The Daily Ittefaq
ঢাকা, শনিবার, ০৮ মার্চ ২০১৪, ২৪ ফাল্গুন ১৪২০, ০৬ জমা. আউয়াল ১৪৩৫
সর্বশেষ সংবাদ ২৩৯ যাত্রী-ক্রুসহ মালয়েশীয় নিখোঁজ বিমানটি ভিয়েতনাম সাগরে বিধ্বস্ত | বগুড়ার আদমদিঘীতে সুড়ঙ্গ খুঁড়ে সোনালী ব্যাংকের ৩০ লাখ টাকা লুট | এশিয়া কাপে শ্রীলঙ্কা অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন | নিজেরাই অধিকার আদায় করুন : নারীদের প্রতি প্রধানমন্ত্রী

প্রবাসী বাবার টাকাই কাল হলো ইমনের

না.গঞ্জে স্কুল ছাত্র হত্যার ঘটনায় ঘাতকদের স্বীকারোক্তি

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি

জেলার বন্দর উপজেলায় খুন হওয়া নবম শ্রেণীর স্কুল ছাত্র রকিবুল ইসলাম ইমনকে (১৪) অপহরণ ও হত্যা মিশনে অংশ নিয়েছিল নিহতের চাচাতো ভাইসহ ৫ জন। এদের সকলেই সিএনজিচালিত অটোরিকশা ও ব্যাটারিচালিত রিকশা চালক। দ্রুত প্রচুর টাকার মালিক হওয়ার লোভে প্রবাসী নূরা মিয়ার ছেলে ইমনকে টার্গেট করে অপহরণ করে তারা। কিন্তু অপহরণের পর জীবিত অবস্থায় ছেড়ে দিলে জটিলতা হতে পারে এমন ধারণাতে পরে ইমনকে হত্যা করে মুক্তিপণ আদায়ের পরিকল্পনা করে খুনিরা।

গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় নারায়ণগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মনোয়ারা বেগমের আদালতে ১৬৪ ধারায় দেয়া স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে এসকল তথ্য জানায় নিহত ইমনের চাচাতো ভাই কিলিং মিশনে থাকা আলামিন। এর আগে গত বুধবার রাতে অপহরণের ৩৫দিন পর নিজ বাড়ির কয়েক শ' গজ দূরের একটি ডোবা থেকে ইমনের গলিত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

একই আদালতে আলামিনের অপর দুই বন্ধু শাহজাহান আলী জীবন ও সাইদুর রহমানকে ১০ দিনের রিমান্ড শুনানি শেষে বিচারক তিন দিন করে ফের রিমান্ড আবেদন মঞ্জুর করেন। এ তিনজনকেই ১০ দিন করে রিমান্ড চেয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছিল।

বন্দর থানা ওসি আকতার মোর্শেদ জানান, মোবাইল ফোন ট্র্যাকিং করে আলামিন, জীবন ও সাইদুরকে বুধবার রাতেই কামতাল এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়। ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদে তারা ইমনকে হত্যার কথা স্বীকার করেছে।

নিহত রকিবুল ইসলাম ইমন বন্দর উপজেলার ধামগড় ইউনিয়ন পরিষদের কামতাল মালিভিটা গ্রামের দুবাই প্রবাসী নূরা মিয়ার ছেলে। সে মোগড়াপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর ছাত্র ছিল।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা বন্দর থানার এস আই হাকিম জানান, আদালতে আলামিন স্বীকার করেছে যে, তারা কিলিং মিশনে ৫ জন ছিল। আর এই হত্যার পেছনে উদ্দেশ্য ছিল মুক্তিপণ আদায় করা। দুবাই প্রবাসী বাবা ছেলের জন্য প্রচুর টাকা যোগাড় করতে পারবে সেজন্যই তারা ইমনকে ২৯ জানুয়ারি অপহরণ করে। পরে অটোরিকশায় কিছুক্ষণ ঘুরানোর পর একটি মুরগীর খামারের পাশে নিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে। পরে ইমনের পরিবারের কাছে মুক্তিপণ হিসেবে প্রথমে ২ লাখ ও পরে ১০ লাখ টাকা পর্যন্ত দাবি করে অপহরণকারীরা। এ ঘটনার ৫ দিন পর ইমনের মা ফেরদৌসি বেগম বাদি হয়ে ইমনের চাচা, ফুফাতো বোন, বোনের জামাই ও অপর দুই চাচাতো ভাইকে আসামি করে বন্দর থানায় মামলা করেন। পরে আটক তিনজনের দেয়া তথ্য মতে ইমনের লাশ উদ্ধার করা হয়। আসামিরা গ্রেফতার হওয়ার পর আর কেউ মুক্তিপণ দাবি করেনি। তবে কিলিং মিশনে থাকা অপর দুইজনের নাম তদন্তের স্বার্থে জানাতে রাজি হননি তদন্তকারী কর্মকর্তা।

এই পাতার আরো খবর -
font
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন, 'উপজেলা নির্বাচনে অংশগ্রহণের মাধ্যমে বিএনপি সরকারকে স্বীকৃতি দিয়েছে।' আপনিও কি তাই মনে করেন?
3 + 1 =  
ফলাফল
আজকের নামাজের সময়সূচী
জুন - ২৫
ফজর৩:৪৫
যোহর১২:০১
আসর৪:৪১
মাগরিব৬:৫২
এশা৮:১৭
সূর্যোদয় - ৫:১২সূর্যাস্ত - ০৬:৪৭
archive
বছর : মাস :
The Daily Ittefaq
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: তাসমিমা হোসেন। উপদেষ্টা সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন। ইত্তেফাক গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে তারিন হোসেন কর্তৃক ৪০, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ থেকে প্রকাশিত ও মুহিবুল আহসান কর্তৃক নিউ নেশন প্রিন্টিং প্রেস, কাজলারপাড়, ডেমরা রোড, ঢাকা-১২৩২ থেকে মুদ্রিত। কাওরান বাজার ফোন: পিএবিএক্স: ৭১২২৬৬০, ৮১৮৯৯৬০, বার্ত ফ্যাক্স: ৮১৮৯০১৭-৮, মফস্বল ফ্যাক্স : ৮১৮৯৩৮৪, বিজ্ঞাপন-ফোন: ৮১৮৯৯৭১, ৭১২২৬৬৪ ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭২, e-mail: [email protected], সার্কুলেশন ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭৩। www.ittefaq.com.bd, e-mail: [email protected]
Copyright The Daily Ittefaq © 2014 Developed By :