The Daily Ittefaq
ঢাকা, বুধবার, ১ মে ২০১৩, ১৮ বৈশাখ ১৪২০, ১৯ জমাদিউস সানি ১৪৩৪
সর্বশেষ সংবাদ উত্তর কোরিয়ায় মার্কিন নাগরিকের ১৫ বছরের জেল | ভৈরবে প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমানের চেহলাম শুক্রবার | মুন্সীগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৩ | সাভার পৌর মেয়র রেফাত উল্লাহ বরখাস্ত | সাভারে ভবন ধস: মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪৩৩ | নির্দলীয় সরকারের দাবি মানলে সংলাপে যাবে বিএনপি: দুদু | রাজি থাকলে সংলাপ আয়োজনে পদক্ষেপ নেব: স্পিকার ড. শিরীন | দু'এক দিনের মধ্যে সংলাপের আনুষ্ঠানিক প্রস্তাব দিবে আওয়ামী লীগ: সৈয়দ আশরাফ | জামিন পেল আব্বাস-গয়েশ্বর-নোমান-রিজভী-আমান ও আলাল | খালেদা জিয়াকে সংলাপের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর | বিএনপি'র ৬ নেতার জামিন | সাভারের পৌর মেয়র রেফাত উল্লাহ বরখাস্ত

রানা ও গার্মেন্টস মালিকদের সম্পত্তি হস্তান্তরে হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞা

হাইকোর্টের একগুচ্ছ আদেশ

ইত্তেফাক রিপোর্ট

++ব্যাংক হিসাব অন্য নামে হস্তান্তর করতে পারবে না

++ক্ষতিপূরণ দিতে কমিটি গঠন

++এক মাসের মধ্যে ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা দিতে হবে

++জীবন রক্ষায় সরকার কি পদক্ষেপ নিয়েছে তা জানাতে হবে

++গার্মেন্টসের নিরাপত্তা ব্যবস্থা সম্পর্কে বিজিএমইএকে প্রতিবেদন দিতে হবে

++ক্ষতিগ্রস্তদের এক কোটি টাকা করে ক্ষতিপূরণ দেয়ার প্রস্তাব এটর্নি জেনারেলের

সাভারে ধসে যাওয়া রানা প্লাজার মালিক সোহেল রানা এবং পাঁচ গার্মেন্ট মালিকের সকল স্থাবর ও অস্থাবর সম্পত্তি হস্তান্তরের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে হাইকোর্ট। ঢাকার ডিসি, এসপি ও জেলা রেজিস্ট্রারকে অবিলম্বে এ আদেশ কার্যকর করতে বলা হয়েছে। তাদের সম্পত্তি যাতে অন্য কোনো নামে হস্তান্তর হতে না পারে—সেজন্য দেশের সকল সাব-রেজিস্ট্রারের প্রতি সার্কুলার জারি করতে নিবন্ধন পরিদপ্তরের মহাপরিদর্শককে (আইজিআর) নির্দেশ দেয়া হয়েছে। একইসঙ্গে ওই পাঁচজনের ব্যাংক হিসাব থেকে কোনো অর্থ অন্যত্র যেন স্থানান্তর না হয় -সেজন্য সকল বাণিজ্যিক ব্যাংকের প্রতি সার্কুলার জারি করতে বাংলাদেশ ব্যাংককে নির্দেশ দিয়েছে আদালত। তবে বিজিএমইএ'র তত্ত্বাবধানে শ্রমিকদের বেতন-ভাতা দেয়ার জন্য অর্থ তোলা যাবে। আদালতের এ আদেশের বিষয়ে এক সপ্তাহের মধ্যে একটি প্রতিবেদন দাখিল করতে আইজিআরকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। বিচারপতি মির্জা হোসেইন হায়দার ও বিচারপতি মুহাম্মদ খুরশীদ আলম সরকারের ডিভিশন বেঞ্চ গতকাল মঙ্গলবার এসব আদেশ দেয়।

