The Daily Ittefaq
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৩, ৯ ফাল্গুন ১৪১৯, ১০ রবিউস সানি ১৪৩৪
সর্বশেষ সংবাদ নূহাশ পল্লীতে ডাকাত সন্দেহে গণপিটুনিতে ৯ জন আহত | ২৬ মার্চের মধ্যে জামায়াত নিষিদ্ধের প্রক্রিয়া শুরুর আলটিমেটাম: শাহবাগের গণজাগরণ মঞ্চ | মহাসমাবেশে কর্মসূচির ঘোষণার মধ্য দিয়ে শেষ হলো শাহবাগের লাগাতার অবস্থান কর্মসূচি | সৈয়দ আশরাফুল রাজনৈতিক শিষ্ঠাচারবিবর্জিত কথা বলেছেন: মির্জা ফখরুল | বরিশাল-ভোলা মহাসড়কে বাস খাদে পড়ে ৫ জন নিহত | আজ মহান অমর একুশে | বিশ্বের বিভিন্ন দেশে পালিত হচ্ছে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস | কিশোরগঞ্জে শহীদ মিনারে ফুল দেয়াকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগের দু'গ্রুপের সংঘর্ষ | ঝিনাইদহের মহেশপুরে জামায়াত-আওয়ামী লীগ সংঘর্ষে ১৫ জন আহত

