The Daily Ittefaq
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৪ অক্টোবর ২০১৩, ০৯ কার্তিক ১৪২০, ১৮ জেলহজ্জ ১৪৩৪
সর্বশেষ সংবাদ শর্ত সাপেক্ষে কাল ঢাকায় সমাবেশের অনুমোতি পেয়েছে বিএনপি | চট্টগ্রামে নিষেধাজ্ঞা ভঙ্গ করে নোমানের নেতৃত্বে মিছিল | মমিনুলের শতকে শক্ত অবস্থানে বাংলাদেশ | এবার খুলনায়ও সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ | চলে গেলেন মান্না দে | কাল রাজধানীতে আওয়ামী লীগের সমাবেশ না করার সিদ্ধান্ত | তফসিল ঘোষণার আগ পর্যন্ত এই সরকার নির্বাহী ক্ষমতা প্রয়োগ করবে: তথ্যমন্ত্রী | নির্বাচনের প্রস্তুতি চূড়ান্ত, সময় মতো তফসিল:সিইসি

স্লুইস গেইট নদী গর্ভে বিলীন ফসল থেকে কৃষকরা বঞ্চিত

হাবিবুর রহমান খান, ফেনী প্রতিনিধি

ফেনীর উপকূলীয় উপজেলা সোনাগাজীর কাজিরহাটে অবস্থিত স্লুইস গেইটটি ২০০৮-০৯ সালের দিকে ছোট ফেনী নদীর গর্ভে বিলীন হয়ে গেলে বৃহত্তর নোয়াখালীসহ পার্শ্ববর্তী এলাকার কয়েক লক্ষ একর জমি লোনা পানিতে তলিয়ে যায়। আর লোনা পানির কারণে এ অঞ্চলের কৃষকরা বিপুল পরিমাণ ফসল উত্পাদন থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। মুছাপুরে ছোট ফেনী নদীর উপর ২৩ ভোল্টের আরেকটি রেগুলেটর স্থাপনের কাজ চললেও তা কবে নাগাদ শেষ হবে তা নিয়ে শঙ্কিত স্থানীয়রা।

এলাকাবাসী অভিযোগ করেন, পুরাতন স্লুইস গেইটটির রক্ষণাবেক্ষণ ও মেরামতের জন্য প্রতি বছর ১০ লক্ষ টাকা বরাদ্ধ থাকলেও, পানি উন্নয়ন বোর্ডের কিছু কর্মকর্তা-কর্মচারীর দুর্নীতি, অবহেলা ও অব্যবস্থাপনার কারণে সোনাগাজীর কাজিরহাট স্লুইস গেইটটি নদী গর্ভে বিলীন হয়ে যায়। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, পঞ্চাশ দশকের শেষ দিকে সরকার ফেনী নদীর উপর স্লুইচ গেইটটি নির্মাণ করার উদ্যোগ গ্রহণ করে। অবশেষে ১৯৬৫-৬৭ সালে ২১ ভোল্টের স্লুইস গেইটটির নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হয়। লক্ষ্য ছিল বন্যা ও লোনা পানি থেকে বৃহত্তর নোয়াখালীর ফেনী সদর, শর্শদী, বালিগাঁও, পাঁচগাছিয়া, রাজাপুর, সিঁন্দুরপুর, জয়লস্কর, মাতুভূঁঞা, সিলোনিয়া, সোনাগাজী, দাগনভূঁঞা, কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম, নাঙ্গলকোট, মনোহরগঞ্জ, লাকসাম, নোয়াখালী সদরের বেগমগঞ্জ, সোনাইমুড়ী, সেনবাগ, কোম্পানীগঞ্জ, সুবর্নচর ও কাজীরহাট এলাকাগুলোর প্রায় ২ লক্ষ একর জমির ফসল বন্যা ও লবনাক্ততার হাত থেকে রক্ষা করা। শুষ্ক মৌসুমে এসকল এলাকার জমিগুলোকে সেচ সুবিধার আওতায় আনাও ছিল তখনকার লক্ষ্য। স্লুইস গেইটটি নির্মাণ করার ফলে সুফল পায় এলাকাবাসী। এসব এলাকায় ষাটের দশকে ধান উত্পাদন ৮০ হাজার মেট্রিকটন থেকে বৃদ্ধি পেয়ে দেড় লক্ষ টনে উন্নীত হয়। কিন্তু স্লুইস গেটটি নদী গর্ভে বিলীন হয়ে যাওয়ায় নদী পানি প্রবেশ করায় এলাকার কৃষকরা ফসল উত্পাদন করতে পারছেন না।

চার দলীয় জোট সরকারের শেষ সময় নদী গর্ভে বিলীন হয়ে যাওয়া পুরাতন রেগুলেটার থেকে ২০ কিলোমিটার দূরে মুছাপুরে ছোট ফেনী নদীর উপর ২৩ ভোল্টের আরেকটি রেগুলেটর স্থাপনের কাজ উদ্বোধন করেন তত্কালীন প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া। কিন্তু প্রকল্পটি পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও ঠিকাদারদের দুর্নীতি, অদক্ষতা ও অবহেলার কারণে এখনো পূর্ণাঙ্গ রূপ পায়নি। ২০১৩-১৪ অর্থবছর পর্যন্ত কাজের সময়সীমা বৃদ্ধি করা হয়েছে। কিন্তু প্রকল্পের কাজ চলছে কচ্ছপ গতিতে। ক্ষতিগ্রস্ত কৃষক ও এলাকাবাসী মুসাপুর রেগুলেটারের কাজ দ্রুত সমাপ্ত করে বন্যা, লবণাক্ততা ও জলাবদ্ধতার হাত থেকে তাদের লক্ষ লক্ষ একর জমি রক্ষা করতে সরকারের প্রতি আহবান জানিয়েছেন।

এই পাতার আরো খবর -
font
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
সংসদে খালেদা জিয়ার নির্বাচনকালীন নির্দলীয় সরকারের প্রস্তাব উপস্থাপন করেছে বিএনপি, আপনি কি মনে করেন সংসদ তার প্রস্তাব বিবেচনা করবে?
8 + 7 =  
ফলাফল
আজকের নামাজের সময়সূচী
আগষ্ট - ১৯
ফজর৪:১৬
যোহর১২:০৩
আসর৪:৩৭
মাগরিব৬:৩২
এশা৭:৪৮
সূর্যোদয় - ৫:৩৫সূর্যাস্ত - ০৬:২৭
archive
বছর : মাস :
The Daily Ittefaq
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: তাসমিমা হোসেন। উপদেষ্টা সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন। ইত্তেফাক গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে তারিন হোসেন কর্তৃক ৪০, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ থেকে প্রকাশিত ও মুহিবুল আহসান কর্তৃক নিউ নেশন প্রিন্টিং প্রেস, কাজলারপাড়, ডেমরা রোড, ঢাকা-১২৩২ থেকে মুদ্রিত। কাওরান বাজার ফোন: পিএবিএক্স: ৭১২২৬৬০, ৮১৮৯৯৬০, বার্ত ফ্যাক্স: ৮১৮৯০১৭-৮, মফস্বল ফ্যাক্স : ৮১৮৯৩৮৪, বিজ্ঞাপন-ফোন: ৮১৮৯৯৭১, ৭১২২৬৬৪ ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭২, e-mail: [email protected], সার্কুলেশন ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭৩। www.ittefaq.com.bd, e-mail: [email protected]
Copyright The Daily Ittefaq © 2014 Developed By :