The Daily Ittefaq
ঢাকা, সোমবার, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৪, ৫ ফাল্গুন ১৪২০, ১৬ রবিউস সানী ১৪৩৫
সর্বশেষ সংবাদ ১৩ রানে হারল বাংলাদেশ | নাইজেরিয়ায় সন্ত্রাসী হামলায় নিহত ১০৬ জন | আল-কায়েদার ভিডিও বার্তার সঙ্গে বিএনপির যোগসূত্র নেই: মির্জা ফখরুল | চট্টগ্রামের অপহৃত স্বর্ণ ব্যবসায়ী উদ্ধার

বৃষ্টিস্নাত মেলাতেও ভিড় ছিল ক্রেতাদের

আসিফুর রহমান সাগর

গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি, হিম হিম বাতাস— এই ফাল্গুনেও শীতের আমেজ। মেলা প্রাঙ্গণেও বর্ষাকালের মত কাদা। এমন আবহাওয়াতেও গতকাল রবিবার বইমেলায় দর্শনার্থীর কমতি ছিল না। বইয়ের উষ্ণতার পরশ নিতে এসেছিলেন পাঠকরা। বই কেনার আগ্রহের কাছে এসব কোনকিছুই বাধা নয়। বই বিক্রেতারা জানালেন বিক্রি খারাপ নয়। ঘুরে বেড়ানোর লোক কম। যারা বইমেলায় এসেছেন তারা বই কিনতেই এসেছেন।

তাম্রলিপির প্রকাশক এ কে এম তারিকুল ইসলাম রনি বললেন, 'বৃষ্টির কারণে ভেবেছিলাম বই খুব একটা বিক্রি হবে না। অন্যান্য দিনের তুলনায় আজকের বিক্রি একেবারে কম নয়। অবসর প্রকাশনীর ব্যবস্থাপক মাসুদ রানা বললেন, 'ভালই বিক্রি হচ্ছে। যারা আসছেন সকলেই বই কিনছেন। এর থেকেও বড় বিষয় হলো সবাই বই নেড়েচেড়ে দেখতে পারছেন। অন্য সময় ভিড়ের কারণে যা সম্ভব হয় না।'

'গ্রন্থমেলাকে আন্তর্জাতিক রূপ দেয়া হবে না'

বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খান বলেছেন, অমর একুশে গ্রন্থমেলাকে আন্তর্জাতিক রূপ দেয়া হবে না। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে দেয়া বক্তৃতায় আমি বিভিন্ন দেশের বুদ্ধিজীবী সাহিত্যিকদের নিয়ে এসে, বিভিন্ন বিষয়ে সেমিনার অনুষ্ঠানের মাধ্যমে একটা আন্তর্জাতিক আবহ সৃষ্টি করার পরিকল্পনার কথা বলেছিলাম। এর মানে এই নয় যে, বইমেলায় বিদেশি প্রকাশকদের স্থান দেয়া হবে। ভাষা আন্দোলনের চেতনালালিত এ মেলাকে বাংলাদেশের প্রকাশক-লেখকদের বিকশিত করার ক্ষেত্র হিসাবেই পরিচালনা করা হবে। এ মেলায় কখনোই বিদেশি প্রকাশকদের স্থান দেয়া হবে না। গতকাল বাংলা একাডেমির ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহ্ ভবনের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। এ সাংবাদিক সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন একাডেমির সচিব মোঃ আলতাফ হোসেন, পরিচালক ও একুশে গ্রন্থমেলা ২০১৪-র সদস্য-সচিব শাহিদা খাতুন এবং সমন্বয় ও জনসংযোগ উপবিভাগের উপপরিচালক মুর্শিদুদ্দিন আহম্মদ।