এছাড়া সারাদেশে যেসব গার্মেন্টস কারখানা ঝুঁকিপূর্ণ তা অবিলম্বে বন্ধ করতে শ্রম মন্ত্রণালয়ের প্রধান কারখানা পরিদর্শককে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এদিকে শুনানিতে নিহত প্রত্যেকের পরিবারকে এককোটি টাকা করে ক্ষতিপূরণ দেয়ার জন্য প্রস্তাব করেছেন এটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। তিনি বলেছেন, ভবন মালিক ও গার্মেন্ট মালিকদের কাছ থেকে ছয়শ' কোটি টাকা আদায় করে ক্ষতিপূরণ দিতে হবে। এরমধ্যে ভবন মালিক দেবে তিনশ' কোটি টাকা ও গামের্ন্ট মালিকরা দেবে বাকি তিনশ' কোটি টাকা। এটা আমার ব্যক্তিগত মত। তবে আদালত ওই ঘটনায় সরকারের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে। আদালত এটর্নি জেনারেলকে উদ্দেশ করে বলেন, আপনার ব্যক্তিগত মতকে সাধুবাদ জানাই। এটা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তবে সরকারের ভূমিকা প্রশ্নবিদ্ধ। সরকার এখানে কি করেছে সেটাই প্রশ্ন।

হাইকোর্টের গত ২৫ এপ্রিলের আদেশে গতকাল বেলা ১০টা ২৫ মিনিটে রানা প্লাজার মালিক সোহেল রানা এবং পাঁচটি গার্মেন্টসের চারজন মালিক বজলুস সামাদ আদনান, মাহমুদুর রহমান তাপস, আনিসুর রহমান ওরফে আনিসুজ্জামান এবং আমিনুল ইসলামকে সংশ্লিস্ট আদালত কক্ষে হাজির করা হয় কড়া পুলিশ প্রহরায়। এছাড়া সাভার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কবির হোসেন সরকার, সাভার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, হাবিবুল ইসলামসহ (প্রধান পরিদর্শক, কারখানা ও শিল্প প্রতিষ্ঠান পরিদপ্তর) সংশ্লিষ্টরা আদালতে হাজির হন।

এরপর এ বিষয়ে আদালতের দেয়া স্বতপ্রণোদিত রুলের ওপর শুনানি শুরু করেন এটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম, ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া, হাবিবুল ইসলাম ভুঁইয়া, কে এম সাইফুদ্দিন আহমেদ, ব্যারিস্টার সারা হোসেন, ব্যারিস্টার হাসান এমএস আজিম, ড. ইউনুস আলী আকন্দ, ডেপুটি এটর্নি জেনারেল আলামীন সরকার, মোহাম্মদ হোসেন লিপু প্রমুখ। পরে আদালত আদেশ দেয়।

আদালতের আদেশে ক্ষতিগ্রস্তদের কাকে কি পরিমাণ ক্ষতিপূরণ দেয়া হবে—তার গুরুত্ব বিবেচনা করে নির্ধারণ করার জন্য নবম পদাতিক ডিভিশনের জিওসি, ঢাকা জেলার ডিসি, এসপি, বিজিএমইএ, পাঁচ গার্মেন্টেসের প্রতিনিধি, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়, গৃহায়ন ও গণপূর্ত, শ্রম মন্ত্রণালয়, বুয়েটের একজন করে প্রতিনিধি এবং মেডিসিন, মনস্তাত্ত্বিক অর্থনীতিবিদের নিয়ে একটি কমিটি গঠন করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এ কমিটিকে ক্ষতিগ্রস্তদের একটি তালিকাও জমা দিতে বলা হয়েছে। এ কমিটিকে আদেশ পাওয়ার পর এক মাসের মধ্যে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছে। এছাড়া জীবন রক্ষায় সরকার কী কী পদক্ষেপ নিয়েছে, তা সরকারের কাছে জানতে চাওয়া হয়েছে। পাশাপাশি ওই ঘটনায় রাজউক, বিজিএমইএ ও শিল্প কলকারখানা পরিদর্শকের নেয়া পদক্ষেপের কথা জানাতে বলা হয়েছে। রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (রাজউক) আওতায় কত ভবন আছে—তার তালিকা পর্যায়ক্রমে আদালতে দাখিল করতে রাজউককে নির্দেশ দিয়েছে আদালত। প্রথম পর্যায়ে গার্মেন্ট ফ্যাক্টরির তালিকা দিতে বলা হয়েছে। দেশের সকল গার্মেন্ট ফ্যাক্টরিতে নিরাপত্তা ব্যবস্থা, ভবন ব্যবহারযোগ্য কিনা, অগ্নি নির্বাপন ব্যবস্থা আছে কিনা, স্বাস্থ্যসম্মত পরিবেশ আছে কিনা তার তালিকাসহ সে বিষয়ে প্রতিবেদন দিতে বিজিএমইএ'কে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। রানা প্লাজায় অবস্থিত ব্র্যাক ব্যাংকের ম্যানেজার ভবন ধসের আগের দিন কি পদক্ষেপ নিয়েছিলেন তা লিখিতভাবে আদালতে দাখিল করতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। দুই সপ্তাহের মধ্যে এ প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। ধসের আগের দিন রানা প্লাজা পরিদর্শনকারী প্রকৌশলী ফজলুল হককে নাম ঠিকানা আদালতে দাখিলের জন্য ডেপুটি এটর্নি জেনারেলকে নির্দেশ দেয় আদালত। আর এ কাজে তাকে সহায়তা করবেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।

