The Daily Ittefaq
ঢাকা, সোমবার, ০৩ মার্চ ২০১৪, ১৯ ফাল্গুন ১৪২০, ০১ জমা. আউয়াল ১৪৩৫
সর্বশেষ সংবাদ প্রাণনাশের হুমকিতেও লাভ হবে না: রিজভী | এশিয়া কাপ: আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে ১২৯ রানের জয় পেল শ্রীলঙ্কা | পাকিস্তানে আদালতে হামলা, বিচারকসহ নিহত ১১

ব্র্যান্ডিং

ব্র্যান্ডিং হলো বাজারের অন্য কোনো পণ্য থেকে সুনির্দিষ্ট পণ্যকে মানুষের মাঝে জনপ্রিয় করে তোলা। যেকোনো পণ্যের ব্র্যান্ড বলতে বাজারে পরিচিত অন্যান্য পণ্য থেকে সেই পণ্যের সুনির্দিষ্ট পরিচিতি নিশ্চিত করা হয়েছে বোঝায়। কোনো প্রতিষ্ঠানের উত্পাদিত পণ্যসমূহ বাজারে জনপ্রিয় করে তুলতে যারা পরামর্শ দিয়ে থাকেন, তাদেরকেই মূলত বলা হয়ে থাকে ব্র্যান্ড কনসালটেন্ট। এই প্রজন্মের তেমনই কয়েকজন মেধাবী ব্র্যান্ড কনসালটেন্টদের নিয়ে আমাদের এবারের আয়োজন।

গ্রন্থনা করেছেন রিয়াদ খন্দকার ও সাজেদুল ইসলাম শুভ্র

সুলতান মাহমুদ সরকার

সিনিয়র অ্যাসোসিয়েট ম্যানেজার (ব্র্যান্ড অ্যান্ড কমিউনিকেশন)

