The Daily Ittefaq
ঢাকা, মঙ্গলবার ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৩, ০২ আশ্বিন ১৪২০ এবং ১০ জিলক্বদ ১৪৩৪
সর্বশেষ সংবাদ ৪৮ ঘণ্টার হরতাল ডেকেছে জামায়াতে ইসলামী | সরকারের এই মেয়াদেই রায় কার্যকর: হানিফ | চট্টগ্রামে জামায়াত শিবিরের তাণ্ডব, পুলিশের গাড়িতে আগুন | চূড়ান্ত রায়ে কাদের মোল্লার ফাঁসি

মেয়ের মৃত্যুতে সাংবাদিক মায়ের আত্মহত্যার চেষ্টা

পাঁচতলা ভবন থেকে ঝাঁপ

ইত্তেফাক রিপোর্ট

হাসপাতালে পাঁচ বছরের চন্দ্রমুখীর মৃত্যু হয়েছে। গুরুতর অসুস্থ মেয়েটি তিন দিন ধরে মৃত্যুর সঙ্গে লড়ছিল। দিন রাত মেয়ের পাশে কাটিয়েছেন বাবা-মা। মেয়েকে হাসপাতালে রেখে কিছুক্ষণের জন্য বাসায় ফিরেছিলেন মা। আর এর মধ্যেই খবর আসে- চন্দ্রমুখী আর নেই। এই শোক সহ্য করতে পারেননি পেশায় সাংবাদিক মা নাজনীন আক্তার। নিজ বাসার পাঁচ তলা থেকে লাফিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। তিনি প্রাণে বেঁচে গেলেও ডান হাত ভেঙে গেছে, মাথায় গুরুতর আঘাত পেয়েছেন। চন্দ্রমুখীর বাবা রকিবুল ইসলাম মুকুলও পেশায় সাংবাদিক।

গত শনিবার রকিবুল ইসলাম মুকুল তার ফেসবুকে একটা স্ট্যাটাস দিয়েছিলেন। সেখানে তিনি লিখেছিলেন, 'এই পৃথিবীতে যাকে সবচে বেশি ভালবাসি সেই চন্দ্রমুখী এখন আইসিউতে লাইফ সাপোর্ট এ... ওর প্রত্যেকটা কষ্ট দ্বিগুণ হয়ে ফিরে আসছে আমার বুকে... আমি যে বাবা... সবার কাছে মন থেকে দোয়া ভিক্ষা চাই- আল্লাহ যেন চন্দ্রমুখীকে আমার কোলে ফিরিয়ে দেন।' তার সেই লেখাটিতে শত শত মানুষ প্রার্থনা জানিয়ে চন্দ্রমুখীর সুস্থতা কামনা করেন। কিন্তু সবাইকে শোক সাগরে ভাসিয়ে গতকাল বিকেলে চলে যায় চন্দ্রমুখী।

গাজী টেলিভিশনের প্রধান প্রতিবেদক রকিবুল ইসলাম মুকুল ও জনকণ্ঠের সিনিয়র রিপোর্টার নাজনীন আক্তারের একমাত্র সন্তান চন্দ্রমুখী। পাঁচ বছরের মেয়েটি জন্মের পর থেকেই শ্বাসকষ্টে ভুগছিল। মাঝে মধ্যেই অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে হাসপাতালে নেয়া হতো। সর্বশেষ গত তিন দিন আগে চন্দ্রমুখীকে রাজধানীর শিশু হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে চন্দ্রমুখীকে হাসপাতালের আইসিইউতে রাখা হয়। নাজনীন মেয়ের সঙ্গে হাসপাতালেই ছিলেন। বেলা ৩টার দিকে হাসপাতাল থেকে কিছুক্ষণের জন্য বাসায় ফেরেন। ৪টার দিকে খবর আসে চন্দ্রমুখী আর নেই। চন্দ্রমুখী আর বাসায় ফিরবে না এমন কথা হয়ত কল্পনাই করতে পারেননি নাজনীন। শেষ পর্যন্ত এই শোক সহ্য করতে না পেরে বাসার ছাদে গিয়ে লাফিয়ে পড়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন।

স্থানীয় লোকজন জানান, রাস্তার উপর লাফিয়ে পড়েছেন নাজনীন। এলাকার লোকজন দ্রুত তাকে উদ্ধার করে সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে নেয়। পরে সেখান থেকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। উপস্থিত চিকিত্সকরা দ্রুত তাকে অপারেশন থিয়েটারে নেন। নাজনীনের ডান হাতটি ভেঙে গেছে। গুরুতর আঘাত পেয়েছেন মাথা, বুক, ঘাড় ও কোমরে। ঢাকা মেডিক্যালের চিকিত্সকরা জানিয়েছেন, তার অবস্থা আশঙ্কাজনক। নাজনীনের সিটি স্ক্যান করা হয়েছে। মাথার আঘাতটি অবশ্য খুব গুরুতর নয় বলে চিকিত্সকরা জানিয়েছেন।

কল্যাণপুরের ১০ নম্বর রোডের চার তলা একটি বাড়ির চতুর্থ তলাতেই থাকতেন তারা। গাজী টেলিভিশনে যোগ দেয়ার আগে আরটিভি ও মানবজমিন পত্রিকাসহ একাধিক জায়গায় কাজ করেছেন মুকুল। আর নাজনীন জনকণ্ঠের কূটনৈতিক ও সংসদ বিষয় রিপোর্ট করতেন। সাংবাদিক মহলের ঘনিষ্ঠ এই সাংবাদিক দম্পতি সব সময় থাকতেন হাসি-খুশি। সবার সঙ্গেই ছিল তাদের সখ্যতা। মুকুলের বাড়ি রংপুর। আর নাজনীনের বাড়িও একই এলাকায়।

এই পাতার আরো খবর -
font
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
প্রধানমন্ত্রীর ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয় বলেছেন, 'বিএনপি ক্ষমতায় এলে জঙ্গিরা আবার ফিরে আসবে। আবার বোমা হামলা করবে।' আপনি কি তার সাথে একমত?
4 + 8 =  
ফলাফল
আজকের নামাজের সময়সূচী
নভেম্বর - ১৪
ফজর৪:৫৩
যোহর১১:৪৩
আসর৩:৩৮
মাগরিব৫:১৭
এশা৬:৩২
সূর্যোদয় - ৬:১১সূর্যাস্ত - ০৫:১২
archive
বছর : মাস :
The Daily Ittefaq
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: তাসমিমা হোসেন। উপদেষ্টা সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন। ইত্তেফাক গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে তারিন হোসেন কর্তৃক ৪০, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ থেকে প্রকাশিত ও মুহিবুল আহসান কর্তৃক নিউ নেশন প্রিন্টিং প্রেস, কাজলারপাড়, ডেমরা রোড, ঢাকা-১২৩২ থেকে মুদ্রিত। কাওরান বাজার ফোন: পিএবিএক্স: ৭১২২৬৬০, ৮১৮৯৯৬০, বার্ত ফ্যাক্স: ৮১৮৯০১৭-৮, মফস্বল ফ্যাক্স : ৮১৮৯৩৮৪, বিজ্ঞাপন-ফোন: ৮১৮৯৯৭১, ৭১২২৬৬৪ ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭২, e-mail: [email protected], সার্কুলেশন ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭৩। www.ittefaq.com.bd, e-mail: [email protected]
Copyright The Daily Ittefaq © 2014 Developed By :