এয়ারকুলার কি স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর

গাজী নাসিমুর রেজা

এয়ারকন্ডিশন কক্ষের ব্যাপারে আমাদের সকলের কম/বেশি দুর্বলতা রয়েছে। সবার-ই পছন্দ এয়ারকুলার রুমে বসবাস বা কাজ-কর্ম পরিচালনা করা। কিন্তু একবার কি চিন্তা করেছেন এয়ারকুলার কি যথার্থ কিনা? স্বাস্থ্যসম্মত কি না? স্বাস্থ্যের জন্য প্রয়োজনীয় গুণগত মানসম্পন্ন (Indoor Air Quality) কি না? প্রত্যক্ষভাবে আপতত আরামপ্রদ হলেও পরোক্ষভাবে স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর কি না? পরিসংখ্যানে পর্যবেক্ষণ হয় বাংলাদেশে প্রায় শতকরা ৯০ ভাগ এয়ারকন্ডিশন রুম স্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক হুমকি স্বরূপ। বিশেষ করে হাসপাতাল ও ক্লিনিকসমূহের অবস্থা আরো ভয়ংকর। স্বাস্থ্যসম্মত Indoor Air Quality এর Air Condition/Air Cooler একটি অংশ মাত্র। যার সাথে প্রয়োজন পরিমিত Ventilation, Filtration বায়ু চাপ এর প্রবাহ, আর্দ্রতা প্রভৃতি। কিন্তু বাংলাদেশে শুধুমাত্র Air Condition/Air Cooler স্থাপন করা হচ্ছে। অন্যান্য কোন ফ্যাক্টর বিবেচনা করা হচ্ছে না অর্থাত্ সম্পূর্ণ HVAC বিবেচনা না করে, শুধুমাত্র AC স্থাপন করাতে স্বাস্থ্যের মারাত্মক হুমকির মধ্যে রয়েছে এবং মারাত্মক ক্ষতি হচ্ছে। সাধারণত এয়ারকন্ডিশন কক্ষসমূহ বদ্ধ অবস্থায় থাকে। বাতাস চলাচল প্রায় বন্ধ থাকে। যার জন্য Environmental Protection Agency (EPA) এর পরিসংখ্যানে দেখা যায় যে, কক্ষের ভিতরের বাতাস বাহিরের বাতাসের চেয়ে প্রায় ২-৩ গুণ বেশি দূষিত। কোন কোন স্থানে ১০০ গুণ বেশি দূষিত হয়ে থাকে। আর দূষিত বাতাস থেকে অ্যাজমা, ব্রেস্কোটাইসেস, যকৃত, ব্রেন ও নার্ভের ক্ষতিসহ ক্যান্সারের মত ভয়াবহ রোগ বিস্তার করতে পারে। দূষিত বাতাস বিশেষ করে শিশুদের এবং রোগাক্রান্ত বয়োবৃদ্ধদের দারুণভাবে আক্রমণ করে। সুস্থ সবলদের আক্রান্ত দীর্ঘ মেয়াদে পরিলক্ষিত হয়। অথচ আমরা ত্রুটিপূর্ণ এয়ার কন্ডিশন কক্ষে আমাদের সময়ের শতকরা ৯০ ভাগ সময় অতিবাহিত করে থাকে। একজন সুস্থ-স্বাভাবিক লোক দৈনিক প্রায় ২০ ঘন মিটার অথবা ২,০০,০০০ লিটার বাতাস শ্বাস-প্রশ্বাসের মাধ্যমে গ্রহণ করে থাকি। আর এই বাতাস যদি দূষিত হয়, তবে স্বাস্থ্যের জন্য কত হুমকি স্বরূপ। পরিসংখ্যানে দেখা যায় যে, বিগত ৩০-৪০ বছরের মধ্যে Indoor Air Quality -এর দূষণের পরিমাণ ব্যাপকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। বিদ্যুত্ পরিমাণ হরাসের বিষয়টি বিবেচনা করে কক্ষসমূহ আবদ্ধ রাখা হয়ে থাকে। যাতে দূষণের মাত্রা আরো বৃদ্ধি পায়। বাস্তবিকভাবে আমরা বিশুদ্ধ পানির জন্য প্রচুর অর্থ ব্যয় করি। কিন্তু বিশুদ্ধ বাতাসের জন্য তেমন কোন ব্যয় করি না। যদি অনেকে শীতল বাতাসের জন্য ব্যয় করে থাকেন। কিন্তু বিশুদ্ধ শীতল বাতাসের জন্য কতটা ব্যয় করে থাকেন শীতাতপ নিয়ন্ত্রণ যন্ত্র মূলত মানষের আরাম ও প্রশান্তির জন্য। আরামটি তখন-ই অনুভূত হয় যখন মানুষ তার নিজের তাপমাত্রা এবং পারিপার্শ্বিক তাপমাত্রার মধ্যে পার্থক্য পরিলক্ষিত না করে। আমরা মূলত চাহিদা শীতল বাতাস অথচ একবার চিন্তা করি না, শীতল বাতাসটি পরিশুদ্ধ কি না? স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর কি না? মূলত প্রয়োজন, উন্নত মানের কক্ষের অভ্যন্তরীণ বাতাস (Indoor Air Quality) । আরামপ্রদ স্বাস্থ্য সম্মত শীতল বাতাসের জন্য মূলত ৫টি বিষয়ের উপর নির্ভর করে। যেমন ঃ (১) তাপমাত্রা- মানুষের শরীরের সাধারণ তাপমাত্রা ৯৮.৬ ফারেনহাট অথচ আরামপ্রদ তাপমাত্র সাধারণত ঃ হয়ে থাকে প্রায় ৭৫ ফারেনহাট। (২) আদ্রতা ঃ অর্থাত্ বাতাসে পানির পরিমাণ যা গুরুত্বপূর্ণ মাত্রা। একই তাপমাত্রায় আপেক্ষিক আর্দ্রতার পার্থক্যের কারণে গরম অথবা শীতল অনুভব হয়। (৩) বাতাসে প্রবাহ অবশ্যই গুরুত্বপূর্ণ। বাতাসের প্রবাহ না থাকলে অর্থাত্ স্থির বাতাস দেহকে আরাম প্রদান করার সুযোগ থাকে না। দূষিত বাতাস বহির্গমনের সুযোগ থাকে না। কক্ষের ভিতরে বিভিন্ন স্থানে ভিন্ন ভিন্ন তাপমাত্রা অনুভূত হয়। যার জন্য বাতাস প্রবাহ অপরিহার্য। সাধারণত কক্ষের ভিতরে ৪০ ফুট/মিনিট গতিতে অথবা এর নীচে বাতাস প্রবাহ রাখা স্বাভাবিক। (৪) ফিল্টারেশন বা বাতাস হতে দূষিত পদার্থ নির্গমনের জন্য অপরিহার্য এবং (৫) ভেল্টিলেশন, যা স্বাস্থ্যের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। আমরা প্রশান্তির জন্য প্রচুর অর্থ ব্যয় শুধুমাত্র Air Cooler স্থাপন করে, আবদ্ধ কক্ষে কার্বন-ডাই অক্সাইড অর্থাত্ শ্বাস-প্রশ্বাসের মাধ্যমে গ্রহণ করে স্বাস্থ্যের মারাত্মক ক্ষতি করছি কি না? তা বিবেচ্য কক্ষের আয়তন, কাজের প্রকৃতি, মানব সংখ্যা প্রভৃতি বিবেচনা করে ভেল্টিলেশন অর্থাত্ ফ্রেশ এয়ার ( Fresh Air) প্রবেশের ব্যবস্থা রাখা অপরিহার্য। বিশেষ করে হাসপাতাল এবং ক্লিনিকসমূহে অবস্থা অত্যন্ত নাজুক। ব্যাঙের ছাতার মত গজিয়ে উঠা অনেক হাসপাতাল ও ক্লিনিকসমূহের Indoor Air Quality এতই দূষিত যে, রোগমুক্তির চেয়ে রোগাক্রান্ত হওয়ার সমূহ সম্ভাবনা রয়েছে। বাতাস বাহিত রোগ ব্যাপ্তি লাভের উত্তম উত্স হচ্ছে ত্রুটিপূর্ণ Air-condition ব্যবস্থা। দুঃখের সহিত বলতে হয় নামি-দামি অনেক বড় বড় হাসপাতাল ও ক্লিনিকসমূহে যথার্থ Air condition না থাকাতে Indoor Air Quality পরিশুদ্ধ থাকে না। বাংলাদেশে অনেক হাসপাতাল/ক্লিনিকসমূহে কক্ষের উচ্চতা ও পর্যাপ্ত স্থান না থাকাতে Indoor Air Quality যথাযথ রাখার জন্য Duct, AHU স্থাপন করা যাচ্ছে না। অনেক ক্ষেত্রে ক্লিনিকসমূহের পরিচালনা পর্ষদের এতদ্ব বিষয়ে জ্ঞানের অভাব অথবা ব্যয় সংকোচনের ধারণায় "ইনডোর এয়ার কোয়ালিটি" এর যথার্থতা রক্ষা করা সম্ভব হচ্ছে না। যার জন্য হাসপাতাল Air condition পদ্ধতি অত্যন্ত সংবেদনশীল এবং বিশেষজ্ঞ দ্বারা ডিজাইন করা অপরিহার্য। এক্ষেত্রে শীতল ও পরিশুদ্ধ বাতাসের সহিত, বাতাসের চাপ ও গতি, ভেন্টিলেশন, আর্দ্রতা প্রভৃতি বিবেচনা করতে হয়। উল্লেখ্য যে, অপারেশন রুমে Indoor Air Quality অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। অনেক ক্ষেত্রেই পরিলক্ষিত হয় যে, অপারেশন সাকসেস অথচ ইনফেকশনের কারণে অনেক রোগী মৃত্যু বরণ করছেন। ইনফেকশন নিয়ন্ত্রণ অতি গুরুত্বপূর্ণ কাজ।