ইস্টার্ন ব্যাংক লিমিটেড

নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি থেকে মার্কেটিং আর হিউম্যান রিসোর্স ম্যানেজমেন্ট—দুটি বিষয় নিয়ে প্রথম বিভাগ নিয়ে বিবিএ পাস করেন ২০০৫ সালে। ইন্টার্নশিপ করেন স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকের লোকাল কর্পোরেট ডিভিশনে। তারপর র্যাঙ্কন মটরসে ব্র্যান্ড এক্সিকিউটিভ হিসেবে যোগ দেন। এরপর র্যাংগস গ্রুপেরই আরেকটি কোম্পানি র্যাংগস প্রপার্টিজ লিমিটেডে প্রায় দুই বছর কাজ করে ২০০৮ সালে যোগ দেন ইস্টার্ন ব্যাংক লিমিটেডের ব্র্যান্ড অ্যান্ড কমিউনিকেশন ডিপার্টমেন্টে। তারপর থেকে প্রায় সাড়ে পাঁচ বছরে ব্যাংকটির সাফল্যে সঙ্গী হয়ে ব্র্যান্ডিংয়ে উত্কর্ষ সাধনের সাথে সাথে নিজেরও মিলেছে অনেক সম্মান, স্বীকৃতি ও পুরস্কার। একাধিক পদোন্নতি পেয়ে বর্তমানে ইস্টার্ন ব্যাংক লিমিটেডে কাজ করছেন সিনিয়র অ্যাসোসিয়েট ম্যানেজার হিসেবে। তিনি এই প্রজন্মের মেধাবী ব্র্যান্ড ম্যানেজার সুলতান মাহমুদ সরকার। বাবার চাকরির সুবাদে সুলতান মাহমুদ সরকারের ছেলেবেলা কেটেছে ঝিনাইদহে। শান্ত-শিষ্ট স্বভাবের ভালো ছাত্র হওয়ার কারণে শিক্ষকদের খুব আদরের ছিলেন তিনি। তার পঞ্চম ও অষ্টম শ্রেণীতে ট্যালেন্টপুল স্কলারশিপ প্রাপ্তি, ব্যাচের মধ্যে সবচেয়ে বেশিসংখ্যক (পাঁচটি) লেটার মার্কস নিয়ে ১৯৯৭ সালে প্রথম বিভাগে স্টার মার্কসসহ এসএসসি পাসের বেশিরভাগ কৃতিত্ব দিতে চান কাঞ্চননগর স্কুলের শিক্ষকদের। ঢাকার সরকারি বিজ্ঞান কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করেন। তারপর নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটিতে বিবিএ শেষ করেই পেশাগত জীবনে প্রবেশ করেন। তার ব্যাংকার বাবা অবসর নিয়েছেন অল্প কিছুদিন হলো, আর গৃহিণী মা তাদের সংসারটি আগলে রেখেছেন। বাবা-মায়ের সাথেই থাকেন তিনি। সুলতান মাহমুদ সরকার পরিবারের একমাত্র সন্তান। চাকরিরত অবস্থায় নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি থেকে প্রথম বিভাগে এমবিএ করেছেন গত বছর। সুলতান মাহমুদ সরকার ব্র্যান্ডিং বিষয়ে বিভিন্ন কর্মশালায় অংশগ্রহণ ছাড়াও এ বিষয়ক বই আর ইন্টারনেট ঘাটাঘাটি করেন সবসময় আপডেট থাকার জন্য। নিজের আগ্রহে শেখা বিভিন্ন মাল্টিমিডিয়া ও গ্রাফিক্স সফটওয়্যারে বিস্তর দখল থাকায় এ পেশায় বাড়তি সুবিধা পাচ্ছেন বলে জানালেন। 'ব্র্যান্ডিংয়ের মূল উদ্দেশ্য পণ্য বা সেবাকে সম্ভাব্য ক্রেতার কাছে বস্তুনিষ্ঠ তথ্যসহ আকষর্ণীয়ভাবে উপস্থাপন করা। প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়াতে বিজ্ঞাপন, বিলবোর্ড, মেগাসাইন, সাইনেজ, প্রেস বিজ্ঞপ্তি, কর্পোরেট ওয়েবসাইট, সামাজিক যোগাযোগের ওয়েবসাইট ইত্যাদি মাধ্যম ব্যবহার করে পণ্য ও সেবা সম্পর্কে সঠিক ধারণা দিয়ে ক্রেতাকে সিদ্ধান্ত নিতে সাহায্য করা', নিজের কাজকে তিনি এভাবেই সংজ্ঞায়িত করেন। সবশেষে তার ভবিষ্যত্ স্বপ্নের কথা জানতে চাইলে তিনি বলেন, 'এ দেশে ব্র্যান্ডিংয়ের প্রসারে কাজ করতে চাই। ব্যক্তিগত জীবনে একজন দায়িত্বশীল, সুনাগরিক ও সত্ মানুষ হিসেবে জীবনটা পাড়ি দিতে চাই।'

সুলতান মাহমুদ সরকার

ডাকনাম :টুটুল

জন্মতারিখ ও স্থান :৫ আগস্ট, ঝিনাইদহ

মায়ের নাম :সুলতানা দীন আরা

বাবার নাম :আশরাফ আলী সরকার

প্রথম স্কুল :কাঞ্চননগর মডেল হাই স্কুল, ঝিনাইদহ

প্রিয় মানুষ :বাবা-মা

প্রিয় উক্তি :'বি দ্য চেঞ্জ দ্যাট ইউ উইশ টু সি ইন দ্য ওয়ার্ল্ড'

