The Daily Ittefaq
বৃহস্পতিবার, ১৪ আগস্ট ২০১৪, ৩০ শ্রাবণ ১৪২১, ১৭ শাওয়াল ১৪৩৫
সর্বশেষ সংবাদ পুলিশ সুপার পদমর্যাদার ২৮ কর্মকর্তাকে বদলি | পিনাক-৬ লঞ্চের জরিপকারক ওএসডি | ১ সেপ্টেম্বর থেকে ভোটার তালিকা হালনাগাদ শুরু | খিলগাঁওয়ে গুলি করে চার লাখ টাকা ছিনতাই

সৃজনশীলতার জয়

এইচএসসিতে পাসের হার ৭৮ দশমিক ৩৩, জিপিএ-৫ পেয়েছে ৭০ হাজার ৬০২ জন

নিজামুল হক

দেশের দশটি শিক্ষা বোর্ডের অধীনে চলতি বছর অনুষ্ঠিত উচ্চ মাধ্যমিক সার্টিফিকেট (এইচএসসি) ও সমমানের পরীক্ষার ফল গতকাল বুধবার সারাদেশে একযোগে প্রকাশ করা হয়েছে। এবার ১০টি সাধারণ শিক্ষা বোর্ডে গড় পাসের হার ৭৮ দশমিক ৩৩। গতবারের চেয়ে এবার পাসের হার ৪ দশমিক শূন্য ৩ শতাংশ বেশি। গতবার এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় পাসের হার ছিল ৭৪ দশমিক ৩০। ১০টি শিক্ষা বোর্ডে গ্রেডিং পদ্ধতিতে ফল প্রকাশের চতুর্দশ বছরে এবার সব বিষয়ে সৃজনশীল পদ্ধতিতে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ফলে পাসের হারের পাশাপাশি আগের বছরের চেয়ে এবার জিপিএ-৫ও বেড়েছে। এবার জিপিএ-৫ পেয়েছে ৭০ হাজার ৬০২ জন। গতবার এ সংখ্যা ছিল ৫৮ হাজার ১৯৭ জন।

গতকাল দুপুর ১টার দিকে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত সাংবাদিক সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী নূরুল ইসলাম নাহিদ ফলের বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরেন। শিক্ষামন্ত্রী বলেন, নানা ধরনের উদ্যোগের ফলে ভাল ফল হচ্ছে। সব বিষয়ে সৃজনশীল পদ্ধতি চালু ছাড়াও আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার ও শিক্ষকদের প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে। অভিজ্ঞ শিক্ষকদের দিয়ে শিক্ষকদেরও ক্লাস নেয়া হচ্ছে। এছাড়া সেরা শিক্ষকদের ক্লাস বিটিভিতে প্রচার, ইংরেজি ও গণিত বিষয়ে আলাদা ক্লাস নেয়ায় ইতিবাচক ফল পাচ্ছি।

এর আগে সকাল ১০টায় গণভবনে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষাসমূহের ফল হস্তান্তর করেন শিক্ষামন্ত্রী। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন দেশের শিক্ষা বোর্ডসমূহের চেয়ারম্যানবৃন্দ। এ বছর পরীক্ষা শেষ হওয়ার ৫৮ কর্মদিবসে পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করা হল।

চার বছরে জিপিএ-৫ বেড়েছে তিনগুণ:গত চার বছরের এইচএসসির ফলের সাথে এবারের ফল বিশ্লেষণে দেখা যায়, পাসের হার বেড়েছে ৪ শতাংশ। আর জিপিএ-৫ বেড়েছে প্রায় তিনগুণ। ২০১০ সালে পাসের হার ছিল ৭৮ দশমিক ২৪ শতাংশ। ২০১১ সালে ৭৫ দশমিক ০৮ শতাংশ, ২০১২ সালে ৭৮ দশমিক ৬৭ শতাংশ এবং ২০১৩ সালে পাসের হার ছিল ৭৪ দশমিক ৩০ শতাংশ। আর ২০১০ সালে জিপিএ-৫ পেয়েছিল ২৮ হাজার ৬৭১ জন।