অস্ত্রপচার কক্ষ (Operation Room) ঃ- অস্ত্রপচার কক্ষে ইনফেকশন কন্ট্রোল (Infection Control). একটি গুরুত্বপূর্ণ কাজ। ইনফেকশনের অনেকগুলো কারণে মধ্যে অন্যতম একটি কারণ হচ্ছে নিম্নমানের আভ্যন্তরীণ বাতাসের গুণগত অর্থাত্ অস্ত্রপচার কক্ষের সাধারণ তাপমাত্রা, আর্দ্রতা, বাতাসের প্রবাহ, চাপমাত্রা, বাতাস প্রবেশ ও নিসঃরণের ব্যবস্থা বিভক্তকরণ, ফ্রেশ এয়ার প্রভৃতির সমন্বিত ব্যবস্থা। একটি মানের অপারেশন কক্ষে শুদ্ধমাত্রা সাধারণত ২০-৩০º সে.। আর্দ্রতা শতকরা ৬০ ভাগ এর নিম্নে চাপমাত্রা ২.৫ হতে ৮ পর্যন্ত বায়ু চাপ পজিটিভ প্রেসার রাখা অপরিহার্য। বিশেষ করে ন্যূনতম কক্ষে ৩ বার ফ্রেশ এয়ার এবং কমপক্ষে ঘন্টায় ১৫ বার এয়ার চেঞ্জ প্রয়োজন। অবশ্যই HEPA Filter (99.99%) এর মাধ্যমে। অথচ বাস্তবিকভাবে বাংলাদেশে অধিকাংশ হাসপাতাল ও ক্লিনিকসমূহে এর অভাব পরিলক্ষিত হচ্ছে। আইসোলেশন কক্ষ (Isolation Room) ঃ সাধারণত আইসোলেশন কক্ষ হতে রোগ জীবাণু যাতে না ছড়িয়ে পড়ে সে লক্ষ্যে সাধারণত তাপমাত্রা, আর্দ্রতা ভেন্টিলেশন, ফ্রেশ এয়ার প্রভৃতির মাঝে "পজেটিভ প্রেসার" বজায় রাখতে হয়। ক্ষেত্র বিশেষে পরামর্শকের পরামর্শ অনুযায়ী পরিবর্তন করতে হয়।

