The Daily Ittefaq
ঢাকা, শুক্রবার, ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৪, ২ ফাল্গুন ১৪২০, ১৩ রবিউস সানী ১৪৩৫
সর্বশেষ সংবাদ গোপালগঞ্জে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ১৫, আটক ১১ | ২-০ তে সিরিজ জিতল লঙ্কানরা | লন্ডনে বাংলাদেশি নারী খুন, ছেলে গ্রেফতার | যশোরের অভয়নগরে চৈতন্য হত্যার আসামি 'বন্দুকযুদ্ধে' নিহত

ভালবেসে সখা আমারে রাখিও

ভ্যালেন্টাইন'স ডে আজ

আনোয়ার আলদীন

'যত গোপনে ভালোবাসি পরান ভরি/পরান ভরি উঠে শোভাতে/যেমন কালো মেঘে অরুণ-আলো লেগে/ মাধুরী উঠে জেগে প্রভাতে'...পরান গহীনের ভালোবাসা প্রকাশের দিন আজ। 'এতদিন যে বসেছিলেম পথচেয়ে আর কাল গুনে, দেখা পেলেম ফাল্গুনে..'। আজ ভালোবাসা দিবস। আজ সেন্ট ভ্যালেন্টাইন'স ডে। দুরু দুরু বুকে ভালোবাসা প্রকাশের মাহেন্দ্র দিন আজ। রোমান বিশ্বাসমতে, বসন্তের আবিরে স্নানশূচি হয়ে আজ প্রেমের দেবতা কিউপিড 'প্রেম বাণ' বাগিয়ে ঘুরে ফিরবে হূদয় থেকে হূদয়ে। অনুরাগ তাড়িত পরান এফোঁড়-ওফোঁড় হবে দেবতার বাঁকা ইশারায়। আজ হূদয় গহনে তারাপুঞ্জের মত ফুটবে চণ্ডিদাসের সেই অনাদিকালের সুর—'দুঁহু তার দুঁহু কাঁদে বিচ্ছেদ ভাবিয়া/অর্ধতিল না দেখিলে যায় যে মরিয়া/সখি কেমনে বাঁধিব হিয়া...। আকুতি ঝরবে-'তুমি কি দেবেনা সাড়া প্রিয়া বলে যদি ডাকি, হেসে কি কবেনা কথা, হাত যদি হাতে রাখি'।

পৃথিবীর সব সাহিত্য ডুবে আছে ভালোবাসা নিয়ে রচিত গল্প, কবিতা, গান, উপন্যাসের অতলান্তে। অতলান্তিকে তল পাওয়া গেছে। তারপরও 'ভালোবাসা কি?'—এ প্রশ্নের জবাব মেলাতে খেই হারিয়েছেন গল্প কবিতা গান উপন্যাসের রচয়িতারা। কেউ বলেছেন, 'প্রেমের আনন্দ থাকে শুধু স্বল্পক্ষণ, প্রেমের বিরহ থাকে সমস্ত জীবন'। আবার কেউ বলেছেন, 'ভালোবাসা মোরে ভিখারি করেছে, তোমারে করেছে রাণী...।' অথবা 'আমি ভালোবাসি যারে, সে কি কভু আমা হতে দূরে যেতে পারে।' কবিগুরুর ভাষায়, 'তোমরা যে বলো দিবস রজনী—ভালোবাসা ভালোবাসা। সখী, ভালোবাসা কারে কয়! সে কি কেবলই যাতনাময়।' অতুল প্রসাদ তার গানের ভাষায় বলেছেন, 'আধো রাতে যদি ঘুম ভেঙে যায়, মনে পড়ে মোরে প্রিয়, চাঁদ হয়ে রব আকাশেরও গায়, বাতায়ন খুলে দিও।' চন্ডিদাসের পদে 'রজকিনী প্রেম, নিকষিত হেম'। আধুনিক কবির চিরন্তন কণ্ঠে প্রেয়সীকে বলা:'পৃথিবীর কাছে তুমি হয়তো কিছুই নও, কিন্তু কারও কাছে তুমিই তার পৃথিবী'। অথবা 'যে বেশি কষ্ট দেয় তাকেই ভালোবাসা যায়'। আধুনিক প্রেমের কবির অনুভব—'তোমার সাথে প্রতিটি কথাই কবিতা, প্রতিটি মুহূর্তই উত্সব/তুমি যখন চলে যাও, সঙ্গে সঙ্গে পৃথিবীর সব আলো নিভে যায়...।'

ভালোবাসার কথা প্রকাশের জন্য সুদৃশ্য মলাটে মোড়া বইয়ের আটপৌরে দিন ফুরিয়েছে। আঙুল কেটে রক্তে রক্ত মিলিয়ে দেয়া, চিঠির ভাঁজে গোলাপের পাপড়ি গুঁজে দেয়া, দিস্তায় দিস্তায় কাগজ নষ্ট করে কাব্য চর্চা, চন্ডিদাস অথবা দেবদাসের মত চরিত্র হয়ে ওঠার অনুষঙ্গগুলো একেবারে ম্রিয়মাণ।