প্রিয় পোশাক :জিন্স ও চেক পলোশার্ট

অবসর কাটে যেভাবে :মুভি দেখে, গান শুনে, বই পড়ে।

সাফল্যের সংজ্ঞা :নিজেকে ছাড়িয়ে যাওয়া।

০০০

খন্দকার মো. আলী আসিম

অ্যাসিস্ট্যান্ট ব্র্যান্ড ম্যানেজার, কনজিউমার ব্র্যান্ড, এসিআই লিমিটেড

এসএসসি পাস করে নটরডেম কলেজে ভর্তি হয়েছিলেন। ছোটবেলা থেকেই আউটডোর গেমসের প্রতি ঝোঁক ছিল তার। কলেজে এসে যোগ হলো ক্লাব অ্যাক্টিভিটিস। এইচএসসি পাস করার বিবিএ-তে ভর্তি হলেন নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটিতে। বিবিএ শেষ করলেন ফিন্যান্স ও ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস মেজর নিয়ে। তারপর একটি ব্যাংকে কিছুদিন চাকরি করলেন। কিন্তু মন টিকল না। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমবিএ শেষ করেন। যদিও এরই মাঝে বেশকিছু পেশাগত অভিজ্ঞতা সঞ্চয় করেন। এমবিএ শেষ করতে না করতেই চাকরি পেয়ে গেলেন এসিআই লিমিটেডের কনজিউমার ব্র্যান্ড ডিভিশনের মার্কেটিংয়ে এক্সিকিউটিভ হিসেবে। সেই থেকেই মার্কেটিং অ্যান্ড ব্র্যান্ডিংয়ের পথে চলেছেন খন্দকার মো. আলী আসিম। এই সময়ের সফল একজন ব্র্যান্ড ব্যবস্থাপক তিনি। একজন ব্র্যান্ড নির্বাহী হিসেবে তার বর্তমান কাজ সম্পর্কে জানতে চাইলে খন্দকার মো. আলী আসিম বলেন, 'এসিআই লিমিটেডে এক্সিকিউটিভ হিসেবে যোগ দিই মার্কেটিং ডিপার্টমেন্টে। বর্তমানে মার্কেটিংয়ের পরিধি বিশাল। বলা যেতে পারে ব্যবসার পুরো প্রক্রিয়াটিই মার্কেটিংয়ের অন্তর্ভুক্ত। পণ্য প্রস্তুত থেকে শুরু করে তা বিক্রয় সহায়ক করে ভোক্তার সন্তুষ্টি ও ভোক্তার উন্নতির সাথে ব্যবসার প্রসার ও উন্নয়নের সমস্ত কাজই মার্কেটিংয়ের আওতাধীন। আমার দায়িত্ব আমার অধীনে থাকা পণ্যের মাধ্যমে ভোক্তা সন্তুষ্টি অর্জন করা এবং তাদের চাহিদা পূরণে নিত্যনতুন পণ্য সরবারহ করা।' খন্দকার মো. আলী আসিম জানালেন, এই পেশা যথেষ্ট উপভোগ করেন তিনি। কারণ এই পেশার স্বার্থেই তিনি মানুষের কাছে থাকতে পারেন, মানুষকে জানতে পারেন। এই কাজে সবসময় নতুনত্ব আছে, নতুন কিছু শেখার আছে, জানার আছে এবং নতুন কিছু করার উদ্দীপনা আছে। জানার প্রতি প্রচণ্ড আগ্রহ, শেখার অদম্য ইচ্ছা, নতুন কিছু করার প্রয়াস এবং প্রতিটি কাজের ভিতরে ঢুকে প্রত্যেকটি বিষয় সুন্দরভাবে সম্পন্ন করার মাঝেই তিনি আনন্দ খুঁজে পান।

খন্দকার মো. আলী আসিম মনে করেন, যেকোনো কাজে সফলতার জন্য প্রয়োজন সততা। প্রয়োজন কাজের প্রতি একাগ্রতা। প্রতিটি কাজের প্রতি নিজস্ব দায়িত্ববোধ এবং স্ব-প্রণোদিত আগ্রহবোধ। এসবই একজনকে এনে দিতে পারে সাফল্য। খন্দকার মো. আলী আসিমের জন্ম ও বেড়ে ওঠা ঢাকায়। তিন বোনের একমাত্র ছোট ভাই তিনি। ছোটবেলা থেকেই চুপচাপ স্বভাবের। তিন বোনের বিয়ে হয়ে যাওয়ার পর স্ত্রী আর মা-বাবাকে নিয়েই এখন তার সংসার। স্ত্রী একটি স্বনামধন্য কোম্পানিতে মানবসম্পদ বিভাগে এক্সিকিউটিভ পদে দায়িত্ব পালন করছেন। বাবা ব্যবসায়ী এবং মা গৃহিণী। এদের সবাইকে নিয়েই তার সুখী পরিবার। নির্ভেজাল জীবন ও সততার সাথে দেশের মানুষের উন্নয়নে কাজ করাই খন্দকার মো. আলী আসিমের স্বপ্ন।