এসব আদেশের পাশাপাশি সাভার উপজেলা ইউএনও কবির হোসেনের বক্তব্য নিয়ে 'ডেকে এনে শত শত প্রাণ হত্যা' শিরোনামে ২৫ এপ্রিল প্রকাশিত প্রতিবেদনের বিষয়ে প্রথম আলোর সম্পাদক, প্রকাশক ও তিন প্রতিবেদককে ব্যাখ্যা দিতে বলা হয়েছে। ওই প্রতিবেদনে ইউএনও কবির হোসেনের বরাত দিয়ে বলা হয়, 'খবর পেয়ে গত মঙ্গলবার বিকালে সাভার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কবির হোসেন সরকার ভবন পরিদর্শন করেন। সেখানে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, 'ভবন ধসে পড়ার মতো কোনো কারণ এই মুহূর্তে দেখা যাচ্ছে না।' ভবন ধসে পড়ার পর গতকাল জানতে চাইলে ইউএনও বলেন, 'তদন্ত করে দায়ীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।' গতকাল হাইকোর্টে শুনানিকালে কবির হোসেন সরকার ২৩ এপ্রিল প্রথম আলোয় প্রকাশিত তার এ বক্তব্য প্রদানের কথা অস্বীকার করে বলেন, ওইদিন প্রথম আলোকে কোনো কথা বলিনি। এরপর আদালত প্রথম আলো পত্রিকার প্রকাশক, সম্পাদক ও তিন প্রতিবেদকের কাছে ব্যাখা জানতে চেয়ে আদেশ দেয়। আগামী ৮ মে পরবর্তী আদেশের জন্য দিন ধার্য করা হয়েছে।

এদিকে গতকাল শুনানিতে এটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেন, রানা প্লাজা ধসের ঘটনায় মূল অপরাধী ও গার্মেন্টস মালিকরা গ্রেফতার হয়েছে। এ ঘটনায় অনেকে নিহত হয়েছেন, অনেকে আহত হয়েছেন। কারো হাত নেই, কারো পা নেই। তাই ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণ দিতে আমি একটি প্রস্তাব করতে চাই। তিনি বলেন, প্রায় ৪শ জনের লাশ উদ্ধার হয়েছে। আহতদের কেউ কেউ সারাজীবনের জন্য পঙ্গুত্ববরণ করতে পারেন। এসব মিলে তাদের জনপ্রতি এক কোটি টাকা করে দিতে হবে। ক্ষতিগ্রস্তদের পরিবারকে ৬শ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দেয়ার জন্য প্রস্তাব করছি। এই অর্থের অর্ধেক ভবন মালিক এবং বাকি অর্ধেক গার্মেন্টস মালিকদের কাছ থেকে আদায় করতে হবে। এজন্য সময় দরকার। এ প্রচেষ্টা ব্যর্থ হলে তাদের সম্পত্তি বিক্রি করে ক্ষতিপূরণ দেয়ার নির্দেশ দিতে পারেন আদালত। তিনি বলেন, ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা নির্ণয় করতে নবম পদাতিক ডিভিশনের জিওসি, ঢাকা জেলার ডিসি, এসপির প্রতিনিধি নিয়ে কমিটি করার জন্য আদেশ দিতে পারেন। তিনি আরো বলেন, নিহতদের পরিবারের মধ্যে যারা ক্ষতিপূরণ নিতে পারবেন তারা হলেন—বাবা, মা, স্ত্রী, সন্তান, ভাই, দাদা, দাদী। কারো যদি নির্ধারিত কেউ না থাকে তাহলে আদালত তা নির্ধারণ করবেন। এ সময় তাদের সম্পত্তি হস্তান্তর করতে পারবে না। যদিও আদালত এ ধরনের চর্চা আগে কখনো করেনি। তিনি বলেন, যারা ওই বিপর্যয়ের জন্য দায়ী তারা সম্পদ ভোগ করবে আর ক্ষতিগ্রস্তরা দুর্ভোগ পোহাবে তা হতে পারে না। বিপর্যয় সৃষ্টিকারীদের সম্পত্তি বিলিয়ে দিতে হবে। ভবিষ্যতে সতর্কতার জন্যই এটা করতে হবে।

