The Daily Ittefaq
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ মার্চ ২০১৪, ২৯ ফাল্গুন ১৪২০, ১১ জমা. আউয়াল ১৪৩৫
সর্বশেষ সংবাদ বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর প্রতিবাদে কাল বিএনপির বিক্ষোভ | টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের উদ্বধোন করলেন প্রধানমন্ত্রী | ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৫ | বিদ্যুতের দাম বাড়ল ৬.৬৯ শতাংশ, ১ মার্চ থেকে কার্যকর | রাজধানীতে ছয় তলা ভবনের আগুন নিয়ন্ত্রণে | আদালত অবমাননা : প্রথম আলোর সম্পাদক-প্রকাশক খালাস | খন্দকার মোশাররফ সরকারের চক্রান্তের শিকার : রিজভী

শিক্ষা

চরিত্র গঠনই শিক্ষার মূল লক্ষ্য হওয়া উচিত

আফতাব চৌধুরী

কারও মতে, শিক্ষা সমাজের মেরুদণ্ড গঠন করে। আবার কেউ কেউ বলেন, শিক্ষাই সমাজের অগ্রগতির মূল। এখন কথা হলো-মেরুদণ্ড শুধু থাকলেই হবে না, সেটা কীভাবে আছে দেখতে হবে। জীবজগেক দু'ভাগে ভাগ করা হয়েছে—মেরুদণ্ডী ও অমেরুদণ্ডী। অমেরুদণ্ডী অপেক্ষা মেরুদণ্ডী প্রাণীর জ্ঞান ও বুদ্ধি অধিক। আবার মহাযোগীরা সমীক্ষা করে দেখেছেন যে, মেরুদণ্ডী প্রাণীদের মধ্যে যাদের মেরুদণ্ড আনুভূমিক তাদের উলম্ব অবস্থায় থাকা মেরুদণ্ডী প্রাণীর চেয়ে জ্ঞান-বুদ্ধি বেশি। নিদ্রিত অবস্থা ছাড়া সর্বক্ষণই মানুষের মেরুদণ্ড উলম্ব (Perpendicular) অবস্থায় থাকে। তাই প্রাণীদের মধ্যে জ্ঞান-বুদ্ধির দিক দিয়ে মানুষই শ্রেষ্ঠ। কুকুর, ভালুক, বানর, হাতি ইত্যাদির মেরুদণ্ড আনুভূমিক (Parallel) থাকলেও প্রায়ই উলম্ব অবস্থাপ্রাপ্ত হয়। তাই এদের বুদ্ধি গরু, ভেড়া, মহিষ ইত্যাদি থেকে অধিক। যাই হোক, কোন কোন পণ্ডিতের মতে, মেরুদণ্ড এখনও সোজা হয়নি। যতদিন পর্যন্ত না বড়লোক তোষণ বন্ধ হবে, ততদিন পর্যন্ত তা সোজা হবে না।

আমাদের পাঠ্য ব্যবস্থায় নৈতিক চরিত্র গঠনের কোনও বিষয় বর্তমানে নেই। আছে শুধু ভাষার ছড়াছড়ি। দুটি ভাষা অর্থাত্ বাংলা, ইংরেজি বাধ্যতামূলক। ছাত্ররা এতগুলো ভাষা আয়ত্ত করবে, না অঙ্ক, বিজ্ঞান ও সমাজবিজ্ঞানে জ্ঞান বাড়াবে? তাছাড়া কোনও ছাত্রকে নৈতিক চরিত্র ঠিক না করে শিক্ষাদান হলো সমাজের অমঙ্গল ডেকে আনা।

আমাদের দেশে শিশুদের মধ্যেই দুর্নীতি ঢোকানো হচ্ছে। শৈশবে বাবা-মা তাদের শেখাচ্ছেন 'বিড়াল ওড়ায় ঘুড়ি, নীল আকাশে রঙিন ঘুড়ি চলছে উড়িউড়ি।' ছড়ার বইটিতে নাটাই নিয়ে বেড়ালের ঘুড়ি ওড়ানোর ছবিও আছে। আবার, 'খোকন খোকন করে মায় খোকন গেছে কাদের নায়, সাতটা কাকে দাঁড় বায় খোকনরে তুই ঘরে আয়।' ছড়াটির ছবিতে কাক ঠোঁট দিয়ে দাঁড় বাইছে। এগুলো শেখাতে গিয়ে মায়েরা খুব আনন্দ পেলেও শিশুরা কিন্তু প্রকৃত ভেবেই শিখছে। শিশুটি পরিণত হলে বুঝতে পারছে যে, বেড়াল ঘুড়ি ওড়াতে পারে না এবং গরুও পারে না গাছে চড়াতে। বাবা-মা যা শিখিয়েছেন, সবই মিথ্যে। বইগুলোতেও সব মিথ্যে লিখেছে। তখন সে ভাবছে যে, বইয়ের লেখক থেকে শুরু করে বাবা-মাসহ সবাই যখন মিথ্যে বলছে, তখন সেটা অর্থাত্ মিথ্যে বলাটা নিশ্চয়ই অন্যায়ের কিছু নয়। মনে হয়, এভাবেই আমাদের শিশুদের মধ্যে মিথ্যের বীজ বপন করা হচ্ছে।

