The Daily Ittefaq
ঢাকা, সোমবার, ৩০ ডিসেম্বর ২০১৩, ১৬ পৌষ ১৪২০, ২৬ সফর ১৪৩৫
সর্বশেষ সংবাদ শমসের মবিন চৌধুরী আটক | বুধবার সকাল ছয়টা থেকে লাগাতার অবরোধের ডাক ১৮ দলের | কাল ব্যাংক ও পুঁজিবাজার বন্ধ | বিএনপি নেতা শমসের মবিন চৌধুরী আটক | ২ দিনের রিমান্ডে হাফিজ | বিরোধী দলের আন্দোলনের মূল লক্ষ্য মানুষ হত্যা: প্রধানমন্ত্রী | ছাড়া পেলেন সেলিমা হীরা হালিমা | ৩১ ডিসেম্বর রাতে সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ : ডিএমপি | রাজশাহীতে ৪৪টি তাজা ককটেল ও সাড়ে ৪ কেজি গানপাউডার উদ্ধার | মোহাম্মদপুরে ২০০ হাতবোমাসহ আটক ৩ | প্রাথমিকে পাস ৯৮.৫৮

নিরাপত্তার নামে নাগরিক দুর্ভোগ

ইত্তেফাক রিপোর্ট

রাজনৈতিক সংকট ও উত্তেজনা তৈরি হলেই দেশজুড়ে নিরাপত্তার নামে শুরু হয় নাগরিক দুর্ভোগ। প্রশাসন এবং আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা নাগরিকদের নিরাপত্তা দিতেই পথে পথে তল্লাশি, গণপরিবহন নিয়ন্ত্রণ শুরু হয়। হেঁটে যাওয়া পথচারী থেকে রিকশা ও সিএনজি যাত্রীদের উপর চালানো হয় তল্লাশি। নিরাপত্তা ব্যবস্থার কড়াকড়িতে সাধারণ মানুষ হয়রানির শিকার হয়। অতীতের সব সরকারের সময়ে এধরনের হয়রানি হতে হয়েছে জনগণকে। এসব ক্ষেত্রে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা বরাবরই বলে আসছে, বিরোধী দল বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে রাস্তায় নামার চেষ্টা করছে। জনগণের জানমালের নিরাপত্তার প্রয়োজনে আমরা তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছি। তবে নাগরিকদের চরম এ হয়রানি থেকে বের হওয়ার কোন পথ থাকে না। গতকালও একইভাবে রাজধানীর পথে পথে চরম হয়রানির শিকার হতে হয়েছে সাধারণ মানুষকে।

বিএনপিসহ ১৮ দলের 'মার্চ ফর ডেমোক্রেসি' কর্মসূচি ঘিরে রাজনৈতিক সংকটে রাজধানীজুড়ে চরম উত্তাপ-উত্তেজনা বিরাজ করছে। একই সাথে নাগরিক নিরাপত্তার নামে সৃষ্টি হয়েছে নাগরিক দুর্ভোগ। ঢাকায় প্রবেশ করতে দেয়া হচ্ছে না কোনো প্রকার যানবাহন। রাজধানীজুড়ে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী গড়ে তুলেছে কঠোর নিরাপত্তা বলয়। কার্যত অবরুদ্ধ হয়ে পড়েছে রাজধানী। পথচারীদের পরিচয়পত্র দেখে চলাচল করতে দেয়া হচ্ছে। কিন্তু রাজধানীতে পর্যাপ্ত গণপরিবহন চলতে না দেয়ায় দুর্ভোগের মাত্রা আরো বেড়ে গেছে।

গতকাল সরেজমিনে দেখা গেছে, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা রাজধানীর বিভিন্ন সড়ক, মোড় ও গুরুত্বপূর্ণ স্থানগুলোতে সতর্ক অবস্থান নিয়ে পথচারী ও বিভিন্ন যানবাহন থামিয়ে তল্লাশি করছে। ঢাকার সবগুলো প্রবেশ মুখে বসানো হয়েছে তল্লাশি চৌকি। গাজীপুর মহানগরের চান্দনা চৌরাস্তায় ঢাকা রোডে শত শত মানুষকে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে। সেখান থেকে কোন পরিবহন ঢাকায় ঢুকতে পারছে না। ঢাকার প্রবেশ মুখগুলোতে রাজধানীমুখী মানুষ ও যানবাহনে ব্যাপকভাবে তল্লাশি চালানো হচ্ছে। তল্লাশি ছাড়া কাউকেই শহরে ঢুকতে দেয়া হচ্ছে না। সদরঘাট টার্মিনাল থেকে কোনো লঞ্চ না ছাড়ায় সকাল থেকে সেখানে অপেক্ষমাণ যাত্রীরা ফিরে যাচ্ছেন। সেখানে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন সাধারণ যাত্রী। ঢাকার ভেতরে হাতে গোনা কয়েকটি গণপরিবহন চলায় দুর্ভোগ চরম মাত্রায় পৌঁছায়। একটি বাসের জন্য অফিসগামী মানুষের অপেক্ষা, এবং হতাশ হয়ে হাঁটা পথে অফিসে যেতে দেখা গেছে। সাড়ে ৯টার দিকে যাত্রাবাড়ী মোড়ে সিএনজি রিকশা ছাড়া আর কোনো যানবাহন দেখা যায়নি। বেশির ভাগ লোকজনকেই পায়ে হেঁটে গন্তব্যে যেতে দেখা গেছে। গাবতলী এলাকা দিয়ে খুব অল্পসংখ্যক যানবাহন ঢাকায় প্রবেশ করেছে। তবে এক্ষেত্রে ব্যাপক তল্লাশি চালিয়েছে পুলিশ। ঢাকার বাইরে থেকে আসা অফিসগামী যাত্রীদের গাবতলী এলাকায় নামিয়ে তল্লাশি করা হয়েছে। তল্লাশির সময় পরিচয়পত্র কিংবা গন্তব্য সম্পর্কে সঠিক তথ্য জানাতে ব্যর্থ হলে যাত্রীদের ঢাকায় ঢুকতে না দিয়ে ফিরিয়ে দেয়া হয়েছে।

