The Daily Ittefaq
ঢাকা, মঙ্গলবার, ৩১ ডিসেম্বর ২০১৩, ১৭ পৌষ ১৪২০, ২৭ সফর ১৪৩৫
সর্বশেষ সংবাদ বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান এম মোরশেদ খানের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা | ৩ জানুয়ারি জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

কোমলমতি শিক্ষার্থীরা দমিয়া যায় নাই

অনেক প্রতিকূলতার মধ্যেও সমাপনী পরীক্ষায় ছেলেমেয়েরা ভাল ফলাফল করিয়াছে। বড়দের অনেকেই যখন রাজনৈতিক অস্থিরতা ও সহিংসতায় সমর্পিত, তখনও তাহারা নিমগ্ন ছিল 'অধ্যয়নং তপস্যায়।' হরতাল অবরোধের বাধাবিঘ্ন অতিক্রম করিয়া তাহারা পরীক্ষা দিয়াছে এবং প্রমাণও করিয়া দিয়াছে যে, তাহারা দমিয়া যাইবার পাত্র নহে। সদ্য প্রকাশিত জুনিয়র ও প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষার ফলাফলই সেই সাক্ষ্য বহন করে। গত রবিবার বাহির হইয়াছে জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষার রেজাল্ট। আর সোমবার প্রকাশিত হইয়াছে প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষার ফল। উভয় ক্ষেত্রে অধ্যবসায়ী কোমলমতি শিক্ষার্থীরা ভাল ফল করিয়া আবারও আবাহন করিল সুন্দরতর, উজ্জ্বলতর ভবিষ্যত্। জুনিয়রে পাসের হার ৮৯ দশমিক ৭১ শতাংশ। গতবারের চাইতে এইবার কৃতকার্যতার হার বৃদ্ধিপ্রাপ্ত হইয়াছে সাড়ে ৩ শতাংশেরও বেশি। জিপিএ-৫ পাওয়াদের সংখ্যাও বাড়িয়াছে প্রায় ৪ গুণ। প্রাথমিক সমাপনীতে পাসের হার ৯৮ দশমিক ৫৮ শতাংশ। এইবারের ফলাফল বিশ্লেষণে দেখা যায়, জিপিএ-৫ পাওয়ার ক্ষেত্রে মেয়েরা বেশ অগ্রসর। পক্ষান্তরে ছেলে শিক্ষার্থীরা তুলনামূলকভাবে জিপিএ-৫ কম পাইলেও মেয়েদের তুলনায় পাস করিয়াছে বেশি হারে। এই বত্সর শতভাগ পাস করা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সংখ্যাও বাড়িয়াছে। পক্ষান্তরে একজনও পাস করিতে পারে নাই—এমন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সংখ্যাও হরাস পাইয়াছে। এইবার সারাদেশে এমন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রহিয়াছে ৫৭টি, যেখান হইতে কোনো পরীক্ষার্থীই কৃতকার্য হইতে পারে নাই।

বিভিন্ন পাবলিক পরীক্ষার ফলাফলের মধ্য দিয়া দেশের শিক্ষার সামগ্রিক মান এবং শিক্ষার্থীদের মেধাস্তর সম্পর্কে একটি সাধারণ ধারণা পাওয়া যায়। আমাদের দেশে তিন-চার বত্সর আগে পর্যন্ত এসএসসি পরীক্ষাই ছিল সর্বাধিক গুরুত্বপূর্ণ ও মনোযোগ আকর্ষণকারী পাবলিক পরীক্ষা। তাহার পরই এইচএসসি। কিন্তু ২০১০ সাল হইতে চালু হয় জুনিয়র সমাপনী। অর্থাত্ ৮ম শ্রেণি সমাপনান্তে পাবলিক পরীক্ষা। ইহার ৩ বত্সর আগে চালু হইয়াছে প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষা। ইহার ফলে বিদ্যমান ব্যবস্থায় বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে উত্তীর্ণ হইবার আগেই শিক্ষার্থীদের ৪টি পাবলিক পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করিতে হয়। ইহার ভাল-মন্দ দুই দিকই রহিয়াছে। ভাল দিক এই যে, ছেলেমেয়েদের লেখাপড়া কিভাবে আগাইতেছে তাহা আমরা এই পরীক্ষাগুলির মাধ্যমে বুঝিতে পারি। দ্বিতীয়ত সামগ্রিকভাবে দেশের শিক্ষা পরিস্থিতির সাধারণ চিত্র পাওয়া যায় এবং ইহার ভিত্তিতে করণীয় নির্ধারণ করা সহজ হয়। আরও একটি ভাল দিক এই যে, কোমলমতি ছেলেমেয়েরা যখন সমাপনী পরীক্ষা দিয়া সার্টিফিকেট হাতে পায়, তখন উহা তাহাদের মনে ইতিবাচক প্রভাব রাখে, যাহা ব্যক্তিত্ব গঠনে সহায়ক হইতে পারে। এই ক্ষেত্রে অভিভাবকগণ সার্টিফিকেটধারী শিশু-কিশোরদের কিভাবে উত্সাহিত ও পথ নির্দেশনা দিয়া থাকেন, তাহার উপর বিষয়টি নির্ভর করে বহুলাংশে।