এ পর্যায়ে আদালত বলেন, তাজরীনের ঘটনায় রুল দিয়েছি ছয়মাস আগে। এ রুলের জবাব দেয়া হয়নি। জবাবে মাহবুবে আলম বলেন, এটা দুঃখজনক। তিনি বলেন, ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা তৈরি ও ক্ষতিপূরণ দিতে এক বছর দুই বছর সময় লাগতে পারে। আদালত এটা চলমান রাখতে পারে। আমি খোলা মনে ব্যক্তিগতভাবে এসব কথা বলছি। আমি যা বলছি তা নিয়ে কোনো মন্ত্রী বা অফিসারের সঙ্গে কথা হয়নি। এটা আমার অনুভূতি। এমনকি আদালতে বলার আগে আমার পরিবারের সদস্যদেরও বলিনি। পরে আদেশের সময় আদালত বলেন, এটর্নি জেনারেল তার বক্তব্যে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। এটা তার মূল্যবান ও গুরুত্বপূর্ণ পরামর্শ। আদেশে আদালত সোহেল রানা ও গার্মেন্টসের চার মালিকের সম্পদ বাজেয়াপ্তের কথা উল্লেখ করলে রিট আবেদনকারিগণের কৌঁসুলি ব্যারিস্টার হাসান এম এস আজিম বলেন, এই নির্দেশ কি হাইকোর্ট এভাবে দিতে পারে? জবাবে আদালত বলেন, আমরা আদেশ দিয়েছি। যাতে সম্পত্তি হস্তান্তর না হতে পারে। এ সময় হাসান এম এস আজিম বলেন, কিন্তু এখানেতো তৃতীয়পক্ষের স্বার্থ থাকতে পারে। তাদের সম্পত্তির বিপরীতে মর্টগেজ, ব্যাংক লোন ইত্যাদি থাকতে পারে। আদালত তাদের এ যুক্তি গ্রহণ করেন।

আদালতে ব্যারিস্টার সারা হোসেন বলেন, কিন্তু এদের সব সম্পত্তি তো নিজের নামে থাকবে না। পরিবারের সদস্যদের নামেও থাকতে পারে। বেনামেও থাকতে পারে। সেক্ষেত্রে কি হবে? তাদের সম্পত্তি হস্তান্তরের ওপরও আদালত আদেশ দিতে পারেন।

জবাবে আদালত বলেন, এখন কিভাবে এই আদেশ দেবো? কেউ সম্পত্তি হস্তান্তর করতে গেলে তাকে কি জিজ্ঞেস করা হবে, আপনি কি রানার ভাই/বোন/পরিবারের সদস্য কিনা? আদালত রানার আত্মীয়-স্বজনের নামের একটি তালিকা জমা দেয়ার পরামর্শ দিয়ে বলেন, একটি তালিকা দেন। আমরা সেটা দেখে আদেশ দেবো।

রানাকে দেখে জনতার 'ধর ধর'

গতকাল সকাল ৯টার পরপরই সোহেল রানাকে নিয়ে একটি মাইক্রোবাসে করে ডিবি পুলিশ সুপ্রিম কোর্ট চত্বরে হাজির হয়। একইসঙ্গে পুলিশের প্রিজন ভ্যানে করে আনা হয় গার্মেন্টসের চার মালিককে। ১০টা ২৫ মিনিটে তাদের আদালত কক্ষে নেয়া হয়। এ মামলার শুনানির পর পুলিশ কড়া পাহারায় রানাকে আদালত কক্ষ থেকে গাড়িতে নেয়ার সময় বিক্ষুব্ধ জনতা 'ধর ধর' বলে চিত্কার দিতে থাকে। তারা রানার দিকে তেড়ে যায়। রানাকে জনতার হাতে ছেড়ে দেয়ার দাবিতে শ্লোগান দিতে থাকে। তারা রানার ফাঁসি চেয়ে শ্লোগান দেয়। তবে পুলিশ উত্তেজিত জনতাকে ঠেলে দ্রুত তাকে গাড়িতে তুলে আদালত প্রাঙ্গণ ত্যাগ করে।