এবার পাসের হার এবং জিপিএ-৫ এর সংখ্যা বৃদ্ধির পাশাপাশি শতভাগ পাস করা প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা বেড়েছে, কমেছে শূন্য পাস প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা। গতবার শতভাগ পাস করা প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ছিল ৮৪৯টি। এবার এ সংখ্যা ১ হাজার ১৪৭ টি। শূন্য পাস করা প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা গতবার ছিল ২৫টি। এবার এ সংখ্যা ২৪টি।

উচ্ছ্বাস শিক্ষার্থীদের:গতকাল দুপুরে কলেজগুলোর পাশাপাশি ওয়েবসাইটেও ফল প্রকাশ করা হয়। এছাড়া মোবাইল ফোনে এসএমএস-এর মাধ্যমেও শিক্ষার্থীরা পরীক্ষার ফল জানতে পারে। জীবনের গুরুত্বপূর্ণ পাবলিক পরীক্ষা এইচএসসির ফল প্রকাশের সঙ্গে সঙ্গে কলেজগুলোতে নেমে আসে আনন্দের বন্যা। সকাল থেকেই মুখরিত হয়ে ওঠে প্রতিটি কলেজ প্রাঙ্গণ। ফল প্রকাশের পর অভিভাবক, শিক্ষক ও ছাত্র-ছাত্রীরা আবেগে আপ্লুত হয়ে পড়েন। একে অপরকে জড়িয়ে ধরে আনন্দের বৃত্ত তৈরি করেন শিক্ষার্থীরা। বাদ্য বাজিয়ে, হৈ-হুল্লোড় করে হাতে হাত রেখে নেচে-গেয়ে আনন্দ ভাগাভাগি করে নেন জিপিএ-৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও শিক্ষক-শিক্ষিকারা। পরীক্ষার ফল প্রকাশের সঙ্গে সঙ্গেই মিষ্টির দোকানগুলোতে মিষ্টি কেনার ধুম পড়ে যায়।

গতকাল একই সঙ্গে ৮টি সাধারণ শিক্ষা বোর্ডের অধীনে এইচএসসির পাশাপাশি মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের আলিম এবং কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অধীনে এইচএসসি (ব্যবসায় ব্যবস্থাপনা), ডিপ্লোমা ইন কমার্স এবং এইচএসসি (ভোকেশনাল) ফাইনাল পরীক্ষার ফলও প্রকাশিত হয়েছে। ৮টি সাধারণ শিক্ষা বোর্ডে পাসের গড় হার ৭৫ দশমিক ৭৪ শতাংশ। গতবারের চেয়ে পাসের হার ৪ দশমিক ৬১ শতাংশ বেড়েছে। গতবার পাসের হার ছিল ৭১ দশমিক ১৩ শতাংশ। ৮টি শিক্ষা বোর্ডে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৫৭ হাজার ৭৮৯ জন। গতবার এ সংখ্যা ছিল ৪৬ হাজার ৭৩৬।

এবার মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডে পাসের হার ৯৪ দশমিক ০৮ শতাংশ এবং কারিগরি শিক্ষা বোর্ডে পাসের হার ৮৫ দশমিক শূন্য ২ শতাংশ। এছাড়া গতকাল ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের অধীনে ডিপ্লোমা ইন বিজনেস স্টাডিজ (ডিআইবিএস) পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়।

এগিয়ে ঢাকা শিক্ষাবোর্ড: গতবারের চেয়ে পাসের হার কমলেও ৮টি শিক্ষা বোর্ডের পাসের হারে এবারও এগিয়ে রয়েছে ঢাকা শিক্ষাবোর্ড। এবার এ বোর্ডে পাসের হার ৮৪ দশমিক ৫৪ শতাংশ। গতবারের চেয়ে প্রায় ১০ শতাংশ পাসের হার বেড়েছে। দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে সিলেট শিক্ষাবোর্ড। গত দুই বছরে পাসের হারে শীর্ষে ছিল এই শিক্ষাবোর্ড। এর পরে আছে রাজশাহী শিক্ষা বোর্ড ৭৮ দশমিক ৫৫, দিনাজপুর বোর্ড ৭৪ দশমিক ১৪, বরিশাল বোর্ড ৭১ দশমিক ৭৫, কুমিল্লা বোর্ড ৭০ দশমিক ১৪, চট্টগ্রাম বোর্ড ৭০ দশমিক ০৬ শতাংশ ও যশোর শিক্ষা বোর্ড ৬০ দশমিক ৫৮ শতাংশ।

