The Daily Ittefaq
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৪, ১ ফাল্গুন ১৪২০, ১২ রবিউস সানী ১৪৩৫
সর্বশেষ সংবাদ মানিকগঞ্জে বাসে ধর্ষণ : চালক-সহকারীর যাবজ্জীবন | লক্ষ্মীপুরে যুবলীগ কর্মীকে গুলি করে হত্যা | বাতিল হওয়া সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা ১৪ মার্চ | কোপা দেল রে'র ফাইনালে বার্সেলোনা

আজকাল পরিণীতি

বলিউডে পা রেখেছেন খুব বেশিদিন হয়নি, কিন্তু এর মধ্যেই পরিণীতি চোপড়া রীতিমতো তারকা বনে গেছেন। তার অভিনীত চারটি ছবি মুক্তি পেয়েছে। প্রতিটি ছবিতেই দর্শক তাকে পেয়েছে নতুনভাবে। একই ধাঁচের নায়িকার চরিত্রে নয়, বিচিত্র ধরনের চরিত্রে যথাযথ অভিনয়ের মাধ্যমে পরিণীতি প্রমাণ করেছেন তার সক্ষমতার। হিন্দি সিনেমায় নতুন প্রজন্মের নায়িকাদের মধ্যে এখন তার নামটি চলে আসছে খুব সহজেই। একজন সম্ভাবনাময়ী অভিনেত্রী হিসেবে চমত্কার গতিতে এগিয়ে চলেছেন তিনি। পরিণীতি চোপড়ার এগিয়ে যাওয়ার গল্প লিখেছেন রেজাইল করিম খোকন

অভিনেত্রী হিসেবে ক্যারিয়ার গড়ার কোনো স্বপ্ন ছিল না পরিণীতি চোপড়ার। বয়সে সিনিয়র চাচাতো বোন প্রিয়াংকা চোপড়া মিস ওয়ার্ল্ড শিরোপা জিতে বলিউডের বাসিন্দা হওয়ার পরেও তার মনে কোনো লোভ জাগেনি। পরিণীতির জীবনের লক্ষ্য ছিল ইনভেস্টমেন্ট ব্যাংকার হবেন। তাই পড়াশোনা করতে ইংল্যান্ডের ম্যানচেস্টার বিজনেস স্কুলে পড়তে গিয়েছিলেন। ওখান থেকে ট্রিপল অনার্স ডিগ্রি নিয়েছিলেন ফিন্যান্স, ইকোনমিক্স ও বিজনেস বিষয়ে। বিশ্ব অর্থনৈতিক মন্দার কারণে ওখানে ক্যারিয়ার না গড়ে সোজা মুম্বাই ফিরে আসেন। এসে বড়বোন অভিনেত্রী প্রিয়াংকা চোপড়ার রেফারেন্সে বলিউডের শীর্ষস্থানীয় প্রযোজনা সংস্থা ইয়াশরাজ ফিল্মসে পাবলিক রিলেশনস অফিসার হিসেবে চাকরিতে যোগ দেন। কয়েক মাস চাকরি করার পর ইয়াশরাজ ফিল্মসে পাবলিক রিলেশনস অফিসার হিসেবে চাকরিতে যোগ দেন। কয়েক মাস চাকরি করার পর ইয়াশরাজ ফিল্মসের অন্যতম কর্তাব্যক্তি আদিত্য চোপড়া পরিণীতিকে অভিনয়ে আসার প্রস্তাব দেন। তখন বেশ স্থূলকায়া ছিলেন তিনি। একসঙ্গে তিনটি সিনেমায় নায়িকা চরিত্রে অভিনয়ের জন্য চুক্তিবদ্ধ হওয়ার পর অনেক কসরত করে পরিণীতি শরীরের বাড়তি ওজন কমিয়ে স্লিম হয়ে যান। তাকে প্রথম দেখা যায় 'লেডিস ভার্সেস রিকি বাহল' ছবিতে। প্রথম ছবিতেই নতুন মুখ হিসেবে সবার নজর কাড়তে সক্ষম হন পরিণীতি। সম্ভাবনাময়ী নতুন মুখ হিসেবে প্রথম অভিনীত ছবিতেই বাজিমাত করেন তিনি। ফিল্ম ফেয়ার পুরস্কার পেয়ে যান পরিণীতি। এরপর দ্বিতীয় ছবি 'ইশকজাদে' তাকে