The Daily Ittefaq
বৃহস্পতিবার, ১৪ আগস্ট ২০১৪, ৩০ শ্রাবণ ১৪২১, ১৭ শাওয়াল ১৪৩৫
সর্বশেষ সংবাদ পুলিশ সুপার পদমর্যাদার ২৮ কর্মকর্তাকে বদলি | পিনাক-৬ লঞ্চের জরিপকারক ওএসডি | ১ সেপ্টেম্বর থেকে ভোটার তালিকা হালনাগাদ শুরু | খিলগাঁওয়ে গুলি করে চার লাখ টাকা ছিনতাই

নিঃসঙ্গ রাঁধাচূড়ার দুজনা

ভালো মানের নাটক নির্মাণের জন্য মানানসই জুটির বিষয়টা জরুরি। মানানসই জুটি হলে একের সাথে অপরের অভিনয়টাও অনেক সুন্দর লাগে। সম্প্রতি দেশীয় মডেলিংয়ের রাজপুত্র নোবেল ও দর্শকনন্দিত অভিনেত্রী তারিন জুটি বেঁধে অভিনয় করলেন 'নিঃসঙ্গ রাঁধাচূড়া' শিরোনামের একখণ্ডের নাটকে। এই দুই তারকা জুটির কথা নিয়ে আমাদের এবারের আয়োজন। লিখেছেন খালেদ আহমেদ

দেশের মডেলিং সেক্টরে প্রায় দুই যুগ ধরে জনপ্রিয়তা ধরে রেখেছেন নোবেল। এখন পর্যন্ত তিনিই দেশের সবচেয়ে দামি এবং নামী মডেল। এই সাফল্যের পেছনের রহস্যের কথা জানতে চাইলে নোবেল বলেন, 'আমি সবসময় নিয়ম-নিষ্ঠা আর পরিমিতির মধ্যে থাকার চেষ্টা করেছি। ইচ্ছে করলে চাকরি ছেড়ে দিয়ে একের পর এক বিজ্ঞাপন কাজ করে যেতে পারতাম। এতে আর্থিকভাবেও হয়তো লাভবান হতাম। কিন্তু কখনোই আমি এমনটি ভাবিনি। যে কোনো কাজ করার আগে তা নিয়ে যথেষ্ট চিন্তা-ভাবনা করেছি। প্রতিদিন আমাকে শুটিং করতে হবে, কাজ করতে হবে, এমনটি আমি মাথায় আনিনি। আমি সব সময় চেয়েছি, প্রতিটি কাজে বৈচিত্র্য আনতে এবং যেটা করব সেটা ভালোভাবে বুঝে মনোযোগ দিয়ে করব।' এ প্রসঙ্গে নিজের কাজের একটি উদাহরণ তুলে ধরে নোবেল বলেন, 'একটি বিজ্ঞাপনে আমাকে বক্সারের চরিত্রে রূপদান করতে হবে জানলাম। আমি নিজের উদ্যোগেই আমার পরিচিত এক বক্সারের কাছে গিয়ে কয়েক সপ্তাহ ট্রেনিং নিয়ে বক্সিংয়ের কলাকৌশলগুলো রপ্ত করি। তারপর ক্যামেরার সামনে গিয়ে দাঁড়ালাম। প্রায় প্রতিটি কাজেই আমি আগে নিজেকে এভাবে প্রস্তুত করি।' নোবেল যখন মডেলিংয়ে আসেন তখন তিনি টগবগে তরুণ। এর প্রায় দুই যুগ পরে আজ তার মধ্যে হয়তো বয়সের একটা ভারিক্কি এসেছে, কিন্তু মিইয়ে যায়নি তারুণ্য। আশ্চর্যভাবে তিনি ধরে রেখেছেন ফিটনেস। এ বিষয়ে নোবেলের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তিনি বলেন, 'আমি নিয়ম মেনে পরিকল্পনা অনুযায়ী জীবনযাপন করি। কখনোই আমি নিজস্ব সেই খোলস ভেঙে বেরিয়ে আসিনি। এক দিন গভীর রাত পর্যন্ত কাজ করলাম, আর পরের দিন দুপর পর্যন্ত ঘুমালাম। একদিন খেলাম না তো পরের দিন একগাদা খাবার খেয়ে ঘুমালাম, এটা আমার অভ্যাস নয়। আমি প্রতিদিন হালকা ব্যায়াম, সুইমিং, জিম, সময়মতো খাওয়া, রেস্ট নেওয়া এবং অফিস করা সবই ছক