এবার আটটি সাধারণ শিক্ষা বোর্ড, মাদ্রাসা বোর্ড এবং কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অধীনে ১১ লাখ ২৯ হাজার ৯৭২ জন পরীক্ষায় অংশ নেয়। এর মধ্যে পাস করেছে ৮ লাখ ৮৫ হাজার ৭০ জন। সারাদেশে এবার মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের অধীনে ১ লাখ ৫ হাজার ৮৪৯ জন পরীক্ষার্থী অংশ নেয়। ৯৯ হাজার ২৫৮১ জন পাস করে। কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অধীনে এইচএসসি (বিএম) পরীক্ষায় এবার ১ লাখ ৮ হাজার ৫৮৭ জন পরীক্ষার্থী অংশ নেয়। পাস করে ৮৮ হাজার ৯২৫ জন। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৬ হাজার ৩৯৩ জন।

সেরা কলেজ:বরাবরের মতো এবারো সবচেয়ে বেশি জিপিএ-৫ পেয়েছে নটরডেম কলেজ, ২ হাজার ৪৪ জন। তবে সেরা কলেজ নির্ধারণে ৫টি মানদন্ড থাকার কারণে সেরাদের তালিকায় গতবারের মতো এবারও প্রথম হয়েছে রাজধানীর রাজউক উত্তরা মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজ। গতবারের মতো এবার নটরডেম কলেজের অবস্থান ৬ষ্ঠ। সেরাদের তালিকায় দ্বিতীয় হয়েছে নরসিংদীর আবদুল কাদির মোল্লা সিটি কলেজ। তৃতীয় রয়েছে আদমজী ক্যান্টনমেন্ট কলেজ, এর পরে রয়েছে ন্যাশনাল আইডিয়াল কলেজ, ভিকারুন নিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজ, নটরডেম কলেজ, শামসুল হক খান স্কুল এ্যান্ড কলেজ, মাইলস্টোন কলেজ, মাহবুবুর রহমান মোল্লা কলেজ, কিংস কলেজ ও ক্যামব্রিয়ান কলেজ।

আট শিক্ষাবোর্ডের চিত্র

ঢাকা বোর্ড : পাসের হার ৮৪ দশমিক ৫৪ শতাংশ। ঢাকা বোর্ড থেকে এবার পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিল ২ লাখ ৯৭ হাজার ৮১৪ জন। পাস করে ২ লাখ ৫১ হাজার ৭৭২ জন। এর মধ্যে ১ লাখ ২৫ হাজার ৭৯১ জন ছাত্র এবং ১ লাখ ২৫ হাজার ৯৮১ জন ছাত্রী। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩১ হাজার ৯০২ জন।

রাজশাহী বোর্ড: পাসের হার ৭৮ দশমিক ৫৫ শতাংশ। রাজশাহী বোর্ড থেকে এবার ১ লাখ ১১ হাজার ৬৮০ জন পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নিয়ে পাস করে ৮৭ হাজার ৭২০ জন। এর মধ্যে ৪৫ হাজার ৬৮৪ জন ছাত্র এবং ৪২ হাজার ৩৬ জন ছাত্রী। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৭ হাজার ৬৪১ জন।

চট্টগ্রাম বোর্ড : পাসের হার ৭০ দশমিক ০৬ শতাংশ। চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ড থেকে পরীক্ষায় অংশ নেয়া ৭৭ হাজার ৫২৬ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৫৪ হাজার ৩১২ জন পাস করে। এর মধ্যে ২৬ হাজার ৫৮১ জন ছাত্র এবং ২৭ হাজার ৭৩১ জন ছাত্রী। জিপিএ-৫ পেয়েছে ২ হাজার ৬৪৬ জন।

