The Daily Ittefaq
ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৯ মার্চ ২০১৩, ৫ চৈত্র ১৪১৯, ৬ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৪
সর্বশেষ সংবাদ কলম্বো টেস্টের পরাজয়ে সিরিজ হারল বাংলাদেশ | বাগাদাদজুড়ে বোমা হামলায় নিহত ৫৬ | ১২ ঘণ্টা পর ঢাকা-সিলেট রুটে ট্রেন চলাচল শুরু | ঠাকুরগাঁওয়ে অগ্নিদগ্ধ হয়ে দুই তরুণীর মৃত্যু | টাঙ্গাইলে হরতাল বিরোধী মিছিলে হামলা, ছাত্রলীগ নেতা নিহত | খালেদা জিয়াকে পকৃত যুদ্ধাপরাধীদের তালিকা প্রকাশের আহ্বান তথ্যমন্ত্রীর | রাজশাহীতে হরতালে পুলিশসহ আহত ২০, আটক ৬২ | ১৮ দলের ৩৬ ঘণ্টার হরতাল পালন

নিরুত্তাপ হরতালে বিক্ষিপ্ত ভাংচুর অগ্নিসংযোগ

মাঠে ছিলেন না বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতারা

ইত্তেফাক রিপোর্ট

বিক্ষিপ্তভাবে কয়েকটি গাড়ি ভাংচুর, অগ্নিসংযোগ ও হাতবোমা বিস্ফোরণ ছাড়া রাজধানীতে মোটামুটি নিরুত্তাপভাবে অতিবাহিত হয়েছে বিএনপির নেতৃত্বাধীন ১৮ দলের ডাকা ৩৬ ঘণ্টার লাগাতার হরতালের প্রথম দিন। গতকাল সোমবার রাজধানীতে হরতালের সমর্থনে মাঠে নামেননি বিএনপির কেন্দ ীয় নেতারা । দলের কেন্দ ীয় কার্যালয়ের সামনে বিএনপির তিন নেতা ছাড়া সারাদিনে অন্য কোন নেতা বা কর্মীকে দেখা যায়নি। রাজধানীতে হরতাল সমর্থনে তেমন কোন মিছিলও ছিল না। তবে রাজধানীর প্রতিটি থানা এলাকায় আওয়ামী লীগ হরতাল বিরোধী মিছিল করেছে। রাজধানীর সড়কগুলোতে সকাল থেকে রিকশা, অটোরিকশা ছাড়া যানবাহন চলাচল ছিল খুবই কম। রাত সাড়ে ৮ টায় এ প্রতিবেদন লেখার সময় অনেক সড়কে ছিল ভূতুড়ে পরিবেশ। গাবতলী, মহাখালী ও সায়েদাবাদ বাস টার্মিনাল থেকে দূরপাল্লার কোনো বাস ছাড়েনি। তবে কমলাপুর স্টেশন থেকে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক ছিল।

আজ মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৬ টায় শেষ হবে এই টানা হরতালের। গত ১১ মার্চ নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ ীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশে ককটেল বিস্ফোরণের পর সমাবেশ পণ্ড এবং পরে দলের কেন্দ ীয় কার্যালয়ে পুলিশী অভিযানে বিএনপির কেন্দ ীয় নেতাসহ ১৫৪ জনকে আটকের প্রতিবাদে এই হরতাল আহ্বান করে ১৮ দল।

সামপ্রতিক সময়ের মধ্যে গতকালের হরতালের চিত্রটা ছিল কিছুটা ভিন্ন। বিরোধীদলের নেতা-কর্মীরা আতংকে থাকলেও পুলিশকে নির্লিপ্ত দেখা গেছে। সর্ব শেষ ১২ মার্চের হরতালেও পুলিশ পিকেটার দেখলেই ধাওয়া করেছে। প্রতিটি হরতালে বিএনপির কেন্দ ীয় দফতরে পুলিশ-র্যাব ঘিরে রাখলেও গতকাল ছিল মুক্ত। কাল বহু জেলায় বিএনপি নেতা-কর্মীরা পিকেটিংয়ে নেমেছে। আগের হরতালগুলোতে বিএনপি কর্মীদের এমনভাবে মাঠে নামতে দেখা যায়নি। সন্ধ্যা পর্যন্ত পিকেটিংয়ের সময় পুলিশ ৪৬ জনকে আটক করেছে রাজধানী থেকে। গতকাল বিএনপি বা শরিক দলের কোনো কেন্দ্রীয় নেতাকে গ্রেফতারের ঘটনাও ঘটেনি। হরতালের শুরু থেকেই বিপুলসংখ্যক পুলিশ,র্যাব ও বিজিবি সদস্য মোতায়েন করা হয় রাজধানীর সড়কগুলোতে। পুলিশের জলকামান, আর্মড ভেহিকল, গ্যাসগানসহ সব সরঞ্জাম প্রস্তুত ছিল। ডিএমপিকে নয়টি অংশে ভাগ করে ৪৫১ পয়েন্টে পুলিশ মোতায়েন করা হয়। ৭৪টি স্ট্রাইকিং মোবাইল, ১৩৫টি মোবাইল টহল, ১৫টি স্থানে স্ট্রাইকিং রিজার্ভ এবং ক্যামেরাসহ ইনসিডেন্স কাম এভিডেন্স টিম মোতায়েন ছিল। বিভিন্ন অলিগলিতেও পুলিশের টহল দিতে দেখা গেছে। জলকামান ও এপিসি নিয়ে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয় এলাকায় কড়া নজরদারিতে ছিল আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। এই কার্যালয়ে প্রবেশের ক্ষেত্রে কোন কড়াকড়ি ছিল না। তবে সারাদিনে নেতা-কর্মীদের কোন ভিড় দেখা যায়নি। মিছিলের কোন চেষ্টাও হয়নি। সকাল থেকে দলের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও যুগ্ম মহাসচিব সালাউদ্দিন আহমেদসহ কয়েকজন নেতা কার্যালয়ের ভেতরে অবস্থান করেন। সকালে যুগ্ম মহাসচিব সালাউদ্দিন আহমেদসহ কয়েকজন কার্যালয়ের প্রধান ফটকে এসে সাংবাদিকদের বলেন, স্বতস্ফূর্ত হরতালে পিকেটিংয়ের প্রয়োজন হয় না। এ সময় তিনি জনগণের প্রতি শান্তিপূর্ণভাবে হরতাল পালনের আহবান জানান।

