The Daily Ittefaq
ঢাকা, শুক্রবার, ১৪ জুন ২০১৩, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২০ এবং ৪ শাবান ১৪৩৪
সর্বশেষ সংবাদ শনিবার একযোগে চার সিটি নির্বাচনে ভোট গ্রহণ | নোয়াখালীর চরে গণপিটুনিতে পাঁচ জলদস্যু নিহত | হোটেল থেকে ১০ বুয়েট শিক্ষার্থীসহ ২০ জন আটক | বরিশালে পুলিশ দিয়ে বিএনপি নেতাকর্মীদের হয়রানির অভিযোগ | নির্বাচনে জালিয়াতি হলে সরকারের প্রতি অনাস্থা:মওদুদ | কেন্দ্রগুলোতে যাচ্ছে ভোটের সরঞ্জাম

খালেকের ভোটাররা সরব মনির এগোচ্ছেন নীরবে

সাইদুর রহমান, রেজাউল করিম ও এনামুল হক, খুলনা থেকে

কে হচ্ছেন খুলনার নগরপিতা ? এই প্রশ্নটিই এখন ঘুরপাক খাচ্ছে ভোটার, সমর্থক ও খুলনাবাসীর মধ্যে। ভোটের আর মাত্র একদিন বাকি থাকতেই শুরু হয়েছে ভোটার ও নাগরিকদের চুলচেরা বিশ্লেষণ। সবাই বলছেন, আগামী শনিবার নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী তালুকদার আবদুল খালেকের পক্ষে ভোটাররা সরব, অন্যদিকে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী মনিরুজ্জামান মনিরের সমর্থকরা নীরব থাকলেও তার প্রতি জনসমর্থন কম নয়। খালেকের হাতে এখন বড় অস্ত্র বিগত সাড়ে চার বছরের উন্নয়ন। অন্যদিকে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী মনিরুজ্জামান মনির ভরসা তার ১৮ দলীয় জোট। এছাড়া খালেক তার জনপ্রিয়তাকে অন্যদিকে মনি সরকারের ব্যর্থতাকে কাজে লাগানোর চেষ্টা করছেন প্রতিমুহূর্েত। গত ২৯ এপ্রিল এই সিটি নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর থেকে সরব রয়েছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। আর পুরো নির্বাচনী প্রক্রিয়ায় কৌশলি পন্থা অবলম্বন করেছে প্রধান বিরোধী দল বিএনপি।

নির্বাচনে জাতীয় পার্টি (এ) সমর্থিত প্রার্থী শফিকুল ইসলাম মধু অংশ নিলেও মূল লড়াই হবে আওয়ামী লীগ-বিএনপির প্রার্থীর মধ্যে। জয়-পরাজয়ের মূল ফ্যাক্টর দাঁড়িয়েছে বেশকিছু জাতীয় ইস্যু। এর মধ্যে মতিঝিলের শাপলা চত্বরের হেফাজতের উপর সরকারের দমন-নীতি, সরকারের নানা কর্মকান্ড। পাশাপাশি রয়েছে স্থানীয় নেতাদের ভূমিকা, দলীয় কর্মকান্ড, আঞ্চলিকতা, মেয়র হিসাবে খালেকের সাড়ে চার বছরের মূল্যায়ন, তার জনপ্রিয়তা একইসঙ্গে নগরীর মশার উপদ্রপ, জলাবদ্ধতা ইত্যাদি সমস্যা।

সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর থেকে শুরু করে তিনবার জাতীয় সংসদ সদস্য, প্রতিমন্ত্রীর পর খুলনা সিটির মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক এ অঞ্চলের জনপ্রিয় রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব হিসেবে পরিচিত। কিন্তু এবারের নির্বাচনে তিনি তার অতীত জয়ের ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে পারবেন কিনা তা নিয়েও সংশয় রয়েছে। ২০০৮ সালের ৪ ঠা আগস্ট অনুষ্ঠিত সিটি করপোরেশনের নির্বাচনের আগে জমা দেয়া হলফনামা ও বর্তমানে হলফনামা অনুযায়ী তার আয়ও বেড়েছে অনেকগুণ। সিটি করপোরেশন এলাকার অন্তর্ভুক্ত জাতীয় সংসদের খুলনা-২ (সদর) আসনে ১৯৭৩ সালের পর আওয়ামী লীগ জিততে পারেনি। সিটি করপোরেশন দীর্ঘদিন ছিল বিএনপির দখলে। তবে ২০০৮ সালে মনিরুজ্জামান মনিকে ২৫ হাজার ভোটের ব্যবধানে হারিয়ে মেয়র নির্বাচিত হন তালুকদার খালেক। তখন মনির পাশে বিএনপির কেউ না থাকলেও এখন আছে সবাই। সঙ্গে পাচ্ছেন ১৮ দলীয় জোটের শরীকদের। ভোটারদের মতে, খুলনার খালিশপুর ও দৌলতপুর শ্রমিক অধ্যুষিত এলাকা। তালুকদার আব্দুল খালেক নিজেও শ্রমিক রাজনীতি থেকে উঠে আসা মানুষ। তাছাড়া আওয়ামী লীগসহ বামপন্থি দলগুলোর একটা প্রভাব রয়েছে। এর ফলে শ্রমিকদের ভোট তালুকদার খলেকের দিকে ঝুঁকবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। অপরদিকে, খুলনা সদর থানা ও সোনাডাঙা এক সময় মুসলিম লীগ অধ্যুষিত এলাকা ছিল। এই এলাকায় বিএনপি-জামায়াতের ব্যাপক প্রভাব রয়েছে। এ এলাকার ভোট মনির দিকেই পড়বে বলে সবার ধারণা। এছাড়া একসময়ের নজরুল ইসলাম মঞ্জু এমপি শ্রমিকদের কাছে গুরু নামে পরিচিত। তার কারণেই খুলনা নগরীর নীরব শ্রমিকদের বড় একটি অংশের ভোট পড়তে পারে মনির দিকে।