আরও বেশ অনেকটা এগিয়ে দেয়। এখানে একজন রাগী একগুঁয়ে স্বভাবের মুসলিম তরুণীর চরিত্রে অনবদ্য অভিনয়ের স্বাক্ষর রেখেছেন তিনি। এ ছবিতে অভিনয়ের জন্য পরিণীতি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছেন। গত বছর মুক্তি পেয়েছে তার অভিনীত তৃতীয় ছবি 'শুদ্ধ দেশি রোমান্স'। এখানেও পরিণীতির অপূর্ব অভিনয় দর্শক সমালোচকদের অকুণ্ঠ প্রশংসা অর্জন করেছে। এবারের প্রায় সবগুলো অ্যাওয়ার্ডে সেরা অভিনেত্রীর ক্যাটগরিতে এজন্য মনোনয়ন লাভ করেছেন তিনি। লক্ষণীয় ব্যাপার হলো, পরিণীতি অভিনীত ইয়াশরাজ ফিল্মসের তিনটি ছবিই বক্স অফিসে দারুণ ব্যবসা করেছে। ফলে অভিনেত্রী হিসেবে নির্মাতা মহলে তার গ্রহণযোগ্যতা সৃষ্টি হয়েছে। গত সপ্তাহে মুক্তি পেয়েছে পরিণীতি চোপড়া অভিনীত চতুর্থ ছবি 'হাসি তো ফাসি'। এ ছবিতে আরও বিচিত্র একটি চরিত্রে রূপদানের মাধ্যমে বলিউডে আলোড়ন তুলেছেন নতুন প্রজন্মের সম্ভাবনাময়ী এই অভিনেত্রী। এখানে তাকে এক পাগল তরুণী বিজ্ঞানীর চরিত্রে দেখা গেছে। যার আচরণ এলোমেলো, সারাক্ষণ আবোলতাবোল কথা বলা তার স্বভাব। মাঝেমধ্যে রোবটের মতো হয়ে যায়, নির্বিকার যন্ত্রের মতো মনে হয় তাকে তখন। তেমনি স্বভাবের মেয়েটি একসময় প্রেমে পড়ে এক যুবকের। তাদের দু'জনের বিচিত্র প্রেমের নানা বিষয় নিয়ে মজাদার গল্প তুলে ধরা হয়েছে 'হাসি তো ফাসি' ছবিতে। এ ছবিতে পরিণীতি যে ধরনের চরিত্রে অভিনয় করেছেন এর আগে বলিউডি সিনেমায় তেমন নায়িকা চরিত্র দেখা যায়নি। বলা যায় আগের তিন ছবির মতো এবারও ভিন্নধারার একটি চরিত্রে যথাযথ অভিনয়ের মাধ্যমে নিজের যোগ্যতা প্রমাণ করেছেন পরিণীতি। এতদিন তাকে ইয়াশরাজ ফিল্মসের ছবিতেই সীমাবদ্ধ নায়িকা হিসেবে অনেকে চিহ্নিত করতেন। কিন্তু সাম্প্রতিক ছবি 'হাসি তো ফাসি'র মাধ্যমে আগের সীমাবদ্ধতার বলয় ভেঙে বাইরে বেরিয়ে এসেছেন নতুন প্রজন্মের এ আলোচিত অভিনেত্রী। এবারের ছবিটি প্রযোজনা করেছেন বলিউডের দুই আলোচিত চিত্রনির্মাতা করণ জোহর ও অনুরাগ কাশ্যপ যৌথভাবে। 'হাসি তো ফাসি' ছবির জন্য পরিণীতিকে শরীরের ওজন বাড়াতে হয়েছে কিছুটা। চলচ্চিত্রের জন্য এই ওজন বাড়াতে হলেও মনে মনে বেশ অখুশি তিনি। অনেক চেষ্টা ও সাধনার পর নিজেকে স্লিম ফিগারের এনেছিলেন, আবার শরীরের ওজন বেড়ে যাওয়ায় কিছুটা বিব্রত পরিণীতি। 'আমি নিজেকে স্লিম রাখতে চাই, এজন্য আমি অনেক সেক্রিফাইজ করেছি, এখন যখন আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে নিজেকে দেখি মনটা খারাপ হয়ে যায়', দুঃখভরা কণ্ঠে বলেন তিনি কথাগুলো। অভিনীত চরিত্রটি সবসময় গ্ল্যামারাস হবে এটা মনে করেন না পরিণীতি চোপড়া। 