খন্দকার মো. আলী আসিম

ডাকনাম :লাবিব

জন্মতারিখ ও স্থান :০১ নভেম্বর, ঢাকা

মায়ের নাম :আসমত আরা বেগম

বাবার নাম :খন্দকার মোহাম্মাদ আলী

প্রথম স্কুল :আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজ

প্রিয় মানুষ :মা

প্রিয় উক্তি :অতিরিক্ত কোনো কিছুই ভালো না।

প্রিয় পোশাক :জিন্স প্যান্ট ও পাঞ্জাবি

অবসর কাটে যেভাবে :ভ্রমণ করে ও বই পড়ে

সাফল্যের সংজ্ঞা :বেস্ট ইজ ইয়েট টু কাম।

০০০

আলী আসগর

ব্র্যান্ড ইনচার্জ, আকিজ সিরামিকস লিমিটেড

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে যখন বিবিএ'তে পড়াশোনা করেছেন তখন থেকেই তার ব্র্যান্ডের প্রতি একটি অদম্য আগ্রহ। ছাত্রাবস্থাতেই চাকরি শুরু করেন অ্যাডফার্ম বুলজ আই কমিউনিকেশনে। এখান থেকেই মার্কেটিং ও ব্র্যান্ডিংয়ের প্রতি তার ভালোলাগা তৈরি হয়। এরপর যখন ইন্টার্নশিপে কাজ করার জন্য তিনি বিজ্ঞাপণী সংস্থা অ্যাডকমে যোগ দেন, তখন মার্কেটিং ও ব্র্যান্ডিং নিয়ে আরও গভীরভাবে কাজ করার সুযোগ পান। এ ছাড়া এক আত্মীয়ের কাছ থেকে এ পেশা সম্পর্কিত বিভিন্ন পরামর্শ গ্রহণ এবং একটি বড় ব্র্যান্ড পোর্টফোলিও ম্যানেজ করার কারণেই তার মার্কেটিংয়ের ব্যবহারিক জ্ঞান অর্জন সম্ভব হয়েছে বলে জানান তিনি। প্রজন্মের মেধাবী ব্র্যান্ড কনসালটেন্ট আকিজ সিরামিকস লিমিটেডের ব্র্যান্ড ইনচার্জ আলী আসগরের ক্যারিয়ার শুরুর গল্প এটি। কাছের মানুষের কাছে যিনি মিরন নামেই বেশি পরিচিত। ২০১২ সালে তিনি আকিজ সিরামিকসে যোগদান করেন। এরই মধ্যে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে তিনি ব্র্যান্ড কনসালটেন্ট হিসেবে কাজ করেছেন। চট্টগ্রামের বহদ্দারহাটে আলী আসগরের জন্ম। তিনি চট্টগ্রামের ক্যান্ট. পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজ থেকে এসএসসি এবং ইস্পাহানী পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করেন। তার বাবা বহুজাতিক প্রতিষ্ঠান ইউনিলিভার লিমিটেডে কর্মরত রয়েছেন আর মা গৃহিণী। মা-বাবা, চার ভাই, এক বোন, স্ত্রী এবং একমাত্র মেয়ে আদ্রিকাকে নিয়ে তার পারিবারিক আবহ।