তবে প্রধান দুই প্রার্থীকেই অভ্যন্তরীণ বেশকিছু সমস্যা নিয়ে ভোটের দিকে এগিয়ে যেতে হচ্ছে। দলের অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্ব নিয়ে দুই প্রার্থীকেই ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। আওয়ামী লীগ সমর্থিত মেয়র প্রার্থী তালুকদার আব্দুল খালেকের পক্ষে কাজ করছে সম্মিলিত নাগরিক কমিটি। সাবেক স্পিকার শেখ রাজ্জাক আলীকে সম্মিলিত নাগরিক কমিটির চেয়ারম্যান করা হয়েছে। গুঞ্জন রয়েছে, বিএনপির সাবেক নেতা শেখ রাজ্জাক আলী আগামী নির্বাচনে জাতীয় সংসদের খুলনা-২ আসন থেকে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেতে পারেন। এ কারণে স্থানীয় আওয়ামী লীগের কেউ কেউ শেখ রাজ্জাক আলীকে সহজভাবে নিচ্ছেন না। খুলনা-২ আসনে গত নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী ছিলেন খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান মিজান। খুবই অল্প ভোটের ব্যবধানে তিনি বিএনপির প্রার্থী নজরুল ইসলাম মঞ্জুর কাছে পরাজিত হন। বর্তমানে তিনি খুলনা মহানগর ১৪ দলের সমন্বয়কেরও দায়িত্বও পালন করছেন। শেখ রাজ্জাক আলীকে এই আসনে মনোনয়নের গুঞ্জন থাকায় মিজানের অনুসারীদের মধ্যে চাপা হতাশা কাজ করছে। খুলনা জেলার সাধারণ সম্পাদক সাবেক হুইপ এসএম মোস্তফা রশিদী সুজা বিগত বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের সময় কারা নির্যাতনের শিকার হন। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর তার উল্লেখযোগ্য কোনো মূল্যায়ন হয়নি বলে সুজার অনুগতদের অভিযোগ। খালেকের সঙ্গে সুজার মনস্ততাত্ত্বিক দ্বন্দ্ব রয়েছে। এ কারণে তার অনুগতদের মধ্যে চাপা হতাশা রয়েছে। খুলনা চেম্বার অব কমার্সের প্রেসিডেন্ট ও নগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি কাজী আমিনুল হকেরও রাজনৈতিক দাপট আছে এখানে। ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও যুবলীগ কেন্দ্রীয় নেতা শহীদ ইকবাল কবির হত্যাকান্ডকে কেন্দ্র করে খালেক ও আমিনুল হকের মধ্যে মতবিরোধ রয়েছে। কেন্দ্রীয় নেতারা প্রচারণায় এসে এই তিন নেতাকে খালেকের পক্ষে কাজ করার নির্দেশ দেন। যদিও সুজা, মিজান ও আমিনুল খালেকের নির্বাচনী প্রচারণায় দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করছেন। তবে সেটি দৃশ্যমান হলেও বাস্তব চিত্র ভিন্ন হতে পারে বলে মত রয়েছে। অন্যদিকে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী মনিরুজ্জামান মনি বিগত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময়ে প্রায় এক বছরের জন্য খুলনার ভারপ্রাপ্ত মেয়রের দায়িত্ব পালনের সময় সিটি কর বৃদ্ধি করেন। এ সময় সিটি করপোরেশনের মধ্যে ভাসমান দোকানপাট ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান উচ্ছেদ করা হয়। এতে বিপুল সংখ্যক পরিবার ক্ষতিগ্রস্ত হয়। সিটি কর বৃদ্ধি ও উচ্ছেদের ঘটনায় এক শ্রেণীর মানুষের মধ্যে মনির উপর রয়েছে ক্ষোভ। গতবছর দুই ছাত্রদল নেতাকে থানায় নিয়ে ফ্যানের সঙ্গে ঝুলিয়ে পুলিশি নির্যাতনের পর অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মামলা দেওয়ার ব্যাপারে বিএনপির পক্ষ থেকে তেমন কোনো উদ্যোগ ছিল না বলে বিএনপি ও ছাত্রদলের অনেক নেতাকর্মীর অভিযোগ রয়েছে। এ কারণে ক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা নির্বাচনী মাঠেও তেমন একটা সরব নয়।

এই পাতার আরো খবর -
font
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
চার সিটি নির্বাচনে সেনা মোতায়েনের দাবি জানিয়েছে বিএনপি। আপনি কি মনে করেন এই দাবি যৌক্তিক?
1 + 6 =  
ফলাফল
আজকের নামাজের সময়সূচী
নভেম্বর - ১৫
ফজর৪:৫৪
যোহর১১:৪৩
আসর৩:৩৭
মাগরিব৫:১৬
এশা৬:৩১
সূর্যোদয় - ৬:১২সূর্যাস্ত - ০৫:১১
archive
বছর : মাস :
The Daily Ittefaq
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: তাসমিমা হোসেন। উপদেষ্টা সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন। ইত্তেফাক গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে তারিন হোসেন কর্তৃক ৪০, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ থেকে প্রকাশিত ও মুহিবুল আহসান কর্তৃক নিউ নেশন প্রিন্টিং প্রেস, কাজলারপাড়, ডেমরা রোড, ঢাকা-১২৩২ থেকে মুদ্রিত। কাওরান বাজার ফোন: পিএবিএক্স: ৭১২২৬৬০, ৮১৮৯৯৬০, বার্ত ফ্যাক্স: ৮১৮৯০১৭-৮, মফস্বল ফ্যাক্স : ৮১৮৯৩৮৪, বিজ্ঞাপন-ফোন: ৮১৮৯৯৭১, ৭১২২৬৬৪ ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭২, e-mail: [email protected], সার্কুলেশন ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭৩। www.ittefaq.com.bd, e-mail: [email protected]
Copyright The Daily Ittefaq © 2014 Developed By :