The Daily Ittefaq
ঢাকা, সোমবার, ৩০ ডিসেম্বর ২০১৩, ১৬ পৌষ ১৪২০, ২৬ সফর ১৪৩৫
সর্বশেষ সংবাদ শমসের মবিন চৌধুরী আটক | বুধবার সকাল ছয়টা থেকে লাগাতার অবরোধের ডাক ১৮ দলের | কাল ব্যাংক ও পুঁজিবাজার বন্ধ | বিএনপি নেতা শমসের মবিন চৌধুরী আটক | ২ দিনের রিমান্ডে হাফিজ | বিরোধী দলের আন্দোলনের মূল লক্ষ্য মানুষ হত্যা: প্রধানমন্ত্রী | ছাড়া পেলেন সেলিমা হীরা হালিমা | ৩১ ডিসেম্বর রাতে সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ : ডিএমপি | রাজশাহীতে ৪৪টি তাজা ককটেল ও সাড়ে ৪ কেজি গানপাউডার উদ্ধার | মোহাম্মদপুরে ২০০ হাতবোমাসহ আটক ৩ | প্রাথমিকে পাস ৯৮.৫৮

ফিরে দেখা ২০১৩

বছরের আলোচিত নারী

ক্যালেন্ডারের পাতায় ডিসেম্বর প্রায় শেষ। নতুন একটি বছর উঁকি দিচ্ছে নতুন সম্ভাবনা নিয়ে। ২০১৩ বিদায়ের প্রাক্কালে আমরা ফিরে দেখি বছরটি ছিল জাতীয়ভাবে নানা বিষয় নিয়ে আলোচিত— রাজনৈতিক কারণে আমাদের দুই নেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বিরোধীদলীয় নেতা খালেদা জিয়া ছিলেন সারা বছর জুড়ে আলোচনায়। দেশের প্রথম নারী স্পিকার ইতিহাসে নাম লেখিয়ে আলোচিত হন ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। বছর শুরুতে শাহবাগের গণজাগরণ মঞ্চে শ্লোগান কন্যাখ্যাত লাকী উঠে আসেন আলোচনায়। রানা প্লাজার ধ্বংসস্তূপের মধ্যে ১৮ দিন বেঁচে থেকে রেশমা শুধু দেশে নয় বিশ্বময় আলোচনায় আসেন। হেফাজতের সমাবেশে লাঞ্ছিত হয়ে আলোচনায় আসেন সাংবাদিক নাদিয়া শারমিন। আরো যারা এবছর আলোচনায় নারী সমাজে প্রতিনিধিত্ব করছেন তাদের নিয়ে এই প্রতিবেদন। তৈরি করেছেন— মেহেদী হাসান, সামিহা সুলতানা অনন্যা

ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী

বাংলাদেশের জাতীয় সংসদের প্রথম নারী স্পীকার নির্বাচিত হয়েছেন ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। এর আগে তিনি শিশু ও মহিলা বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন। বাংলাদেশের নারীদের ক্ষমতায়নে এটা দারুণ একটি দৃষ্টান্ত। নবম সংসদে সংসদের নেতা, বিরোধী দলীয় নেতা স্পীকার এবং সংসদের উপনেতা সবাই ছিলেন নারী। মাত্র ৪৬ বছর বয়সে তিনি এই দায়িত্ব পেলেন। তাঁর আগে এতো কম বয়সে বাংলাদেশের সংসদের কর্তৃত্ব আর কেউ পাননি।

