The Daily Ittefaq
ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৫ ডিসেম্বর ২০১২, ১১ পৌষ ১৪১৯, ১১ সফর ১৪৩৪
সর্বশেষ সংবাদ উত্তর প্রদেশে পুলিশের কাছে গিয়ে ফের ধর্ষিত | সাংবাদিক নির্মল সেন লাইফ সাপোর্টে | হলমার্ক জালিয়াতি:ঋণের নথি জব্দে সোনালী ব্যাংকে দুদকের অভিযান | ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লা অংশে ৯৭ কিলোমিটার জুড়ে যানজট | রোহিঙ্গাদের স্বীকৃতি দিন: মিয়ানমারকে জাতিসংঘ | বিশ্বজিত্ হত্যাকাণ্ড: এমদাদুল ৭ দিনের রিমান্ডে | গণসংযোগে সহযোগিতা করবে সরকার :স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী | স্বাধীনতার পাশাপাশি গণমাধ্যমকে দায়িত্বশীলও হতে হবে : প্রধানমন্ত্রী | গণসংযোগে বাধা দেবে না আওয়ামী লীগ : সাজেদা চৌধুরী | চট্টগ্রামে কোটি টাকার হেরোইন উদ্ধার | সম্পর্ক উন্নয়নে ভারত-পাকিস্তান সিরিজ শুরু আজ | জনসংযোগে বাধা দিলে কঠোর কর্মসূচি: বিএনপি

'কাস্তেটারে দিও জোরে শান কিষাণ ভাইরে...'

জন্মস্থান হবিগঞ্জে হেমাঙ্গ বিশ্বাসের জন্মশতবর্ষ উত্সবের সমাপনী

আসিফুর রহমান সাগর ও কামরুল ইসলাম, চুনারুঘাট থেকে

ধান ক্ষেতের মাঝে টাঙানো হয়েছে প্যান্ডেল। দূর-দূরান্ত থেকে আসছেন মানুষ, হেমাঙ্গ বিশ্বাসের গান শুনতে। উপমহাদেশের প্রবাদপ্রতীম এই গণসঙ্গীত শিল্পী ও সুরকারের জন্মশতবর্ষ উত্সবের সমাপনী ছিল কাল। 'কাস্তেটারে দিও জোরে শান কিষাণ ভাই রে...' এই শ্লোগান নিয়ে উত্সবের শেষ দিনের আয়োজন বসেছিল শিল্পীর জন্মস্থান হবিগঞ্জ জেলার চুনারুঘাট উপজেলার মিরাশী গ্রামে।

এই আয়োজনের মধ্য দিয়ে যেন জন্মগ্রামে ফিরে এলেন হেমাঙ্গ বিশ্বাস। প্রজা নির্যাতনের প্রতিবাদ করায় জমিদার পিতা যাকে বের করে দিয়েছিলেন ঘর থেকে, সেই তিনি নিজের জীবন উত্সর্গ করেছিলেন নিপীড়িত, শোষিত মানুষের মুক্তির জন্য। অথচ নিজ গ্রামেই তিনি ছিলেন অপরিচিত। প্রায় হারিয়ে গিয়েছিলেন বিস্মৃতির অতলে। গতকাল সোমবারের আয়োজনের মাধ্যমে চুনারুঘাটের মানুষ যেন তাদের সেই গ্লানি কাটাতে চাইলেন। গভীর রাত পর্যন্ত গান শুনে, অতিথিদের আলোচনায় তারা যেন নতুন করে চিনে নিচ্ছিলেন তাদের ঘরের ছেলে এই বিশিষ্ট গণসঙ্গীত শিল্পীকে। অনুষ্ঠানে ভারতের কলকাতা থেকে এসে যোগ দেন হেমাঙ্গ বিশ্বাসের মেয়ে রঙিলী বিশ্বাস। এই প্রথমবারের মতো পিতার জন্মগ্রামে এলেন। বক্তব্য দিতে গিয়ে আবেগতাড়িত গলায় বললেন, 'আমি অভিভূত। ধন্য। কখনোই ভাবিনি আমার বাবাকে নিয়ে এই আয়োজন হবে। এজন্য বাংলাদেশের মানুষের কাছে আমি কৃতজ্ঞ। বাবা নেই। কিন্তু তিনি আছেন এখানেই। মানুষের মনে বেঁচে আছেন। শুধু তার গানের মধ্যে বেঁচে আছেন তা নয়, তার জন্মস্থান থেকেও তিনি হারিয়ে যাননি।'