শামসুজ্জামান খান বলেন, মাত্র ৬ দিনের প্রস্তুতিতে এবারের মেলা সোহরাওয়ার্দি উদ্যানে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এজন্য কিছু অসঙ্গতি রয়েছে, দর্শনার্থীদেরও কিছু অসুবিধার মুখোমুখি হতে হচ্ছে। আশা করি, আগামী বছর এবারের অভিজ্ঞতার আলোকে সুন্দর-পরিচ্ছন্ন মেলা আয়োজন করা সম্ভব হবে।

মোড়ক উন্মোচন

রবিবার মেলার নজরুল মঞ্চে ১৩টি বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করা হয়। এছাড়া একাডেমির শামসুর রহমান সেমিনার হলে ছিল কবি ও লেখক আমিনুর রহমানের 'সাংবাদিকতা থেকে সেলুলয়েড—সময়ের সেরা কথোপকথন' শীর্ষক বইয়ের মোড়ক উন্মোচন। অ্যাডর্ন থেকে প্রকাশিত বইটির মোড়ক উন্মোচন করেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। এ সময় চিত্রশিল্পী রফিকুন নবী, সংস্কৃতিজন নাসির উদ্দিন ইউসুফ এবং বীর মুক্তিযোদ্ধা হাবিবুল আলম বীর প্রতীক প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। বিশেষ অতিথি ছিলেন বিশিষ্ট কবি ও লেখক ড. ডরোথিয়া মুলার-ওথ। নজরুল মঞ্চে উন্মোচিত বইগুলোর মধ্যে কথাশিল্পী সেলিনা হোসেন উন্মোচন করেন স্বরবৃত্ত থেকে প্রকাশিত সাহানা খানম শিমুর 'বিষপোকা', কথাপ্রকাশ থেকে প্রকাশিত ড. নীলিমা আফরিনের 'বাংলাদেশের উপন্যাসে মনোবিশ্লেষণ' ও সুপা সাদিয়ার '৭১ এর একাত্তর নারী', অন্যপ্রকাশ থেকে প্রকাশিত রেজা নূরের 'এই মন এই দেহ'। শামসুজ্জামান খান উন্মোচন করেন নাহার পাবলিকেশন্স থেকে প্রকাশিত 'আবদুল্লাহেল বাকীর 'রুবাইয়াত-ই-গাজী' ও নিখিল প্রকাশক থেকে প্রকাশিত আজিজুর রহমান আজিজের 'প্রজন্মের পদাবলী'। কবি মুহম্মদ নুরুল হুদা উন্মোচন করেন রাইটার্স গিল্ড থেকে প্রকাশিত সরল সন্ন্যাসীর 'মধ্যরাতের সূর্য'। অন্যান্য লেখকের বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করতে এসেছিলেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী বেগম মেহের আফরোজ চুমকি, আলী ইমাম, ড. সৌমিত্র শেখর, ড. নীরু শামসুন নাহার। এছাড়া মেলা প্রকাশন থেকে প্রকাশিত আশরাফুল ইসলামের 'বাড়ি যাচ্ছি বহুদিন পরে' কাব্যগ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন করেন সহকারী এটর্নি জেনারেল ও লেখক সাহিদা বেগম।

নতুন বই

মেলার ১৬তম দিনে নতুন বই এসেছে ৫৯টি। এর মধ্যে গল্প ১১টি, উপন্যাস ৮টি, প্রবন্ধ ৫টি, কবিতা ১৭টি, গবেষণা ১টি, ছড়া ৩টি, শিশুতোষ ১টি, মুক্তিযুদ্ধ ২টি, বিজ্ঞান ১টি, ইতিহাস ৩টি ও অন্যান্য বিষয়ের উপর এসেছে ৬টি নতুন বই। মেলায় এসেছে প্রতীক প্রকাশিত এবং ছড়াকার ওয়াসিফ-এ-খোদা সম্পাদিত গ্রন্থ 'ছড়া টোকাই'। শিল্পী রফিকুন নবীর বিখ্যাত কার্টুন চরিত্র 'রনবী'কে নিয়ে জনপ্রিয় ছড়াকারদের লেখা ছড়া স্থান পেয়েছে এ গ্রন্থে। এসব ছড়ার সঙ্গে ব্যবহার করা হয়েছে টোকাই কার্টুন ও অলংকরণ।