মানবতার কল্যাণে যুক্ত হলেন তারকারা

প্রতিবছর অনাহারে-অর্ধাহারে, অপুষ্টি ও বিভিন্ন জটিল রোগে তৃতীয় বিশ্বের লাখ লাখ কোমলমতি শিশু এই সুন্দর পৃথিবী দুচোখ ভরে দেখার আগেই চিরকালের জন্য বিদায় নেয়। সোমালিয়া, সুদান ও ইথিওপিয়ার মতো আফ্রিকার দারিদ্র্যক্লিষ্ট দেশের শিশুরা জন্মই নিচ্ছে এইডসের মতো ভয়াবহ ব্যাধি মাথায় নিয়ে। হলিউড ও বলিউডের সেলিব্রেটিরা অধিকারবঞ্চিত ও শিশু মৃত্যু কমিয়ে আনার আন্দোলন করে যাচ্ছেন। খরচ করছেন নিজের পকেটের টাকা-পয়সা। পিছিয়ে নেই বাংলাদেশী সেলিব্রেটিরাও। নায়ক রাজ রাজ্জাক ইউনিসেফের শুভেচ্ছাদূত মনোনীত হন আজ থেকে কয়েক বছর আগে। তিনি দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে ইউনিসেফের কর্মসূচিতে অংশ নিয়েছেন। সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের সঙ্গে সময় কাটিয়েছেন। তিনি যেসব অঞ্চলে গিয়েছেন সেখানকার বিত্তবানরাও এগিয়ে এসেছেন শিশুদের জন্য কিছু করার। এ সময়ে সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের নিয়ে কাজ করছেন বিশিষ্ট অভিনেত্রী ববিতা। ববিতা এখন ডিসট্রেসড চিলড্রেন এন্ড ইনফ্যান্টস ইন্টারন্যাশনাল-ডিসিআই-এর শুভেচ্ছাদূত নির্বাচিত হয়েছেন। জাতিসংঘের আওতাভুক্ত ডিসিআই যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক একটি অলাভজনক সাহায্য সংস্থা। ববিতা তার বক্তব্যে বাংলাদেশের অধিকারবঞ্চিত শিশুদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য বিশ্বের ধনী মানুষদের প্রতি আহ্বান জানান এবং যুক্তরাষ্ট্রে প্রবাসী ধনী বাঙালীদের প্রতিও তিনি অনুরোধ করেন দেশের অবহেলিত কোমলমতি শিশুদের জন্য কিছু করার। ডিসিআই বাংলাদেশের বিভিন্ন অঞ্চলে কাজ করছে। তার মধ্যে আছে পটুয়াখালী, হবিগঞ্জ, ফেনী, নীলফামারী এবং ঢাকা। আন্তর্জাতিক খ্যাতিমান গায়িকা রুনা লায়লা, জাদুশিল্পী জুয়েল আইচ, চলচ্চিত্র তারকা আরিফা পারভিন জামান মৌসুমী ও ক্রিকেট বিশ্বের অন্যতম সেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান সম্প্রতি ইউনিসেফের শুভেচ্ছা দূত হয়েছেন। গত ১৭ সেপ্টেম্বর স্থানীয় একটি হোটেলে বাংলাদেশ ইউনিসেফের শুভেচ্ছা দূত হিসেবে কাজ করার জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন জুয়েল আইচ, মৌসুমী ও ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান। তারা শিশুশ্রম, জন্মনিয়ন্ত্রণ, বাল্য বিবাহ, শিশুদের প্রতিহিংসা রোধ, শিশু ও মাতৃস্বাস্থ্য, জন্মসচেতনতা তৈরি এবং উন্নয়নমুখী সামাজিক পরিবর্তনের জন্য ইউনিসেফের সঙ্গে কাজ করবেন। এ বছরের আগস্ট মাসে বাংলাদেশের নন্দিত ও আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন গায়িকা রুনা লায়লা সার্কভুক্ত আটটি দেশের এইডস প্রতিরোধ কর্মসূচির শুভেচ্ছা দূত নির্বাচিত হন। বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডা. দীপু মণি এই সংক্রান্ত একটি নিয়োগপত্র তুলে দেন রুনা লায়লার হাতে। মরণব্যাধি এইচআইভি এইডস-এর বিরুদ্ধে জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে কাঠমান্ডুভিত্তিক সার্ক সচিবালয় উপমহাদেশের তিন সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্বকে শুভেচ্ছা দূত নিয়োগের সিদ্ধান্ত নেয়। তারা হলেন বাংলাদেশের রুনা লায়লা, ভারতের সুপারস্টার অজয় দেবগন এবং পাকিস্তানের প্রখ্যাত সাংবাদিক ও চলচ্চিত্র নির্মাতা শারমিন ওবায়েদ চিনয়।

