The Daily Ittefaq
ঢাকা, সোমবার, ৩০ ডিসেম্বর ২০১৩, ১৬ পৌষ ১৪২০, ২৬ সফর ১৪৩৫
সর্বশেষ সংবাদ শমসের মবিন চৌধুরী আটক | বুধবার সকাল ছয়টা থেকে লাগাতার অবরোধের ডাক ১৮ দলের | কাল ব্যাংক ও পুঁজিবাজার বন্ধ | বিএনপি নেতা শমসের মবিন চৌধুরী আটক | ২ দিনের রিমান্ডে হাফিজ | বিরোধী দলের আন্দোলনের মূল লক্ষ্য মানুষ হত্যা: প্রধানমন্ত্রী | ছাড়া পেলেন সেলিমা হীরা হালিমা | ৩১ ডিসেম্বর রাতে সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ : ডিএমপি | রাজশাহীতে ৪৪টি তাজা ককটেল ও সাড়ে ৪ কেজি গানপাউডার উদ্ধার | মোহাম্মদপুরে ২০০ হাতবোমাসহ আটক ৩ | প্রাথমিকে পাস ৯৮.৫৮

জাতিগত দ্বন্দ্বে ছারখার হচ্ছে দক্ষিণ সুদান

শিফারুল শেখ

দক্ষিণ সুদান যার সরকারি নাম দক্ষিণ সুদান প্রজাতন্ত্র। মধ্য আফ্রিকার দেশ। ২০১১ সালের মাঝামাঝিতে মাত্র স্বাধীনতা লাভ করেছে। সাবেক সুদানের থেকে বিভক্ত হয়েছে। নতুন জন্ম নেয়া এই দেশটির নাগরিকরা দীর্ঘদিন গৃহযুদ্ধে লিপ্ত ছিল। আশা ছিল একটু শান্তিতে থাকার। সুদানকে বিভিন্ন দেশ যে গুরুত্ব দেয় তার প্রধান কারণ এই অঞ্চলে তেলের খনি রয়েছে। কিন্তু তাদের জীবনে শান্তি আসেনি। জন্ম নিয়েছে বিদ্রোহীর। আর এই বিদ্রোহের মূলে রয়েছে জাতিগত দ্বন্দ্ব। এই দ্বন্দ্বেই ছারখার হচ্ছে নবীন এই রাষ্ট্রটি। আর লড়াইয়ের মূল কেন্দ্র এখন এই তেলের খনি। হতাশ দক্ষিণ সুদানের নাগরিকদের তাহলে কি লড়াই আর সংগ্রামের মধ্যেই জীবন কাটাতে হবে? প্রশ্নটি এখন কেবল দক্ষিণ সুদানের নাগরিকদেরই নয় আন্তর্জাতিক বিশ্লেষকদের। তবে সমপ্রতি পরিস্থিতি কিছুটা শান্ত হয়ে এসেছে বলে দৃশ্যমান হচ্ছে। সরকার বিদ্রোহীদের সঙ্গে সমঝোতা করতে রাজি হলেও বিদ্রোহীদের নেতা এখনো সুস্পষ্ট কোনো ঘোষণা দেননি সমঝোতার বিষয়ে। আর ইতোমধ্যে দেশটিতে শান্তিরক্ষী পাঠানো শুরু করেছে জাতিসংঘ। দেশটির সরকার ও বিদ্রোহীদের প্রতি হুঁশিয়ারি দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। তিনি গৃহযুদ্ধেরও আশঙ্কা করছেন।

