলাম

রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগ,

গাইবান্ধা সরকারি কলেজ

সন্ত্রাসের রাজনীতি দেশের অর্থনীতিকে

পিছিয়ে দিচ্ছে

বাংলাদেশ তার ৪২ বছরের বয়সে যে রাজনৈতিক আন্দোলন দেখেছে সেটা কতটুকু ফলপ্রসূ তা জাতীয় বিবেকের কাছে প্রশ্নবিদ্ধ। সংবিধানের (৩৭) অনুচ্ছেদে সভা-সমাবেশ আন্দোলন সংগ্রামের অধিকার বিবৃত হয়েছে। তবে তার মাত্রা কতটুকু তা ভাববার বিষয়। প্রতি পাঁচ বছর পর পর ঘুমিয়ে থাকা দেশ-প্রেমিকেরা হঠাত্ ধূমকেতুর ন্যায় দেশ উদ্ধারে কোমর বেঁধে নেমে পড়ে। এই আন্দোলনের মোক্ষম উদ্দেশ্য কি? ক্ষমতা নাকি দেশপ্রেম। অত্যন্ত পরিতাপের বিষয় যে, রাজনৈতিক বড় দু'দলের বাড়াবাড়ির আন্দোলনে দেশের অর্থনীতি যে কত পিছিয়ে রয়েছে তা বলার অপেক্ষা রাখে না। আমি বড় দু'দলকে দেশের অর্থনৈতিক মজবুতি, সুখী-সমৃদ্ধ সোনার বাংলা গড়তে এক হয়ে কাজ করার উদাত্ত আহ্বান জানাই।

কে এম মাহ্ফুজুর রহমান

প্রতিষ্ঠাতা আইডিয়াল স্টুডেন্ট'স ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন, বগুড়া।

রাজনৈতিক সহিংসতার পথ

পরিহার করে সকলকে দেশের

উন্নতির স্বার্থে কাজ করতে হবে

একটি দেশের অর্থনৈতিক উন্নতির পূর্বশর্ত হচ্ছে রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা। তৃতীয় বিশ্বের দেশ হওয়া সত্ত্বেও বাংলাদেশ অর্থনৈতিক উন্নতির ক্ষেত্রে খুবই সফলভাবে এগিয়ে চলছে। বিরোধী দলগুলোর রাজনৈতিক সহিংসতা সমস্যার কোনও সমাধান তো সৃষ্টি করছেই না বরং যার ফসল হচ্ছে—লাগামহীন দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি, জনগণের জানমালের নিরাপত্তাহীনতা, আইনশৃঙ্খলার চরম অবনতি। তাই প্রধান রাজনৈতিক দলগুলোর প্রতি আমাদের অনুরোধ দেশ ও জাতির স্বার্থে এসব সহিংসতা পরিহার করে সংলাপের মাধ্যমে একটি গ্রহণযোগ্য সমাধানে আসুন এবং বাংলাদেশকে অর্থনীতির রুল মডেল হিসেবে দাঁড় করাতে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করুন।

রেজাউল ইসলাম চৌধুরী,

১মবর্ষ ২য় সেমিস্টার, ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগ,

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, সিলেট।

গণতন্ত্রের পূর্ণাঙ্গ চর্চার

মাধ্যমে অর্থনীতির

ভীত মজবুত হবে

আমরা প্রত্যক্ষ করেছি গত এক বছরে বাংলাদেশের রেমিট্যান্স অস্বাভাবিকহারে কমেছে। আমদানি-রপ্তানি এবং গার্মেন্টেস শিল্পে ধস নেমেছে। এসবই সরকারের অগণতান্ত্রিক আচরণের ক্রমাগত ফল। ইতোমধ্যে আন্তর্জাতিক মহল বলতে শুরু করেছেন বিরোধী দলগুলোকে চিড়েচ্যাপটা করতে যা যা করা দরকার তাই করছে সরকার। এভাবে চললে দাতাসংস্থাগুলো তাদের বিনিয়োগ গুটিয়ে নেবে। আমাদের পড়তে হবে দীর্ঘমেয়াদী অর্থনৈতিক সংকটে। সরকারের কয়েকজন মন্ত্রী জঙ্গিবাদ জঙ্গিবাদ বলে জঙ্গিবাদকে উস্কে দেয়ার পাশাপাশি আন্তর্জাতিক মহলে দেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করছেন। এসবের পাশাপাশি সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে জড়িতদের নিয়ে পাল্টাপাল্টি দোষারোপ নিত্য-নৈমিত্তিক ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। যার ফলে প্রকৃত দোষীরা ধরা-ছোঁয়ার বাহিরে রয়ে যাচ্ছে। এসব বাদ দিয়ে দেশটাকে অর্থনৈতিক ক্ষতি থেকে রক্ষা করার জন্য সরকারকে জনগণের ইচ্ছানুযায়ী একটি গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের মাধ্যমে রাষ্ট্রকে সহিংসতা ও সন্ত্রাসবাদ হাত থেকে অবমুক্ত করা উচিত। তাহলেই গণতান্ত্রিক এ দেশটি অচিরেই অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী হবে।

