The Daily Ittefaq
ঢাকা, মঙ্গলবার ২২ জুলাই ২০১৪, ৭ শ্রাবণ ১৪২১, ২৩ রমজান ১৪৩৫
সর্বশেষ সংবাদ ব্রাজিলের নতুন কোচ দুঙ্গা | ইন্দোনেশিয়ায় নির্বাচনে জয়ী উয়িদোদো | বিসিএস পরীক্ষায় এমসিকিউ বাদ দেয়ার সুপারিশ

থানায় হাত-পা বেঁধে নাকে পানি ঢালা হয়

পুলিশ হেফাজতে ব্যবসায়ী হত্যা

ইত্তেফাক রিপোর্ট

থানায় হাত-পা বেঁধে নাকে পানি দিয়ে লাঠি দিয়ে পেটানো হয়। এক পর্যায়ে মেঝেতে পড়ে গেলে তার মাথা বুট জুতা দিয়ে থ্যাঁতলানো হয়। দুই পায়ের হাঁটুতে লাঠি দিয়ে আঘাত করা হয়। বুকে লাঠি দিয়ে আঘাত করলে ক্রমেই তার চিত্কার ক্ষীণ হয়ে আসে। এক পর্যায়ে থানাতেই তিনি মারা যান। এই নির্মম নির্যাতনের বর্ণনা দিয়েছেন ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের রিমান্ডে থাকা মিরপুর থানার এসআই জাহিদুর রহমান। সুজনকে গ্রেফতার অভিযানের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত সবকিছুই থানার ওসি সালাউদ্দিন খান অবগত ছিলেন বলে জানান এসআই জাহিদ। তিনি আরো জানান, নির্যাতনের পর থানায় মারা যাওয়ার পর বিষয়টি নিয়ে মিরপুর বিভাগের উপ-কমিশনার ইমতিয়াজ আহমেদের সাথে ওসি নিজেই কথা বলেছেন। উপ-কমিশনার বিষয়টি অসুস্থ হয়ে মারা গিয়েছে বলে সাজাতে বলেন। এজন্য নিহত সুজনকে অসুস্থ বলে মিরপুরের লতিফ ক্লিনিকে নেয়া হয়। সেখানে চিকিত্সকরা এক দফা মৃত ঘোষণা করলে আবারও সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখান থেকে লাশ পরে পুলিশের গাড়িতে করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ মর্গে রেখে যাওয়া হয়।

মামলার তদন্ত সংশ্লিষ্ট ডিবি পুলিশের একজন কর্মকর্তা জানান, গতকাল ছিল রিমান্ডের তৃতীয় দিন। রিমান্ডে নেয়া এসআই জাহিদ ও সোর্স নাসিমকে মুখোমুখি জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। জাহিদের দেয়া তথ্য সোর্স নাসিমের দেয়া বক্তব্যের সাথে ক্রসচেক করা হয়।

তবে ব্যবসায়ী মাহবুবুর রহমান সুজন হত্যার অভিযোগে শিগগির গ্রেফতার অথবা ক্লোজ হচ্ছেন না মিরপুর মডেল থানার ওসি সালাউদ্দিন আহমেদ খান। বিচার বিভাগীয় তদন্তের প্রতিবেদন পাওয়ার পরই তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানায় ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) একাধিক সূত্র। তবে এই হত্যাকাণ্ডে বিচার বিভাগীয় তদন্তে তার সংশ্লিষ্টতা পাওয়া গেলে অবশ্যই তাকে গ্রেফতার করা হবে বলে ডিএমপি সূত্রটি নিশ্চিত করেছে।

গত ১২ জুলাই রাতে এসআই জাহিদের নেতৃত্বে একটি দল রাজধানীর শঙ্করের পশ্চিম জাফরাবাদের বাসা থেকে সুজন, তার স্ত্রী ও পাঁচ বছর বয়সী ছেলেকে আটক করে মিরপুর থানায় নিয়ে যায়। থানার ভিতর সুজনকে অন্য একটি কক্ষে আটকে রেখে পিটিয়ে হত্যা করা হয় বলে পরিবারের সদস্যদের অভিযোগ।

এদিকে ঘটনার পর পরই ডিএমপি মিরপুর বিভাগের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার জসিম উদ্দীনকে প্রধান করে তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করা হয়। কমিটির অপর দুই সদস্য হলেন মিরপুর জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনার সাখাওয়াত হোসেন ও মিরপুর বিভাগের সহকারী পুলিশ কমিশনার (প্রশাসন) তোফাজ্জল হোসেন। সাতদিনের মধ্যে তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন দাখিল করার কথা থাকলেও তদন্ত কাজ শেষ না হওয়ায় আবারও সাতদিন সময় বাড়ানো হয়েছে। এর মধ্যে তদন্ত কমিটি ১৮ জনের সাক্ষ্য নিয়েছেন। এর মধ্যে এসআই জাহিদও রয়েছেন। এছাড়াও সুজনের স্ত্রীকে দুই দফায় জিজ্ঞাসাবাদ করেছে। তৃতীয় বার তাকে চিঠি দিয়ে আবারও মিরপুর মডেল থানায় এসে নির্যাতনের ঘটনা বর্ণনা করার জন্য অনুরোধ করেছে কমিটি। এসব কাজ সম্পন্ন হলে তদন্ত প্রতিবেদন দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন অতিরিক্ত উপ-কমিশনার জসীম উদ্দিন।

এই পাতার আরো খবর -
font
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
র্যাবের লিগ্যাল এন্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক উইং কমান্ডার এটিএম হাবিবুর রহমান বলেছেন, 'ষড়যন্ত্রমূলকভাবেই র্যাব ভেঙে দেয়ার আহ্বান জানানো হয়েছে।' আপনিও কি একমত?
4 + 1 =  
ফলাফল
আজকের নামাজের সময়সূচী
নভেম্বর - ৬
ফজর৫:০৭
যোহর১১:৫০
আসর৩:৩৬
মাগরিব৫:১৫
এশা৬:৩২
সূর্যোদয় - ৬:২৭সূর্যাস্ত - ০৫:১০
archive
বছর : মাস :
The Daily Ittefaq
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: তাসমিমা হোসেন। উপদেষ্টা সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন। ইত্তেফাক গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে তারিন হোসেন কর্তৃক ৪০, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ থেকে প্রকাশিত ও মুহিবুল আহসান কর্তৃক নিউ নেশন প্রিন্টিং প্রেস, কাজলারপাড়, ডেমরা রোড, ঢাকা-১২৩২ থেকে মুদ্রিত। কাওরান বাজার ফোন: পিএবিএক্স: ৭১২২৬৬০, ৮১৮৯৯৬০, বার্ত ফ্যাক্স: ৮১৮৯০১৭-৮, মফস্বল ফ্যাক্স : ৮১৮৯৩৮৪, বিজ্ঞাপন-ফোন: ৮১৮৯৯৭১, ৭১২২৬৬৪ ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭২, e-mail: [email protected], সার্কুলেশন ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭৩। www.ittefaq.com.bd, e-mail: [email protected]
Copyright The Daily Ittefaq © 2014 Developed By :