এর আগে গত বিএনপি দলীয় সরকারের সময় একইভাবে নিরাপত্তার কড়াকড়িতে চরম দুর্ভোগের শিকার হতে হয়েছিল সাধারণ মানুষকে। এমনকি ২০০৬ সালের ৪ ফেব্রুয়ারি শুধু রাজধানীতে গ্রেফতার করা হয়েছিল ৮ হাজার মানুষকে। সে গ্রেফতার অভিযানের সময় হয়রানির শিকার হয়েছিল অসংখ্য নারী-পুরুষ। ২০০৪ সালের ৩০ এপ্রিল আওয়ামী লীগের ট্রাম কার্ড আন্দোলনের সময় একই কায়দায় নিরাপত্তার নামে জন হয়রানি চালানো হয়। ২৯ এপ্রিল এক রাতে ঢাকার প্রবেশ মুখ থেকে গ্রেফতার করা হয় দেড় হাজারের অধিক মানুষকে। সেখানে এক হাজারের অধিক ছিল সাধারণ পথচারী।

এরশাদের আমলে আন্দোলন প্রতিহত করতে রাতের পর রাত রাজধানীতে কারফিউর নামে গণগ্রেফতার ও জন হয়রানি চালানো হয়েছে। এরশাদ বিরোধী আন্দোলনে রাজধানীর গণপরিবহন সরকারিভাবে অলিখিত নির্দেশেই চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়েছিল। এরশাদ বিরোধী আন্দোলন চলাকালে সামরিক শাসনের সময় পরিবহন মালিকরা বাধ্য হয়ে সরকারের অলিখিত নিদের্শ পালন করে। যে কোন আন্দোলনে এরশাদ তার প্রসাশনের পাশাপাশি পরিবহন মালিকদের ব্যবহার করে আন্দোলন প্রতিহত করার চেষ্টা চালিয়েছেন। জন নিরাপত্তা দিতে বরাবরই সব সরকার সরকারিভাবে জন দুর্ভোগ সৃষ্টি করেছে। পথে পথে হয়রানির শিকার হতে হয়েছে সাধারণ মানুষদের।

এই পাতার আরো খবর -
font
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, 'এক এগারোর কুশলিবরা আবার সক্রিয় ও সোচ্চার হয়েছেন।' আপনিও কি তাই মনে করেন?
7 + 3 =  
ফলাফল
আজকের নামাজের সময়সূচী
জুন - ২০
ফজর৩:৪৩
যোহর১২:০০
আসর৪:৪০
মাগরিব৬:৫১
এশা৮:১৬
সূর্যোদয় - ৫:১১সূর্যাস্ত - ০৬:৪৬
archive
বছর : মাস :
The Daily Ittefaq
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: তাসমিমা হোসেন। উপদেষ্টা সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন। ইত্তেফাক গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে তারিন হোসেন কর্তৃক ৪০, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ থেকে প্রকাশিত ও মুহিবুল আহসান কর্তৃক নিউ নেশন প্রিন্টিং প্রেস, কাজলারপাড়, ডেমরা রোড, ঢাকা-১২৩২ থেকে মুদ্রিত। কাওরান বাজার ফোন: পিএবিএক্স: ৭১২২৬৬০, ৮১৮৯৯৬০, বার্ত ফ্যাক্স: ৮১৮৯০১৭-৮, মফস্বল ফ্যাক্স : ৮১৮৯৩৮৪, বিজ্ঞাপন-ফোন: ৮১৮৯৯৭১, ৭১২২৬৬৪ ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭২, e-mail: ittefaq.adsecti[email protected], সার্কুলেশন ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭৩। www.ittefaq.com.bd, e-mail: [email protected]
Copyright The Daily Ittefaq © 2014 Developed By :