গত দুই সপ্তাহব্যাপী তুমুল লড়াইয়ের পর যুদ্ধবিরতিতে রাজি হয়েছে দক্ষিণ সুদানের সরকার। কেনিয়ার রাজধানী নাইরোবিতে শুক্রবার পূর্ব আফ্রিকার দেশগুলোর নেতাদের বৈঠক চলাকালে দেশটির প্রেসিডেন্ট সিলভা কির এই ঘোষণা দেন। তবে সরকার একইসঙ্গে এই হুঁশিয়ারিও দিয়েছে কোনো ধরনের আক্রমণ এলে তা প্রতিহত করা হবে। আর বিদ্রোহী নেতারা সরকারের যুদ্ধবিরতির প্রস্তাবের সতর্ক জবাব দিয়েছেন। এদিকে সেনাবাহিনীর এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, দেশটিতে এখন পর্যন্ত যুদ্ধবিরতির কোনো লক্ষণ দেখা যাচ্ছে না। সহিংস পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে জাতিসংঘের অতিরিক্ত শান্তিরক্ষী বাহিনীর প্রথম সেনাদলটি সেদেশে পৌঁছেছে বলে জানিয়েছে সংস্থাটি। সরকার যুদ্ধবিরতিতে সম্মত হওয়ার পর পূর্ব আফ্রিকান নেতারা এই ঘোষণাকে স্বাগত জানিয়েছেন। সেইসঙ্গে দেশটির বিদ্র্রোহী নেতা রিক মাচারকেও একই ধরনের ঘোষণা দেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন আফ্রিকান নেতারা। প্রেসিডেন্ট সিলভা কির এবং বিদ্রোহী নেতা মাচারকে মুখোমুখি বসে আলোচনার জন্য চারদিন সময় দিয়েছেন পূর্ব আফ্রিকার দেশগুলোর নেতারা। তাঁরা বলেছেন, এরপরও সেখানে গৃহযুদ্ধ অব্যাহত থাকলে ব্যবস্থা নেয়া হবে। যদিও সেই ব্যবস্থাটা কী, সে সম্পর্কে স্পষ্ট করে কিছু জানাননি তারা।

দক্ষিণ সুদানের বিদ্রোহী নেতা রিক মাচারের অনুগত যোদ্ধারা কয়েকটি তেলকূপের দখল নিয়েছে। এছাড়া প্রধান তেল উত্পাদনকারী প্রদেশের রাজধানীরও দখল নিয়েছে তারা। বিদ্রোহী গ্রুপের এসব দখল অভিযানের পর দক্ষিণ সুদানে মারাত্মক রকমের গৃহযুদ্ধ ছড়িয়ে পড়তে পারে বলে আশংকা দেখা দিয়েছে। দেশটির তেলমন্ত্রী ধিউ দাও জানিয়েছেন, বিদ্রোহীরা ইউনিটি প্রদেশের তেলকূপ দখল করে নিয়েছে। তেলকূপ দখলের ঘটনায় তিনি উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেছেন, এসব তেলকূপ হয়তো ধ্বংস করে দেবে বিদ্রোহীরা। এদিকে সুদানের প্রেসিডেন্টের অনুগত সেনাদের মুখপাত্র কর্নেল ফিলিপ আগুয়ের জানিয়েছেন, মাচারের সেনাদের সঙ্গে তাদের বৃহস্পতিবার আপার নীলের রাজধানী মালাকালে সংঘর্ষ হয়েছে। তিনি জানান, বিদ্রোহী সেনারা শহরের অর্ধেক এবং সরকারি সেনারা বাকি অর্ধেক নিয়ন্ত্রণ করছে। যে কোনো সময় বিদ্রোহীরা পরাজিত হবে বলেও আশা করেন তিনি।