সিকদার রেদোয়ান আহমেদ

আইন ও মুসলিম বিধান বিভাগ

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, কুষ্টিয়া।

সহিংস রাজনীতির

তোপের মুখে

সাধারণ মানুষ

রাজনীতি আর অর্থনীতি একটি আরেকটির পরিপূরক। এক কথায় রাজনীতি আর অর্থনীতির মধ্যে রয়েছে গভীর মিতালী। রাজনীতিতে ক্রমাগত নৈরাজ্য ও সহিংসতা চলতে থাকলে কখনই অর্থনীতির উন্নয়ন সাধিত হবে না। এটা মোটেও সম্ভব নয়। রাজনীতিতে যদি মানবতা, সমঝোতা ও সুশাসন থাকে, তাহলেই অর্থনীতির উন্নয়ন সাধন সময়ের ব্যাপার মাত্র। সহিংস রাজনীতির কারণেই আমরা অর্থনৈতিক দিক দিয়ে অনেকটা পিছিয়ে রয়েছি। ক্রমাগত চলছে অবরোধ, হরতাল, মারামারি, কাটাকাটি, নিরীহ মানুষের প্রাণহানী, সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড, ব্যাপক নৈরাজ্য, উচ্ছৃঙ্খল অগ্নিসংযোগসহ নানাবিধ সহিংসতা। এতে করে দেশের প্রত্যহ অঞ্চলের শিল্প প্রতিষ্ঠানগুলো পণ্য ডেলিভারী দিতে হিমসিম খাচ্ছে। তাতে অর্থনৈতিক দিক দিয়ে আমরা ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছি। সুতরাং, সহিংস, রাজনীতির দাবানলে পুড়ে ছারখার হচ্ছে অর্থনৈতিক পুঁজিবাজার। রাজনীতিবিদরা যদি শান্তিপূর্ণ, সমঝোতা ও সুশাসনের মাধ্যমে দেশকে উন্নয়নের সোপানে না নিয়ে যায়, তাহলে নিঃসন্দেহে বলা যায় দেশ অর্থনৈতিক দিক থেকে ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হবে। তাতে লেশমাত্র সন্দেহ নেই।

তরিকুল ইসলাম রাসেল

মানবিক বিভাগ, বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়,গাজীপুর-১৭০৫।

font
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন, ৫ বছর পর একাদশ সংসদ নির্বাচন হবে এবং তা হবে বর্তমান সংবিধান আলোকেই। আপনি কি তার সাথে একমত?
7 + 9 =  
ফলাফল
আজকের নামাজের সময়সূচী
জুলাই - ২১
ফজর৩:৫৮
যোহর১২:০৫
আসর৪:৪৪
মাগরিব৬:৪৯
এশা৮:১১
সূর্যোদয় - ৫:২৩সূর্যাস্ত - ০৬:৪৪
archive
বছর : মাস :
The Daily Ittefaq
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: তাসমিমা হোসেন। উপদেষ্টা সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন। ইত্তেফাক গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে তারিন হোসেন কর্তৃক ৪০, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ থেকে প্রকাশিত ও মুহিবুল আহসান কর্তৃক নিউ নেশন প্রিন্টিং প্রেস, কাজলারপাড়, ডেমরা রোড, ঢাকা-১২৩২ থেকে মুদ্রিত। কাওরান বাজার ফোন: পিএবিএক্স: ৭১২২৬৬০, ৮১৮৯৯৬০, বার্ত ফ্যাক্স: ৮১৮৯০১৭-৮, মফস্বল ফ্যাক্স : ৮১৮৯৩৮৪, বিজ্ঞাপন-ফোন: ৮১৮৯৯৭১, ৭১২২৬৬৪ ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭২, e-mail: [email protected], সার্কুলেশন ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭৩। www.ittefaq.com.bd, e-mail: [email protected]
Copyright The Daily Ittefaq © 2014 Developed By :