The Daily Ittefaq
ঢাকা, শুক্রবার, ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৪, ২ ফাল্গুন ১৪২০, ১৩ রবিউস সানী ১৪৩৫
সর্বশেষ সংবাদ গোপালগঞ্জে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ১৫, আটক ১১ | ২-০ তে সিরিজ জিতল লঙ্কানরা | লন্ডনে বাংলাদেশি নারী খুন, ছেলে গ্রেফতার | যশোরের অভয়নগরে চৈতন্য হত্যার আসামি 'বন্দুকযুদ্ধে' নিহত

২০৪১ সালের মধ্যে ধনী দেশ হবে বাংলাদেশ: প্রধানমন্ত্রী

বিশেষ প্রতিনিধি

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ২০৪১ সালের মধ্যে বিশ্বের ধনী দেশের তালিকায় থাকবে বাংলাদেশ। আর ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হবে। এই লক্ষ্য বাস্তবায়নে সরকার কাজ করে যাচ্ছে। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সুফল সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে নতুন 'লাগসই' প্রযুক্তি উদ্ভাবন, জ্ঞান-বিজ্ঞান চর্চা ও অনুশীলনের মাধ্যমে জনসাধারণের মধ্যে বিজ্ঞানমনষ্কতা ও সচেতনতা সৃষ্টির জন্য সংশ্লিষ্ট সবাইকে যথাযথ উদ্যোগ গ্রহণের আহবান জানিয়ে তিনি বলেন, যারা সুনির্দিষ্ট গবেষণায় নিযুক্ত, তাদের অবসরের বয়সসীমা শিথিল করার সিদ্ধান্ত সরকারের রয়েছে।

গতকাল ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি গবেষণা প্রকল্পে বিশেষ অনুদান, ছাত্র-ছাত্রী ও গবেষকদের মধ্যে বঙ্গবন্ধু ফেলোশিপ এবং এনএসটি ফেলোশিপের চেক প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন। শেখ হাসিনা বলেন, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সহায়তা নিয়ে বিপুল জনশক্তিকে দক্ষ মানব সম্পদে পরিণত করতে পারলেই উন্নয়নের লক্ষ্যে পৌঁছানো সম্ভব।

প্রসঙ্গত, মানব ও আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে পিছিয়ে পড়া দেশগুলোকেই জাতিসংঘ স্বল্পোন্নত দেশের তালিকাভুক্ত করেছে। দারিদ্র্য (মাথাপিছু আয়), মানবোন্নয়ন (পুষ্টি, স্বাস্থ্য, শিক্ষা ও সাক্ষরতার হার বিবেচনায়) এবং অর্থনৈতিক সামর্থ্য—এই তিনটি সূচকের ওপর ভিত্তি করে দশ বছর পরপর স্বল্পোন্নত দেশের তালিকা হালনাগাদ করা হয়। বর্তমানে আরো ৪৮টি দেশের সঙ্গে বাংলাদেশও এ তালিকায় রয়েছে। এই তালিকা থেকে বেরিয়ে আসার জন্য সরকার গতবছর আগস্টে একটি 'কর্মপরিকল্পনা' অনুমোদন করেছে। অর্থনীতির বিচারে 'ধনী' দেশের কোনো তালিকা না থাকলে যেসব দেশ আগেই শিল্পায়নে উত্কর্ষ পেয়েছে এবং যাদের অর্থনীতির বেশিরভাগের যোগান দেয় সেবা খাত, সেসব দেশকেই বলা হয় 'উন্নত রাষ্ট্র'।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের দেশের বিজ্ঞানীরা বিশ্বের বিভিন্ন দেশে সুনাম অর্জন করেছেন এবং সুখ্যাতি নিয়ে কাজ করছেন, যা বিশ্বে আমাদের বিশেষ উচ্চতায় পৌঁছে দিয়েছে। তিনি বলেন, গবেষণা দেশের জন্য এক নতুন দুয়ার খুলে দিতে পারে। যারা সুনির্দিষ্ট গবেষণায় নিয়োজিত, তাদের বয়সসীমা শিথিল করার ইঙ্গিত দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা চাই, বয়স যাতে গবেষকদের জন্য কোন বাধা হতে না পারে। তবে আমরা এটা গণহারে করতে চাই না। যারা সুনির্দিষ্ট গবেষণায় নিয়োজিত আছেন তাদের জন্য আমরা বিশেষ ব্যবস্থা করতে চাই।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, সর্বস্তরে বিজ্ঞান শিক্ষাকে প্রাধান্য দিয়ে শিক্ষাসূচি চালু করে বিশ্বমানের আধুনিক মানুষ গড়ার উদ্যোগ নিয়েছি, যাতে কুসংস্কারাচ্ছন্নতা, অপপ্রচার ও গুজবনির্ভরতা এবং সব ধরনের অন্ধত্ব ও গোড়ামি থেকে মুক্ত হয়ে প্রাণশক্তিতে পরিপূর্ণ জীবন-যাপনের পথ উন্মুক্ত হয়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ পরমাণু শক্তি কমিশনের ১৪টি পরমাণু চিকিত্সা কেন্দ্রে ১০ লক্ষের অধিক রোগীকে চিকিত্সা সেবা প্রদান করা হয়েছে। যা থেকে প্রায় ৫০ কোটি টাকা আয় সম্ভব হয়েছে। প্রায় ২৮ হাজার খাদ্যদ্রব্যের নমুনায় তেজস্ক্রিয়তার মাত্রা পরীক্ষা করে ৩৬ কোটি ৪০ লাখ টাকা রাজস্ব আয় হয়েছে। এক হাজার ১৪০ জনকে পরমাণু বিষয়ক উন্নত প্রশিক্ষণ প্রদানের ব্যবস্থা করা হয়েছে। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু নভোথিয়েটারে পারমাণবিক শক্তি সংক্রান্ত একটি তথ্যকেন্দ্র স্থাপনের লক্ষ্যে রাশিয়ার সাথে চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। এর মাধ্যমে জনগণকে পারমাণবিক বিদ্যুত্ কেন্দ্র সম্পর্কে সচেতন ও নিরাপত্তার ব্যাপারে আশ্বস্ত করা হবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা ১৯৯৬-২০০১ মেয়াদে সরকারের সময়ে মোবাইল ফোনকে সাধারণের ব্যবহারের উপযোগী করতে সুলভ মূল্যে গ্রাহক সেবা দানের ব্যবস্থা করি। কম্পিউটারের শুল্কহার হরাস করে এর মূল্য তিন ভাগের একভাগে নামিয়ে আনি।