মায়ের মৃত্যু সম্পর্কে প্রতিবেশীর কাছে জানতে চাইলেন সোহেল রানা

হাইকোর্টে হাজিরের পর আদালত কক্ষেই সোহেল রানার সঙ্গে দেখা হয় এক প্রতিবেশীর (মানিকগঞ্জের)। এ প্রতিবেশী একটি সরকারি সংস্থায় কর্মরত। দেখা হতেই প্রতিবেশীকে সোহেল রানা জিজ্ঞাসা করেন, আমার মা সত্যিই কি মারা গেছেন? এ প্রশ্নের জবাব দেয়ার আগেই রানাদের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ইন্সপেক্টর শাহিন পারভেজ বাধা দেন। তিনি প্রতিবেশী ব্যক্তিকে না চিনেই বলেন, আসামির সঙ্গে কিসের কথা? সরে যান এখান থেকে? তবে ওই ব্যক্তি সরে আসার আগেই উত্তরটি পৌঁছে দেন রানার কাছে।

ব্যাংক হিসাব জব্দ করল

বাংলাদেশ ব্যাংক

সাভারের রানা প্লাজার মালিক সোহেল রানা এবং ধসে পড়া ভবনে অবস্থিত গার্মেন্টস মালিকদের ব্যাংক হিসাব জব্দ করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। রানা ছাড়া হিসাব জব্দের তালিকায় রয়েছেন নিউ ওয়েভ বটমস লিমিটেডের এমডি, ফ্যান্টম অ্যাপারেলের এমডি, ফ্যান্টম ট্যাক লিমিটেডের এমডি ও ইথার টেক্স লিমিটেডের এমডি। গতকাল মঙ্গলবার ব্যাংকের ব্যাংকিং প্রবিধি ও নীতি বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত একটি আদেশ জারি করা হয়। ব্যাংকের উপ-মহাব্যবস্থাপক আনোয়ারুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এ আদেশে বলা হয়, হাইকোর্টের আদেশ অনুযায়ী এসব ব্যক্তির হিসাব থেকে কোন অর্থ উত্তোলন করা যাবে না। তবে বিজিএমইএ-এর অনুমতিক্রমে ও তত্ত্বাবধানে ওই ভবনে অবস্থিত কারখানার শ্রমিকদের বেতন দেয়ার জন্য উত্তোলন করা যাবে।

এই পাতার আরো খবর -
font
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
সাভারের ঘটনায় বাংলাদেশের তৈরি পোশাক খাতে অর্ডার কমে যেতে পারে বলে আপনি মনে করেন?
4 + 4 =  
ফলাফল
আজকের নামাজের সময়সূচী
নভেম্বর - ৫
ফজর৫:০৬
যোহর১১:৪৯
আসর৩:৩৬
মাগরিব৫:১৪
এশা৬:৩২
সূর্যোদয় - ৬:২৬সূর্যাস্ত - ০৫:০৯
archive
বছর : মাস :
The Daily Ittefaq
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: তাসমিমা হোসেন। উপদেষ্টা সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন। ইত্তেফাক গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে তারিন হোসেন কর্তৃক ৪০, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ থেকে প্রকাশিত ও মুহিবুল আহসান কর্তৃক নিউ নেশন প্রিন্টিং প্রেস, কাজলারপাড়, ডেমরা রোড, ঢাকা-১২৩২ থেকে মুদ্রিত। কাওরান বাজার ফোন: পিএবিএক্স: ৭১২২৬৬০, ৮১৮৯৯৬০, বার্ত ফ্যাক্স: ৮১৮৯০১৭-৮, মফস্বল ফ্যাক্স : ৮১৮৯৩৮৪, বিজ্ঞাপন-ফোন: ৮১৮৯৯৭১, ৭১২২৬৬৪ ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭২, e-mail: [email protected], সার্কুলেশন ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭৩। www.ittefaq.com.bd, e-mail: [email protected]
Copyright The Daily Ittefaq © 2014 Developed By :