The Daily Ittefaq
ঢাকা, সোমবার, ৩০ ডিসেম্বর ২০১৩, ১৬ পৌষ ১৪২০, ২৬ সফর ১৪৩৫
সর্বশেষ সংবাদ শমসের মবিন চৌধুরী আটক | বুধবার সকাল ছয়টা থেকে লাগাতার অবরোধের ডাক ১৮ দলের | কাল ব্যাংক ও পুঁজিবাজার বন্ধ | বিএনপি নেতা শমসের মবিন চৌধুরী আটক | ২ দিনের রিমান্ডে হাফিজ | বিরোধী দলের আন্দোলনের মূল লক্ষ্য মানুষ হত্যা: প্রধানমন্ত্রী | ছাড়া পেলেন সেলিমা হীরা হালিমা | ৩১ ডিসেম্বর রাতে সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ : ডিএমপি | রাজশাহীতে ৪৪টি তাজা ককটেল ও সাড়ে ৪ কেজি গানপাউডার উদ্ধার | মোহাম্মদপুরে ২০০ হাতবোমাসহ আটক ৩ | প্রাথমিকে পাস ৯৮.৫৮

ই-বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় উন্নতি প্রয়োজন

ই-বর্জ্য ইতোমধ্যেই বিশ্ববাসীর মাথাব্যথার কারণ হইয়া দাঁড়াইয়াছে। ই-বর্জ্য হইতে পরিবেশ দূষণ ও স্বাস্থ্যঝুঁকির বিষয়টি কেহই অস্বীকার করিতে পারিতেছে না। পরিত্যক্ত রেফ্রিজারেটর, টেলিভিশন, মুঠোফোন, মনিটর ইত্যাদি ই-বর্জ্যের অন্তর্ভুক্ত। জাতিসংঘ বলিতেছে ই-বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় উন্নয়নশীল দেশগুলির প্রস্তুতিতে যথেষ্ট ঘাটতি রহিয়াছে। জাতিসংঘের পরিবেশ কর্মসূচি বা ইউএনইপির প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হইয়াছে।

ইউএনইপি ই-বর্জ্যের যেই বর্তমান চিত্র আমাদের সামনে হাজির করিয়াছে তাহা খুবই আশঙ্কাজনক। সংস্থাটি প্রদত্ত প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, ২০২০ সালে চীন ও দক্ষিণ আফ্রিকায় শুধু কম্পিউটার বর্জ্যের পরিমাণ ২০০৭ সাল পর্যন্ত সময়ের তুলনায় বাড়িবে ৪০০ গুণ। একই সময়ের মধ্যে মোবাইল ফোন হইতে তৈরি হওয়া ই-বর্জ্যের পরিমাণ চীনে সাত গুণ এবং ভারতে ১৮ গুণ বৃদ্ধি পাইবে। প্রতিবেদনটি আরও জানাইতেছে যে সারা বিশ্বে প্রতিবত্সর যুক্ত হইতেছে চার কোটি টন নূতন ই-বর্জ্যের স্তূপ। পুরানা কম্পিউটার আর নষ্ট ইলেকট্রনিক পণ্যের বেশির ভাগই জমিতেছে উন্নয়নশীল দেশগুলিতে। কারণ এইসব দেশের ই-বর্জ্য ব্যবস্থাপনা তেমন কার্যকর নহে। সমপ্রতি চীন, ভারত ও ব্রাজিলসহ আফ্রিকার ১১টি দেশের ই-বর্জ্যের উপর গবেষণা করিয়া এইসব তথ্য পাইয়াছে ইউএনইপি।