রেশমা

রানা প্লাজা ধসের ঘটনা এবছরের সব থেকে মর্মান্তিক ঘটনা। এই সাভার ট্র্যাজেডির ১৭ দিন পর রানা প্লাজার ধ্বংসস্তুপ থেকে জীবিত উদ্ধার করা হয় রেশমা নামে এক নারী শ্রমিককে। ১০ মে বিকেল ৪টা ২৮ মিনিটে ধ্বসে পড়া রানা প্লাজার বেজমেন্টের মসজিদের কাছে ধ্বংসস্তুপের নিচ থেকে উদ্ধার কর্মীরা তাকে উদ্ধার করে। রেশমার জীবিত থাকার সন্ধান পাওয়ার পর প্রায় এক ঘন্টার প্রাণান্তকর চেষ্টায় তাকে সফলভাবেই উদ্ধার করা হয়। এর পরপরই রেশমাকে সাভার সিএমএইচ-এ নিয়ে যাওয়া হয়। সাভার ট্রাজেডির ১৭তম দিনে নারী শ্রমিককে জীবিত উদ্ধারের ঘটনা বিবিসি, সিএনএন, আল-জাজিরা, টাইমস অব ইন্ডিয়া, রয়টার্স, এপি, এনডিটিভিসহ বিশ্বের বড়ো বড়ো মিডিয়ায় ফলাও করে প্রচার করা হয়েছিল। ১৭ দিন কিভাবে বেঁচে ছিলেন তা বর্ণনা করতে গিয়ে তিনি বলেন, শুধু পানি আর উচ্ছিষ্ট কিছু খাবার খেয়ে বেঁচে ছিলাম। রেশমা বলেন, ১৭ দিন পানি খেয়ে বেঁচে ছিলাম।

০০০

গীতা রানী

নভেম্বরের ২৮ তারিখে শাহবাগে যাত্রীবাহি একটি বাসে আগুন ধরিয়ে দেয় দুর্বৃত্তরা। এই বাসের মধ্যে ছিলেন গৃহবধূ গীতা রানী। তার মেয়েও তার সাথে ছিল। তারা প্রত্যেকেই গুরুতর আহত অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজের বার্ণ ইউনিটে ভর্তি হন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অগ্নিদগ্ধদেরকে দেখতে গেলে গীতা রানী শেখ হাসিনাকে বলেন, 'আমরা ভালো সরকার চাই। অসুস্থ সরকার চাই না।' এসময় গীতা সরকারী দল এবং বিরোধী দলের মধ্যকার চলমান সহিংসতা বন্ধ করে সাধারণ মানুষের জীবনে শান্তি ফিরিয়ে আনার অনুরোধ করেন। গীতা রানীর এই কথাগুলো যেন সারা বাংলাদেশের প্রতিটি মানুষের হূদয়ের আপ্তবাক্য!

০০০

ঐশী

সন্তানের হাতে বাবা-মায়ের হত্যার ঘটনা বছরের অন্যতম আলোচিত-সমালোচিত ঘটনা ছিল। গত ১৬ আগস্ট পুলিশের বিশেষ শাখার (এসবি) পরিদর্শক মাহফুজুর রহমান ও তার স্ত্রী স্বপ্না রহমানের লাশ তাদের ২নং চামেলীবাগের বাসার ৫/বি ফ্ল্যাটের বাথরুম থেকে উদ্ধার করে পুলিশ। এই ঘটনায় সারা দেশে ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি হয়। বাবা-মা তাদের সন্তান ঐশীকে শাসন করতেন। বখে যাওয়া সন্তানকে মানুষের মতো করে গড়ে তুলতে চাইতেন। কিন্তু তাদের সন্তান এতোটাই বখে গিয়েছিল যে তাকে ফেরানো তো দূর, খুন হতে হলো সেই সন্তান এবং তার বন্ধুদের হাতে! পুলিশের কাছে সে ঘটনার বিভিন্ন ধরনের বিবরণ দিয়েছে। তবে শেষ পর্যন্ত ঐশী স্বীকার করে যে সেই তার বাবা-মাকে খুন করেছে। ঐশীর একটি ছোট ভাইও আছে। এই মামলার এখনো চূড়ান্ত সুরাহা হয়নি।