পরিশেষে বলা যেতে পারে, প্রকৃতির বাতাস ও আলোর বিকল্প নেই। প্রকৃতির বাতাস আলো প্রচুর ব্যবহার করার সুযোগ সমন্বিত ইমারত নির্মাণ হওয়া বাঞ্ছনীয়। দূষণের কারণে বাহিরে মাস্ক ব্যবহার করা যেতে পারে। কিন্তু আবাসিক ভবনের আভ্যন্তরীণ বাতাস উন্নত করা যেতে পারে, যথাযথ এয়ার কন্ডিশনের নির্দিষ্ট পরিমাপের ভেন্টিলেশন এবং সর্বোপরি ফিল্টারেশনের মাধ্যমে। বর্তমান বাজারে প্রাপ্ত ফিল্টারেশনের মাধ্যমে বায়ু বাহিত জীবাণুর প্রায় শতকরা ৯৯.৯৯ % ভাগ জীবাণু মুক্ত করা যায়। হাসাপাতাল/ক্লিনিকসমূহে HVAC System-এর বিশেষজ্ঞ দ্বারা নক্সা করা প্রয়োজন। এখন থেকে বিবেচনা করা উচিত শুধু শীতল বাতাস নয় গুণগত মানসম্পন্ন শীতল বাতাস।

লেখক :নির্বাহী প্রকৌশলী

font
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
রাজনৈতিক দল নিষিদ্ধের চেয়ে রাজনৈতিকভাবে মোকাবিলা করা শ্রেয়—ব্রিটিশ পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর এ বক্তব্যের সঙ্গে আপনি কি একমত?
4 + 8 =  
ফলাফল
আজকের নামাজের সময়সূচী
সেপ্টেম্বর - ২১
ফজর৪:৩১
যোহর১১:৫২
আসর৪:১৫
মাগরিব৫:৫৯
এশা৭:১২
সূর্যোদয় - ৫:৪৬সূর্যাস্ত - ০৫:৫৪
archive
বছর : মাস :
The Daily Ittefaq
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: তাসমিমা হোসেন। উপদেষ্টা সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন। ইত্তেফাক গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে তারিন হোসেন কর্তৃক ৪০, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ থেকে প্রকাশিত ও মুহিবুল আহসান কর্তৃক নিউ নেশন প্রিন্টিং প্রেস, কাজলারপাড়, ডেমরা রোড, ঢাকা-১২৩২ থেকে মুদ্রিত। কাওরান বাজার ফোন: পিএবিএক্স: ৭১২২৬৬০, ৮১৮৯৯৬০, বার্ত ফ্যাক্স: ৮১৮৯০১৭-৮, মফস্বল ফ্যাক্স : ৮১৮৯৩৮৪, বিজ্ঞাপন-ফোন: ৮১৮৯৯৭১, ৭১২২৬৬৪ ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭২, e-mail: [email protected], সার্কুলেশন ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭৩। www.ittefaq.com.bd, e-mail: [email protected]
Copyright The Daily Ittefaq © 2014 Developed By :