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব কামাল লোহানী। উত্সবের সহযোগী সংগঠন চুনারুঘাট সাহিত্য সংস্কৃতি পরিষদের সভাপতি সালেহউদ্দিনের সভাপতিত্বে আলোচনা পর্বে আরো বক্তব্য রাখেন হাসান ফকরি, মফিজুর রহমান লাল্টু, মাহফুজুর রহমান, শুভেন্দু ইমাম, হবিগঞ্জ সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ জাহানারা খাতুন, বৃন্দাবন সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ বিজিত কুমার ভট্টাচার্য, চুনারুঘাট পৌর মেয়র মোহাম্মদ আলী, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আইয়ুব আলী তালুকদার প্রমুখ।

আলোচনা শেষে হেমাঙ্গ বিশ্বাসের গান গেয়ে শ্রোতা-দর্শকদের উদ্দীপ্ত করেন শিল্পীরা। চুনারুঘাট সাহিত্য সংস্কৃতি পরিষদের শিল্পীদের গান দিয়ে শুরু হয় অনুষ্ঠান। স্থানীয় বিবর্তন সাংস্কৃতিক কেন্দ ও সঙ্গীত পরিবেশন করে ।

হেমাঙ্গ বিশ্বাস ছিলেন একাধারে প্রখ্যাত গায়ক, গীতিকার, সুরকার ও সংগঠক। ১৯১২ সালের ১৪ জানুয়ারি তার জন্ম, মারা যান ১৯৮৭ সালের ২২ নভেম্বর। লোকসঙ্গীতকে কেন্দ করে গণসঙ্গীত সৃষ্টির ক্ষেত্রে তার অবদান উল্লেখযোগ্য। তার গান আজো মানুষকে উদ্দীপ্ত করে। 'ওরা আমাদের গান গাইতে দেয় না', 'থাকিলে ডোবাখানা', 'তোমার কাস্তেটারে দিও জোরে শান', 'শঙ্খচিল', 'শহীদের খুনে রাঙা পথে', 'আরো বসন্ত বহু বসন্ত', 'আমরা তো ভুলি নাই শহীদ' প্রভৃতি গান আজো যেকোন আন্দোলনে-সংগ্রামে গাওয়া হয়।

এদিকে জন্মশতবর্ষ উত্সব শেষ হলেও চুনারুঘাট সাহিত্য সংস্কৃতি পরিষদ হেমাঙ্গ বিশ্বাস স্মরণে আজ মঙ্গলবার একই মঞ্চে একক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে। অনুষ্ঠানে সঙ্গীত পরিবেশন করবেন দেশের জনপ্রিয় গণসঙ্গীত শিল্পী ফকির আলমগীর ও তার দল ঋষিজ শিল্পী গোষ্ঠীর শিল্পীরা।

এই পাতার আরো খবর -
font
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
সংসদীয় আসনের সীমানা পুন:নির্ধারণে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের আপত্তি যৌক্তিক বলে মনে করেন?
3 + 7 =  
ফলাফল
আজকের নামাজের সময়সূচী
নভেম্বর - ২
ফজর৫:০৪
যোহর১১:৪৮
আসর৩:৩৫
মাগরিব৫:১৪
এশা৬:৩১
সূর্যোদয় - ৬:২৪সূর্যাস্ত - ০৫:০৯
archive
বছর : মাস :
The Daily Ittefaq
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: তাসমিমা হোসেন। উপদেষ্টা সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন। ইত্তেফাক গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে তারিন হোসেন কর্তৃক ৪০, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ থেকে প্রকাশিত ও মুহিবুল আহসান কর্তৃক নিউ নেশন প্রিন্টিং প্রেস, কাজলারপাড়, ডেমরা রোড, ঢাকা-১২৩২ থেকে মুদ্রিত। কাওরান বাজার ফোন: পিএবিএক্স: ৭১২২৬৬০, ৮১৮৯৯৬০, বার্ত ফ্যাক্স: ৮১৮৯০১৭-৮, মফস্বল ফ্যাক্স : ৮১৮৯৩৮৪, বিজ্ঞাপন-ফোন: ৮১৮৯৯৭১, ৭১২২৬৬৪ ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭২, e-mail: [email protected], সার্কুলেশন ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭৩। www.ittefaq.com.bd, e-mail: [email protected]
Copyright The Daily Ittefaq © 2014 Developed By :