০০০

লাকি আক্তার

গণজাগরণ মঞ্চে, অগ্নিকন্যা, স্লোগানকন্যা হিসেবে খ্যাত লাকি আক্তার শাহবাগের আন্দোলনের সময় ব্যাপক পরিচিতি পান। তার উদ্দীপ্ত স্লোগান, দৃঢ়তা, একাগ্রতা এ দেশের নবীনদের নতুন করে জাগ্রত করার পথ দেখিয়েছে। শাহবাগ আন্দোলনের সময় তার স্লোগানের সাথে কণ্ঠ মিলিয়েছে বহু শিশু-কিশোর, তরুণ-তরুণী, বৃদ্ধ সকলেই। আজও তার অনুপ্রেরণা নবীনদের নতুন করে স্বপ্ন দেখাচ্ছে। দেশকে নতুন করে গড়ার আশা জাগাচ্ছে। স্লোগান কন্যা হিসেবে পরিচিত লাকি আক্তার জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী। তিনি পড়াশোনার পাশাপাশি সমান গুরুত্ব দিয়ে দেশের জন্য দশের জন্য কাজের লক্ষ্যে নিজেকে নিয়োজিত করেছেন এবং তরুণ-তরুণীদের কাছেও সেটিই তার প্রত্যাশা।

০০০

ওয়াসফিয়া নাজরীন

পৃথিবীর সর্বোচ্চ শৃঙ্গ এভারেস্ট জয়ী দ্বিতীয় বাংলাদেশী নারী ওয়াসফিয়া নাজরীন, ২০১৩ সালের মার্চ মাসে ইউরোপের সর্বোচ্চ চূড়া মাউন্ট এলব্রুস জয় করেন। তিনি গত বছর এভারেস্টে ছাড়াও আফ্রিকার সর্বোচ্চ শৃঙ্গ কিলিমাঞ্জারো এবং দক্ষিণ আমেরিকার সর্বোচ্চ শৃঙ্গ আনকানগুয়া জয় করেন। তিনি গত বছর বলেছিলেন যে তার স্বপ্ন পৃথিবীর সাতটি মহাদেশের সাতটি সর্বোচ্চ শৃঙ্গ জয়। এ পর্যন্ত তিনি চারটি শৃঙ্গ জয় করেছেন। তিনি প্রমাণ করলেন, ইচ্ছা থাকলে কোন কিছুই অসম্ভব নয়। বাংলাদেশের নারীরা যে কোন ক্ষেত্রেই পিছিয়ে নেই, সব বাধা জয় করে এগিয়ে চলেছেন তারই প্রমাণ দিলেন আরও একবার।