অতীতে ভালোবাসায় কেউ সাম্রাজ্য ছেড়েছে, কেউ প্রাণপাত করেছে। কেউ সহমরণে গেছে। তবে ভালোবাসা সেই অকৃত্রিমই আছে। যান্ত্রিকতা তাকে শুধু বহুমাত্রিক করেছে। মিডিয়ার খবর রাজ্যের ভাঁজে-ভাঁজে হঠাত্ ভালোবাসা নিয়ে এমন খবর মেলে যা সেকাল-একালকে একাকার করে ভাসিয়ে নেয়। এখন নীল খামে ভরা চিঠির দিন হরণ করেছে 'ই-নেট'। কাগজ-কলম-দোয়াতের দরকার হয় না। পলক ফেলার আগেই ফেসবুকের ওয়াল, ইনবক্স, ব্লগ-টুইট ভরে উঠছে 'হূদয়ের কথকতায়'। 'সেলফি'তে ভরে উঠছে আইডি। বড় দ্রুততায় বদলে যাচ্ছে প্রেমের রূপায়ণ। মুঠোফোনের ক্ষুদে বার্তা অথবা চ্যাটিং-এ এখন পুঞ্জ পুঞ্জ প্রেমকথার কিশলয় পল্লবিত হয়।

এবার ভালোবাসা দিবসের সঙ্গে নতুন অনুষঙ্গ প্রবর্তন করেছে পাশ্চাত্যের 'গিফট বেনিয়ারা'। ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে তারা শুরু করেছে এবারের ভ্যালেন্টাইন কাউন্টডাউন। ৭ ফেব্রুয়ারি পালন করেছে 'রোজ ডে' (গোলাপ দিবস), ৮ ফেবু্রয়ারি প্রপোজ ডে, ৯ ফেব্রুয়ারি চকোলেট ডে, ১০ ফেব্রুয়ারি টেডি ডে, ১১ ফেব্রুয়ারি, প্রোমিজ ডে, ১২ ফেবু্রয়ারী হাগ ডে, ১৩ ফেব্রুয়ারী কিস ডে এবং ১৪ ফেবু্রয়ারি ভ্যালেন্টাইন'স ডে।

গতকাল ছিল বাঙালির বসন্ত বরণের দিন। একদিকে ঋতুরাজ বসন্তের আগমন, অপরদিকে আজ ভালোবাসা দিবসের ছোঁয়া। প্রাচ্য-পাশ্চাত্যের গবেষকদের অনেকে বলে থাকেন, ফেব্রুয়ারির এই সময়ে পাখিরা তাদের সঙ্গী খোঁজে, বাসা বাঁধে। নিরাভরণ বৃক্ষে কচি কিশলয় জেগে ওঠে। তীব্র সৌরভ ছড়িয়ে ফুল সৌন্দর্যবিভায় লাজুক আর ঢলঢলে হতে থাকে।

পশ্চিমা দুনিয়ার ফোরটিন্থ ফেব্রুয়ারির এই প্রেম উত্সব তারুণ্যের ভেতর এক অদেখা ভুবনের উত্তেজনা ছড়ায়। এ দিনে চকোলেট, পারফিউম, গ্রিটিংস কার্ড, মেইল, মুঠোফোনের প্রেমবার্তা, হীরের আংটি, প্রিয় পোশাক, জড়াজড়ি করা খেলনা মার্জার, বই অথবা বুকের ভেতর থাকে যে গোলাপের ইশারা, সেই রক্তগোলাপ হয়ে ওঠে প্রথম অনুষঙ্গ। কেউ কেউ গোলাপ ফুল, চকোলেট ক্যান্ডি আর ছোট্ট চিরকুট। তাতে দু'ছত্র গদ্য অথবা পদ্যে প্রেমের ঊর্মি—'ইউ স্টেপ ইন টু মাই হার্ট, টার্নিং ইট ফ্রম স্টোন..।' অনেক দিবসের ভিড়ে ভালোবাসা দিবস সম্পূর্ণ আলাদা মাত্রায় উত্কীর্ণ।