এছাড়াও মেলায় এসেছে নন্দিতা এনেছে মোনায়েম সরকারের 'হাজার বছরের বাংলা গান', ঐতিহ্য এনেছে আরিফুর রহমান নাইমের 'বাংলাদেশ', জাগৃতি এনেছে সেলিনা হোসেনের 'পথ চলাতেই আনন্দ', সূচীপত্র এনেছে মোহাম্মদ আবদুল হাইয়ের 'বাঙালির ধর্মচিন্তা', জয়তী এনেছে কাফি কামালের 'কন্যারাশির জাতক', রফিক হারিরির 'দ্য বাস্টার্ড', শিকড় এনেছে মে. জে. (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিমের 'শিকড়ের হাতছানি:নিবেদিত বক্তব্য', কথাপ্রকাশ এনেছে সুপা সাদিয়ার '৭১ এর একাত্তর নারী', শুভ্রপ্রকাশ এনেছে সেলিনা হোসেনের 'মেয়রের গাড়ি', আনিসুল হকের 'রোবট কারে হোমওয়ার্ক', অনুপম এনেছে সুজন বড়ুয়ার 'ঋতুর রঙে বাংলাদেশ', ইমন চৌধুরীর 'ভূতবাড়ি রহস্য' অন্যতম।

মেলামঞ্চে অনুষ্ঠান

গ্রন্থমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় জ্ঞানভিত্তিক সমাজ ও ডিজিটাল বাংলাদেশ নির্মাণে তথ্য-প্রযুক্তি শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সচিব নজরুল ইসলাম খান। আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন মোস্তফা জব্বার, অপরেশ বন্দ্যোপাধ্যায় এবং মাহবুব জামান প্রমুখ। সভাপতিত্ব করেন ইউনিভার্সিটি অব এশিয়া প্যাসিফিকের উপাচার্য অধ্যাপক জামিলুর রেজা চৌধুরী।

প্রাবন্ধিক বলেন, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি সম্প্রসারণ এবং বহুমুখী ব্যবহারের মাধ্যমে একটি স্বচ্ছ, দায়বদ্ধ ও জবাবদিহিতামূলক প্রশাসন প্রতিষ্ঠা করা; দক্ষ মানব সম্পদ উন্নয়ন নিশ্চিত করা; সামাজিক ন্যায়পরায়ণতা বৃদ্ধি করা; সরকারি-বেসরকারি খাতের অংশীদারিত্বে সুলভে জনসেবা প্রদান নিশ্চিত করা এবং দেশকে মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীতকরণের মাধ্যমে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার যে প্রত্যয় নিয়ে নবম সংসদে মহাজোট সরকার ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত হয়েছিল তার অনেকখানি বাস্তবায়িত হয়েছে। সমাজের সকল ক্ষেত্রে তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে দেশকে আগামী ২০২১ সালের মধ্যে ডিজিটাল বাংলাদেশে রূপান্তরের লক্ষ্যে এ পর্যন্ত বিপুল কর্মসূচি বাস্তবায়িত হয়েছে এবং চলমান রয়েছে।

আলোচকবৃন্দ বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে সবচেয়ে বেশি জরুরি তথ্যপ্রযুক্তিমনস্ক সমাজ গঠন। এ লক্ষে রাষ্ট্রের সর্বস্তরের নাগরিকদের তথ্যপ্রযুক্তি-সাক্ষরতা নিশ্চিতের পাশাপাশি এর বহুমুখী ব্যবহারের পরিবেশ সৃষ্টি করতে হবে। তাঁরা বলেন, জ্ঞানভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে ই-গভর্নেন্স প্রতিষ্ঠার সঙ্গে সঙ্গে ই-বুকের প্রচলনও অত্যন্ত জরুরি।

