The Daily Ittefaq
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৪ অক্টোবর ২০১৩, ০৯ কার্তিক ১৪২০, ১৮ জেলহজ্জ ১৪৩৪
সর্বশেষ সংবাদ শর্ত সাপেক্ষে কাল ঢাকায় সমাবেশের অনুমোতি পেয়েছে বিএনপি | চট্টগ্রামে নিষেধাজ্ঞা ভঙ্গ করে নোমানের নেতৃত্বে মিছিল | মমিনুলের শতকে শক্ত অবস্থানে বাংলাদেশ | এবার খুলনায়ও সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ | চলে গেলেন মান্না দে | কাল রাজধানীতে আওয়ামী লীগের সমাবেশ না করার সিদ্ধান্ত | তফসিল ঘোষণার আগ পর্যন্ত এই সরকার নির্বাহী ক্ষমতা প্রয়োগ করবে: তথ্যমন্ত্রী | নির্বাচনের প্রস্তুতি চূড়ান্ত, সময় মতো তফসিল:সিইসি

বিসমিল্লাহ গ্রুপের জালিয়াতির প্রতিবেদন আগামী সপ্তাহে

দুদকের অনুসন্ধানে হাজার কোটি টাকা জালিয়াতি মামলায় আসামি হচ্ছেন ব্যাংক কর্মকর্তাসহ ৪৫ জন

আমীর মুহাম্মদ

বিসমিল্লাহ গ্রুপের বিরুদ্ধে প্রায় হাজার কোটি টাকা জালিয়াতির অভিযোগে অনুসন্ধান প্রতিবেদন তৈরির কাজ শেষ করেছে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) অনুসন্ধান টিম। আগামী সপ্তাহে এ প্রতিবেদন কমিশনে জমা দেয়া হবে। এ প্রতিবেদনে সরাসরি ১০টি মামলার শুপারিশ করা হয়েছে। তবে অভিযোগের ভিন্নতার কারণে কমিশন ভিন্নভাবে ১২টি মামলা দায়েরের সিদ্ধান্ত নিতে পারবে। এ প্রতিবেদনে বিসমিল্লাহ গ্রপের এমডি, পরিচালক এবং সংশ্লিষ্ট ব্যাংক কর্মকর্তাসহ ৪০ থেকে ৪৫ জনকে আসামি করার সুপারিশ করা হচ্ছে। উল্লেখ্য, বিসমিল্লাহ গ্রুপের বিরুদ্ধে প্রায় ১২শ' কোটি টাকা ঋণ জালিয়াতির অভিযোগ থাকলেও বিসমিল্লাহ গ্রুপ এরই মধ্যে সাউথইস্ট ব্যাংকের সঙ্গে লেনদেন চুকিয়ে ফেলে এবং শাহজালাল এবং যমুনা ব্যাংকেও কিছু অর্থ সমন্বয় করে। একারণে দুদক টিমের প্রাথমিক অনুসন্ধান শেষে এ অর্থের পরিমাণ আরও কম হয়। তবে প্রায় হাজার কোটি টাকা জালিয়াতির প্রাথমিক প্রমাণ পেয়েছে দুদক টিম।

প্রতিবেদন জমা দেয়ার ব্যাপারে দুদক চেয়ারম্যান মো. বদিউজ্জামান জানিয়েছেন, অনুসন্ধানকারী কর্মকর্তাদেরকে দ্রুততম সময়ে তাদের এই প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। আশা করছি চলতি সপ্তাহের শেষের দিন অথবা আগামী সপ্তাহে তারা কমিশনে তাদের অনুসন্ধান প্রতিবেদন দাখিল করবে। এরপর কমিশন আইনগণ প্রক্রিয়ায় কাজ চালাবে।

দুদক সূত্র জানায়, এ মামলাগুলোতে আসামির তালিকায় বিসমিল্লাহ গ্রুপের ৫টি প্রতিষ্ঠানের পরিচালকবৃন্দ ও পাঁচ ব্যাংকের শীর্ষ কর্মকর্তাদের নাম রয়েছে। বিসমিল্লাহ গ্রুপের পরিচালনা পর্ষদের যাদের নাম থাকবে বলে দুদক সুত্রে জানা গেছে তারা হলেন, বিসমিল্লাহ টাওয়েলস লিমিটেডের চেয়ারম্যান নওরিন হাসিব, ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবিদা হাসিব, পরিচালক নাহিদ আনোয়ার খান, খন্দকার মো. মইনুদ্দিন আশরাফ, সারোয়ার জাহান। আলফা কম্পোজিট টাওয়েলস লিমিটেডের চেয়ারম্যান নওরিন হাসিব, ব্যবস্থাপনা পরিচালক খাজা সোলেমান আনোয়ার চৌধুরী, পরিচালক শফিকুল আনোয়ার চৌধুরী, আবুল খায়ের আবদুল্লাহ, লুনা আবুদল্লাহ, মো. আলমগীর হোসাইন, হেনা সেরনিয়াবাত এবং সাইদ মাহমুদ মোসতাকি।

শাহারিশ কম্পোজিট টাওয়েলস লিমিটেডের চেয়ারম্যান শফিকুল আনোয়ার চৌধুরী, ব্যবস্থাপনা পরিচালক খাজা সোলেমান আনোয়ার চৌধুরী, পরিচালক নওরিন হাসিব।

সেহরিন টেক্সটাইল ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের চেয়ারম্যান শফিকুল আনোয়ার চৌধুরী, পরিচালক মির মোহাম্মদ ইয়াকুব, মের্সাস কনিজ ফাতিমা, মির মোহাম্মদ কামরুজ্জামান, ব্যবস্থাপনা পরিচালক খাজা সোলেমান আনোয়ার চৌধুরী, পরিচালক নওরিন হাসিব।