এইবারের সমাপনী পরীক্ষার ফলাফলের মধ্য দিয়া যে চিত্রটি পাওয়া গেল, তাহার আলোকে ব্যবস্থা গ্রহণ করা একান্ত কর্তব্য। ৫৭টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হইতে কোনো পরীক্ষার্থীই পাস করিতে পারে নাই। অন্যদিকে এমন অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রহিয়াছে যেইগুলি আশানুরূপ ফল করিতে পারে নাই। পাসের হার নগণ্য। পিছনে পড়িয়া থাকা এই প্রতিষ্ঠানগুলি চিহ্নিত করিয়া, উহাদের আশাব্যঞ্জক ফল করিতে না পারিবার কারণগুলি চিহ্নিত করিতে হইবে এবং সেইসব কার্যকারণের অবসান ঘটান কর্তব্য। দেশের সকল স্কুলের লেখাপড়ার মান সমান হইবে না। ইহা জানা কথা। ইহার মানে এই নহে যে, এমন কিছু স্কুলও দেশে থাকিবে যেইগুলিতে কোনো লেখাপড়াই হইবে না। বস্তুত গ্রাম ও শহর— সবখানে সব স্কুলেরই লেখাপড়ার মানোন্নয়ন দরকার। এইবারের প্রাথমিক ও জুনিয়র সমাপনী পরীক্ষায় যাহারা কৃতকার্য হইয়াছে এবং যাহারা জিপিএ-৫ পাইয়াছে তাহাদের অভিনন্দন জানাই। ভবিষ্যতে তাহাদের এই সাফল্যের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখিতে হইবে। ধারাটি যাহাতে ব্যাহত না হয় সেই জন্য শিক্ষার্থীদের যেমন নিজেদের প্রতি যত্নবান থাকা দরকার, তেমনই শিক্ষক ও অভিভাবকদেরও হইতে হইবে প্রযত্নশীল।

এই পাতার আরো খবর -
font
অনলাইন জরিপ
আজকের প্রশ্ন
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, 'বিরোধীদল সরকারের বিরুদ্ধে নয়, জনগণের বিরুদ্ধে আন্দোলন করছে।' আপনিও কি তাই মনে করেন?
7 + 1 =  
ফলাফল
আজকের নামাজের সময়সূচী
মে - ২৬
ফজর৩:৪৭
যোহর১১:৫৬
আসর৪:৩৫
মাগরিব৬:৪১
এশা৮:০৪
সূর্যোদয় - ৫:১৩সূর্যাস্ত - ০৬:৩৬
archive
বছর : মাস :
The Daily Ittefaq
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: তাসমিমা হোসেন। উপদেষ্টা সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন। ইত্তেফাক গ্রুপ অব পাবলিকেশন্স লিঃ-এর পক্ষে তারিন হোসেন কর্তৃক ৪০, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ থেকে প্রকাশিত ও মুহিবুল আহসান কর্তৃক নিউ নেশন প্রিন্টিং প্রেস, কাজলারপাড়, ডেমরা রোড, ঢাকা-১২৩২ থেকে মুদ্রিত। কাওরান বাজার ফোন: পিএবিএক্স: ৭১২২৬৬০, ৮১৮৯৯৬০, বার্ত ফ্যাক্স: ৮১৮৯০১৭-৮, মফস্বল ফ্যাক্স : ৮১৮৯৩৮৪, বিজ্ঞাপন-ফোন: ৮১৮৯৯৭১, ৭১২২৬৬৪ ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭২, e-mail: [email protected], সার্কুলেশন ফ্যাক্স: ৮১৮৯৯৭৩। www.ittefaq.com.bd, e-mail: [email protected]
Copyright The Daily Ittefaq © 2014 Developed By :