The Daily Ittefaq
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৪ অক্টোবর ২০১৩, ০৯ কার্তিক ১৪২০, ১৮ জেলহজ্জ ১৪৩৪
সর্বশেষ সংবাদ শর্ত সাপেক্ষে কাল ঢাকায় সমাবেশের অনুমোতি পেয়েছে বিএনপি | চট্টগ্রামে নিষেধাজ্ঞা ভঙ্গ করে নোমানের নেতৃত্বে মিছিল | মমিনুলের শতকে শক্ত অবস্থানে বাংলাদেশ | এবার খুলনায়ও সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ | চলে গেলেন মান্না দে | কাল রাজধানীতে আওয়ামী লীগের সমাবেশ না করার সিদ্ধান্ত | তফসিল ঘোষণার আগ পর্যন্ত এই সরকার নির্বাহী ক্ষমতা প্রয়োগ করবে: তথ্যমন্ত্রী | নির্বাচনের প্রস্তুতি চূড়ান্ত, সময় মতো তফসিল:সিইসি

দেশে কীভাবে একটি সুষ্ঠুনির্বাচন অনুষ্ঠান সম্ভব?

ন তু ন প্র জ ন্মে র ভা ব না

নতুন পদ্ধতি

প্রণয়ন

প্রয়োজন

একটি নির্বাচিত সরকার যখন দেশ পরিচালনা করে তখন দেশের সবার প্রতি সুদৃষ্টি রেখেই দেশ পরিচালনা করার কথা। কিন্তু যখনই কোন রাজনৈতিক দল এ ক্ষমতা পান তখনই তাদের মধ্যে এক ধরনের একগুঁয়েমিতা লক্ষ্য করা যায়। তারা যে পন্থায় ক্ষমতাসীন হয়েছিলেন, সে পন্থায় যদি ক্ষমতায় আসার সম্ভাবনা না থাকে তাহলে অন্য পন্থা সৃষ্টি করে তাহলে তা কি সুফল বয়ে আনবে? বাংলাদেশের জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠানের ব্যাপারে দীর্ঘ সময় ধরে যে পদ্ধতি চালু ছিল তা সংখ্যাগরিষ্ঠ মানুষের নিকট কতটুকু গ্রহণযোগ্যতা পেয়েছিল তা খতিয়ে দেখার আগেই পদ্ধতিটি বাতিল করা হয়েছে। ফলে নতুন সংকটের সৃষ্টি হয়েছে। এখন নতুন কোন পদ্ধতি এমনভাবে প্রণয়ন করতে হবে যা সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচনে সহায়ক ভূমিকা পালন করে।

মো. আসাদ আকন্দ

২য় বর্ষ, পরিসংখ্যান বিভাগ,

রাজশাহী, কলেজ

দেশের স্বার্থে রাজনৈতিক সদিচ্ছাই উপহার দিতে পারে একটা শান্তিপূর্ণ নির্বাচনকালীন সরকার পদ্ধতি

বাংলাদেশের সর্বস্তরের মানুষ চরম উত্কণ্ঠায় আছে। কারণ একটাই— আসন্ন জাতীয় নির্বাচনকালীন সরকার নিয়ে প্রধান রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে 'তালগাছ আমার নামক খেলা'। প্রধান দুটি রাজনৈতিক দল তাদের নিজস্ব যুক্তিতে অনড়। কেউ কাউকে ছাড় দিতে রাজি নন। সবাই তাদের যুক্তিতে জনসমর্থন তাদের পক্ষে দাবি করছে। এমন পরিস্থিতিতে রাজনীতিকদের জনগণের স্বার্থে, দেশের স্বার্থে এমন একটা ঐকমত্যের নির্বাচনকালীন সরকার গঠন করা উচিত যেই সরকারের অধীনে সব দল নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে দ্বিধা করবে না। এ ক্ষেত্রে আলোচনা তথা সংলাপের বিকল্প নেই। আর এর জন্য দরকার রাজনৈতিক দলগুলোর নিজেদের মধ্যে আলোচনা করা, এক টেবিলে বসা। আর এখন একসাথে না বসলে, কথা না বললে সমাধান মিলবে কি করে? প্রধান বিরোধীদলের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর আলোচনার প্রস্তাব দিয়ে সরকারি দলের মহাসচিবকে চিঠি দিয়েছেন। এখন সরকারি দল যদি আলোচনার উদ্যোগ নেয় এবং এক টেবিলে বসে তাহলে একটা সমাধান দেশের স্বার্থে সুষ্ঠু একটা নির্বাচনকালীন সরকার গঠন সম্ভব। আমাদের রাজনীতিকদের জানা দরকার জনসমর্থন এক জায়গায় স্থির থাকে না, প্রত্যেক রাজনৈতিক দলের জনসমর্থন আছে, জনগণের প্রতিনিধিত্ব করছে রাজনৈতিক দলগুলোই। তাই জনসমর্থন প্রশ্নে কোন রাজনৈতিক দলকে এক্ষেত্রে খাটো করে দেখার অবকাশ নেই। আমাদের রাজনীতিকরা যারা সবসময় দেশপ্রেম, জনসমর্থন, শান্তি, উন্নয়নের বুলি আওড়ান সারাক্ষণ, তাদের কাছে আজ ষোলকোটি মানুষ এমন একটা শান্তিপূর্ণ সমাধান দেখার আশায় উদগ্রীব হয়ে আছে। রাজনীতিকরা কি পারবেন এই ষোলকোটি মানুষকে নিরাশ করতে?