বেঁধে করি। আজ পর্যন্ত আমি কারো দেওয়া ডেট অনুযায়ী কাজ করিনি। আমার ছুটির সঙ্গে মিলিয়ে শুটিং করেছি। চাকরি ঠিক রাখার পাশাপাশি শোবিজের ক্যারিয়ারটাও তাই ঠিক রাখা আমার পক্ষে সম্ভব হয়েছে।' বিজ্ঞাপনের বাইরেও মাঝেমধ্যে কিছু নাটকেও অভিনয় করে থাকেন। নোবেল অভিনীত প্রথম নাটক 'প্রাচীর পেরিয়ে'। ১৯৯৫ সালে প্রচারিত এ নাটকটি ছিল প্যাকেজ প্রোগ্রামের আওতায় দেশের প্রথম টিভি নাটক। এরপর মাঝে মধ্যেই তিনি নাটক করেছেন, তবে তা বিশেষ বিশেষ দিবসে। এখনও তার নাটকে কাজ করার ইচ্ছে আছে, তবে ঈদ বা বিশেষ দিবসকে ঘিরে। অন্যদিকে তারিন এই সময়ের একজন দর্শকনন্দিত অভিনয়শিল্পী। তার অভিনয় গুণ দেখে সবাই মুগ্ধ হন। শুধু অভিনয় নয়, মডেলিংয়েও সফলতা পেয়েছেন প্রত্যাশার চেয়ে অনেক বেশি। এরইমধ্যে 'ওকে' মোবাইল লিমিটেডের পণ্যদূত হয়েছেন তারিন। অভিনয় নিয়েই তার এখনকার ব্যস্ততা। তারিন অভিনীত সাম্প্রতিক সময়ে উল্লেখ্যযোগ্য নাটকগুলো হলো—'সন্ধিক্ষণ', 'জুয়াড়ি', 'সাংরিলা', 'জোছনা ও তার জল', 'বৃষ্টি ও রঙতুলির আঁচড়', 'অনুচ্ছেদ ৭১', 'গল্পটি সত্যি', 'আমি ভুলে যাই তুমি আমার নও', 'জলকণা', 'ক্ষণিকালয়', 'যোগাযোগ গোলযোগ', 'অপরাহ্ন', 'বেওয়ারিশ মানুষ', 'কালো মখমল' ইত্যাদি। একজন অভিনয়শিল্পীকে জনপ্রিয়তা অর্জন করতে যতটা কষ্ট করতে হয় তার চেয়ে বেশি পরিশ্রম করতে হয় সেই জনপ্রিয়তা ধরে রাখতে। জনপ্রিয় একজন শিল্পীর কাছে দর্শকদের প্রত্যাশার মাত্রা দিনকে দিন বাড়তে থাকে। তারিনের কাছেও বিষয়টি একই রকম। নিজের অর্জিত অবস্থানকে ধরে রাখার পাশাপাশি তা আরও সমৃদ্ধ করতে তিনি এখন নিজের ভাবনা ও কাজের ধারা পাল্টে ফেলেছেন। তার ভাষ্যে, 'আমি বরাবরই চরিত্রের ব্যাপারে একটু চুজি। অভিনয়ের জায়গা আছে, এমন চরিত্রে কাজ করতে ভালো লাগে। একটি চরিত্র ফুটিয়ে তুলতে যতটা শ্রম দিতে হয় তাই দিতে চেষ্টা করি। কোনো চরিত্রে অভিনয় করে যদি নিজেই সন্তুষ্ট হওয়া না যায়, তবে তা কখনও দর্শকের মন জয় করতে পারে না।' সম্প্রতি নোবেল ও তারিন জুটি বেধে অভিনয় করলেন 'নিঃসঙ্গ রাঁধাচূড়া' শিরোনামের একখণ্ডের নাটকে। মাসুম শাহরিয়ারের রচনায় ও ফাহমিদা ইরফানের পরিচালনায় এই নাটকের গল্পে দেখা যাবে, একটা মাল্টিন্যাশনাল কোম্পানির লবিতে হঠাত্ করেই দেখা হয়ে যায় পুরোনো দুই বান্ধবী জয়া ও নায়লার। কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ে বেশ অন্তরঙ্গ সময় কেটেছে তাদের। অনেকদিন পর দেখা হওয়ার উচ্ছ্বাস। কে কী করছে, কেন এখানে এসেছে, এইসব কথার মাঝখানে লিফট থেকে নেমে আসে আদিব। আদিব নায়লার সহকর্মী। একটা অফিসিয়াল