একজন ব্র্যান্ডিং এক্সপার্ট হয়ে ওঠার পেছনের কর্মকাণ্ড সম্পর্কে জানতে চাইলে আলী আসগর বলেন, 'ব্র্যান্ডিং বিষয়ে বিভিন্ন কর্মশালায় অংশগ্রহণ ছাড়াও এ বিষয়ক বই আর ইন্টারনেট ঘাঁটাঘাঁটি করে থাকি সব সময় আপডেট থাকার জন্য। নিজের আগ্রহে শেখা বিভিন্ন মাল্টিমিডিয়া ও গ্রাফিক্স সফটওয়্যারে দখল থাকায় এ পেশায় বাড়তি অনেক সুবিধাও পাচ্ছি।' একজন ব্র্যান্ড কনসালটেন্টের কাজ সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, 'ব্র্যান্ডিংয়ের মূল উদ্দেশ্য হলো পণ্য বা সেবাকে সম্ভাব্য ক্রেতার কাছে বস্তুনিষ্ঠ তথ্যসহ আকষর্ণীয়ভাবে উপস্থাপন করা। যার লক্ষ্য হলো প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়াতে বিজ্ঞাপন, বিলবোর্ড, মেগাসাইন, সাইনেজ, প্রেসবিজ্ঞপ্তি, কর্পোরেট ওয়েবসাইট, সামাজিক যোগাযোগের ওয়েবসাইট ইত্যাদি মাধ্যম ব্যবহার।'

আলী আসগর স্বপ্ন দেখেন, আমাদের ব্র্যান্ডিং আন্তর্জাতিক মানে পৌঁছাবে একসময়, সেই সময়ের আশায় এই জগতের একজন হয়ে অবদান রাখতে চান তিনি।

আলী আসগর

ডাকনাম :মিরন

জন্ম তারিখ ও স্থান :২৯ নভেম্বর, চট্টগ্রাম

মায়ের নাম :আকতার জাহান

বাবার নাম :আইয়ুব আলী হাওলাদার

প্রথম স্কুল :ভাথুয়া মাদ্রাসা,

প্রিয় মানুষ :মা ও আমার মেয়ে

প্রিয় পোশাক :শার্ট, প্যান্ট

অবসর কাটে যেভাবে :সিনেমা দেখে, মিউজিক শুনে, তবলা বাজিয়ে

সাফল্যের সংজ্ঞা :পরিকল্পনা অনুযায়ী সাফল্যের পথে এগিয়ে যাওয়া।

font
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম বলেছেন, 'এখন আমরা অনেক সুসংগঠিত। আমাদের পতন ঘটবে না।' আপনি কি তার সাথে একমত?
5 + 6 =  
ফলাফল
আজকের নামাজের সময়সূচী
আগষ্ট - ১১
ফজর৪:১১
যোহর১২:০৪
আসর৪:৪০
মাগরিব৬:৩৮
এশা৭:৫৬
সূর্যোদয় - ৫:৩২সূর্যাস্ত - ০৬:৩৩
archive
বছর : মাস :
The Daily Ittefaq
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: তাসমিমা হোসেন। উপদেষ্টা সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন। ইত্তেফাক গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে তারিন হোসেন কর্তৃক ৪০, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ থেকে প্রকাশিত ও মুহিবুল আহসান কর্তৃক নিউ নেশন প্রিন্টিং প্রেস, কাজলারপাড়, ডেমরা রোড, ঢাকা-১২৩২ থেকে মুদ্রিত। কাওরান বাজার ফোন: পিএবিএক্স: ৭১২২৬৬০, ৮১৮৯৯৬০, বার্ত ফ্যাক্স: ৮১৮৯০১৭-৮, মফস্বল ফ্যাক্স : ৮১৮৯৩৮৪, বিজ্ঞাপন-ফোন: ৮১৮৯৯৭১, ৭১২২৬৬৪ ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭২, e-mail: [email protected], সার্কুলেশন ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭৩। www.ittefaq.com.bd, e-mail: [email protected]
Copyright The Daily Ittefaq © 2014 Developed By :