অনুষ্ঠানে লন্ডনের কিংস কলেজে অর্থোপেডিক টিস্যু ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে পিএইচডি গবেষণায় থাকা চিকিত্সক মোহাম্মদ সালেহ উদ্দিন মাহমুদ, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব কাজী কামরুন্নাহার এবং জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক তানিমা মোস্তফার হাতে বঙ্গবন্ধু ফেলোশিপের চেক তুলে দেন প্রধানমন্ত্রী। আর এনএসটি ফেলোশিপের চেক পেয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফলিত রসায়ন ও রাসায়নিক প্রযুক্তি বিভাগের এনএসটি ফেলো ইসরাত শারমিন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুজীব বিজ্ঞান বিভাগের এনএসটি ফেলো নাসিব সাইয়িদ, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্যানতত্ত্ব বিভাগের এনএসটি ফেলো মাহবুবা রহমান এবং বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের এনএসটি ফেলো সজীব কুমার সাহা।

অনুষ্ঠানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্ডিয়াক সার্জন অসীত বরণ অধিকারী এবং বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের ম্যাটেরিয়ালস অ্যান্ড মেটালার্জিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের সহকারী অধ্যাপক হামিদা গুলশান প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে গবেষণার জন্য বিশেষ অনুদানের চেক নেন।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্মরণে '৮৬ কোটি টাকা ব্যয়ে বঙ্গবন্ধু ফেলোশিপ অন সায়েন্স অ্যান্ড আইসিটি প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। জাতীয় পর্যায়ে দক্ষ ও বিশেষ যোগ্যতাসম্পন্ন বিজ্ঞানী, প্রযুক্তিবিদ ও গবেষক তৈরিই এ প্রকল্পের লক্ষ্য। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী ইয়াফেস ওসমানের সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব একেএম আমির হোসেন।

এই পাতার আরো খবর -
font
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, 'উপজেলা নির্বাচনেও ভাগ বাটোয়ারার ষড়যন্ত্র করছে আওয়ামী লীগ।' আপনিও কি তাই মনে করেন?
2 + 4 =  
ফলাফল
আজকের নামাজের সময়সূচী
জুলাই - ১৭
ফজর৩:৫৫
যোহর১২:০৫
আসর৪:৪৪
মাগরিব৬:৫১
এশা৮:১৩
সূর্যোদয় - ৫:২১সূর্যাস্ত - ০৬:৪৬
archive
বছর : মাস :
The Daily Ittefaq
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: তাসমিমা হোসেন। উপদেষ্টা সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন। ইত্তেফাক গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে তারিন হোসেন কর্তৃক ৪০, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ থেকে প্রকাশিত ও মুহিবুল আহসান কর্তৃক নিউ নেশন প্রিন্টিং প্রেস, কাজলারপাড়, ডেমরা রোড, ঢাকা-১২৩২ থেকে মুদ্রিত। কাওরান বাজার ফোন: পিএবিএক্স: ৭১২২৬৬০, ৮১৮৯৯৬০, বার্ত ফ্যাক্স: ৮১৮৯০১৭-৮, মফস্বল ফ্যাক্স : ৮১৮৯৩৮৪, বিজ্ঞাপন-ফোন: ৮১৮৯৯৭১, ৭১২২৬৬৪ ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭২, e-mail: [email protected], সার্কুলেশন ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭৩। www.ittefaq.com.bd, e-mail: [email protected]
Copyright The Daily Ittefaq © 2014 Developed By :