আমাদের বেশিরভাগই যেন শিশুতুল্য। একটি শিশুর কাছে দু'টো তেলভর্তি বোতল ধরা হলো। একটি বোতল কারুকার্য করা ও রং-বেরঙের সুন্দর ডিজাইন করা এবং অপরটি সাদামাটা অর্থাত্ সাধারণ। শিশুটি সুন্দর বোতলটিই নিতে চাইবে। কিন্তু একজন রাঁধুনি বোতলের ছিপি খুলে তেল পরীক্ষা করে বোতল নির্ধারণ করবেন। এখন সবাইকে প্রশ্ন করা হলো যে, কোনটার প্রয়োজন-তেলের, না বোতলের? অনেকেই বলে উঠবেন যে, তেলের প্রয়োজন। কিন্তু না, প্রয়োজন দু'টোরই। কেননা, বোতল ছাড়া আমরা তেল রাখব কোথায়? তবে তেলের অধিক এবং তেলই মুখ্য। তেল থাকা অবস্থায় বোতলে ছিদ্র হলে তা বন্ধ করার জন্য সকলে মরিয়া হয়ে উঠবেন। কিন্তু তেল ফুরিয়ে গেলে বোতলের আর প্রয়োজন নেই।

বর্তমান শিক্ষা ব্যবস্থাই হলো ছেলেমেয়েদের কাঁধে সাধ্যাতীত পুথিগত বিদ্যার বোঝা চাপিয়ে দিয়ে প্রচণ্ড চাপ সৃষ্টি। মায়েদের ছোটাছুটি। পরীক্ষা নামক প্রতিযোগিতায় উত্তম ফলপ্রাপ্তি। পরবর্তীতে অধিক অর্থোপার্জন হয়, এমন 'লাইনে' পড়াশোনা করে উপযুক্ত কর্মস্থলে চাকরিপ্রাপ্তি। দেশের ও দশের অর্থ আত্মসাত্। নিজের নামে প্রাসাদপ্রমাণ অট্টালিকা ও গোটা কয়েক গাড়ি। অধিকাংশ অভিভাবকের ধারণা, এটাই ছেলেমেয়ের উন্নতি। কিন্তু ক'জন ভাবেন যে, ছেলের বাড়ি-গাড়ি ক'দিন পর হয়ে যাবে নাতির। বাড়ি-গাড়িসহ সব বস্তুই রেখে এ জগতে সবাইকে পরপারে দিতে হবে পাড়ি।

লেখক :সাংবাদিক

font
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আ স ম হান্নান শাহ বলেছেন, 'ইঁদুর স্বভাবের কিছু নেতার কারণে সংসদ নির্বাচন প্রতিহতের আন্দোলন ঢাকায় সফল হয়নি।' আপনিও কি তাই মনে করেন?
9 + 4 =  
ফলাফল
আজকের নামাজের সময়সূচী
মে - ২২
ফজর৩:৪৮
যোহর১১:৫৫
আসর৪:৩৪
মাগরিব৬:৪০
এশা৮:০১
সূর্যোদয় - ৫:১২সূর্যাস্ত - ০৬:৩৫
archive
বছর : মাস :
The Daily Ittefaq
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: তাসমিমা হোসেন। উপদেষ্টা সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন। ইত্তেফাক গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে তারিন হোসেন কর্তৃক ৪০, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ থেকে প্রকাশিত ও মুহিবুল আহসান কর্তৃক নিউ নেশন প্রিন্টিং প্রেস, কাজলারপাড়, ডেমরা রোড, ঢাকা-১২৩২ থেকে মুদ্রিত। কাওরান বাজার ফোন: পিএবিএক্স: ৭১২২৬৬০, ৮১৮৯৯৬০, বার্ত ফ্যাক্স: ৮১৮৯০১৭-৮, মফস্বল ফ্যাক্স : ৮১৮৯৩৮৪, বিজ্ঞাপন-ফোন: ৮১৮৯৯৭১, ৭১২২৬৬৪ ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭২, e-mail: [email protected], সার্কুলেশন ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭৩। www.ittefaq.com.bd, e-mail: [email protected]
Copyright The Daily Ittefaq © 2014 Developed By :