কুমিল্লা বোর্ড: পাসের হার ৭০ দশমিক ১৪ শতাংশ। কুমিল্লা বোর্ড থেকে এবার ১ লাখ ৩ হাজার ২৫৯ জন পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নেয়। পাস করে ৭২ হাজার ৪২৬ জন। এর মধ্যে ৩৫ হাজার ৮৬৩ জন ছাত্র এবং ৩৬ হাজার ৫৬৩ জন ছাত্রী। জিপিএ-৫ পেয়েছে ২ হাজার ৬০০ জন।

যশোর বোর্ড: পাসের হার ৬০ দশমিক ৫৮ শতাংশ। যশোর বোর্ড থেকে এবার ১ লাখ ১৪ হাজার ৮১৫ জন পরীক্ষায় অংশ নেয়। ৬৯ হাজার ৫৫০ জন পাস করে। এর মধ্যে ৩৫ হাজার ৩১৬ জন ছাত্র এবং ৩৪ হাজার ২৩৪ জন ছাত্রী। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪ হাজার ২৩১ জন।

বরিশাল বোর্ড: পাসের হার ৭১ দশমিক ৭৫ শতাংশ। বরিশাল বোর্ডের অধীনে এবার ৫৪ হাজার ৯১৫ জন পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নিয়ে পাস করে ৩৯ হাজার ৪০২ জন। এর মধ্যে ১৯ হাজার ৬৯৩ জন ছাত্র এবং ১৯ হাজার ৭০৯ জন ছাত্রী। জিপিএ-৫ পেয়েছে ২ হাজার ২২৫ জন।

সিলেট বোর্ড: পাসের হার ৭৯ দশমিক ১৬ শতাংশ। সিলেট বোর্ডের অধীনে এবার ৫৭ হাজার ৬১ জন পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নেয়। পাস করে ৪৫ হাজার ৫৬৮ জন। উত্তীর্ণ পরীক্ষার্থীর মধ্যে ২০ হাজার ৮১৫ জন ছাত্র এবং ২৪ হাজার ৭৫৩ জন ছাত্রী। জিপিএ-৫ পেয়েছে ২ হাজার ৭০ জন।

দিনাজপুর বোর্ড: পাসের হার ৭৪ দশমিক ১৪ শতাংশ। দিনাজপুর বোর্ডের অধীনে এবার ৯৭ হাজার ৩৩ পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নেয়। পাস করে ৭১ হাজার ৯৪০ জন। উত্তীর্ণ পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৩৬ হাজার ২৩৯ জন ছাত্র এবং ৩৫ হাজার ৭০১ জন ছাত্রী। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪ হাজার ৪৭৪ জন।

এই পাতার আরো খবর -
font
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, 'খালেদা জিয়া বাস্তবতা বুঝতে পেরেই নরম কর্মসূচি দিয়েছেন।' আপনিও কি তাই মনে করেন?
9 + 2 =  
ফলাফল
আজকের নামাজের সময়সূচী
মে - ২৮
ফজর৩:৪৬
যোহর১১:৫৬
আসর৪:৩৫
মাগরিব৬:৪৩
এশা৮:০৫
সূর্যোদয় - ৫:১১সূর্যাস্ত - ০৬:৩৮
archive
বছর : মাস :
The Daily Ittefaq
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: তাসমিমা হোসেন। উপদেষ্টা সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন। ইত্তেফাক গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে তারিন হোসেন কর্তৃক ৪০, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ থেকে প্রকাশিত ও মুহিবুল আহসান কর্তৃক নিউ নেশন প্রিন্টিং প্রেস, কাজলারপাড়, ডেমরা রোড, ঢাকা-১২৩২ থেকে মুদ্রিত। কাওরান বাজার ফোন: পিএবিএক্স: ৭১২২৬৬০, ৮১৮৯৯৬০, বার্ত ফ্যাক্স: ৮১৮৯০১৭-৮, মফস্বল ফ্যাক্স : ৮১৮৯৩৮৪, বিজ্ঞাপন-ফোন: ৮১৮৯৯৭১, ৭১২২৬৬৪ ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭২, e-mail: [email protected], সার্কুলেশন ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭৩। www.ittefaq.com.bd, e-mail: [email protected]
Copyright The Daily Ittefaq © 2014 Developed By :