মিটিং করতে দু'জনে এই অফিসে এসেছিল। নায়লা তার পুরোনো বান্ধবী জয়ার সঙ্গে উচ্ছ্বাসের সঙ্গেই পরিচয় করিয়ে দেয় আদিবের। জয়া এবং নায়লা নিজেদের মধ্যে কার্ড বিনিময় করে। তারপর একটু ব্যস্ত ভঙ্গীতেই আদিবকে নিয়ে চলে যায় নায়লা। জয়া ওদের চলে যাওয়া দেখে। এগিয়ে যায় নাটকের গল্প। প্রায় দেড় বছর পর নোবেল তারিনের সঙ্গে একই নাটকে অভিনয় করলেন। আবারও তারিনের সঙ্গে একই নাটকে কাজ করা প্রসঙ্গে নোবেল বলেন, 'পেশাগত কাজের কারণে নাটকে একেবারেই সময় দেওয়া হয়ে উঠে না আমার। নাটকের গল্প ভালোলাগায় কাজটি করেছি। তাছাড়া একজন কো-আর্টিস্ট হিসেবে তারিন অসাধারণ। তার সাথে কাজ করলে সবচেয়ে বড় যে সুবিধাটা পাওয়া যায় তাহলো প্রতিনিয়ত অভিনয় সম্পর্কে নতুন করে জানা কিংবা শেখা। সহকর্মীর কাছ থেকে কীভাবে অভিনয় আদায় করে নিতে হয় তা তারিন বেশ ভালো জানেন।' এবার বলার পালা তারিনের। তিনি হেসে বলেন, 'নোবেল ভাই আমাদের পারিবারিক একজন বন্ধু। একজন শিল্পী পরিচয়েরও আগে তার সবচেয়ে বড় গুণ হলো তিনি অনেক ভালো একজন মানুষ। একজন সহকর্মীকে কীভাবে সম্মান দিয়ে কথা বলতে হয়, পরিচালককে কীভাবে সহযোগিতা করে কাজটির পূর্ণাঙ্গ রূপ দিতে হয় তা তার জানা। আমি সবসময়ই নোবেল ভাইয়ের সঙ্গে কাজ ভীষণ উপভোগ করি।'

font
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, 'খালেদা জিয়া বাস্তবতা বুঝতে পেরেই নরম কর্মসূচি দিয়েছেন।' আপনিও কি তাই মনে করেন?
8 + 1 =  
ফলাফল
আজকের নামাজের সময়সূচী
সেপ্টেম্বর - ১৯
ফজর৪:৩০
যোহর১১:৫৩
আসর৪:১৭
মাগরিব৬:০২
এশা৭:১৫
সূর্যোদয় - ৫:৪৬সূর্যাস্ত - ০৫:৫৭
archive
বছর : মাস :
The Daily Ittefaq
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: তাসমিমা হোসেন। উপদেষ্টা সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন। ইত্তেফাক গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে তারিন হোসেন কর্তৃক ৪০, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ থেকে প্রকাশিত ও মুহিবুল আহসান কর্তৃক নিউ নেশন প্রিন্টিং প্রেস, কাজলারপাড়, ডেমরা রোড, ঢাকা-১২৩২ থেকে মুদ্রিত। কাওরান বাজার ফোন: পিএবিএক্স: ৭১২২৬৬০, ৮১৮৯৯৬০, বার্ত ফ্যাক্স: ৮১৮৯০১৭-৮, মফস্বল ফ্যাক্স : ৮১৮৯৩৮৪, বিজ্ঞাপন-ফোন: ৮১৮৯৯৭১, ৭১২২৬৬৪ ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭২, e-mail: [email protected], সার্কুলেশন ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭৩। www.ittefaq.com.bd, e-mail: [email protected]
Copyright The Daily Ittefaq © 2014 Developed By :