সভাপতির বক্তব্যে অধ্যাপক জামিলুর রেজা চৌধুরী বলেন, তথ্যপ্রযুক্তি কেবল যান্ত্রিক দক্ষতার বিষয় নয়, এটি মানসিক রূপান্তরেরও বিষয়। বাংলাদেশ ডিজিটাল প্রযুক্তির মাধ্যমে জ্ঞানভিত্তিক সমাজ নির্মাণের পথে অনেক দূর অগ্রসর হয়েছে। তবে এক্ষেত্রে পূর্ণাঙ্গ সফলতা অর্জনের জন্য সরকারের সক্রিয় পদক্ষেপের পাশাপাশি নাগরিক সমাজের মানসিক রূপান্তরও অত্যন্ত জরুরি।

সন্ধ্যায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করেন বেগম রাহিজা খানম ঝুনুর পরিচালনায় সাংস্কৃতিক সংগঠন 'বাংলাদেশ একাডেমী অব ফাইন আর্টস লিঃ (বাফা)'। এছাড়া সংগীত পরিবেশন করেন কণ্ঠশিল্পী শামা রহমান, ফকির শাহাবুদ্দীন, অনিন্দিতা চৌধুরী, সাজেদ ফাতেমী, সামিয়া নাজ এবং রাজু আহমেদ। যন্ত্রাণুষঙ্গে ছিলেন বিশ্বজিত্ সরকার (তবলা), গাজী আবদুল হাকিম (বাঁশি), আবু কামাল (বেহালা), ইফতেখার হোসেন সোহেল (কী-বোর্ড) এবং প্রদীপ কুমার কর্মকার (প্যাড)।

আজকের অনুষ্ঠান

আজ সোমবার বিকালে গ্রন্থমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হবে মাহমুদুল হকের কথাসাহিত্যে গদ্যশাসন শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানে প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন আবু হেনা মোস্তাফা এনাম। আলোচনায় অংশগ্রহণ করবেন রফিক কায়সার, আনিসুল হক এবং আহমাদ মোস্তফা কামাল। সভাপতিত্ব করবেন হাসান আজিজুল হক। সন্ধ্যায় পরিবেশিত হবে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

এই পাতার আরো খবর -
font
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
জামায়াতের ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি জেনারেল শফিকুর রহমান বলেছেন, 'আল-কায়েদার সঙ্গে জামায়াত-শিবিরের কোন সম্পর্ক নেই'। আপনিও কি তাই মনে করেন?
1 + 7 =  
ফলাফল
আজকের নামাজের সময়সূচী
জুলাই - ১৮
ফজর৩:৫৬
যোহর১২:০৫
আসর৪:৪৪
মাগরিব৬:৫১
এশা৮:১৩
সূর্যোদয় - ৫:২১সূর্যাস্ত - ০৬:৪৬
archive
বছর : মাস :
The Daily Ittefaq
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: তাসমিমা হোসেন। উপদেষ্টা সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন। ইত্তেফাক গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে তারিন হোসেন কর্তৃক ৪০, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ থেকে প্রকাশিত ও মুহিবুল আহসান কর্তৃক নিউ নেশন প্রিন্টিং প্রেস, কাজলারপাড়, ডেমরা রোড, ঢাকা-১২৩২ থেকে মুদ্রিত। কাওরান বাজার ফোন: পিএবিএক্স: ৭১২২৬৬০, ৮১৮৯৯৬০, বার্ত ফ্যাক্স: ৮১৮৯০১৭-৮, মফস্বল ফ্যাক্স : ৮১৮৯৩৮৪, বিজ্ঞাপন-ফোন: ৮১৮৯৯৭১, ৭১২২৬৬৪ ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭২, e-mail: [email protected], সার্কুলেশন ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭৩। www.ittefaq.com.bd, e-mail: [email protected]
Copyright The Daily Ittefaq © 2014 Developed By :