The Daily Ittefaq
ঢাকা, সোমবার, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৪, ৫ ফাল্গুন ১৪২০, ১৬ রবিউস সানী ১৪৩৫
সর্বশেষ সংবাদ ১৩ রানে হারল বাংলাদেশ | নাইজেরিয়ায় সন্ত্রাসী হামলায় নিহত ১০৬ জন | আল-কায়েদার ভিডিও বার্তার সঙ্গে বিএনপির যোগসূত্র নেই: মির্জা ফখরুল | চট্টগ্রামের অপহৃত স্বর্ণ ব্যবসায়ী উদ্ধার

ত রু ণী ক থা ...........

ফারহানা আকতার

ইস্ট ওয়েস্ট বিশ্ববিদ্যালয়

নাদিম মজিদ

ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে স্নাতক ফারহানা আকতার জান্নাত। মাস তিনেক আগে যোগদান করেছেন একটি বেসরকারি কোম্পানিতে। ডাক্তারি পেশায় আমাদের দেশে ছেলে-মেয়ের অংশগ্রহণ সমান সমান হলেও ইঞ্জিনিয়ারিং পেশায় নারীদের অংশগ্রহণ এখনো কম। দেশের উন্নয়নে তারও নিজস্ব ভাবনা আছে। আমাদের দেশে ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক্সেও বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে সে জানায়, সময়ের সাথে তাল মিলিয়ে আমাদের দেশেও এসব ক্ষেত্রে কাজ হচ্ছে। ইলেকট্রিক্যালে কাজের অবস্থা খুব বেশি ভালো না হলেও বিদ্যুত্ সেক্টরে আমাদের যথেষ্ট পরিমাণ কাজ হচ্ছে। আবার যেমন ন্যানোটেকনোলজি নিয়ে কাজের কথা ধরলে আমাদের অবস্থান শূন্য পর্যায়ে আছে। ন্যানোটেকনোলজি সম্পর্কে সে বলে, আমাদের দেশে কম্পিউটারের ডুয়েল কোর, প্রসেসর তৈরি হচ্ছে না এখনো।

জান্নাত স্নাতক সম্পন্ন করেছেন ইস্ট ওয়েস্ট বিশ্ববিদ্যালয় থেকে। সেখানকার ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে ছাত্রীদের অংশগ্রহণ সম্পর্কে সে বলে, বাংলাদেশের সব বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রীদের ইঞ্জিনিয়ারিং পড়তে আসার হার একই রকম। এ হার সবসময় ১০ শতাংশ থেকে ২০ শতাংশের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকে। অথচ দেশের আর্থ-সামাজিক সুষম উন্নয়নে ইঞ্জিনিয়ারিং ক্ষেত্রেও প্রয়োজন নারী-পুরুষের সমান অংশগ্রহণ। জান্নাত বর্তমানে কাজ করছেন বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে। সেখানে প্ল্যানিং অ্যান্ড প্রোডাক্ট ডেভেলপমেন্টে সিনিয়র অফিসার হিসেবে কর্মরত আছেন। এখানে তার কর্মঅভিজ্ঞতা সম্পর্কে বলেন, আমি এখানে কাজ করছি তিন মাস ধরে। এখানে বন্ধুত্বপূর্ণ পরিবেশে কাজ করছি। কোথাও সমস্যায় পড়লে আমার সহকর্মীরা সাহায্য করছে।

কোথাও কোনো নারী ইঞ্জিনিয়ার কাজের ক্ষেত্রে সমস্যায় পড়ে কিনা জানতে চাইলে সে জানায়, দেশের সব প্রতিষ্ঠান একই ধরনের হয় না। কোথাও কোথাও সমস্যায় পড়তে শুনেছি। বিশেষত যেসব প্রতিষ্ঠান নতুন, তারা তাদের প্রতিষ্ঠানকে দাঁড় করাতে সকল কর্মচারীকে চাপ দিয়ে থাকে। দেশের নারীদের ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে অংশগ্রহণ বাড়ানো প্রসঙ্গে সে বলে, এক্ষেত্রে পরিবারের অভিভাবকের ভূমিকা রয়েছে বেশি। সন্তানের কি হওয়া উচিত, প্রায় সময় দেখা যায় অভিভাবকেরা চাপিয়ে দেয়। এটি কাঙ্ক্ষিত নয়। একজন শিক্ষার্থী সব বিষয়ে সমান পারদর্শী হয় না। কারো বিজ্ঞান ভালো লাগে, কারো গণিত বা কারো বাংলা সাহিত্য। এ ভালোলাগা বিভিন্ন ধরনের হয়ে থাকে। যার যেদিকে ঝোঁক অভিভাবকের উচিত তাকে সে দিকে যেতে সুযোগ দেয়া। তাহলে দেশে নারী ইঞ্জিনিয়ারদের অনুপাত বাড়বে।

ভবিষ্যত্ পরিকল্পনা সম্পর্কে সে জানায়, আমি স্নাতক শেষ করে চাকরিতে যোগদান করেছি। আরো কিছুদিন চাকরি করার পরে উচ্চশিক্ষায় মনোনিবেশ করবো। উদ্ভাবনী প্রযুক্তিকে দেশের কাজে লাগানোর ইচ্ছা আছে।

font
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
জামায়াতের ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি জেনারেল শফিকুর রহমান বলেছেন, 'আল-কায়েদার সঙ্গে জামায়াত-শিবিরের কোন সম্পর্ক নেই'। আপনিও কি তাই মনে করেন?
1 + 8 =  
ফলাফল
আজকের নামাজের সময়সূচী
জুন - ২৭
ফজর৩:৪৫
যোহর১২:০২
আসর৪:৪২
মাগরিব৬:৫২
এশা৮:১৭
সূর্যোদয় - ৫:১৩সূর্যাস্ত - ০৬:৪৭
archive
বছর : মাস :
The Daily Ittefaq
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: তাসমিমা হোসেন। উপদেষ্টা সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন। ইত্তেফাক গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে তারিন হোসেন কর্তৃক ৪০, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ থেকে প্রকাশিত ও মুহিবুল আহসান কর্তৃক নিউ নেশন প্রিন্টিং প্রেস, কাজলারপাড়, ডেমরা রোড, ঢাকা-১২৩২ থেকে মুদ্রিত। কাওরান বাজার ফোন: পিএবিএক্স: ৭১২২৬৬০, ৮১৮৯৯৬০, বার্ত ফ্যাক্স: ৮১৮৯০১৭-৮, মফস্বল ফ্যাক্স : ৮১৮৯৩৮৪, বিজ্ঞাপন-ফোন: ৮১৮৯৯৭১, ৭১২২৬৬৪ ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭২, e-mail: [email protected], সার্কুলেশন ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭৩। www.ittefaq.com.bd, e-mail: [email protected]
Copyright The Daily Ittefaq © 2014 Developed By :