হিন্দুওয়ালী টেক্সটাইল লিমিটেডের পরিচালনা পর্ষদের সদস্য শফিকুল আনোয়ার চৌধুরী, খাজা সোলেমান আনোয়ার চৌধুরী, বেগম সরোয়ার জাহান, আলহাজ্ব নাদের জাহান বেগম, বেগম নাহিদ আনোয়ার, বেগম ফেরদৌস আনোয়ার এবং মিসেস শারমিন আনোয়ার।

এদের মধ্যে খাজা সোলেমান আনোয়ার চৌধুরী, শফিকুল আনোয়ার চৌধুরী, নওরিন হাসিব ও নাহিদ আনোয়ার খান একাধিক প্রতিষ্ঠানের পরিচালক পর্ষদের সদস্য থাকায় তাদের প্রায় প্রতিটি মামলার আসামি হিসেবে সুপারিশ করা হয়েছে।

অন্য একটি সূত্রে জানা যায়, মামলায় কয়েকটি ব্যাংকের বেশ কয়েকজন শীর্ষ কর্মকর্তার নাম থাকতে পারে। তারা বিসমিল্লাহ গ্রুপের বিল পার্চেজ অনুমোদনের সঙ্গে জড়িত ছিলেন। মাত্রাতিরিক্ত বকেয়া থাকা সত্ত্বেও নতুন কন্ট্রাক এলসির কাগজপত্রে তাদের স্বাক্ষর পেয়েছে দুদক। বিশেষ করে সর্বশেষ বিসমিল্লাহ গ্রুপের নামে নতুন করে ১৪২ কোটি টাকার বিল পার্চেজ নবায়ন হয়। ওই সময় বিসমিল্লাহ গ্রুপের বকেয়া ঋণের পরিমাণ ছিল ১৫০ কোটি টাকার উপরে। এই বিশাল অঙ্কের বকেয়া থাকার পরও তারা ঐ অর্থ ছাড় করেছিলেন বলে প্রমাণ পেয়েছে দুদক।

এদিকে বিসমিল্লাহ গ্রুপের পরিচালক হিসেবে সরকার দলীয় সংসদ সদস্য অ্যাড. রহমত আলীর ছেলে এ্যাড. জামিল হাসান দুর্জয় এবং কুমিল্লার সংসদ সদস্য মেজর জেনারেল (অব.) সুবিদ আলী ভুঁইয়ার ছেলে মোহাম্মদ আলীর সম্পৃক্ততার অভিযোগ থাকলেও তাদের বিরুদ্ধে জালিয়াতির কোন প্রমাণ পায়নি দুদক টিম। গ্রুপটির সকল নথি এবং সমপ্রতি জয়েন্ট স্টক কোম্পানি থেকে সংগৃহীত তথ্যের ভিত্তিতে পরিচালক হিসেবে তাদের কোন সম্পৃক্ত পাওয়া যায়নি। এতে কেলেঙ্কারির দায় থেকে মুক্তি পেতে যাচ্ছেন ওই দুই এমপি পুত্র।

উল্লেখ্য, বিসমিল্লাহ গ্রুপের প্রায় ১২শ' কোটি টাকা ঋণ জালিয়াতির ঘটনা অনুসন্ধানে ২৬ ফেব্রুয়ারি পাঁচ সদস্যের একটি অনুসন্ধান টিম গঠন করে দুদক। দুদকের উপ-পরিচালক সৈয়দ ইকবাল হোসেনের নেতৃত্বে এ অনুসন্ধান টিমের অন্য সদস্যরা হলেন-সহকারী উপ-পরিচালক তৌফিকুল ইসলাম, গুলশান আনোয়ার প্রধান, উপ-পরিচালক সরদার মঞ্জুর আহমেদ এবং মো. আল আমিন।

font
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
সংসদে খালেদা জিয়ার নির্বাচনকালীন নির্দলীয় সরকারের প্রস্তাব উপস্থাপন করেছে বিএনপি, আপনি কি মনে করেন সংসদ তার প্রস্তাব বিবেচনা করবে?
7 + 7 =  
ফলাফল
আজকের নামাজের সময়সূচী
সেপ্টেম্বর - ২০
ফজর৪:৩২
যোহর১১:৫৩
আসর৪:১৬
মাগরিব৬:০১
এশা৭:১৩
সূর্যোদয় - ৫:৪৬সূর্যাস্ত - ০৫:৫৬
archive
বছর : মাস :
The Daily Ittefaq
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: তাসমিমা হোসেন। উপদেষ্টা সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন। ইত্তেফাক গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে তারিন হোসেন কর্তৃক ৪০, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ থেকে প্রকাশিত ও মুহিবুল আহসান কর্তৃক নিউ নেশন প্রিন্টিং প্রেস, কাজলারপাড়, ডেমরা রোড, ঢাকা-১২৩২ থেকে মুদ্রিত। কাওরান বাজার ফোন: পিএবিএক্স: ৭১২২৬৬০, ৮১৮৯৯৬০, বার্ত ফ্যাক্স: ৮১৮৯০১৭-৮, মফস্বল ফ্যাক্স : ৮১৮৯৩৮৪, বিজ্ঞাপন-ফোন: ৮১৮৯৯৭১, ৭১২২৬৬৪ ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭২, e-mail: [email protected], সার্কুলেশন ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭৩। www.ittefaq.com.bd, e-mail: [email protected]
Copyright The Daily Ittefaq © 2014 Developed By :