অপরদিকে সেখানে দায়িত্বপালনরত মতিঝিল জোনের এডিসি মেহেদি হাসান সাংবাদিকদের বলেন,আমরা গণতান্ত্রিক শান্তিপূর্ণ কোনো কর্মসূচিতে বাধা দিই না, বাধা দেয়ার সুযোগ আমাদের নেই। সকাল থেকেই স্বাভাবিকভাবে নেতা-কর্মীরা অফিসে আসছেন। আমরা কেন বাধা দেব?

এদিকে হরতালের প্রথম দিন রাজধানীর যাত্রাবাড়ী, শ্যামপুর, খিলগাঁও, শ্যামলী, মিরপুর-পল্লবীসহ বিভিন্ন স্থানে বাস, লেগুনা ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছে। এছাড়া এসব এলাকায় বেশ কয়েকটি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটেছে। ছাত্রশিবির নেতা-কর্মীরা ঝটিকা মিছিল করেছে ৩-৪টি স্পটে।

পুলিশের ভাষ্যমতে গতকাল প্রথম দিনের হরতালে ৫ টি গাড়িতে আগুন দিয়েছে পিকেটাররা। বাসাবো ও পল্লবীর কালসী এলাকায় সকালে বাসে আগুন দেয়া হয়। হরতালের শুরুতে রাজধানীর মতিঝিলের এজিবি কলোনি, মিরপুর, শ্যামলী ও গাবতলী এলাকায় বিক্ষিপ্ত হাতবোমার বিস্ফোরণ ঘটে। ধানমন্ডি, তেজগাঁও, ফার্মগেট পোস্ট অফিসের গলিতে সকাল সোয়া ৮টার দিকে মিছিল করেছে বিএনপি। এছাড়া কাওরান বাজার, হাতিরপুল, বাড্ডা, মালিবাগ, বাসাবো, যাত্রাবাড়ী ও জুরাইন এলাকাতেও সকালে হরতালের সমর্থনে ঝটিকা মিছিল বের হয়। এসব মিছিল থেকে যানবাহন ভাংচুরের চেষ্টা চালানো হয়েছে। মোহাম্মদপুর নূরজাহান রোডে সকাল সাড়ে ৮টার দিকে স্বেচ্ছাসেবক দলের একটি মিছিল বের হয়। সকালে ধানমন্ডির সাত মসজিদ রোডে শিবিরের আট কর্মীকে আটক করা হয় বলে ওসি আনোয়ার হোসেন জানিয়েছেন। আর যাত্রাবাড়ীর রায়েরবাগে সড়কে টায়ার জ্বালিয়ে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টির সময় একজনকে আটক করা হয় বলে জানান এস আই এমরানুল ইসলাম।

হরতালের সমর্থনে গতকাল শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদলের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক খালেদ ইবনে ফজল সবুর ও তানভীর মাসুম সৈকতের নেতৃত্বে একটি মিছিল বের হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম গেট অতিক্রম করে প্রধান সড়কে অগ্রসর হলে পুলিশের বাধায় মিছিলটি ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়।

এই পাতার আরো খবর -
font
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
দেশের ৯০ ভাগ মানুষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন চায়। বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুলের এই মন্তব্যের সঙ্গে আপনি কি একমত?
2 + 1 =  
ফলাফল
আজকের নামাজের সময়সূচী
জুলাই - ২৩
ফজর৩:৫৯
যোহর১২:০৫
আসর৪:৪৪
মাগরিব৬:৪৯
এশা৮:১০
সূর্যোদয় - ৫:২৪সূর্যাস্ত - ০৬:৪৪
archive
বছর : মাস :
The Daily Ittefaq
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: তাসমিমা হোসেন। উপদেষ্টা সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন। ইত্তেফাক গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে তারিন হোসেন কর্তৃক ৪০, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ থেকে প্রকাশিত ও মুহিবুল আহসান কর্তৃক নিউ নেশন প্রিন্টিং প্রেস, কাজলারপাড়, ডেমরা রোড, ঢাকা-১২৩২ থেকে মুদ্রিত। কাওরান বাজার ফোন: পিএবিএক্স: ৭১২২৬৬০, ৮১৮৯৯৬০, বার্ত ফ্যাক্স: ৮১৮৯০১৭-৮, মফস্বল ফ্যাক্স : ৮১৮৯৩৮৪, বিজ্ঞাপন-ফোন: ৮১৮৯৯৭১, ৭১২২৬৬৪ ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭২, e-mail: [email protected], সার্কুলেশন ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭৩। www.ittefaq.com.bd, e-mail: [email protected]
Copyright The Daily Ittefaq © 2014 Developed By :