'আমার কাছে অভিনয়টাই মুখ্য ব্যাপার, এজন্য আমি সবসময় সিরিয়াস ছবির স্ক্রিপ্ট হাতে পাওয়ামাত্র আমি চরিত্রটি নিয়ে ভাবতে শুরু করে দিই', পরিণীতি বলেন। এখন আর তাকে প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার কাজিন হিসেবে পরিচয় দিতে হয় না। পরিণীতিকে এখন সবাই চেনে তার নিজস্ব পরিচয়ে। এটা গত কয়েক বছরে অর্জন করেছেন তিনি। বর্তমানে হাবিব ফয়সালের 'দাওয়াত ই ইশক' এবং শাদ আলির 'কিল দিল' ছবি দুটির কাজ নিয়ে ব্যস্ত রয়েছেন পরিণীতি চোপড়া। বর্তমান ব্যস্ততা প্রসঙ্গে পরিণীতি বলেন, 'গত বছরের আগস্ট থেকে একটানা কাজ করছি। আগামী এপ্রিল পর্যন্ত এভাবে ব্যস্ততার মধ্যে কাটবে আমার সময়। এরমধ্যে একটু ফুরসত মেলে না। দিনে ১৮ ঘণ্টার মতো কাজ করতে হচ্ছে। এই ব্যস্ততায় আমি বিরক্ত নই, বেশ উপভোগ করছি বলা যায়।' এ বছরটা পরিণীতির ক্যারিয়ারে আরও অনেক ভালো কিছু যোগ করবে ধারণা করা যায়। 'হাসি তো ফাসি'র পর তার 'দাওয়াত ই ইশক' এবং 'কিল দিল' ছবি দুটিও যদি এ বছর মুক্তি পায় দর্শক পরিণীতিকে আরও ভালোভাবে চেনার সুযোগ পাবে। সেই সুবাদে বলিউডে তার অবস্থান আরও পাকাপোক্ত হয়ে যাবে সন্দেহ নেই।

font
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন, ৫ বছর পর একাদশ সংসদ নির্বাচন হবে এবং তা হবে বর্তমান সংবিধান আলোকেই। আপনি কি তার সাথে একমত?
9 + 2 =  
ফলাফল
আজকের নামাজের সময়সূচী
অক্টোবর - ২৩
ফজর৪:৪৩
যোহর১১:৪৩
আসর৩:৪৯
মাগরিব৫:২৯
এশা৬:৪২
সূর্যোদয় - ৫:৫৯সূর্যাস্ত - ০৫:২৪
archive
বছর : মাস :
The Daily Ittefaq
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: তাসমিমা হোসেন। উপদেষ্টা সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন। ইত্তেফাক গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে তারিন হোসেন কর্তৃক ৪০, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ থেকে প্রকাশিত ও মুহিবুল আহসান কর্তৃক নিউ নেশন প্রিন্টিং প্রেস, কাজলারপাড়, ডেমরা রোড, ঢাকা-১২৩২ থেকে মুদ্রিত। কাওরান বাজার ফোন: পিএবিএক্স: ৭১২২৬৬০, ৮১৮৯৯৬০, বার্ত ফ্যাক্স: ৮১৮৯০১৭-৮, মফস্বল ফ্যাক্স : ৮১৮৯৩৮৪, বিজ্ঞাপন-ফোন: ৮১৮৯৯৭১, ৭১২২৬৬৪ ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭২, e-mail: [email protected], সার্কুলেশন ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭৩। www.ittefaq.com.bd, e-mail: [email protected]
Copyright The Daily Ittefaq © 2014 Developed By :