০০০

পারমিতা মিত্র

বাংলাদেশের বরিশালে জন্মগ্রহণকারী এবং মিসিসিপিতে বড় হওয়া পারমিতা মিত্র এ বছর 'মিস মিসিসিপি' নির্বাচিত হয়েছেন। এরপর তিনি আমেরিকার সেরা সুন্দরীদের প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করেন। এটিতে অবশ্য কানেক্টিকাটের সুন্দরী ইরিন ব্রাডি এবার মিস ইউএসএ নির্বাচিত হয়েছেন। ২১ বছর বয়সী পারমিতা ৫ ফুট ৫ ইঞ্চি লম্বা এবং ৪টি আলাদা ভাষায় কথা বলতে পারেন। তিনি পড়ছেন মিসিসিপি ইউনিভার্সিটিতে মহাকাশ প্রকৌশল বিষয়ে। একমাত্র ভাই অম্লান মিত্র গ্রাফিক্স ডিজাইনার এবং পিতা ড. অধ্যাপক অমল মিত্র শিক্ষকতা করেন ইউনিভার্সিটি অব সাউদার্ন মিসিসিপিতে। অমল মিত্র বলেন, আমার মেয়ে স্বাধীনচেতা এবং সে হতে চায় প্রথম বাংলাদেশী নভোচারী। ৫ বছর বয়সে তাকে নিয়ে আমরা আমেরিকায় এসেছি। গত বছর গ্রীষ্মে পারমিতা আমাদের সাথে বাংলাদেশে গিয়েছিল। ঢাকা মেডিকেল কলেজের প্রখ্যাত প্লাস্টিক সার্জন অধ্যাপক শাফকাত হোসেনের নেতৃত্বে ঠোঁটকাটা রোগীদের কাউন্সেলিং করেছে। মানবসেবায় তার ভীষণ আনন্দ। পারমিতার মা রত্না মিত্র বলেন, এতবড় মাপের একটি প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের সুযোগ পাওয়াটাও একটি ভাগ্যের ব্যাপার। 'মিস মিসিসিপি' শিরোপা অর্জনের ব্যাপারটিও কম গৌরবের নয়। তবে মিস ইউএসএ প্রতিযোগিতার সকলেই ভীষণ স্মার্ট ছিলেন। আমার কন্যার ভাগ্যে হয়তো মুকুট ছিল না। তবে আমরা সকলে খুব খুশি।

০০০

নাজমুন আরা সুলতানা

এবছর তিনি বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের ইতিহাসে প্রথম নারী বিচারপতি হলেন। হাইকোর্টেও তিনিই প্রথম নারী বিচারপতি। তার কর্মজীবন শুরু আইনজীবী হিসেবে ১৯৭২ সালে। নানা প্রতিবন্ধকতা ও ব্যঙ্গ কথা শুনে, প্রতিকূল পথ অতিক্রম করে আসতে হয়েছে এ পর্যন্ত। তার ইচ্ছা, দূরদর্শিতা ও সাহসিকতাই তাকে আজকের এ অবস্থানে এনেছে। তার বাবা-মায়ের স্বপ্ন ছিল যে তিনি যেন আইনজীবী হন। বাবার স্বপ্ন পূরণ করতেই তিনি এ পথে এগিয়ে যান। মানুষকে তার ন্যায্য অধিকার প্রদানে, সঠিক বিচারকার্য সম্পাদনে তার বিচারক হবার স্বপ্ন পূরণেও তিনি সক্ষম হন। জীবনসঙ্গী কাজী নুরুল হকের কাছ থেকে তার কর্মক্ষেত্রে এগিয়ে যাবার লক্ষ্যে সবসময় উত্সাহ পেয়ে এসেছেন। তার অবস্থান এদেশের বহু নারীকে এগিয়ে যাবার সাহস ও অনুপ্রেরণা দিয়ে যাবে।

০০০

নাদিয়া শারমিন

২০১৩ সালের ৬ এপ্রিল হেফাজতে ইসলামের সমাবেশে পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে সংগঠনটির কর্মীদের হাতে লাঞ্ছিত হন সাংবাদিক নাদিয়া শারমিন। হেফাজতে ইসলামের কর্মীরা তাকে শুধু 'নারী' বলেই সমাবেশস্থলে কয়েক দফা বেধড়ক পিটিয়ে আহত করে। নারীদের উপর নির্যাতনের ঘটনা অবশ্য নতুন কিছু নয়; ধর্মের দোহাই দিয়ে নারীদেরকে অবমাননার ইতিহাস এ উপমহাদেশে প্রাচীন। নারীরা যখন সর্বক্ষেত্রে কৃতিত্বের সঙ্গে নিজেদের মেধা দিয়ে জায়গা করে নিচ্ছেন, তখনও এ ধরনের বর্বরোচিত ঘটনা কোনভাবেই মেনে নেয়ার মতো ছিল না। মেনে নিতে পারেওনি জাতি। নাদিয়া শারমিনের উপর ঘটে যাওয়া এই বর্বরোচিত ঘটনায় দেশ-বিদেশে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদের ঝড় উঠে। বিষয়টি দফায় দফায় আলোচিত হয়েছে দেশি-বিদেশি গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যমেও। ওই দিনের ঘটনা বর্ণনা করে নাদিয়া শারমিন বলেন, 'ওরা আমাকে পরিকল্পিতভাবে গণপিটুনি দিয়ে হত্যার চেষ্টা করেছিল। সহকর্মীরা এগিয়ে না এলে ওরা আমাকে মেরে ফেলতো। পল্টন মোড় থেকে বিজয় নগর পর্যন্ত ওরা আমাকে মারতে মারতে ৬-৭ বার রাস্তায় ফেলে দিয়ে এলোপাড়ি লাথি মারে। যখন উঠে দৌঁড়াতে থাকি তখন পেছন থেকে আবার ধাক্কা দিয়ে ফেলে আমার মাথায় লাথি মারে। বারবার তারা আমার কাপড় টেনে হিঁচড়ে কিল-ঘুষি মারতে থাকে।'