সেন্ট ভ্যালেন্টাইন'স ডে-র ইতিহাস খুঁজতে গিয়ে অনেক কাহিনীর কথা জানা যায়। উইকিপিডিয়ায় একটি কাহিনী সম্পর্কে বলা আছে—২৬৯ খ্রিষ্টাব্দে ইতালির রোম নগরীতে সেন্ট ভ্যালেইটাইন নামে একজন খ্রিষ্টান পাদ্রী ও চিকিত্সক ছিলেন। ধর্ম প্রচারের অভিযোগে তত্কালীন রোমান সম্রাট দ্বিতীয় ক্রাডিয়াস তাকে বন্দী করেন। কারণ তখন রোমান সাম্রাজ্যে খ্রিষ্টান ধর্ম প্রচার ছিল নিষিদ্ধ। বন্দী অবস্থায় তিনি জনৈক কারারক্ষীর দৃষ্টিহীন কন্যাকে চিকিত্সায় সুস্থ করে তোলেন। এতে সেন্ট ভ্যালেইটাইন রাতারাতি জনপ্রিয় হয়ে ওঠেন। তার জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত হয়ে রাজা তাকে মৃত্যুদণ্ড দেন। সেই দিন ১৪ই ফেব্রুয়ারি ছিল। অতঃপর ৪৯৬ সালে পোপ সেন্ট জেলাসিউও ১ম জুলিয়াস ভ্যালেইটাইন স্মরণে ১৪ই ফেব্রুয়ারিকে ভ্যালেন্টাইন দিবস ঘোষণা করেন।

অপর কাহিনীটি হলো-সেন্ট ভ্যালেন্টাইনের নাম অনুসারেই পোপ প্রথম জুলিয়াস ৪৯৬ খৃস্টাব্দে ১৪ ফেব্রুয়ারিকে সেন্ট ভ্যালেন্টাইন'স ডে হিসাবে ঘোষণা করেন। আরো একজন ভ্যালেন্টাইনের নাম পাওয়া যায় ইতিহাসে। যুবকদের বিয়ে করতে রোমান সম্রাট ক্লডিয়াস নিষেধ করেন যুদ্ধের জন্য ভালো সৈন্য সংগ্রহের উদ্দেশ্যে। কিন্তু এই ভ্যালেন্টাইন নিয়ম ভেঙে প্রেম করেন। তারপর আইন ভেঙে বিয়ে করেন। ফলে তার মৃত্যুদণ্ড হয়। এই দিবসের রেশ ধরে আমাদের দেশে এদিন কেবল প্রেম বিনিময় নয়, তরুণ-তরুণীদের মাঝে গোপনে বিয়ের হিড়িক পড়ে।

বর্তমানে পাশ্চাত্যে এ উত্সব মহাসমারোহে উদযাপন করা হয়। যুক্তরাজ্যে মোট জনসংখ্যার অর্ধেক প্রায় ১০০ কোটি পাউন্ড ব্যয় করে এই ভালোবাসা দিবসের জন্য কার্ড, ফুল, চকোলেট, অন্যান্য উপহার সামগ্রী ও শুভেচ্ছা কার্ড কিনতে। আনুমানিক আড়াই কোটি শুভেচ্ছা কার্ড আদান-প্রদান করা হয়।

রাজধানীর ফুল দোকানে থরে থরে সাজানো মল্লিকা, জুঁই, গাঁদা উঠে আসবে ললনাদের খোঁপায়। ১৪ ফেব্রুয়ারি কেবল যে তরুণদের তা নয়, এ দিনে পিতা-মাতা-সন্তানের ভালবাসাও দিবসকে বড়মাত্রায় উদ্ভাসিত করে।

এই পাতার আরো খবর -
font
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, 'উপজেলা নির্বাচনেও ভাগ বাটোয়ারার ষড়যন্ত্র করছে আওয়ামী লীগ।' আপনিও কি তাই মনে করেন?
7 + 2 =  
ফলাফল
আজকের নামাজের সময়সূচী
জুলাই - ২১
ফজর৩:৫৮
যোহর১২:০৫
আসর৪:৪৪
মাগরিব৬:৪৯
এশা৮:১১
সূর্যোদয় - ৫:২৩সূর্যাস্ত - ০৬:৪৪
archive
বছর : মাস :
The Daily Ittefaq
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: তাসমিমা হোসেন। উপদেষ্টা সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন। ইত্তেফাক গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে তারিন হোসেন কর্তৃক ৪০, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ থেকে প্রকাশিত ও মুহিবুল আহসান কর্তৃক নিউ নেশন প্রিন্টিং প্রেস, কাজলারপাড়, ডেমরা রোড, ঢাকা-১২৩২ থেকে মুদ্রিত। কাওরান বাজার ফোন: পিএবিএক্স: ৭১২২৬৬০, ৮১৮৯৯৬০, বার্ত ফ্যাক্স: ৮১৮৯০১৭-৮, মফস্বল ফ্যাক্স : ৮১৮৯৩৮৪, বিজ্ঞাপন-ফোন: ৮১৮৯৯৭১, ৭১২২৬৬৪ ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭২, e-mail: [email protected], সার্কুলেশন ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭৩। www.ittefaq.com.bd, e-mail: [email protected]
Copyright The Daily Ittefaq © 2014 Developed By :