গত ১৫ ডিসেম্বর প্রেসিডেন্ট সালভা কিরকে ক্ষমতাচ্যুত করতে ব্যর্থ সামরিক অভ্যুত্থান চেষ্টার ঘটনা ঘটে। এরপরই নবীন রাষ্ট্র দক্ষিণ সুদানে সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ে। স্বাধীনতা পাওয়ার আড়াই বছরের মাথায় চরম সংকটে পড়ে দক্ষিণ সুদান। ওই তারিখ রাতে রাজধানী জুবায় ক্ষমতাসীন দল সুদান পিপলস লিবারেশন মুভমেন্টের (এসপিএলএম) বৈঠক চলছিল। বৈঠকে সশস্ত্র সেনাসদস্যরা গুলি চালায়। শুরু হয় সংঘর্ষ। এরপর প্রেসিডেন্ট কিরের সমর্থকদের একটি অংশের সঙ্গে বিদ্রোহী সেনাসদস্যদের সংঘর্ষ হয়। এতে প্রথম দু'দিনেই সাধারণ মানুষসহ কমপক্ষে ৫শ' নিহত হয়। গত দুই সপ্তাহে সবমিলিয়ে নিহতের সংখ্যা কয়েক হাজার। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, বিদ্রোহী সেনারা গণহত্যার পাশাপাশি প্রতিপক্ষ জাতিগোষ্ঠির বাড়ি বাড়ি গিয়ে ধর্ষণ ও লুটপাট চালাচ্ছেন। রাস্তায়ও মানুষের লাশ পড়ে থাকতে দেখা গেছে। প্রেসিডেন্ট কিরের অভিযোগ, সরকারবিরোধী নেতা ও সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট রিক মাচার সমর্থিত সেনাবাহিনীর একটি অংশ তাঁকে ক্ষমতাচ্যুত করতে অভ্যুত্থান ঘটানোর চেষ্টা চালায়। তবে অভিযোগ অস্বীকার করেন পলাতক নেতা মাচারের। তিনি বলেন, সেনাবাহিনীতে প্রেসিডেন্টের শুদ্ধি অভিযান চালানোর কারণেই বাহিনীর ভেতর উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। এখানে সামরিক অভ্যুত্থান চেষ্টার মতো কোনো ঘটনা ঘটেনি। আর প্রেসিডেন্ট কির এখনো সবাইকে অভ্যুত্থান চেষ্টার বিষয়টি বিশ্বাস করাতে পারেননি।

বিশ্বের নবীনতম এ দেশে চলমান সংঘাত নিয়ন্ত্রণে আরও শান্তিরক্ষী মোতায়েনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ। নতুন সেনা যোগ দিলে দেশটিতে জাতিসংঘের শান্তিরক্ষী বাহিনীর মোট সদস্যসংখ্যা দাঁড়াবে সাড়ে ১২ হাজারে যা আগের চেয়ে দ্বিগুণ হবে।

font
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, 'এক এগারোর কুশলিবরা আবার সক্রিয় ও সোচ্চার হয়েছেন।' আপনিও কি তাই মনে করেন?
4 + 6 =  
ফলাফল
আজকের নামাজের সময়সূচী
জুলাই - ১৬
ফজর৩:৫৫
যোহর১২:০৫
আসর৪:৪৪
মাগরিব৬:৫১
এশা৮:১৪
সূর্যোদয় - ৫:২০সূর্যাস্ত - ০৬:৪৬
archive
বছর : মাস :
The Daily Ittefaq
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: তাসমিমা হোসেন। উপদেষ্টা সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন। ইত্তেফাক গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে তারিন হোসেন কর্তৃক ৪০, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ থেকে প্রকাশিত ও মুহিবুল আহসান কর্তৃক নিউ নেশন প্রিন্টিং প্রেস, কাজলারপাড়, ডেমরা রোড, ঢাকা-১২৩২ থেকে মুদ্রিত। কাওরান বাজার ফোন: পিএবিএক্স: ৭১২২৬৬০, ৮১৮৯৯৬০, বার্ত ফ্যাক্স: ৮১৮৯০১৭-৮, মফস্বল ফ্যাক্স : ৮১৮৯৩৮৪, বিজ্ঞাপন-ফোন: ৮১৮৯৯৭১, ৭১২২৬৬৪ ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭২, e-mail: [email protected], সার্কুলেশন ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭৩। www.ittefaq.com.bd, e-mail: [email protected]
Copyright The Daily Ittefaq © 2014 Developed By :