০০০

মাহফুজা আক্তার

এ বছর বাংলাদেশকে সারা বিশ্বের কাছে পরিচিত করেছেন তিনি। বিশ্বের দরবারে বাংলাদেশের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করেছেন তথ্যকল্যানী মাহফুজা আক্তার। জার্মানিতে ডয়াচে ভেলে আয়োজিত একটি প্রতিযোগিতার পুরষ্কার বিতরনী অনুষ্ঠানে গ্লোবাল মিডিয়া ফোরাম অ্যাওয়ার্ড গ্রহন করেন। এসময় তিনি তথ্যকলানী হিসেবে কিভাবে গ্রামের মানুষের সাহায্যে এগিয়ে যান, গ্রাম থেকে গ্রামে ঘুরে তাদের সেবা করেন তাই বলেন। তার সাহায্যের মধ্যে দিয়ে গ্রামের সবাই কিভাবে উপকৃত হচ্ছেন তা তুলে ধরেন। তিনি বলেন, মৌলিক স্বাস্থ্যসেবা দেওয়া যেমন প্রেসার মাপা, জ্বর-ঠান্ডা-কাশির চিকিত্সা থেকে শুরু করে, মোবাইল সারানো, গর্ভাবস্থায় নানা পরামর্শ, শিক্ষাক্ষেত্রে অনুপ্রাণিত করা, নারীদের মুক্তচিন্তার বিকাশ ইত্যাদি সব ক্ষেত্রেই গ্রামবাসীরা আমাদের কাছে পায়। আমরা তাদের নানা উপকারের চেষ্টা করি। তাই তারাও আমাদের আপন করে নেন।

এই পাতার আরো খবর -
font
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, 'এক এগারোর কুশলিবরা আবার সক্রিয় ও সোচ্চার হয়েছেন।' আপনিও কি তাই মনে করেন?
1 + 1 =  
ফলাফল
আজকের নামাজের সময়সূচী
নভেম্বর - ৫
ফজর৫:০৬
যোহর১১:৪৯
আসর৩:৩৬
মাগরিব৫:১৪
এশা৬:৩২
সূর্যোদয় - ৬:২৬সূর্যাস্ত - ০৫:০৯
archive
বছর : মাস :
The Daily Ittefaq
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: তাসমিমা হোসেন। উপদেষ্টা সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন। ইত্তেফাক গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে তারিন হোসেন কর্তৃক ৪০, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ থেকে প্রকাশিত ও মুহিবুল আহসান কর্তৃক নিউ নেশন প্রিন্টিং প্রেস, কাজলারপাড়, ডেমরা রোড, ঢাকা-১২৩২ থেকে মুদ্রিত। কাওরান বাজার ফোন: পিএবিএক্স: ৭১২২৬৬০, ৮১৮৯৯৬০, বার্ত ফ্যাক্স: ৮১৮৯০১৭-৮, মফস্বল ফ্যাক্স : ৮১৮৯৩৮৪, বিজ্ঞাপন-ফোন: ৮১৮৯৯৭১, ৭১২২৬৬৪ ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭২, e-mail: [email protected], সার্কুলেশন ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭৩। www.ittefaq.com.bd, e-mail: [email protected]
Copyright The Daily Ittefaq © 2014 Developed By :