ওয়ালিউল্লাহ মিঠু

শিক্ষার্থী,

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়

গ্রহণযোগ্য ব্যক্তিদের তত্ত্বাবধানে নির্বাচন প্রয়োজন

বাংলাদেশের রাষ্ট্রক্ষমতা গ্রহণকারী রাজনীতিক দলগুলোর ভিতর পারস্পরিক আস্থার জায়গাটি অত্যন্ত দুর্বল। বলা যায় এখানে প্রতিযোগিতার পরিবর্তে হিংসাত্মক মনোভাব কাজ করে বেশি। তাই যখন যে দল ক্ষমতায় থাকে তখন সে দল তার বিরোধী দলকে নির্মূল করার মত অবস্থার সৃষ্টি করে। যাতে করে ক্ষমতাগ্রহণকারী দল আজীবন ক্ষমতায় থাকতে পারে। এই যখন অবস্থা তখন সত্যিই এমন ক্ষমতাসীন দলের আন্ডারে বিরোধী দলের সুষ্ঠু নির্বাচন আশা করতে পারে না। যেহেতু জাতীয় নির্বাচন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয় তাই এজন্য প্রয়োজন এমন কিছু গ্রহণযোগ্য ব্যক্তি যারা সততা, দক্ষতা, আন্তরিকতা ও নিষ্ঠার সাথে জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠানের আয়োজন করতে পারেন। দেশের ভিতর এমন ব্যক্তিদের অভাব থাকলেও খুঁজে পাওয়া অসম্ভব নয়। এজন্য একটি স্বচ্ছ প্রক্রিয়াও থাকা দরকার। এমনটি করা গেলে প্রতিটি নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে করা সম্ভব হবে।

মো. হুমায়ুন কবির

৩য় বর্ষ, ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগ,

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

যে পদ্ধতিতেই হোক না কেন আমরা চাই গ্রহণযোগ্য নির্বাচন

দুই নেত্রী দু'দিকে এখন। একজন বলছে সংবিধানের মধ্যে থেকেই জাতীয় সরকারের মাধ্যমে নির্বাচন হবে। অপরজন বলছে নির্বাচন হতে হলে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের মাধ্যমেই হবে। সরকার সংবিধান ঠিক রেখে কিভাবে নির্বাচন যায় তারও একটি বক্তব্য দিয়েছেন সম্প্রতি। কিন্তু এদিকে বিরোধী দলও কিভাবে নির্বাচন হবে তারও একটি রূপরেখা দিয়েছে। সমস্যা হলো কে হবেন জাতীয় সরকারের প্রধান। এই সরকার প্রধান নিয়েই চলছে টালবাহানা। তবে আমাদের কথা হলো আমরা চাই সুষ্ঠু একটি নির্বাচন। সেটা যেভাবেই হোক না কেন নির্বাচন হতে হবে। আমরা আর দু'নেত্রীর এরকম বিপরীতধর্মী কথা শুনতে চাই না। তারা কি সংঘাতের দিকে নিয়ে যাচ্ছে দেশটা? আমরা তো আর সংঘাত চাই না, আমরা চাই গ্রহণযোগ্য নির্বাচন। সেটা যে পদ্ধতিতেই হোক না কেন।

জসিমউদ্দিন বাদল

একাউন্টিং ইনফরমেশন সিস্টেম,

এমবিএ, সেকেন্ড সেমিস্টার,

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়

font
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
সংসদে খালেদা জিয়ার নির্বাচনকালীন নির্দলীয় সরকারের প্রস্তাব উপস্থাপন করেছে বিএনপি, আপনি কি মনে করেন সংসদ তার প্রস্তাব বিবেচনা করবে?
4 + 3 =  
ফলাফল
আজকের নামাজের সময়সূচী
নভেম্বর - ২০
ফজর৪:৫৬
যোহর১১:৪৪
আসর৩:৩৬
মাগরিব৫:১৫
এশা৬:৩১
সূর্যোদয় - ৬:১৫সূর্যাস্ত - ০৫:১০
archive
বছর : মাস :
The Daily Ittefaq
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: তাসমিমা হোসেন। উপদেষ্টা সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন। ইত্তেফাক গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে তারিন হোসেন কর্তৃক ৪০, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ থেকে প্রকাশিত ও মুহিবুল আহসান কর্তৃক নিউ নেশন প্রিন্টিং প্রেস, কাজলারপাড়, ডেমরা রোড, ঢাকা-১২৩২ থেকে মুদ্রিত। কাওরান বাজার ফোন: পিএবিএক্স: ৭১২২৬৬০, ৮১৮৯৯৬০, বার্ত ফ্যাক্স: ৮১৮৯০১৭-৮, মফস্বল ফ্যাক্স : ৮১৮৯৩৮৪, বিজ্ঞাপন-ফোন: ৮১৮৯৯৭১, ৭১২২৬৬৪ ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭২, e-mail: [email protected], সার্কুলেশন ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭৩। www.ittefaq.com.bd, e-mail: [email protected]
Copyright The Daily Ittefaq © 2014 Developed By :