ইতোমধ্যে চীন, ভারত, দক্ষিণ আফ্রিকা প্রভৃতি দেশে ই-বর্জ্যকে রিসাইক্লিংয়ের জন্য বিভিন্ন সংগঠন যেমন গড়িয়া উঠিয়াছে, তেমনি গড়িয়া উঠিয়াছে ই-বর্জ্য সংগ্রহ করিয়া রিসাইক্লিংয়ের জন্য বিভিন্ন শিল্পস্থাপনা। এইসব স্থাপনায় বর্জ্য হইতে মূল্যবান ধাতু সংগ্রহ করা হইয়া থাকে। এই প্রক্রিয়ায় প্রয়োজন যথেষ্ট সতর্কতামূলক ব্যবস্থা যাহাতে শ্রমিকরা স্বাস্থ্যঝুঁকির মধ্যে না পড়ে। কারণ এইসব ই-বর্জ্য ধারণ করে বিষাক্ত নানা উপাদান যেমন সীসা, ফসফরাস, পারদ, ক্যাডমিয়াম, গ্যালিয়াম, আর্সেনাইট ইত্যাদি যাহা স্বাস্থ্যের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ। বাংলাদেশেও ই-বর্জ্য রিসাইক্লিং কার্যক্রমের ব্যবহার হয় খুবই ঝুঁকিপূর্ণ প্রক্রিয়ায়, যাহা পরিবেশ ও স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। আমাদের দেশে খুব সীমিত আকারে প্রাইভেট এবং পাবলিক সেক্টর ই-বর্জ্যের সমস্যা সমাধানের লক্ষ্যে কাজ করিতেছে। তথ্যপ্রযুক্তিভিত্তিক কোনো কোনো প্রতিষ্ঠানে ই-বর্জ্যের অদল-বদল প্রকল্প রহিয়াছে। অবশ্য এই প্রকল্প শুধু মনিটরের মধ্যে সীমাবদ্ধ। এইখানে পুরনো মনিটর সংগ্রহ করিয়া ইহার পিকচার টিউবকে টিভির পিকচার টিউবে পরিণত করা হয়। বাকি উপাদান হইতে বিভিন্ন অংশ আলাদা আলাদা করিয়া ব্যবহারোপযোগী করিয়া বিক্রি করা হয়। পৃথিবীব্যাপী ই-বর্জ্য বৃদ্ধি পাইবার একটি কারণ হইলো ব্যবহারকারীরা যন্ত্রের সর্বসামপ্রতিক সংস্করণ কিনিতে থাকেন এবং পুরানা যন্ত্রটি নিক্ষেপ করেন। এইসকল মনস্তাত্ত্বিক দিকগুলি নিয়া কাজ করিবার সুযোগ রহিয়াছে। জনসচেতনতা এইক্ষেত্রে অনেক কার্যকর হইতে পারে। যদি কাহারও কম্পিউটার তুলনামূলকভাবে ভালো ও কার্যোপযোগী অবস্থায় থাকে, তাহা হইলে সেই কম্পিউটারকে সম্পূর্ণরূপে বাতিল না করিয়া যাহাদের ইহা দরকার, যেমন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে দান করা যাইতে পারে। ইহা ছাড়া কম্পিউটারের বিভিন্ন যন্ত্রাংশ, পুরানা ডিজিটাল ক্যামেরা, মোবাইল ফোন, এমপিথ্রি প্লেয়ার, ডিভিডি প্লেয়ার, টিভি ইত্যাদির পুরানা যন্ত্র ক্রয়ের মার্কেটে বিক্রি করা যাইতে পারে। এইভাবে সর্বোচ্চ ব্যবহার ও পুনর্ব্যবহারের মাধ্যমে ই-বর্জ্যের স্তূপ সীমিত রাখায় অবদান রাখিতে পারেন ব্যবহারকারীরা।

এই পাতার আরো খবর -
font
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, 'এক এগারোর কুশলিবরা আবার সক্রিয় ও সোচ্চার হয়েছেন।' আপনিও কি তাই মনে করেন?
6 + 4 =  
ফলাফল
আজকের নামাজের সময়সূচী
মে - ১৩
ফজর৩:৫৪
যোহর১১:৫৫
আসর৪:৩৩
মাগরিব৬:৩৫
এশা৭:৫৪
সূর্যোদয় - ৫:১৭সূর্যাস্ত - ০৬:৩০
archive
বছর : মাস :
The Daily Ittefaq
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: তাসমিমা হোসেন। উপদেষ্টা সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন। ইত্তেফাক গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে তারিন হোসেন কর্তৃক ৪০, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ থেকে প্রকাশিত ও মুহিবুল আহসান কর্তৃক নিউ নেশন প্রিন্টিং প্রেস, কাজলারপাড়, ডেমরা রোড, ঢাকা-১২৩২ থেকে মুদ্রিত। কাওরান বাজার ফোন: পিএবিএক্স: ৭১২২৬৬০, ৮১৮৯৯৬০, বার্ত ফ্যাক্স: ৮১৮৯০১৭-৮, মফস্বল ফ্যাক্স : ৮১৮৯৩৮৪, বিজ্ঞাপন-ফোন: ৮১৮৯৯৭১, ৭১২২৬৬৪ ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭২, e-mail: [email protected], সার্কুলেশন ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭৩। www.ittefaq.com.bd, e-mail: [email protected]
Copyright The Daily Ittefaq © 2014 Developed By :